মাধ্যমিক ভূগোল - ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত - পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Question and Answer
মাধ্যমিক ভূগোল - ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত - পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Question and Answer

মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর

ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) | Madhyamik Geography Question and Answer

মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর : ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) Madhyamik Geography Question and Answer : মাধ্যমিক ভূগোল – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Question and Answer নিচে দেওয়া হলো। এই দশম শ্রেণীর ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর – WBBSE Class 10 Geography Question and Answer, Suggestion, Notes – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) থেকে বহুবিকল্পভিত্তিক, সংক্ষিপ্ত, অতিসংক্ষিপ্ত এবং রোচনাধর্মী প্রশ্ন উত্তর (MCQ, Very Short, Short,  Descriptive Question and Answer) গুলি আগামী West Bengal Class 10th Ten X Geography Examination – পশ্চিমবঙ্গ মাধ্যমিক ভূগোল পরীক্ষার জন্য খুব ইম্পর্টেন্ট।

 তোমরা যারা ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) – মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Question and Answer Question and Answer খুঁজে চলেছ, তারা নিচে দেওয়া প্রশ্ন ও উত্তর গুলো ভালো করে পড়তে পারো। 

ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) – মাধ্যমিক দশম শ্রেণীর ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর | West Bengal Madhyamik Class 10th Geography Question and Answer 

বহুবিকল্পভিত্তিক প্রশ্নোত্তর | মাধ্যমিক ভূগোল – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Question and Answer : 

  1. ভারতে সবুজ বিপ্লবের জনক কে ? 

(A) ড : এম . এস . স্বামীনাথন 

(B) মেধা পাটেকর 

(C) সুন্দরলাল বহুগুণা 

(D) বাবা আমতে 

Ans: (A) ড : এম . এস . স্বামীনাথন 

  1. কত সালকে রাষ্ট্রসংঘ ( UNO ) আন্তর্জাতিক ধান বর্ষ ( হিসেবে ঘোষণা করে ? 

(A) 2001 সালকে 

(B) 2004 সালকে 

(C) 2009 সালকে 

(D) 2010 সালকে 

Ans: (B) 2004 সালকে

  1. ভারতের কেন্দ্রীয় ধান গবেষণাগারটি কোথায় অবস্থিত ? 

(A) দিল্লিতে 

(B) পুনেতে 

(C) কটকে 

(D) মুম্বাইয়ে 

Ans: (C) কটকে

  1. পশ্চিমবঙ্গের ধান গবেষণাগারটি কোথায় অবস্থিত ? 

(A) পুসায় 

(B) মালদায় 

(C) বর্ধমানে 

(D) হুগলির চুঁচুড়াতে । 

Ans: (D) হুগলির চুঁচুড়াতে । 

  1. বিশ্ব ধান গবেষণাগারটি কোথায় অবস্থিত ?

(A) ম্যানিলাত ( ফিলিপিন্স ) 

(B) পুনে ( মুম্বাই ) 

(C) কলকাতা ( পশ্চিমবঙ্গ ) 

(D) সুইজারল্যান্ড 

Ans: (A) ম্যানিলাত ( ফিলিপিন্স )

  1. ভারতের কেন্দ্রীয় গম গবেষণাগারটি কোথায় অবস্থিত ? 

(A) পুসায় (দিল্লি ) 

(B) কলকাতায় 

(C) মুম্বাইয়ে 

(D) কটকে ( ওড়িশা ) 

Ans: (A) পুসায় (দিল্লি )

  1. বিশ্ব গম গবেষণাগারটি কোথায় অবস্থিত ? 

(A) কটকে 

(B) থানেতে 

(C) মেক্সিকো সিটিতে 

(D) চিনের হোয়াং হো প্রদেশে 

Ans: (C) মেক্সিকো সিটিতে

  1. ভারত মিলেট উৎপাদনে পৃথিবীতে কততম স্থান অধিকার করে ? 

(A) তৃতীয় 

(B) পঞ্চম 

(C) দ্বিতীয় 

(D) প্রথম 

Ans: (D) প্রথম 

  1. কত সালে জামশেদপুরে টাটা আয়রন অ্যান্ড স্টিল কোম্পনি ( TISCO ) প্রতিষ্ঠিত হয় ? 

(A) 1709 সালে 

(B) 1907 সালে

(C) 1970 সালে 

(D) 1917 সালে 

Ans: (B) 1907 সালে

  1. কত সালে ভারত সরকার SAIL ( Steel Authority of India Limited ) স্থাপন করে ? 

(A) 1945 সালে 

(B) 1952 সালে 

(C) 1954 সালে 

(D) 1965 সালে 

Ans: (C) 1954 সালে

  1. ভারতের বৃহত্তম লৌহ – ইস্পাত কেন্দ্রটি কোথায় অবস্থিত ? 

(A) কলকাতায় 

(B) ভিলাইয়ে 

(C) ভোপালে 

(D) দুর্গাপুরে 

Ans: (B) ভিলাইয়ে

  1. ভারতের একমাত্র বন্দরকেন্দ্রিক লৌহ – ইস্পাত কেন্দ্রের নাম কী ? 

(A) বিশাখাপত্তনম 

(B) ভিলাই 

(C) জামশেদপুর 

(D) দুর্গাপুর 

Ans: (A) বিশাখাপত্তনম

  1. ভারতের বৃহত্তম বেসরকারি লৌহ – ইস্পাত কেন্দ্রের নাম কী ?

(A) বার্নপুর 

(B) জামশেদপুর 

(C) রাউরকেল্লা 

(D) ভিলাই 

Ans: (B) জামশেদপুর

  1. কত সালে মহারাষ্ট্রের ট্রম্বেতে ভারতের পেট্রোরসায়ন শিল্পের সূচনা হয় ? 

(A) 1866 সালে 

(B) 1966 সালে 

(C) 1874 সালে 

(D) 1956 সালে 

Ans: (B) 1966 সালে

সত্য মিথ্যা নির্বাচন করা | মাধ্যমিক ভূগোল – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Question and Answer : 

  1. ভারতে সবচেয়ে বেশি জলসেচযুক্ত কৃষিজমি রয়েছে পাঞ্জাবে । 

Ans: সত্য

  1. ভারতের মোট গম উৎপাদনের প্রায় 13 % , ধান উৎপাদনের প্রায় 11 % কার্পাস উৎপাদনের প্রায় 7 % পাঞ্জাবে উৎপাদিত হয় । 

Ans: সত্য

  1. 2015 সালে সরকার ঘোষণা করেছে প্রধানমন্ত্রী ফসল বিমা যোজনা । 

Ans: সত্য

  1. ভারতের প্রাচীন ঐতিহ্যময় কার্পাসবয়ন শিল্প একক বৃহত্তম শিল্প । 

Ans: সত্য

  1. কার্পাসবয়ন শিল্পের প্রধান কাঁচামাল হলো কার্পাস বা তুলো । 

Ans: সত্য

  1. 1968 সালে বেসরকারি উদ্যোগে স্থাপিত হয় সর্বাধুনিক পেট্রোরসায়ন কেন্দ্র ন্যাশনাল অরগ্যানিক কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড । 

