দশম শ্রেণী ইতিহাস | বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ – বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর সাজেশন | WBBSE Class 10th History Suggestion

7714

দশম শ্রেণী ইতিহাস সাজেশন – WBBSE Class 10th History Suggestion

দশম শ্রেণী ইতিহাস | বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ - বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা - প্রশ্ন উত্তর সাজেশন | WBBSE Class 10th History Suggestion
দশম শ্রেণী ইতিহাস | বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ – বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর সাজেশন | WBBSE Class 10th History Suggestion

দশম শ্রেণী ইতিহাস সাজেশন – WBBSE Class 10th History Suggestionবিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর   দেওয়া হল নিচে। এই WBBSE Class 10th (X) Madhyamik History Suggestion (মাধ্যমিক দশম শ্রেণীর ইতিহাস সাজেশন) – বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর  গুলি আগামী সালের পশ্চিমবঙ্গ মাধ্যমিক ইতিহাস পরীক্ষার জন্য খুব ইম্পর্টেন্ট। আপনারা যারা মাধ্যমিক দশম শ্রেণীর ইতিহাস পরীক্ষার সাজেশন খুঁজে চলেছেন, তারা নিচে দেওয়া প্রশ্নপত্র ভালো করে পড়তে পারেন। এই পরীক্ষা তে কোশ্চেন গুলো আসার সম্ভাবনা খুব বেশি।

বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – অতিসংক্ষিপ্ত, সংক্ষিপ্ত, রোচনাধর্মী প্রশ্ন উত্তর (MCQ, SAQ, Short, Descriptive Question and Answer) | মাধ্যমিক দশম শ্রেণী ইতিহাস সাজেশন – WBBSE Class 10th Madhyamik History Suggestion

দশম শ্রেণী ইতিহাস | বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ – বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা : বহু বিকল্পভিত্তিক প্রশ্নোত্তর [MCQ] : [প্রতিটি প্রশ্নের মান-1]

1. ‘ডন পত্রিকা (১৮৯৭) প্রকাশ করেন—
[A] রাজনারায়ণ বসু     [B] সতীশচন্দ্র মুখােপাধ্যায়     [C] অরবিন্দ ঘােষ। [D] রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

উত্তরঃ [B] সতীশচন্দ্র মুখােপাধ্যায়

2. ‘অ্যা গ্রামার অব দি বেঙ্গাল ল্যাঙ্গুয়েজ’ গ্রন্থটি রচনা করেন—)
[A] উইলিয়াম জোনস্।     [B] ব্রাসি হ্যালহেড [C] জোনাথান ডানকান।     [D] উইলিয়াম কেরি

উত্তরঃ [B] ব্রাসি হ্যালহেড

3. চালর্স উইনকিন্স ছিলেন একজন)
[A] ধর্মপ্রচারক     [B] ইংরেজ প্রশাসক   [C] একজন অর্থনীতিবিদ   [D] একজন সংগীত সাধক

উত্তরঃ [B] ইংরেজ প্রশাসক

4. বেতাল পঞ্চবিংশতি (১৮৪৭ খ্রিঃ) গ্রন্থটির লেখক কে?)
[A] বিশ্বনাথ দেব ।     [B] ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর     [C] মথুরনাথ মিশ্র। [D] রাধাকান্ত দে

উত্তরঃ [B] ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর

5. বেঙ্গাল টেকনিক্যাল ইন্সটিটিউট প্রতিষ্ঠিত হয়—)
[A] হাওড়ায়     [B] রিষড়ায় [C] কলকাতায়     [D] বহরমপুরে

উত্তরঃ [C] কলকাতায়

6. ক্যালকাটা বুক অফ সােসাইটি প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে উদ্যোগী ব্যক্তি ছিলেন—
[A] উইলিয়াম কেরি     [B] রাধাকান্ত দেব [C] ডেভিড হেয়ার     [D] রামমােহন রায়।

উত্তরঃ [C] ডেভিড হেয়ার

7. বর্ণপরিচয়ের প্রথম ভাগ প্রকাশিত হয়—)
[A] ১৮৫৫ খ্রিঃ     [B] ১৮৫৬ খ্রিঃ [C] ১৮৫৭ খ্রিঃ     [D] ১৮৫৮ খ্রিঃ

উত্তরঃ [A] ১৮৫৫ খ্রিঃ

8. হরেন্দ্র রায়ের ছাপাখানা ছিল কলকাতার কোথায়?)
[A] শাখারিটোলায়     [B] মির্জাপুরে [C] বউবাজারে     [D] আরপুলি লেনে

উত্তর :

9. বসুবিজ্ঞান মন্দির প্রতিষ্ঠিত হয় ।
[A] ১৯১৫ খ্রিঃ     [B] ১৯১৬ খ্রিঃ [C] ১৯১৭ খ্রিঃ     [D] ১৯১৮ খ্রিঃ

উত্তরঃ [B] ১৯১৬ খ্রিঃ

10. শিবপুর প্রযুক্তি কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়—
[A] ১৮৫৬ খ্রিঃ [B] ১৮৫৭ খ্রিঃ [c] ১৮৫৮ খ্রিঃ [D] ১৮৫৯ খ্রিঃ

উত্তরঃ [A] ১৮৫৬ খ্রি

11. বাংলায় গুটেনবার্গ কী নামে পরিচিত ছিলেন?)
[A] চার্লস ফেয়ার     [B] চার্লস উইলকিন্স   [c] ব্রাসি হ্যালহেড। [D] ওয়ারেন হেস্টিংস

উত্তরঃ [B] চার্লস উইলকিন্স

12. শ্রীরামপুর মিশনে ছাপাখানা প্রতিষ্ঠা করেন—)
[A] উইলিয়াম উডবার্ন।     [B] উইলিয়াম কেরি [c] পঞ্চানন কর্মকার।     [D] কৃয়দাস মিস্ত্রি

উত্তরঃ [B] উইলিয়াম কেরি

দশম শ্রেণী ইতিহাস | বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ – বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা : অতিসংক্ষিপ্ত উত্তরভিত্তিক প্রশ্নোত্তর : (প্রতিটি প্রশ্নের মান-1]

1. ক্যালকাটা বুক অফ সােসাইটি কবে প্রতিষ্ঠিত হয়?)

