একাদশ শ্রেণী ইতিহাস - সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Class 11 History Question and Answer
একাদশ শ্রেণী ইতিহাস - সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Class 11 History Question and Answer

একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর

সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) | Class 11 History Question and Answer

একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর : সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) Class 11 History Question and Answer : একাদশ শ্রেণী ইতিহাস – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Class 11 History Question and Answer নিচে দেওয়া হলো। এই একাদশ শ্রেণির ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর – WBCHSE Class 11 History Question and Answer, Suggestion, Notes – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) থেকে বহুবিকল্পভিত্তিক, সংক্ষিপ্ত, অতিসংক্ষিপ্ত এবং রোচনাধর্মী প্রশ্ন উত্তর (MCQ, Very Short, Short,  Descriptive Question and Answer) গুলি আগামী West Bengal Class 11th Eleven XI History Examination – পশ্চিমবঙ্গ একাদশ শ্রেণী ইতিহাস পরীক্ষার জন্য খুব ইম্পর্টেন্ট।

 তোমরা যারা সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) – একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর | Class 11 History Question and Answer Question and Answer খুঁজে চলেছ, তারা নিচে দেওয়া প্রশ্ন ও উত্তর গুলো ভালো করে পড়তে পারো। 

সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) – পশ্চিমবঙ্গ একাদশ শ্রেণির ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর | West Bengal Class 11th History Question and Answer

MCQ প্রশ্নোত্তর | একাদশ শ্রেণী ইতিহাস – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Class 11 History Question and Answer : 

  1. স্পার্টার সমাজে সর্বোচ্চ স্থানে প্রতিষ্ঠিত ছিল— 

(A) মেটিক 

(B) স্পার্টান

(C) হেলট 

(D) পেরিওসি 

Ans: (B) স্পার্টান

  1. নিষাদ হলো— 

(A) অরণ্যভূমির উপজাতি 

(B) শূদ্র 

(C) দ্রাবিড় জাতি 

(D) পার্বত্য উপজাতি 

Ans: (A) অরণ্যভূমির উপজাতি

  1. ‘ অর্থশাস্ত্রে ’ কত প্রকার বিবাহরীতির উল্লেখ আছে ? 

(A) 10 প্রকার

(B) 5 প্রকার

(C) 4 প্রকার

(D) 8 প্রকার 

Ans: (D) 8 প্রকার

  1. প্রণয়মূলক বিবাহ নিম্নলিখিত কোন শ্রেণির বিবাহের অন্তর্ভুক্ত ? 