Ans: সত্য

  1. ভারতের 35 শতাংশেরও বেশি আইটি কোম্পানি বেঙ্গালুরুতে অবস্থিত । 

Ans: সত্য

  1. ভারতের দ্বিতীয় বৃহত্তম তথ্যপ্রযুক্তি কেন্দ্র হলো চেন্নাই । 

Ans: সত্য

  1. হায়দরাবাদ হলো ভারতের তৃতীয় বৃহত্তম তথ্যপ্রযুক্তি কেন্দ্র । 

Ans: সত্য

  1. 1790 সালে আধুনিক কালে প্রথম আদমশুমারি হয় আমেরিকায় । 

Ans: সত্য

  1. 1881 সাল থেকে ভারতে প্রথম প্রথাগতভাবে আদমশুমারি হয় । 

Ans: সত্য

এককথায় উত্তর দাও | মাধ্যমিক ভূগোল – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Question and Answer : 

  1. ভারতীয় ‘ টি ‘ বোর্ডের সদর দপ্তর কোথায় অবস্থিত ?

Ans: কলকাতায় ৷ 

  1. ভারতীয় কফি বোর্ডের সদর দপ্তর কোথায় অবস্থিত ? 

Ans: বেঙ্গালুরুতে । 

  1. চা রপ্তানিতে ভারত পৃথিবীতে কততম স্থান অধিকার করেছে ? 

Ans: চতুর্থ স্থান । 

  1. পৃথিবীতে কত রকমের চা চাষ হয়ে থাকে ? 

Ans: চার রকমের । ( কালো চা – ভারত , সবুজ চা – চিন ও জাপান , ইস্টক চা রাশিয়া এবং ওলং চা– তাইওয়ান ) । 

  1. পৃথিবীতে কত রকমের কফি উৎপন্ন হয় ? 

Ans: চার রকমের । ( আরবীয় কফি – ব্রাজিল ও ভারত , রোবাস্টা কফি – পশ্চিম আফ্রিকা , লাইবেরিয়া কফি , জামাইকা কফি ) । 

  1. বিশুদ্ধ কাঁচামাল কাকে বলে ? 

Ans: যেসকল কাঁচামাল শিল্পজাত করার পর উৎপন্ন দ্রব্যের ওজন এক থাকে তাকে বিশুদ্ধ কাঁচামাল বলে । 

  1. অবিশুদ্ধ কাঁচামাল কাকে বলে ? 

Ans: যেসকল কাঁচামাল শিল্পজাত করার পর উৎপন্ন দ্রব্যের ওজন কমে যায় তাকে অবিশুদ্ধ কাচামাল বলে। 

  1. ভারতের প্রথম ইস্পাত কারখানা কোথায় স্থাপিত হয় ? 

Ans: 1830 সালে তামিলনাড়ুর পোর্টোনোভোতে । 

  1. বস্ত্র উৎপাদনে ও রপ্তানিতে ভারত পৃথিবীতে কততম স্থান অধিকার করে ? 

Ans: উৎপাদনে প্রথম এবং রপ্তানিতে দ্বিতীয় । 

  1. কত সালে হাওড়ার ঘুসুড়িতে ( ফোর্ট মাস্টার ) ভারতের প্রথম কার্পাস শিল্পকেন্দ্র গড়ে ওঠে ?

Ans: 1818 সালে । 

  1. ভারতের ম্যাঞেস্টার কাকে বলে ? 

Ans: আমেদাবাদকে । ( উত্তর ভারতের কানপুরকে , দক্ষিণ ভারতের কোয়েম্বাটোরকে ) । 

  1. ভারতের বয়নশিল্পের রাজধানী কাকে বলে ?

Ans: মুম্বইকে । 

  1. ভারতের বৃহত্তম ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্পের নাম কী ? 

Ans: বিশাখাপত্তনম ( হিন্দুস্তান শিপইয়ার্ড লিমিটেড ) ।

  1. পৃথিবীর মোট জনসংখ্যার কত শতাংশ ভারতে বসবাস করে ? 

Ans: 17.5 % ( চিন 19.4 % ) । 

  1. 2011 সালের সেন্সাস অনুযায়ী ভারতের কোন রাজ্যে লিঙ্গ অনুপাত বেশি ? 

Ans: অরুণাচল প্রদেশে ।

  1. লৌহ – ইস্পাত উৎপাদনে ভারত পৃথিবীতে কততম স্থান অধিকার করে । 

Ans: পঞ্চম ( চিন প্রথম ) । 

  1. 5 হাজারের বেশি জনসংখ্যাবিশিষ্ট অঞ্চলকে কী বলে ? 

Ans: শহর । 

  1. কোনো শহরের জনসংখ্যা 1 লক্ষের বেশি হলে , তাকে কী বলে ? 

Ans: নগর । 

  1. কোনো শহরের জনসংখ্যা 10 লক্ষের বেশি হলে , তাকে কী বলে ? 

Ans: মহানগর । 

  1. কোন মহানগরের জনসংখ্যা 1 কোটির বেশি হলে তাকে কী বলে ? 

Ans: মেগাসিটি । 

  1. 2011 সালের সেন্সাস অনুযায়ী ভারতে মেগাসিটির সংখ্যা ক’টি ? 

Ans: চারটি ( কলকাতা , দিল্লি , মুম্বই এবং চেন্নাই ) । 

  1. ভারতে প্রথম রেলপথ কোথায় স্থাপিত হয় ?

Ans: 1853 সালের 16 এপ্রিল বোম্বাই থেকে থানে ( 33.6 কিমি ) । 

  1. ভারতের বৃহত্তম বন্দরের নাম কী ? 

Ans: মুম্বই ( ভারতের প্রবেশদ্বার ) । 

  1. ভারতের একটি করমুক্ত বন্দরের নাম লেখো । 

Ans: কাণ্ডালা ( গুজরাট ) । 

  1. ভারতের একটি আধুনিক প্রযুক্তির বন্দরের নাম লেখো । 

Ans: জওহরলাল নেহরু বন্দর বা নভসেবা বন্দর ( মুম্বই ) । 

  1. ভারতের কোন বন্দর লৌহ রপ্তানিতে বিখ্যাত ? 

Ans: মার্মাগাঁও ( গোয়া ) । 

  1. ভারতের কোন বন্দর কফি রপ্তানিতে বিখ্যাত ? 

Ans: নিউ ম্যাঙ্গালোর ( কর্ণাটক ) । 

  1. ভারতের শ্রেষ্ঠ মৎস্য বন্দরের নাম কী ? 

Ans: কোচি ( কেরল ) । একে আরব সাগরের রানি বলা হয় । 

  1. ভারতের একটি স্বাভাবিক বন্দরের নাম লেখো । 

Ans: বিশাখাপত্তনম ( অন্ধ্রপ্রদেশ ) । 

  1. ভারতের কোন বন্দরটি হলো একমাত্র কর্পোরেট বন্দর ?