উত্তর : ১৮১৭ খ্রিস্টাব্দে।

2. বিদ্যাসাগর ও মদনমােহন তর্কালঙ্কারের প্রতিষ্ঠিত ছাপাখানার নাম কী?)

উত্তর : সংস্কৃত পাঠ।

3. বসুবিজ্ঞান মন্দির কবে প্রতিষ্ঠিত হয়?)

উত্তর : ১৯১৭ খিস্টাব্দে।

4. কে বিশ্ববিদ্যালয় আইন (১৯০৪ খ্রিস্টাব্দে) পাশ করেন?)

উত্তর : লর্ড কার্জন।

5. ডন পত্রিকা কে প্রকাশ করেন?)

উত্তর : সতীশচন্দ্র মুখােপাধ্যায়।

6. বিশ্বভারতী কবে প্রতিষ্ঠিত হয়?)

উত্তর : ১৯২১ খ্রিস্টাব্দে।

7. বাংলায় ছাপাখানার উদ্ভব হয় কবে?)

উত্তর : ১৭৭৮ খ্রিস্টাব্দে।

৪, বাংলায় গুটেনবার্গ কী নামে পরিচিত ছিল ?)

উত্তর : চার্লস উইনকিন্স।

9, ‘হিকিজ বেঙ্গল গেজেট’ কবে প্রকাশিত হয়?)

উত্তর : ২৯শে জানুয়ারি ১৭৮০ খ্রিস্টাব্দে।

10. ফোর্ট উইলিয়াম কলেজ কবে প্রতিষ্ঠিত হয়?)

উত্তর : ১৮০০ খ্রিস্টাব্দে।

দশম শ্রেণী ইতিহাস | বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ – বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা সত্য বা মিথ্যা নির্ণয় করাে

(ক) শান্তিনিকেতনে চিনা ভবন তৈরি হয়েছে চিনা তিব্বতী প্রভৃতি ভাষা শিক্ষণের সুবিধার্থে।

(খ) কাঠের ব্লক ব্যবহার করে উপেন্দ্রকিশাের ছেপেছিলেন টুনটুনির বই।

(গ) প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শুরু হওয়ার বছরে কলকাতায় ইউনিভার্সিটি কলেজ অফ সায়েন্স অ্যান্ড টেকনােলজি প্রতিষ্ঠিত হয়।

(ঘ) নজরুলের চিন্তন, দর্শন ও কর্মপ্রবাহের প্রকৃষ্টতম বাস্তবায়ন হল শান্তিনিকেতনের বিশ্বভারতী।

(ঙ) খ্রিস্টান মিশনারি শ্রীরামপুরকে কেন্দ্র করে তাদের শিক্ষা ও প্রেসের কর্মকাণ্ড চালিয়েছিলেন।

উত্তর : (ক) সত্য। (খ) মিথ্যা। (গ) সত্য। (ঘ) মিথ্যা। (ঙ) সত্য।

দশম শ্রেণী ইতিহাস | বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ – বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা : শুন্যস্থান পূরণ করাে

(ক) উপেন্দ্রকিশাের রায়চৌধুরীর পুত্রের নাম ___________।
(খ) প্যারীচরণ সরকার _________ প্রেস স্থাপন করেছিলেন।
(গ) শান্তিনিকেতনের আগের নাম ছিল ___________ ।
(ঘ) বাংলার ______________ প্রথম বিজ্ঞানের গবেষণাগার তৈরি করেছিলেন ।
(ঙ) পদার্থ বিদ্যাসার রচনা করেন ______________

উত্তর : (ক) সুকুমার রায়। (খ) স্কুল বুক। (গ) ভুবনডাঙ্গা। (ঘ) জনম্যাক। (ঙ) উইলিয়াম ইয়েট।

দশম শ্রেণী ইতিহাস | বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ – বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা : নিম্নলিখিত বিবৃতিগুলির সঠিক ব্যাখ্যা নির্বাচন করাে :

(ক) বিবৃতি : বিদ্যাসাগরকে ‘বিদ্যাবণিক’ বলা হয়।

ব্যাখ্যা-১; ছাপাখানার ব্যবসায়িক উদ্যোগের জন্য।
ব্যাখ্যা-২ : বাংলা প্রথম ছাপাখানা প্রবর্তনের জন্য।
ব্যাখ্যা-৩ : সংস্কৃত প্রেস নামক ছাপাখানা খেলার জন্য।

উত্তর :১; ছাপাখানার ব্যবসায়িক উদ্যোগের জন্য।
(খ) বিবৃতি : ভারতবর্ষের বিজ্ঞান চর্চার ইতিহাসে মহেন্দ্রলাল সরকারের নাম চিরস্মরণীয়।

ব্যাখ্যা-১: তিনি ছিলেন ভারতের প্রথম বিজ্ঞানী।
ব্যাখ্যা-২ : বসুমতীর প্রতিষ্ঠার সাথে যুক্ত ছিলেন।
ব্যাখ্যা-৩ : ভারতবাসীর বিজ্ঞানচর্চার জন্য।ACS প্রতিষ্ঠা করেন।

উত্তর : ৩। ভারতবাসীর বিজ্ঞানচর্চার জন্য ।ACS প্রতিষ্ঠা করেন।

দশম শ্রেণী ইতিহাস | বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ – বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা : সংক্ষিপ্ত উত্তরভিত্তিক প্রশ্নোত্তর : (প্রতিটি প্রশ্নের মান-2]

1. ওষুধ শিল্পের জনক কাকে বলা হয় ? তিনি কী প্রতিষ্ঠা করেন?)