Ans: এন্নোর ( তামিলনাড়ু ) । 

  1. দক্ষিণ ভারতের গভীরতম বন্দরের নাম কী ? 

Ans: চেন্নাই ( তামিলনাড়ু ) ।

  1. পূর্ব ভারতের বৃহত্তম বন্দরের নাম কী ? Ans: কলকাতা – হলদিয়া ( পশ্চিমবঙ্গ ) । 
  2. ভারতের গভীরতম বন্দরের নাম কী ? 

Ans: চেন্নাই ( তামিলনাড়ু ) ।

  1. ভারতের একটি নবগঠিত বন্দরের নাম লেখো । 

Ans: পোর্ট ব্লেয়ার ( আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ )। 

  1. কত সালে ভারতে প্রথম বিমান চলাচল শুরু হয় ? 

Ans: 1911 সালে । ( এলাহাবাদ ও নৈনির মধ্যে 10 কিমি ) । 

  1. ভারতে মোট কয়টি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর রয়েছে ? 

Ans: 16 টি । 

  1. ভারতের বৃহত্তম বিমানবন্দরের নাম কী ?

Ans: ইন্দিরা গান্ধি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ( দিল্লি ) । 

  1. ভারতের প্রথম পাতালরেল কোথায় চালু হয় ? 

Ans: 1986 সালের 28 এপ্রিল কলকাতায় প্রাচীনতম।

  1. ভারতের দীর্ঘতম মেট্রোরেল কোনটি ? 

Ans: কলকাতা । 

সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর | মাধ্যমিক ভূগোল – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Question and Answer : 

  1. জীবিকাসত্তাভিত্তিক কৃষি কাকে বলে ? 

Ans: যে কৃষিব্যবস্থায় কৃষক তার নিজ পরিবারের খাদ্যের প্রয়োজন মেটানোর উদ্দেশ্যে খাদ্যশস্যের চাষ করে , তাকে জীবিকাসত্তাভিত্তিক কৃষি বলে । দক্ষিণ – পূর্ব এশিয়ার এই চাষের প্রাধান্য বেশি । 

  1. নিবিড় বা প্রগাঢ় কৃষি কাকে বলে ? 

Ans: যে কৃষিব্যবস্থায় প্রচুর শ্রম ও পুঁজি বিনিয়োগ করে একই জমিতে বছরে বিভিন্ন ফসলের চাষ করা হয় , তাকে নিবিড় বা প্রগাঢ় কৃষি বলে । অধিক জনসংখ্যা হওয়ায় এই কৃষিব্যবস্থা গড়ে ওঠে । 

  1. বাগিচা কৃষি কাকে বলে ? 

Ans: বাণিজ্যিকভাবে বৈদেশিক মূলধন ও সংগঠনের সহায়তায় প্রধানত দেশীয় শ্রমশক্তির সাহায্যে যে কৃষিব্যবস্থা গড়ে ওঠে , তাকে বাগিচা কৃষি বলে । উৎপাদিত ফসলগুলি হলো চা , কফি , রবার , নারকেল , কলা , তামাক , মশলা ইত্যাদি । 

  1. খারিফ , রবি ও জায়িদ শস্য কাকে বলে ?

Ans: যেসব ফসল জুন – জুলাই মাসে রোপণ করা হয় এবং নভেম্বর – ডিসেম্বর মাসে ফসল তোলা হয় , তাকে খারিফ শস্য বলে । যেসব ফসল অক্টোবর – নভেম্বর মাসে রোপণ করা হয় এবং ফেব্রুয়ারি – মার্চ মাসে ফসল তোলা হয় , তাকে রবি শস্য বলে । যেসব ফসল গ্রীষ্মকালে চাষ করে বর্ষার শুরুতে ফসল কাটা হয় , তাদের জায়িদ শস্য বলে । 

  1. সবুজ বিপ্লব কাকে বলে ? 

Ans: 1960 সালে ভারতে উচ্চ ফলনশীল বীজ ব্যবহার , ভৌগোলিক পরিবেশ অনুযায়ী কৃষি পদ্ধতি অবলম্বন , রাসায়নিক সার ব্যবহার , অল্পমেয়াদি ফসল , কৃষিঋণের সহজলভ্যতা , সেচের সুবিধা ইত্যাদি দ্বারা কৃষিক্ষেত্রে যে ব্যাপক অগ্রগতি হয় , তাকেই সামগ্রিকভাবে সবুজ বিপ্লব বলে । 

  1. অর্থকরী ফসল কাকে বলে ? 

Ans: যেসব ফসল বাজারে বিক্রি করে বা বিদেশে রপ্তানি করে প্রচুর পরিমাণে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা হয় , তাদের অর্থকরী ফসল বলে । যেমন – চা , পাট , তামাক ইত্যাদি ।  

  1. তত্ত্বজাতীয় ফসল কী ? 

Ans: যেসব ফসল আঁশ বা তত্ত্ব সংগ্রহের জন্য বাণিজ্যিকভাবে চাষ করা হয় , তাদের তত্ত্বজাতীয় ফসল বলে । যেমন — পাট , তুলা ইত্যাদি । 

  1. হর্টিকালচার শস্য কাকে বলে ? 

Ans: বড়ো বড়ো শহর , নগর ও মহানগরের দৈনন্দিন শাকসবজি , ফলমূলের চাহিদা মেটানোর জন্য শহরতলি এলাকায় বাণিজ্যিকভাবে যে চাষাবাদ করা হয় , তাকে হটিকালচার বলে । 

  1. সোনালি পানীয় কাকে বলে ? 

Ans: ক্রান্তীয় ও উপক্রান্তীয় পার্বত্য অঞ্চলে চা উৎপাদন করে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের গুরুত্বপূর্ণ পণ্য হিসেবে তা রপ্তানি করে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা হয় , তাই একে সোনালি পানীয় বলে । 

  1. বিশুদ্ধ ও অবিশুদ্ধ কাঁচামাল কাকে বলে ? Ans: যে সমস্ত কাঁচামালের ওজন ও উৎপন্ন শিল্পজাত দ্রব্যের ওজন সমান থাকে , তাদের বিশুদ্ধ কাঁচামাল বলে । যেমন — তুলো , পাট , পশম ইত্যাদি । যে সমস্ত কাঁচামালের ওজন ও উৎপন্ন শিল্পজাত দ্রব্যের ওজন সমান থাকে না , হ্রাস পায় , তাদের অবিশুদ্ধ কাঁচামাল বলে । যেমন- লোহা , তামা , আখ , চা ইত্যাদি । 
  2. পণ্যসূচক কী ? 

Ans: কোনো শিল্পে ব্যবহৃত কাঁচামালের ওজন ও উৎপাদিত পণ্যের ওজনের অনুপাতকে বলা হয় পণ্যসূচক । পণ্যসূচকের মান 1 – এর কম হলে বিশুদ্ধ আর 1 এর বেশি হলে অবিশুদ্ধ হয় ।

  1. ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্প কী ? 

Ans: যেসকল শিল্পে লৌহ – ইস্পাতকে ব্যবহার করে বিভিন্ন ধরনের যন্ত্রপাতি , = ব্লকবজা , যন্ত্রাংশ তৈরি করা হয় , তাকে ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্প বলে । 

  1. অনুসারী শিল্প কাকে বলে ? 

Ans: কোনো বৃহদায়তন শিল্পের উপর ভিত্তি করে যখন পাশাপাশি অসংখ্য ছোটো শিল্প গড়ে ওঠে , তাকে অনুসারী শিল্প বলে । যেমন — পেট্রোরসায়ন শিল্পে উৎপাদিত দ্রব্যের উপর ভিত্তি করে হলদিয়াতে অনেক অনুসারী শিল্পের বিকাশ ঘটেছে । 

  1. উদীয়মান শিল্প কাকে বলে ? 

Ans: বর্তমানে পেট্রোরসায়ন শিল্পজাত দ্রব্যের চাহিদা হু হু করে বেড়েই চলেছে । এই শিল্পের ভবিষ্যৎ অত্যন্ত উজ্জ্বল । তাই এই শিল্পকে উদীয়মান শিল্প বলে । খনিজ তেল শোধনাগারের পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে অসংখ্য শিল্পের বিকাশ একসাথে হয় বলে এদের আধুনিক শিল্পের দানব বলে । 

  1. আমেদাবাদকে ভারতের ম্যাঞেস্টার কেন বলা হয় ? 

Ans: ইংল্যান্ডের ল্যাঙ্কাশায়ার শহরের ম্যাঞ্চেস্টারে আমদানিকৃত তুলার উপর ভিত্তি করে অসংখ্য বস্ত্রশিল্প গড়ে উঠেছে । ঠিক তেমনি ভারতের গুজরাট রাজ্যের আমেদাবাদ শহরে স্থানীয় তুলার উপর ভিত্তি করে অসংখ্য বস্ত্রশিল্প গড়ে উঠেছে । তাই আমেদাবাদকে বলা হয় ভারতের ম্যাঞেস্টার । 

  1. দুর্গাপুরকে ভারতের রুঢ় বলা হয় কেন ?

Ans: জার্মানির রাইন নদীর উপনদী রুঢ় উপত্যকায় উন্নতমানের কয়লার উপর ভিত্তি করে লৌহ – ইস্পাত শিল্প , ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্প গড়ে উঠেছে । ঠিক তেমনি ভারতের দামোদর নদের তীরে রানিগঞ্জ ও ঝরিয়া কয়লাখনির উপর ভিত্তি করে অসংখ্য লৌহ – ইস্পাত শিল্প , ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্প গড়ে উঠেছে । তাই বুঢ় শিল্পাঞ্চলের সঙ্গে তুলনা করে দুর্গাপুরকে বলা হয় ভারতের বুঢ় । 

  1. Foot Loose Industry বা শিকড় আলগা শিল্প কী ? 

Ans: কার্পাসবয়ন শিল্পকে শিকড় আলগা শিল্প বলে । এই শিল্পের মুখ্য কাঁচামাল হলো বিশুদ্ধ প্রকৃতির । এর পণ্যসূচকের মান 1। এই শিল্প উৎপাদক অঞ্চল ও বাজারের মধ্যবর্তী সুবিধামতো যেকোনো জায়গায় গড়ে উঠতে পারে । তাই এই শিল্পকে বলা হয় শিকড় আলগা শিল্প । 

  1. SAIL কী ?

Ans: 1973 সালে ভারত সরকার লৌহ – ইস্পাত শিল্পের সর্বাঙ্গীণ উন্নয়নের লক্ষ্যে Steel Authority of India Limited নামক সংস্থা স্থাপন করে । এই সংস্থার সদর দপ্তর কলকাতা ( পূর্ব ভারতের ) , দিল্লি ( সমগ্র ভারতের ) 

  1. আউট সোর্সিং কাকে বলে ? 

Ans: সস্তা , সুলভ ও দক্ষ শ্রমিকের সাহায্যে বহুজাতিক সংস্থাগুলির ইন্টারনেটের মাধ্যমে কাজ করিয়ে নেওয়ার পদ্ধতিকে বলা হয় আউট সোর্সিং । 

  1. বেঙ্গালুরুকে ভারতের সিলিকন ভ্যালি কেন বলা হয় ? 

Ans: আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার স্যান্টা ক্লারা ভ্যালি অঞ্চলে সিলিকন ভিত্তিক ইলেকট্রনিকের সর্বাধিক বিকাশ ঘটেছে । ঠিক তেমনি ভারতের কর্নাটক রাজ্যের বেঙ্গালুরুতে সিলিকনভিত্তিক তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পের সর্বাধিক সমাবেশ দেখা যায় , তাই বেঙ্গালুরুকে ভারতের সিলিকন ভ্যালি বলা হয় । 

  1. জনঘনত্ব কাকে বলে ? 

Ans: কোনো দেশের মোট জনসংখ্যাকে সেই দেশের মোট জমির পরিমাণ দিয়ে ভাগ করলে যে ভাগফল পাওয়া যায় , তাকেই বলা হয় জনঘনত্ব । এটি একটি দ্বিমাত্রিক ধারণা । 

  1. জনসংখ্যা অভিক্ষেপ কাকে বলে ? 

Ans: বিগত বছরগুলির জনসংখ্যা বৃদ্ধির পরিসংখ্যান পর্যালোচনার দ্বারা বিশ্বের জনসংখ্যা বাড়তে বাড়তে কোথায় গিয়ে দাড়াবে তার পূর্বাভাস দেওয়া যায় । এইবুপ জনসংখ্যা বৃদ্ধির পর্যালোচনার মধ্য দিয়ে জনসংখ্যা পরিসংখ্যানের আগাম পূর্বাভাস দেওয়াকে বলা হয় জনসংখ্যা অভিক্ষেপ । 

  1. শূন্য বা স্থিতিশীল জনসংখ্যা কাকে বলে ?

Ans: দীর্ঘদিন ধরে কোনো দেশ বা অঞ্চলের জনসংখ্যা যখন বাড়েও না কমেও না , তখন জনসংখ্যার সেই অপরিবর্তিত অবস্থাকে বলা হয় শূন্য জনসংখ্যা বা স্থিতিশীল জনসংখ্যা ।

  1. জনবিস্ফোরণ বলতে কী বোঝো ? 

Ans: কোনো দেশে জনসংখ্যা বৃদ্ধি অতিদ্রুত হারে হলে একসময় দেশের মোট জনসংখ্যা তার কার্যকরী সম্পদের অনুপাতের অধিক হয় । তার ফলে জাতীয় মাথাপিছু সম্পদের পরিমাণ কমে যায় , দেশে বেকারি , অপুষ্টি , দারিদ্র্য ইত্যাদি বৃদ্ধি পায় । জনসংখ্যার এই অস্বাভাবিক বৃদ্ধিকে বলা হয় জনবিস্ফোরণ । 

  1. পরিব্রাজন কাকে বলে ? 