উত্তর : ওষুধ শিল্পের জনক বলা হয় বিখ্যাত রাসায়নবিদ আচার্য প্রফুল্ল চন্দ্র রায়। তিনি বেঙ্গল কেমিক্যাল এ্যান্ড ফার্মাসিউটিক্যাল ওয়ার্কস প্রতিষ্ঠা করেন।

2. ভারতের বেকন কাকে বলা হয়? তাঁর লেখা দুটি গ্রন্থের নাম লেখাে।)

উত্তর : তত্ত্ববােধিনী পত্রিকার সম্পাদক অক্ষয়কুমার দত্তকে বলা হত ভারতের বেকন।। তার লেখা দুটি গ্রন্থের নাম—(১) বাহ্য বস্তুর সহিত মানব প্রকৃতির সম্বন্ধ (১৮৫২ খ্রিঃ) (২) পদার্থবিদ্যা (১৮৫৬ খ্রিঃ)।

3. পেডলার সার্কুলার কী?)

উত্তর : বঙ্গভঙ্গ বিরােধী আন্দোলন থেকে ছাত্রদের বিচ্ছিন্ন করে আন্দোলনকে দুর্বল করে দেওয়ার জন্য ১৯০৫ খ্রিস্টাব্দের ২১ অক্টোবর শিক্ষা বিভাগের অধিকার অধিকর্তা পেডলার সাহেব যে সার্কুলার জারি করেন তা পেডলার সার্কুলার নামে পরিচিত।

4. কে কবে বিশ্বভারতী প্রতিষ্ঠা করেন?)

উত্তর : কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ১৯২১ খ্রিস্টাব্দের ডিসেম্বর মাসে বিশ্বভারতী প্রতিষ্ঠা করেন।

5. শ্রীরামপুর ত্রয়ী কেন বিখ্যাত?)

উত্তর : শ্রীরামপুর মিশনের উইলিয়াম কেরি, জে. মার্শম্যান এবং ওয়ার্ড একত্রে শ্রীরামপুর ত্রয়ী নামে পরিচিত। এদের উদ্যোগে বাংলায় পাশ্চাত্য শিল্প বিস্তারের পাশাপাশি মুদ্রণ শিল্পের বিকাশ ঘটে। এদের দ্বারা শ্রীরামপুর (১৮০০ খ্রিঃ) প্রেস প্রতিষ্ঠা হয়।

6. সংস্কৃত যন্ত্র বিখ্যাত কেন?)

উত্তর : উনিশ শতকের ছাপাখানার ইতিহাসে বিখ্যাত ছিল সংস্কৃত যন্ত্র। ১৮৪৭ খ্রিস্টাব্দে মদনমােহন তর্কালঙ্কার ও ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর যৌথভাবে কলকাতার ৬২নং আমহার্স্ট স্ট্রিটে এটি প্রতিষ্ঠা করেন। সংস্কৃতযন্ত্র থেকে বিদ্যাসাগরের রচিত গ্রন্থ। প্রকাশিত হয়।

7. বটতলার প্রকাশনা কী?)

উত্তর : উনিশ শতকের ছাপাখানা জগতে একটি এলাকার প্রকাশনীয় সংস্থা হিসাবে পরিচিত ছিল বটতলার প্রকাশন। সমগ্র জোড়াবাগান, শােভাবাজার, দর্জিপাড়া প্রভৃতি স্থান জুড়ে এই প্রকাশনা চলত। সস্তায় বিচিত্র প্রিয় ধর্মকথা, অশ্লীল কথাযুক্ত বই ছাপা ছিল-এর বৈশিষ্ট্য।

৪. শান্তিনিকেতন আশ্রম কী?)

উত্তর : মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর বােলপুরে নির্জনে ব্ৰত্ম উপাসনা করে এই আশ্রম প্রতিষ্ঠা করেন। এটিই শান্তিনিকেতন আশ্রম নামে পরিচিত।

9. বিশ্বভারতীয় বিভাগগুলি কী ছিল?)

উত্তর : রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কর্তৃক বিশ্বভারতীর বিভাগগুলি হল পাঠভবন, শিক্ষাভবন, বিদ্যাভবন, রবীন্দ্রভবন, চিনা ভবন, কলা ভবন, সংগীতভবন, হিন্দি ভবন।

10. রামমােহন প্রতিষ্ঠিত একটি বিদ্যালয় ও সেখানকার 
একজন ছাত্রের নাম লেখাে।)

উত্তর : ১৮২২ খ্রিস্টাব্দে হিন্দু পাশ্চাত্য শিক্ষাদানের জন্য রামমােহন অ্যাংলাে হিন্দু কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন। এই প্রতিষ্ঠানের অন্যতম একজন ছাত্র ছিলেন দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর।

11. উপেন্দ্রকিশাের রায়চৌধুরী কে ছিলেন? অথবা স্মরণীয় কেন?)