Ans: স্থায়ী বা সাময়িকভাবে নতুন স্থানে বসবাস করার উদ্দেশ্যে ভৌগোলিক সীমারেখা দ্বারা নির্দিষ্ট কোনো অঞ্চল থেকে অন্য কোনো অঞ্চলে বাসস্থান পরিবর্তনকে বলা হয় পরিব্রাজন । 

  1. শহর কাকে বলে ? 

Ans: ভারতের কোনো অঞ্চলের জনসংখ্যা 5000 বা তার বেশি , জনঘনত্ব 400 জন / বর্গ কিমি , বাসিন্দাদের 75 শতাংশের বেশি দ্বিতীয় স্তরের কর্মের সঙ্গে যুক্ত হলে তখন তাকে বলা হয় শহর । 

  1. নগর কাকে বলে ?

Ans: শহরের কার্যাবলি যখন নিবিড় থেকে নিবিড়তর ও বিস্তৃত হয় , বসতির ঘনত্ব আরও বৃদ্ধি পায় , পৌর কাজকর্মের পরিধি আরও বিস্তৃত হয় এবং পৌর পরিষেবা 

সংক্ষিপ্ত ব্যাখ্যাভিত্তিক প্রশ্নোত্তর | মাধ্যমিক ভূগোল – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Question and Answer : 

  1. ভারতীয় কৃষির সমস্যা ও সমাধান সংক্ষেপে লেখো ।

Ans: সমস্যা : 1) মৌসুমি বৃষ্টিপাতের উপর অধিক নির্ভরশীলতা । 2) উন্নতমানের বীজ ও রাসায়নিক সারের অভাব । 3) জলসেচের সুবন্দোবস্তের অভাব । 4) উন্নত প্রযুক্তি ও যন্ত্রপাতির অভাব । 5) কৃষি প্রশিক্ষণ ও গবেষণার অভাব । 

সমাধান : 1) সরকারি উদ্যোগে কৃষিজ দ্রব্য বাজারজাত ও সংরক্ষেণের ব্যবস্থা করতে হবে । 2) উন্নতমানের সার ও বীজের ব্যবহার বাড়াতে হবে । 3) কৃষকদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করতে হবে । 4) বেশি করে কৃষি গবেষণাগার প্রতিষ্ঠা করতে হবে । 

  1. ভারতে তথ্যপ্রযুক্তি শিল্প এত উন্নত হলো কেন ? 

Ans: ভারতে তথ্যপ্রযুক্তি শিল্প উন্নত , কারণ— 1) কম্পিউটারে দক্ষ মেধাসম্পন্ন মানুষের সংখ্যা বেশি । 2) সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগে অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান । 3) এই শিল্পে প্রয়োজনীয় শ্রমিকের জোগানের জন্য তৈরি করা হয়েছে প্রশিক্ষণ কেন্দ্র । 4) এই শিল্পে প্রচুর কর্মসংস্থানের সুযোগ থাকায় সরকার সংস্থাগুলিকে বিশেষ ছাড় দিয়েছে । 5) ভারতে এই শিল্পের অতিদ্রুত উন্নতি হওয়ায় দেশ ও বিদেশে চাহিদা অত্যন্ত বেড়েছে । 

  1. রেলপথ ও সড়কপথের গুরুত্ব ও সুবিধা কী ?

Ans: রেলপথের গুরুত্ব ও সুবিধা : দ্রুত ও সহজেই পরিবহণ করা যায় । মজুত ও ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা আছে । একসঙ্গে বহু পণ্য পরিবহণ করা সম্ভব । খুব ভ্রমণ অনেক বেশি নিরাপদ ও স্বাচ্ছন্দ্য । 

সড়কপথের গুরুত্ব ও সুবিধা : স্বল্প দূরত্বে খুব সহজে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে পৌঁছানো সম্ভব । খুব দ্রুত ও সুলভ পরিবহণ ব্যবস্থা । বিভিন্ন ধরনের যানবাহনে যাতাযাতের সুবিধা ও নিরাপদ ভ্রমণ , আর্থিক সমৃদ্ধি প্রভৃতি কারণে এই পথের গুরুত্ব অপরিসীম । 

  1. জনঘনত্বের বৈশিষ্ট্যগুলি কী ? 

Ans: কোনো দেশের মোট জনসংখ্যাকে সেই দেশের মোট জমির পরিমাণ দিয়ে ভাগ করলে যে ভাগফল পাওয়া যায় তা হলো জনঘনত্ব । এর বৈশিষ্ট্যগুলি হলো জনঘনত্ব সর্বদা পূর্ণমানে প্রকাশ করা হয় । এটি কোনো অঞ্চলের জনসংখ্যার আধিক্য বা স্বল্পতাকে সূচিত করে । এর থেকে কোনো অঞ্চলের জনসংখ্যার পরিসংখ্যান সহজে বোঝা যায় । 

  1. ভারতে জনসংখ্যা বৃদ্ধির সমস্যাগুলি কী ?

Ans: শিক্ষা , স্বাস্থ্য ও ভারতের জনসংখ্যা বৃদ্ধির সমস্যাগুলি হলো— 1) জনসংখ্যা বৃদ্ধিজনিত কারণে খাদ্যের সমস্যা দেখা দেয় । 2) বেকারত্ব দিন দিন বৃদ্ধি পায় । 3) অর্থনীতির উপর প্রতিকূল প্রভাব পড়ে । 4) জনসংখ্যা বৃদ্ধির ফলে জমির উপর প্রতিকূল ভাব পড়ে । 5) জনসংখ্যা বৃদ্ধির ফলে জমির উপর ক্রমাগত চাপ বাড়ে । 6) অর্থনৈতিক দিক থেকে দেশ পিছিয়ে পড়ে । 

  1. জনসংখ্যা বৃদ্ধির ফলে মাথাপিছু উৎপাদন কম হয় । ও বহুমুখী নদী পরিকল্পনার গুরুত্ব লেখো ।

Ans: নদীকে বিভিন্ন উদ্দেশ্যে ব্যবহারের জন্য যে পরিকল্পনা করা হয় । তাকে বহুমুখী বহুমুখী নদী পরিকল্পনা বলে । 

এই পরিকল্পনার গুরুত্ব হলো— 

বন্যা নিয়ন্ত্রণ , জলবিদ্যুৎ উৎপাদন , ও পানীয় জল সরবরাহ , জলসেচ ব্যবস্থার উন্নতি , মাছ চাষ , জলপথে পরিবহণ , ভূমিক্ষয় রোধ , পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলা ইত্যাদি ।

রচনাধর্মী প্রশ্নোত্তর | মাধ্যমিক ভূগোল – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Question and Answer : 

  1. ভারতীয় কৃষির বৈশিষ্ট্যগুলি সংক্ষেপে লেখো ।

Ans: ভারত একটি কৃষিপ্রধান দেশ । ভারতের অধিকাংশ মানুষ কৃষিকাজের সঙ্গে যুক্ত । ভারতের কৃষির কিছু মৌলিক বৈশিষ্ট্য আছে । যথা— 