উত্তর : উপেন্দ্রকিশাের রায়চৌধুরী প্রকৃত নাম হল কামদারঞ্জন রায়। তিনি ছিলেন একাধারে বিখ্যাত শিশুসাহিত্যিক, অঙ্কনশিল্পী, বেহালাবাদক, সুরকার, বাংলার U N Ray and Son বা ইউ, এন, রায় এন্ড সন্স ছাপাখানার প্রতিষ্ঠাপক হিসাবে স্মরণীয় ছিলেন।

দশম শ্রেণী ইতিহাস | বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ – বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা : বিশ্লেষণধর্মী প্রশ্নোত্তর : (প্রতিটি প্রশ্নের মান-4]

1. কলকাতা বিজ্ঞান কলেজ কীভাবে প্রতিষ্ঠিত হয় তা বিশ্লেষণ করাে।)

উত্তর : ভূমিকা : বিংশ শতকে ও সরকারি উদ্যোগ বিজ্ঞানচর্চা ও কারিগরি শিক্ষার পর্যাপ্ত প্রসার ঘটেনি; তাই বিশিষ্ট আইনজীবী তারকনাথ পালিত ও জাতীয়তাবাদী নেতা রাসবিহারী ঘােষের উদ্যোগে কলকাতায় একটি বিজ্ঞান কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়। (২৯ মার্চ, ১৯১৪ খ্রিস্টাব্দে)।
        উদ্দেশ্য : ব্রিটিশ কর্মচারীদের ও চিকিৎসার জন্য হাসপাতাল প্রতিষ্ঠানের প্রয়ােজন ছিল। এই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে কলকাতা মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠার চিন্তা করা হয়। এছাড়া নেটিভদের চিকিৎসার বিষয়টিও প্রাধান্য পেয়েছিল।
        ভাষা মাধ্যম : প্রাচ্যবিদ্যার বিশারদ ড. টাইটলার চেয়েছিলেন এদেশীয় ভাষায় পশ্চিমীধারার চিকিৎসাবিদ্যা শিক্ষা দেওয়া হােক কিন্তু আলেকজান্ডার ডাফ চেয়েছিলেন পশ্চিমী শিক্ষা ইংরেজি ভাষার মাধ্যমে দেওয়া উচিত।
        গভর্নর জেনারেলের ঘােষণা : কমিটির রিপাের্টকে খতিয়ে দেখে ১৮৮৫ খ্রিস্টাব্দের ২৮ জানুয়ারি গভর্নর জেনারেল এক নির্দেশনামা বলে কলকাতা মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠার কথা ঘােষণা করলেন।
        ভর্তির যােগ্যতা : প্রতিষ্ঠাবর্ষে ৫০ জন শিক্ষার্থী নিয়ে মেডিকেল কলেজের যাত্রা শুরু হল। জাতি ধর্ম নির্বিশেষে ইংরেজি ও বাংলা বা হিন্দুস্থানি ভাষা জানা ১৪-২০ বছর বয়স্ককে ছাত্র হিসাবে ভর্তির সুযােগ দেওয়া হবে।
        পাঠ্য বিষয় : কলকাতা মেডিকেল কলেজের প্রারম্ভিক পর্বের ছাত্রদের অ্যানাটমি, সার্জাটমি, সার্জারি, ওষুধ, প্রয়ােগ ও ওষধ তৈরি বিষয়ে শিখতে হত। এছাড়া হাতে কলমে লেখার জন্য ছাত্রদের জেনারেল হাসপাতাল ঘুরে ব্যাধি সম্পর্কে সচেতন করা হয়।
        মূল্যায়ন : সকল অধ্যক্ষের প্রচেষ্টায় এখানে বিশ্বমানের শিক্ষাদান ব্যবস্থা গড়ে ওঠে। শিক্ষার্থীদের এই কলেজ থেকে যথেষ্ট সহায়তা পেয়ে বিজ্ঞানের মৌলিক গবেষণার কাজ এগিয়ে যায়।

2. বাংলার শিক্ষার ইতিহাসে শ্রীরামপুর মিশনারিদের অবদান লেখাে।)

         অথবা,
মুদ্রণ শিল্পের বিকাশে শ্রীরামপুর মিশন প্রেস-এর অবদান কী ছিল?

উত্তর : ভূমিকা : ঊনবিংশ শতাব্দীর প্রথমার্ধে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের বিন্যাস ও সমৃদ্ধির ক্ষেত্রে শ্রীরামপুর ত্রয়ীর অবদান অনস্বীকার্য।
        শ্রীরামপুর এয়ী :উইলিয়াম কেরি, উইলিয়াম ওয়ার্ড ও জোসুয়া মার্সম্যান-এর উদ্যোগে বাংলার হুগলির শ্রীরামপুরে ১৮০০ খ্রিস্টাব্দে এই ছাপাখানাটি গড়ে উঠেছিল। এরা তিনজন পরিচিত ছিল ‘শ্রীরামপুর ত্রয়ী’ নামে।
        শ্রীরামপুর ছাপাখানা স্থাপন : ১৮০০ খ্রিস্টাব্দে শ্রীরামপুরে ‘শ্রীরামপুর ত্রয়ী একটি ছাপাখানা স্থাপন করেন। সেখান থেকে তারা বাংলা ভাষায় বিভিন্ন পত্রপত্রিকা প্রকাশ করেন। আর এই ছাপাখানার সূত্র ধরে বাংলা ভাষার সমৃদ্ধির পথ প্রশস্ত হয়।
        ফোর্ট উইলিয়াম কলেজের অভিজ্ঞতা : ১৮০০ খ্রিস্টাব্দে ফোর্ট উইলিয়াম কলেজ প্রতিষ্ঠার সময় থেকে উইলিয়াম কেরি যুক্ত ছিলেন। তিনি ওই কলেজের বাংলা ও সংস্কৃত বিভাগের প্রধান অধ্যাপক হিসেবে নিযুক্ত হন।
        উপসংহার : পরিশেষে বলা যায় যে, ধর্মপ্রচারের জন্য শ্রীরামপুর ত্রয়ী বাংলা ও ইংরেজি ভাষার বিস্তার ও বিকাশে উদ্যোগী হয়েছিলেন।