জীবিকাসত্তাভিত্তিক কৃষি : ভারত পৃথিবীর দ্বিতীয় জনবহুল দেশ । এদেশের অধিকাংশ মানুষই কৃষিকাজের সঙ্গে যুক্ত । এখানকার কৃষি শ্রমনিবিড় । অত্যধিক জনসংখ্যার বিপুল চাপ থাকায় এখানে কেবলমাত্র খাদ্যশস্যের চাষ হয় , ফলে উদ্বৃত্ত ফসল অল্প পরিমাণে বাজারে বিক্রি করে অন্যান্য চাহিদা পূরণ করা হয় । 

মৌসুমি বৃষ্টির উপর নির্ভরতা : ভারতে কৃষিজ ফসলের চাষ ও উৎপাদন অধিকাংশই মৌসুমি বৃষ্টিপাতের উপর নির্ভর করে । দক্ষিণ – পশ্চিম মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে গ্রীষ্মকালে কৃষিকাজ করা হয় এবং শীতকালে বৃষ্টিপাতের অভাবে জলসেচের মাধ্যমে কৃষিকাজ করা হয় । 

জনসংখ্যার চাপ : কৃষিজমির তুলনায় জনসংখ্যার চাপ অত্যধিক হওয়ায় বিপুল সংখ্যক মানুষের খাদ্যের চাহিদা পূরণের জন্য কৃষির উপর চাপ বেড়েই চলেছে । 

কীটনাশক ও রাসায়নিক সারের অনিয়ন্ত্রিত ব্যবহার : অধিক ফসল উৎপাদনের লক্ষ্যে জমিতে অত্যধিক কীটনাশক ও রাসায়নিক সার প্রয়োগ করার ফলে জমির উর্বরাশক্তি হ্রাস পাচ্ছে । 

অন্যান্য : 1) কৃষিজমিতে পশুশক্তির প্রাধান্য । 2) জলসেচের ব্যবহার । 3) ক্ষুদ্রাকৃতির জমিজোত ৷ 4) পশুখাদ্যের অভাব । 5) বহুশস্যের উৎপাদন । 6) মাথাপিছু কৃষিজ উৎপাদনের হার কম । 7) খাদ্যশস্যের প্রাধান্য । 8) পশুখাদ্যের অভাব । 

  1. পূর্ব ও মধ্যভারতে লৌহ – ইস্পাত শিল্পকেন্দ্র গড়ে ওঠার কারণ ব্যাখ্যা করো । 

Ans: পূর্ব ও মধ্যভারতে লৌহ – ইস্পাত শিল্পকেন্দ্র গড়ে ওঠার কারণগুলি হলো – 

কাঁচামালের সহজলভ্যতা : বিহারের সিংভূম , ছত্তিশগড়ের বাইলাডিলা , ওড়িশার ময়ুরভঞ্জ প্রভৃতি অঞ্চলের ম্যাগনেটাইট ও হেমাটাইট জাতীয় লৌহ – আকরিকের সুবিধা এবং ঝাড়খণ্ডের ঝরিয়া , বোকারো পশ্চিমবঙ্গের রানিগঞ্জ , ওড়িশার তালচের থেকে প্রচুর কয়লা পাওয়ার সুবিধা । 

জল ও বিদ্যুৎশক্তির জোগান : দামোদর , সুবর্ণরেখা , মহানদী প্রভৃতি নদীর জল পাওয়ার সুবিধা থাকায় এবং দামোদর ও হিরাকুন্দের জলবিদ্যুৎ পাওয়ার সুবিধা ও ফারাক্কা , দুর্গাপুর , বোকারো কেন্দ্র প্রভৃতি থেকে তাপবিদ্যুৎ পাওয়ার সুবিধা । 

উন্নত পরিবহণ ও যোগাযোগ ব্যবস্থা : পূর্ব ও দক্ষিণ – পূর্ব রেলপথ , উন্নত সড়কপথের সুবিধা থাকায় শিল্পের প্রয়োজনীয় কাঁচামালের জোগান ও উৎপাদিত দ্রব্য বাজারজাত করতে সুবিধা হয় । ” 

সুলভ ও দক্ষ শ্রমিক : পশ্চিমবঙ্গ , বিহার , ঝাড়খণ্ড , ওড়িশা ও ছত্তিশগড় প্রভৃতি রাজ্য থেকে প্রচুর সুলভ ও দক্ষ শ্রমিকের জোগান থাকায় এই শিল্প গড়ে উঠেছে । 

বন্দরের সুবিধা ও বাজারে চাহিদা : কলকাতা , হলদিয়া , পারাদ্বীপ প্রভৃতি বন্দরের সুবিধা থাকায় আর পার্শ্ববর্তী অঞ্চলের বাজারে বিপুল চাহিদা থাকায় এই শিল্প গড়ে উঠেছে । 

  1. ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্প গড়ে ওঠার কারণ কী ? 

Ans: যে শিল্পে প্রযুক্তিগত দক্ষতা ও কলাকৌশল দ্বারা ইস্পাত ব্যবহার করে যন্ত্রাংশ ও যন্ত্রপাতি , পরিবহণ সরঞ্জাম , বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি তৈরি করা হয় , তাকে ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্প বলে । ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্প গড়ে ওঠার কারণগুলি হলো –

ধাতব দ্রব্যের জোগান : সাধারণত ইস্পাত , তামা ও অ্যালুমিনিয়াম প্রভৃতি ধাতব দ্রব্যের উপর নির্ভর করে এই শিল্প গড়ে ওঠে । 

বিদ্যুৎ শক্তির জোগান : এই শিল্পে হাই ও লো ভোল্টেজসম্পন্ন বিদ্যুতের প্রয়োজন । নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুতের জোগান এই শিল্প গড়ে উঠতে সাহায্য করেছে। 

অতিসুদক্ষ শ্রমিকের জোগান : হাওড়া , বেঙ্গালুরু প্রভৃতি অঞ্চল থেকে প্রযুক্তি জ্ঞানসম্পন্ন মেধাবী সুদক্ষ ইঞ্জিনিয়ার ও শ্রমিকের জোগান থাকায় প্রধানত এই শিল্প গড়ে তুলতে সহায়তা করেছে । 

শিল্প সমাবেশ : যে সমস্ত অঞ্চলে পূর্ব থেকে অসংখ্য শিল্পের সমাবেশ লক্ষ | করা যায় সেই সমস্ত স্থানেই এই শিল্প গড়ে উঠেছে । 

অন্যান্য দ্রব্যের জোগান : এই শিল্পের জন্য প্রয়োজনীয় রবারের দ্রব্য , রং , প্লাস্টিক প্রভৃতির প্রয়োজন যা বিভিন্ন পেট্রোরসায়ন শিল্পের অনুসারী শিল্পকেন্দ্র থেকে পাওয়া যায় । 

  1. পশ্চিম ভারতে পেট্রোরসায়ন শিল্প গড়ে ওঠার কারণ কী ? 