3. শান্তিনিকেতনে বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিষ্ঠার পটভূমি আলােচনা কর।)

উত্তর : ভূমিকা : বীরভূম জেলার বােলপুরের কাছে অবস্থিত একটি গ্রাম হল। শান্তিনিকেতন। পূর্বে ভুবনডাঙ্গা নামে এই স্থান পরিচিত ছিল।
        ব্ৰত্মবিদ্যালয় : ১৯০১ খ্রিস্টাব্দে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শান্তিনিকেতনে প্রতিষ্ঠা করেন ‘ব্ৰত্মবিদ্যালয়’, এরূপ সেখানেই তিনি স্থায়ীভাবে বসবাস করতে থাকেন, তিনি প্রাকৃতিক পরিবেশের মধ্যে নিজের এবং অন্যান্য আশ্রমবাসীদের থাকার জন্য ভবন নির্মাণ করান যা প্রকৃতির মাধুর্যে লালিত।
        বিশ্বভারতীর ভাবনা : রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তাঁর ‘তপােবন’ নামক প্রবন্ধে লিখেছেন যে, তপােবনের রয়েছে প্রকৃতির নিবিড় শান্ত রূপ, ঔপনিবেশিক শিক্ষার বাইরে তিনি এক বিকল্প শিক্ষাব্যবস্থা গড়ে তােলার জন্য শান্তি ও নিবিড় রূপের মধ্য ‘বিশ্বভারতী প্রতিষ্ঠা করেন।
        উপসংহার : ১৯২১ খ্রিস্টাব্দে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শান্তিনিকেতনে প্রতিষ্ঠা করেন। বিশ্বভারতী বিশ্ববদ্যালয়।

4. IACS পরিচালিত গােষ্ঠী এবং প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের সম্পর্কে আলােচনা করাে।)

         অথবা,
বিজ্ঞান চর্চায় ইন্ডিয়ান অ্যাসােসিয়েশন ফর দ্য কাল্টিভেশন অফ সায়েন্স’-এর অবদান আলােচনা করাে।)

উত্তর : ভূমিকা : ইন্ডিয়ান অ্যাসােসিয়েশন ফর দ্যা কাল্টিভেশন অফ সায়েন্স যা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল ১৯৭৫ খ্রিস্টাব্দের ২৯ জুলাই। ডাঃ মহেন্দ্রলাল সরকার প্রতিষ্ঠিত প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি ছিলেন তিনিই।
        পরিচালন গােষ্ঠী : IACS-এর প্রথম অধিকর্তা ছিলেন প্যারিমােহন মুখার্জি। ১৯৯২ খ্রিস্টাব্দে প্রথম ভারতীয় হিসাবে তিনি এর প্রেসিডেন্ট পদ লাভ করেন।
        IACS-এর সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিবর্গ : IACS নামক প্রতিষ্ঠানটির বহুগুণী ব্যক্তিবর্গ যুক্ত ছিলেন। এখানে যারা গবেষণার কাজে যুক্ত ছিলেন তাঁদের মধ্যে উল্লেখযােগ্য ছিলেন জগদীশচন্দ্র বসু, আশুতােষ মুখােপাধ্যায় প্রমুখ।
        (1) সি. ভি. রমন : ১৯০৭ খ্রিস্টাব্দে কলকাতায় কেন্দ্রিয় হিসাবরক্ষক অফিসের ১৯ বছর বয়সের এক সাধারণ যুবক সি. ভি. রমন এই প্রতিষ্ঠানে গবেষণার কাজে যােগ দেন।
        (2) মেঘনাদ সাহা : বিখ্যাত বিজ্ঞানী মেঘনাদ সাহা এই প্রতিষ্ঠানে গবেষণা করেছেন। তিনি এখানে একটি পৃথক গবেষণা বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন।
        (3) জগদীশচন্দ্র বসু : এই প্রতিষ্ঠানে বিজ্ঞান বিষয়ে বিভিন্ন বক্তৃতা রাখা হত। এই সমস্ত বক্তাদের মধ্যে জগদীশচন্দ্র বসু ছিলেন অন্যতম।
        উপসংহার : মহেন্দ্রলাল সরকারের মৃত্যুর পর তার পুত্র অমৃতলাল সরকার এই প্রতিষ্ঠানটির দায়ভার নেন। বাংলাদেশের বিজ্ঞান গবেষণায় এর অবদান অবিস্মরণীয়।
টীকা : 1. জাতীয় শিক্ষা পরিষদ :