Ans: খনিজ তেলের উপজাত দ্রব্যকে কাজে লাগিয়ে যে শিল্প গড়ে উঠে , তাকে পেট্রোরসায়ন শিল্প বলে । পেট্রোরসায়ন শিল্প গড়ে ওঠার কারণগুলি হলো— 

কাঁচামালের জোগান : ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে অবস্থিত তৈল শোধানাগার যথা – ট্রম্বে , জামনগর , কয়ালি প্রভৃতি থেকে এই শিল্পের প্রয়োজনীয় কাঁচামাল সহজেই পাওয়া যায় । 

বিদ্যুৎ শক্তির জোগান : কায়না জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র , তারাপুর , কাকড়াপাড় পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে এই শিল্পের প্রয়োজনীয় বিদ্যুৎ খুব সহজে পাওয়া যায়। 

বন্দরের সুবিধা : মুম্বই , কান্ডালা প্রভৃতি বন্দরের মাধ্যমে খনিজ তেল , যন্ত্রপাতি , উৎপাদিত দ্রব্য আমদানি ও রপ্তানিতে বিশেষ সুবিধা পাওয়া যায় । 

শিল্প কাঠামো : সড়কপথ , জলপথ পশ্চিম ও পূর্ব ভারতে বেশ উন্নত থাকায় এই শিল্প স্থাপনে সুবিধা হয়েছে । 

দক্ষ ও সুলভ শ্রমিক : এই অঞ্চল জলবহুল হওয়ায় শিক্ষিত , দক্ষ সুলভ ইঞ্জিনিয়ার ও শ্রমিকের জোগান থাকায় এই শিল্প গড়ে উঠতে সুবিধা হয়েছে । 

মূলধনের জোগান ও চাহিদা : টাটা , রিলায়েন্সের মতো শিল্পগোষ্ঠী থাকায় মূলধনের কোনো অসুবিধা হয় না এবং এই দেশ জলবহুল বলে চাহিদা ক্রমাগত বেড়েই চলেছে । ফলে এই শিল্প গড়ে উঠতে বিশেষ সহায়ক হয়েছে । 

  1. ভারতে নগর বা শহর গড়ে ওঠার প্রধান কারণগুলি সংক্ষেপে আলোচনা করো । 

Ans: প্রাকৃতিক কারণ : 

মনোরম জলবায়ু : ভারতের যে সমস্ত অঞ্চলের জলবায়ু সমভাবাপন্ন ও মনোরম প্রকৃতির সেখানে শহর বা নগর গড়ে ওঠে । যেমন- দার্জিলিং , সিমলা , দেরাদুন ইত্যাদি ।

কৃষিজাত ও খনিজ দ্রব্য উৎপাদক অঞ্চল : ভারতের যেসব অঞ্চলে ফসল অধিক পরিমাণে উৎপাদন হয় কিংবা যেখানে খনিজ সম্পদের আধিক্য রয়েছে সেখানে । জনবসতি ক্রমাগত বৃদ্ধি পায় , ফলে নগর বা শহর গড়ে ওঠে । 

ভৌগোলিক কারণ : সমুদ্র বা নদীর তীরবর্তী অঞ্চলে , সমভূমি অঞ্চলে পানীয় জলের সুবিধা , মনোরম পরিবেশ , খনিজ সম্পদের আধিক্য থাকায় ক্রমাগত জনসংখ্যা বৃদ্ধি পায় , ফলে নগর বা শহর গড়ে ওঠে । 

অর্থনৈতিক পরিবেশ : 

শিল্প ও শিক্ষাকেন্দ্রের অবস্থান : ভারতের যেসব স্থানে উন্নতমানের শিল্প ও উন্নতমানের শিক্ষাকেন্দ্র অবস্থান করে সেইসব স্থানে জনবসতির ক্রমাগত আধিক্য লক্ষ করা যায় । ফলে নগর বা শহর গড়ে ওঠে। 

উন্নত পরিবহণ ও যোগাযোগ ব্যবস্থা : ভারতের যেসব স্থানে পরিবহণ ও যোগাযোগের সুযোগ বেশি সেখানে জনসমাবেশ বেশি ঘটে বলে শহর বা নগর গড়ে উঠতে সাহায্য করেছে । 

ঐতিহাসিক স্থান ও পর্যটন কেন্দ্র : ভারতের যে সমস্ত স্থান ঐতিহাসিক নিদর্শনের দিক দিয়ে সমৃদ্ধ সেই স্থানগুলিকে কেন্দ্র করে পর্যটন কেন্দ্র গড়ে উঠেছে । যেমন — আগ্রার তাজমহল , দিল্লির লালকেল্লা ইত্যাদি। 

  1. ভারতের জনসংখ্যা বণ্টনের তারতম্যের কারণ কী তা সংক্ষেপ আলোচনা করো । 

Ans: ভারতের জনসংখ্যা বণ্টনের তারতম্যের কারণগুলি হলো— 

 ভূপ্রকৃতি : সাধারণত জনবসতি গড়ে উঠে ভূমির উচ্চতা , বন্ধুরতা প্রভৃতি উপাদানের উপর ভিত্তি করে । যেমন- পার্বত্য অঞ্চলে বিশেষ কোনো সুবিধা না থাকায় সেখানে জনবসতি গড়ে উঠেছে খুবই কম । কিন্তু সমভূমি অঞ্চলে বিভিন্ন ধরনের সুবিধা ( যাতায়াত , মনোরম পরিবেশ প্রভৃতি ) থাকায় জনবসতি অধিক লক্ষ করা যায় । 

  জলবায়ু : জনসংখ্যার স্থানীয় বণ্টনে জলবায়ু বিশেষ ভূমিকা পালন করে । কারণ বৃষ্টিহীন এলাকায় অর্থাৎ যেখানে মরুভূমি সৃষ্টি হয়েছে সেখানে জনসংখ্যা ও অতিনগণ্য । কিন্তু যেসব অঞ্চলে মনোরম জলবায়ু বিরাজ করে সেই সমস্ত অঞ্চলে জনসংখ্যা অধিক । 

  নদনদী : ভারতের বিভিন্ন নদনদী অববাহিকা খুবই উর্বর এবং জলসেচ , | জলবিদ্যুৎ , পানীয় জল , ফসল উৎপাদন প্রভৃতির সুবিধা থাকায় সেখানে জনসংখ্যা অধিক লক্ষ করা যায় ।

 মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর – West Bengal Madhyamik Class 10th Geography Question and Answer / Suggestion / Notes Book

আরোও দেখুন :-

মাধ্যমিক ভূগোল সমস্ত অধ্যায়ের প্রশ্নউত্তর Click Here

 মাধ্যমিক সাজেশন ২০২২ – Madhyamik Suggestion 2022

আরোও দেখুন:-

Madhyamik Bengali Suggestion 2022 Click here

আরোও দেখুন:-

Madhyamik English Suggestion 2022 Click here

আরোও দেখুন:-

Madhyamik Geography Suggestion 2022 Click here

আরোও দেখুন:-

Madhyamik History Suggestion 2022 Click here

আরোও দেখুন:-

Madhyamik Mathematics Suggestion 2022 Click here

আরোও দেখুন:-

Madhyamik  Physical Science Suggestion 2022 Click here

আরোও দেখুন:-

Madhyamik Life Science Suggestion 2022 Click here

Info : Madhyamik Geography Suggestion  | West Bengal WBBSE Class Ten X (Class 10th) Geography Qustion and Answer Suggestion 

মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর   

” মাধ্যমিক ভূগোল –  ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) – প্রশ্ন উত্তর  “ একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ টপিক মাধ্যমিক পরীক্ষা (West Bengal Class Ten X  / WB Class 10  / WBBSE / Class 10  Exam / West Bengal Board of Secondary Education – WB Class 10 Exam / Class 10 Class 10th / WB Class 10 / Class 10 Pariksha  ) এখান থেকে প্রশ্ন অবশ্যম্ভাবী । সে কথা মাথায় রেখে Bhugol Shiksha .com এর পক্ষ থেকে মাধ্যমিক ভূগোল পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক সাজেশন এবং প্রশ্ন ও উত্তর ( মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন / মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ও উত্তর । Madhyamik Geography Suggestion / Madhyamik Geography Question and Answer / Class 10 Geography Suggestion / Class 10 Pariksha Geography Suggestion  / Geography Class 10 Exam Guide  / MCQ , Short , Descriptive  Type Question and Answer  / Madhyamik Geography Suggestion  FREE PDF Download) উপস্থাপনের প্রচেষ্টা করা হলাে। ছাত্রছাত্রী, পরীক্ষার্থীদের উপকারেলাগলে, আমাদের প্রয়াস মাধ্যমিক ভূগোল পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক সাজেশন এবং প্রশ্ন ও উত্তর (Madhyamik Geography Suggestion / West Bengal Ten X Question and Answer, Suggestion / WBBSE Class 10th Geography Suggestion  / Madhyamik Geography Question and Answer  / Class 10 Geography Suggestion  / Class 10 Pariksha Suggestion  / Madhyamik Geography Exam Guide  / Madhyamik Geography Suggestion 2022, 2023, 2024, 2025, 2026, 2027, 2028, 2029, 2030, 2021, 2020, 2019, 2017, 2016, 2015 / Madhyamik Geography Suggestion  MCQ , Short , Descriptive  Type Question and Answer. / Madhyamik Geography Suggestion  FREE PDF Download) সফল হবে।

ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর  

ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) – প্রশ্ন ও উত্তর | ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) Madhyamik Geography Question and Answer Suggestion  মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর  – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর।

ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) MCQ প্রশ্ন ও উত্তর | মাধ্যমিক ভূগোল 

ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) MCQ প্রশ্ন ও উত্তর | ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) Madhyamik Geography Question and Answer Suggestion  মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর  – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) MCQ প্রশ্ন উত্তর।

ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) SAQ সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর | দশম শ্রেণির ভূগোল 

ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) SAQ সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর | ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) Madhyamik Geography Question and Answer Suggestion  মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর  – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) SAQ সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন উত্তর।

দশম শ্রেণি ভূগোল  – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) MCQ প্রশ্ন উত্তর | Madhyamik Geography  

মাধ্যমিক ভূগোল (Madhyamik Geography) – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) – প্রশ্ন ও উত্তর | ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) | Madhyamik Geography Suggestion  মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর  – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন উত্তর।

মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর  | দশম শ্রেণির ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর  – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন উত্তর | Madhyamik Geography Question and Answer Question and Answer, Suggestion 

মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) | মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) | পশ্চিমবঙ্গ মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) | মাধ্যমিক ভূগোল সহায়ক – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) – প্রশ্ন ও উত্তর । Madhyamik Geography Question and Answer, Suggestion | Madhyamik Geography Question and Answer Suggestion  | Madhyamik Geography Question and Answer Notes  | West Bengal Madhyamik Class 10th Geography Question and Answer Suggestion. 

মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর   – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) MCQ প্রশ্ন উত্তর | WBBSE Class 10 Geography Question and Answer, Suggestion 

মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর  – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন উত্তর প্রশ্ন ও উত্তর  | ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) । Madhyamik Geography Suggestion.

WBBSE Class 10th Geography Suggestion  | মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর   – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়)

WBBSE Madhyamik Geography Suggestion মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর  – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন উত্তর প্রশ্ন ও উত্তর  । ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) | Madhyamik Geography Suggestion  মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) – প্রশ্ন উত্তর প্রশ্ন ও উত্তর ।

Madhyamik Geography Question and Answer Suggestions  | মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) | মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর 

Madhyamik Geography Question and Answer  মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর  Madhyamik Geography Question and Answer মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর  প্রশ্ন ও উত্তর – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) MCQ, সংক্ষিপ্ত, রোচনাধর্মী প্রশ্ন ও উত্তর  । 

WB Class 10 Geography Suggestion  | মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর   – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) MCQ প্রশ্ন উত্তর প্রশ্ন ও উত্তর 

Madhyamik Geography Question and Answer Suggestion মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) MCQ প্রশ্ন ও উত্তর । Madhyamik Geography Question and Answer Suggestion  মাধ্যমিক ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর।

West Bengal Class 10  Geography Suggestion  Download WBBSE Class 10th Geography short question suggestion  . Madhyamik Geography Suggestion   download Class 10th Question Paper  Geography. WB Class 10  Geography suggestion and important question and answer. Class 10 Suggestion pdf.পশ্চিমবঙ্গ দশম শ্রেণীর ভূগোল পরীক্ষার সম্ভাব্য সাজেশন ও শেষ মুহূর্তের প্রশ্ন ও উত্তর ডাউনলোড। মাধ্যমিক ভূগোল পরীক্ষার জন্য সমস্ত রকম গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন ও উত্তর।

Get the Madhyamik Geography Question and Answer Question and Answer by Bhugol Shiksha .com

Madhyamik Geography Question and Answer Question and Answer prepared by expert subject teachers. WB Class 10  Geography Suggestion with 100% Common in the Examination .

Class Ten X Geography Suggestion | West Bengal Board of Secondary Education (WBBSE) Class 10 Exam 

Madhyamik Geography Question and Answer, Suggestion Download PDF: West Bengal Board of Secondary Education (WBBSE) Class 10 Ten X Geography Suggestion  is provided here. Madhyamik Geography Question and Answer Suggestion Questions Answers PDF Download Link in Free has been given below. 

মাধ্যমিক ভূগোল – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Question and Answer 

        অসংখ্য ধন্যবাদ সময় করে আমাদের এই ” মাধ্যমিক ভূগোল – ভারতের অর্থনৈতিক বিভাগ (ভারত – পঞ্চম অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Madhyamik Geography Question and Answer  ” পােস্টটি পড়ার জন্য। এই ভাবেই Bhugol Shiksha ওয়েবসাইটের পাশে থাকো যেকোনো প্ৰশ্ন উত্তর জানতে এই ওয়েবসাইট টি ফলাে করো এবং নিজেকে  তথ্য সমৃদ্ধ করে তোলো , ধন্যবাদ।

Subscribe Our YouTube Channel

Join Our Telegram Channel

E-mail Subscription