উত্তর : ভূমিকা : বঙ্গভঙ্গ বিরােধী আন্দোলনকালে জাতীয় শিক্ষা ধারণার ভিত্তিতে গড়ে ওঠে জাতীয় শিক্ষা পরিষদ (১৯০৬ খ্রিস্টাব্দে)।
        প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য : জাতীয় শিক্ষা পরিষদের প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্যগুলি হল—(ক) ব্রিটিশ প্রবর্তিত শিক্ষানীতির বিরােধিতা করা, (খ) দেশের প্রয়ােজনে স্বদেশি ধাঁচে এক বিকল্প শিক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তােলা। কার্যাবলি :
        (ক) ন্যাশনাল কলেজ : সাধারণ বিজ্ঞান ও কলাবিদ্যা শিক্ষার জন্য জাতীয় শিক্ষা পরিষদ বউবাজারে বেঙ্গল ন্যাশনাল কলেজ ও স্কুল প্রতিষ্ঠা করে।
        (খ) বিদ্যালয় : জাতীয় শিক্ষা পরষদের অধীনে ও উৎসাহে দেশের বিভিন্ন স্থানে (রংপুর, ঢাকা, দিনাজপুর) জাতীয় বিদ্যালয় গড়ে ওঠে।
        ব্যর্থতার কারণ : এই ব্যর্থতার কারণগুলি হল— (1) বেসরকারি প্রতিষ্ঠান হওয়ায় অর্থসংকট দেখা দেয়।
(2) বেতনের স্বল্পতার কারণে শিক্ষকদের প্রতিষ্ঠান ত্যাগ।
(3) চাকরির বাজারে প্রতিষ্ঠান প্রদত্ত ডিগ্রি বা সার্টিফিকিটের গুরুত্বহীনতা ইত্যাদি।
        উপসংহার : জাতীয়তাবাদী নেতাদের অর্থানুকুল্যে কলকাতার টাউন হলে ১৯০৬ খ্রিস্টাব্দের ১৪ আগস্ট রাসবিহারী ঘােষের সভাপতিত্বে প্রতিষ্ঠিত হয় জাতীয় শিক্ষা পরিষদ ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়।

দশম শ্রেণী ইতিহাস | বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ – বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা : রচনাধর্মী প্রশ্নোত্তর : [প্রতিটি প্রশ্নের মান-৪]

1. প্রকৃতি, মানুষ ও শিক্ষার সমবায় বিষয়ে রবীন্দ্রনাথের চিন্তার সংক্ষিপ্ত আলােচনা করাে।

উত্তর : ভূমিকা : রবীন্দ্রনাথের মতে, শিক্ষার লক্ষ হল ব্যক্তি জীবনের পরিপূর্ণ বিকাশ, ধর্মীয় ভাবের জাগরণ এবং প্রকৃতির সঙ্গে মানুষের মাধ্যমে প্রকৃত জীবনাদর্শ গঠন। এককথায়, মানুষ্যত্বের সার্বিক বিকাশ সাধন আর সে কারণেই তিনি প্রকৃতি মানুষ ও শিক্ষার মধ্যে সমন্বয় সাধনের চেষ্টা করেছিলেন।
        মানুষ ও শিক্ষা : রবীন্দ্রনাথ তার একাধিক প্রবন্ধে লিখেছেন যে, আমাদের সবচেয়ে বড়াে বাধা এই যে, শিক্ষার সঙ্গে সমাজের এবং মানুষের কোনাে যােগ নেই।
        শিক্ষার লক্ষ ও উদ্দেশ্য : রবীন্দ্রনাথের মতে শিক্ষার মূল লক্ষ বা উদ্দেশ্য হল- (1) শিক্ষার্থীর ব্যক্তিত্বের পরিপূর্ণ বিকাশ সাধন, (2) প্রকৃতির সঙ্গে প্রতিটি শিক্ষার্থীর সম্পর্ক সাধন, (3) শিক্ষার্থীর মধ্যে সৌন্দর্যবােধের বিকাশ ঘটানাে, (4) শিক্ষার্থীকে চিরন্তন পরম সত্তার উপলদ্ধিতে সহায়তা করে।
        শিক্ষার আনন্দ : রবীন্দ্রনাথের মতে, আনন্দের মধ্য দিয়েই প্রকৃত শিক্ষা লাভ করা সম্ভব। কেবল পুঁথিগত শিক্ষা শিক্ষার্থীকে আনন্দ দিতে পারে না। তার জন্য চাই হৃদয় বৃত্তির চর্চা।
        শিক্ষার স্বাধীনতা : রবীন্দ্রনাথ শিক্ষায় এবং কর্মে মানুষকে স্বাধীনতা দেওয়ার। পক্ষপাতী ছিলেন। তিনি মনে করতেন যে, শিক্ষার্থীদের স্বাধীনতা দিলে স্বতঃস্ফূর্তভাবেই তাদের শৃঙ্খলাবােধ গড়ে উঠবে। কেউই আত্মমর্যাদা বিসর্জন দেবে না, অন্যায়ের সঙ্গে কোনাে প্রকার আপস করবে না।
        কর্মমুখী শিক্ষাদান : গতানুগতিক পুঁথিগত বিদ্যা অধ্যায়নের পরিবর্তে রবীন্দ্রনাথ কর্মমুখী শিক্ষাদানের প্রয়ােজনীয়তার ওপরেও গুরুত্ব দিয়েছেন। বিদ্যালয় ছাত্রদের জন্য তিনি এমন সব কাজকর্মের প্রচলন করেছিলেন, যার মধ্য দিয়ে তারা বৃহত্তম কর্মজগতের সঙ্গে পরিচিত হওয়ার সুযােগ পাবে।
        শিক্ষণ পদধতি : কোনােরকম ছক কাটা পদ্ধতির উল্লেখ না করলেও রবীন্দ্রনাথ ইন্দ্রিয়ানুশীল, প্রকৃতির পর্যবেক্ষণ, সৃজন ধর্মী কাজকর্ম প্রভৃতির মাধ্যমে শিক্ষার্থীর শিক্ষা দেয়ার কথা বলেছেন।
        শিক্ষার মাধ্যম : শিক্ষার মাধ্যম হিসেবে রবীন্দ্রনাথ মাতৃভাষার ওপর গুরুত্ব আরােপ করেছেন। মাতৃভাষার মাধ্যমে শিক্ষাদানের প্রয়ােজনীয়তার কথা বলতে গিয়ে তিনি। সম্ভব। কেবল পুঁথিগত শিক্ষা শিক্ষার্থীকে আনন্দ দিতে পারে না। তার জন্য চাই হৃদয় বৃত্তির চর্চা।
        শিক্ষার স্বাধীনতা : রবীন্দ্রনাথ শিক্ষায় এবং কর্মে মানুষকে স্বাধীনতা দেওয়ার পক্ষপাতী ছিলেন। তিনি মনে করতেন যে, শিক্ষার্থীদের স্বাধীনতা দিলে স্বতঃস্ফূর্তভাবেই তাদের শৃঙ্খলাবােধ গড়ে উঠবে। কেউই আত্মমর্যাদা বিসর্জন দেবে না, অন্যায়ের সঙ্গে কোনাে প্রকার আপস করবে না।
        কর্মমুখী শিক্ষাদান : গতানুগতিক পুঁথিগত বিদ্যা অধ্যায়নের পরিবর্তে রবীন্দ্রনাথ কর্মমুখী শিক্ষাদানের প্রয়ােজনীয়তার ওপরেও গুরুত্ব দিয়েছেন। বিদ্যালয় ছাত্রদের জন্য তিনি এমন সব কাজকর্মের প্রচলন করেছিলেন, যার মধ্য দিয়ে তারা বৃহত্তম। কর্মর্জগতের সঙ্গে পরিচিত হওয়ার সুযােগ পাবে।
        শিক্ষণ পদ্ধতি : কোনােরকম ছক কাটা পদ্ধতির উল্লেখ না করলেও রবীন্দ্রনাথ ইন্দ্রিয়ানুশীল, প্রকৃতির পর্যবেক্ষণ, সৃজন ধর্মী কাজকর্ম প্রভৃতির মাধ্যমে শিক্ষার্থীর শিক্ষা দেয়ার কথা বলেছেন।
        শিক্ষার মাধ্যম : শিক্ষার মাধ্যম হিসেবে রবীন্দ্রনাথ মাতৃভাষার ওপর গুরুত্ব আরােপ করেছেন। মাতৃভাষার মাধ্যমে শিক্ষাদানের প্রয়ােজনীয়তার কথা বলতে গিয়ে তিনি মাতৃভাষাকে তুলনা করেছেন মাতৃদুগ্ধের সঙ্গে।
        পাঠক্রম : রবীন্দ্রনাথের মতে শিশুদের জন্য পাঠক্রম জাতীয়, সামাজিক ও সংস্কৃতির ঐতিহ্যের ওপর ভিত্তি করে গড়ে উঠবে। আর সেই সঙ্গে পাশ্চাত্য জগতের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমূলক অগ্রগতির সঙ্গেও সংযােগ থাকবে। শান্তিনিকেতনের ভাবনা : রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কর্তৃক শান্তিনিকেতনে এরূপ আবাসিক ব্রম্মচর্যাশ্রম প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে শিক্ষক ছাত্র সম্পর্কের প্রতিষ্ঠা করা এবং এভাবে প্রাচীন ভারতের পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা।
        বিশ্বভারতীর ভাবনা : রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বিশ্বভারতী প্রতিষ্ঠার যে সমস্ত আদর্শ তা হল শান্তিনিকেতনকে কেন্দ্র করে ভারতের আদর্শ বাণী বিশ্বে তুলে ধরার লক্ষেই তিনি বিশ্বভারতীর প্রতিষ্ঠায় সচেষ্ট হন।
        উপসংহার : উপরােক্ত আলােচনা থেকে দেখা যায়, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর প্রচলিত শ্রেণিকক্ষের চার দেওয়ালের পরিবর্তে প্রকৃতি মানুষ ও শিক্ষার মধ্যে সমন্বয় সাধন করতে সচেষ্ট হন। তবে এই শিক্ষা আনন্দাপাঠ হলেও উপনিবেশিক কাঠামাের তা কার্যকরী শিক্ষা ছিল না।
আরোও দেখুন:-
WBBSE Class 10th History Suggestion Click here
বিনামূল্যে ডাউনলোড করুন:-
দশম শ্রেণী ইতিহাস | বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর সাজেশন | WBBSE Class 10th History Suggestion Click here

Info : WBBSE Class 10th History Suggestion | West Bengal Madhyamik History Qustion and Answer.

দশম শ্রেণী ইতিহাস | মাধ্যমিক ইতিহাস – বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর 

” মাধ্যমিক  ইতিহাস – বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর  “ একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ টপিক মাধ্যমিক পরীক্ষা (Madhyamik / WB Madhyamik / MP Exam / West Bengal Board of Secondary Education – WBBSE Madhyamik Exam / Madhyamik Class 10th / Class X / Madhyamik Pariksha) এবং বিভিন্ন চাকরির (WBCS, WBSSC, RAIL, PSC, DEFENCE) পরীক্ষায় এখান থেকে প্রশ্ন অবশ্যম্ভাবী । সে কথা মাথায় রেখে BhugolShiksha.com এর পক্ষ থেকে মাধ্যমিক (দশম শ্রেণী) ইতিহাস পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক অনুশীলনীর প্রশ্ন ও উত্তর এবং সাজেশন (WBBSE Class 10th History Suggestion / West Bengal Board of Secondary Education – WBBSE History Suggestion / Madhyamik Class 10th History Suggestion / Class X History Suggestion / Madhyamik Pariksha History Suggestion / History Madhyamik Exam Guide / MCQ , Short , Descriptive  Type Question and Answer. / WBBSE Class 10th History Suggestion FREE PDF Download) উপস্থাপনের প্রচেষ্টা করা হলাে। ছাত্রছাত্রী, পরীক্ষার্থীদের উপকারেলাগলে, আমাদের প্রয়াস মাধ্যমিক (দশম শ্রেণী) ইতিহাস পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নোত্তর এবং সাজেশন (WBBSE Class 10th History Suggestion / West Bengal Board of Secondary Education – WBBSE History Suggestion / Madhyamik Class 10th History Suggestion / Class X History Suggestion / Madhyamik Pariksha History Suggestion / WBBSE Class 10th History Exam Guide / MCQ , Short , Descriptive  Type Question and Answer. / WBBSE Class 10th History Suggestion FREE PDF Download) সফল হবে।

WBBSE Class 10th History | মাধ্যমিক ইতিহাস – বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর 

WBBSE Class 10th History (মাধ্যমিক ইতিহাস) – বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর 

WBBSE Class 10th History Suggestion | দশম শ্রেণী ইতিহাস – বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর 

WBBSE Class 10th History Suggestion (দশম শ্রেণী ইতিহাস) – বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর 

WBBSE Class 10th History Question and Answer | মাধ্যমিক ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর – বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর 

WBBSE Class 10th History Question and Answer (মাধ্যমিক ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর) – বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর 

WB WBBSE Class 10th History Suggestion | দশম শ্রেণী ইতিহাস – বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর 

WB WBBSE Class 10th History Suggestion (দশম শ্রেণী ইতিহাস) – বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর 

West Bengal WBBSE Class 10th History Suggestion | দশম শ্রেণী ইতিহাস – বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর 

West Bengal WBBSE Class 10th History Suggestion (দশম শ্রেণী ইতিহাস) – বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর 

WBBSE Class 10th WBBSE Class 10th History Suggestion | দশম শ্রেণী ইতিহাস | মাধ্যমিক ইতিহাস | বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর 

WBBSE Class 10th WBBSE Class 10th History Suggestion | দশম শ্রেণী ইতিহাস | মাধ্যমিক ইতিহাস | বিকল্প চিন্তা ও উদ্যোগ: বৈশিষ্ট্য ও পর্যালোচনা – প্রশ্ন উত্তর 

West Bengal Madhyamik  History Suggestion Download. WBBSE WBBSE Class 10th History short question suggestion. WBBSE Class 10th History Suggestion  download. Madhyamik Question Paper History. WB Madhyamik 2019 History suggestion and important questions. Madhyamik Suggestion  pdf.পশ্চিমবঙ্গ মাধ্যমিক ইতিহাস পরীক্ষার সম্ভাব্য প্রশ্ন উত্তর ও শেষ মুহূর্তের সাজেশন ডাউনলোড। মাধ্যমিক ইতিহাস পরীক্ষার জন্য সমস্ত রকম গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন।

Get the WBBSE Class 10th History Suggestion by BhugolShiksha.com

 West Bengal WBBSE Class 10th History Suggestion  prepared by expert subject teachers. WB Madhyamik  History Suggestion with 100% Common in the Examination.

West Bengal Board of Secondary Education (WBBSE) 

will organize Madhyamik (Madhyamik)  Examination on the last week of February and continue up to the middle of March. Like every year Team BhugolShiksha.com published Madhyamik  All subjects suggestion.

West Bengal Madhyamik History Syllabus PDF

The Following document gives the topic wise complete syllabus for West Bengal Madhyamik exams for both Class 9 and 10. Candidates can refer to this PDF for any doubts regarding the syllabus. 

Madhyamik WBBSE Class 10th History complete syllabus Click Here to Download

WBBSE History Suggestion | West Bengal Madhyamik Exam

WBBSE Class 10th History Suggestion  Download PDF: WBBSE Madhyamik Class 10th History Suggestion is provided here. WB Madhyamik  History Suggestion Questions Answers PDF Download.

Class 10th History Suggestion

Class 10th History Suggestion  has been provided here. Class 10th History Suggestion questions are very much common for the upcoming WBBSE Class 10th History examination. Download the solved Class 10th (X) question paper of History Subject Provided here. These common questions can be downloaded free. Moreover, you can easily check West Bengal মাধ্যমিক ইতিহাস expected common questions for upcoming Madhyamik 10th Exam.

WBBSE Class 10th History Suggestion

WB WBBSE Class 10th History Suggestion Question and answer. The questions you should practice repeatedly however we can not guarantee that the questions will be 100% common. Hence, you should read the textbook of class 10th thoroughly for 100% sure suggestions. We also advise the WBBSE Madhyamik Students for  year that they read their textbook multiple times and solve the questions.

    স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনার ডিজিটাল মাধ্যম BhugolShiksha.com । এর প্রধান উদ্দেশ্য পঞ্চম শ্রেণী থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর (মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক) সমস্ত বিষয় এবং গ্রাজুয়েশনের শুধুমাত্র ভূগোল বিষয়কে  সহজ বাংলা ভাষায় আলোচনার মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের কাছে সহজ করে তোলা। এছাড়াও সাধারণ-জ্ঞান, পরীক্ষা প্রস্তুতি, ভ্রমণ গাইড, আশ্চর্যজনক তথ্য, সফল ব্যাক্তিদের জীবনী, বিখ্যাত ব্যাক্তিদের উক্তি,  প্রাণী জ্ঞান, কম্পিউটার, বিজ্ঞান ও বিবিধ প্রবন্ধের মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের মননকে বিকশিত করে তোলা।
        আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ সময় করে আমাদের পােস্টটি পড়ার জন্য। এই ভাবেই ভূগোল শিক্ষা – BhugolShiksha.com ওয়েবসাইটের পাশে থাকুন। বিভিন্ন বিষয়ে যেকোনো প্ৰশ্ন উত্তর জানতে এই ওয়েবসাইট টি ফলাে করুন এবং নিজেকে  তথ্য সমৃদ্ধ করে তুলুন , ধন্যবাদ।
নিচের বাটনে ক্লিক করে শেয়ার করেন বন্ধুদের মাঝে