(A) অসুর 

(B) দৈব 

(C) প্রাজাপত্য 

(D) গান্ধর্ব 

Ans: (D) গান্ধর্ব

  1. প্রাচীন মিশরীয় রানি নেফারতিতি 

(A) আখেনাটেন শহর নির্মাণ করেন 

(B) পিতাকে হত্যা করে সিংহাসনে বসেন 

(C) আখেনাটেনের প্রধান মহিষী ও সহশাসক ছিলেন 

(D) মিশরের শেষ ফ্যারাও ছিলেন 

Ans: (C) আখেনাটেনের প্রধান মহিষী ও সহশাসক ছিলেন 

  1. ‘ মিশরের নেপোলিয়ান ’ বলা হয়— 

(A) তৃতীয় থুতমোসকে 

(B) দ্বিতীয় থুতমোসকে 

(C) চতুর্থ থুতমোসকে 

(D) প্রথম থুতমোসকে 

Ans: (A) তৃতীয় থুতমোসকে

  1. নুরজাহানের প্রকৃত নাম ছিল— 

(A) লাডলি বেগম 

(B) মেহেরুন্নিসা 

(C) অর্জুমন্দ বানু বেগম 

(D) নুর – এ – আলম 

Ans: (B) মেহেরুন্নিসা

  1. পতিত ক্ষত্রিয় বলা হয় – 

(A) চণ্ডালদের 

(B) রাজপুতদের 

(C) বহিরাগত কয়েকটি অনার্য জাতিকে 

(D) পঞ্চমগণকে 

Ans: (C) বহিরাগত কয়েকটি অনার্য জাতিকে

  1. ক্লিওপেট্রা আত্মহত্যা করেন— 

(A) সর্পাঘাতে 

(B) তরবারির আঘাতে 

(C) আগুনে ঝাপ দিয়ে 

(D) বিষপান করে 

Ans: (A) সর্পাঘাতে

  1. রানি দুর্গাবতী নিহত হন— 

(A) সদাশিবের যুদ্ধে 

(B) গন্ডোয়ানার যুদ্ধে 

(C) রাজমহলের যুদ্ধে

(D) নরের যুদ্ধে

Ans: (B) গন্ডোয়ানার যুদ্ধে

  1. দ্বিজ বলা হয়— 

(A) বৈশ্য ও শূদ্রদের 

(B) ব্রাহ্মণদের 

(C) ব্রাহ্মণ ও বৈশ্যদের 

(D) ক্ষত্রিয় ও বৈশ্যদের 

Ans: (B) ব্রাহ্মণদের

  1. ব্রাত্য শব্দটির অর্থ হলো— 

(A) জাতি 

(B) দল 

(C) নিষিদ্ধ 

(D) কোনোটিই নয়

Ans: (B) দল 

  1. তরাইনের দ্বিতীয় যুদ্ধ কবে হয় ?

(A) 1206 খ্রিস্টাব্দে 

(B) 1292 খ্রিস্টাব্দে 

(C) 1192 খ্রিস্টাব্দে 

(D) 1256 খ্রিস্টাব্দে 

Ans: (B) 1292 খ্রিস্টাব্দে

  1. স্পার্টায় শাসনকাঠামো ছিল— 

(A) প্রজাতান্ত্রিক 

(B) রাজতান্ত্রিক 

(C) গণতান্ত্রিক

(D) অভিজাততান্ত্রিক

Ans: (D) অভিজাততান্ত্রিক

  1. প্রাচীন ভারতে ব্রাত্য ও নিষাদ ছিল— 

(A) শূদ্রবর্ণের দু’টি শাখা 

(B) বৈদিক বর্ণপ্রথার অন্তর্ভুক্ত দু’টি জাতি 

(C) পঞ্চম শ্রেণির অন্তর্ভুক্ত 

(D) সমাজ বহির্ভূত দু’টি জাতি 

Ans: (C) পঞ্চম শ্রেণির অন্তর্ভুক্ত

  1. গ্রিক দূত মেগাস্থিনিস মৌর্য যুগে ভারতীয় সমাজে ক’টি জাতির উল্লেখ করেছেন ? 

(A) সাতটি 

(B) পাঁচটি 

(C) চারটি

(D) ছয়টি 

Ans: (A) সাতটি

অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর | একাদশ শ্রেণী ইতিহাস – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Class 11 History Question and Answer : 

  1. ক্রীতদাসপ্রথা গ্রিক সভ্যতার মৌলিক উপাদান ‘ — একথা কে বলেছেন ? 

Ans: ক্রীতদাসপ্রথা গ্রিক সভ্যতার মৌলিক উপাদান ’ – একথা বলেছেন ঐতিহাসিক অ্যান্ড্রুজ । 

  1. কাদের , কেন ‘ দ্বিজ ‘ বলা হয় ? 

Ans: ব্রাহ্মণদের দ্বিজ বলা হয় । একবার তারা মানুষ রূপে জন্মগ্রহণ করে , দ্বিতীয়বার তারা উপবীত ধারণ করে ব্রাহ্মণরূপে পরিচিতি লাভ করে । 

  1. চতুর্বর্ণের নামগুলি লেখো । 

Ans: চতুর্বণের নামগুলি হলো ব্রাহ্মণ ও ক্ষত্রিয় ও বৈশ্য ও শূদ্র ।

  1. সপ্তজাতিতত্ত্ব কী ?

Ans: গ্রিক দূত মেগাস্থিনিস ভারতে সাতটি জাতির অস্তিত্বের কথা উল্লেখ করেছেন । এই তত্ত্ব সপ্তজাতির তত্ত্ব নামে পরিচিত । 

  1. আর্যসমাজে পঞ্চম শ্রেণি কাদের বলা হয় ?

Ans: আর্যসমাজ ব্যবস্থায় চতুর্বর্ণের বাইরে মুচি , মেথর ও অন্যান্য নিম্ন পেশার মানুষকে পঞ্চম শ্রেণি বলা হয় । 

  1. অগ্নিকুলতত্ত্ব কে প্রচার করেন ?

Ans: কবি চাঁদ বরদাই ‘ পৃথ্বীরাজ রাসো ‘ গ্রন্থে ‘ অগ্নিকুলতত্ত্ব ’ প্রচার করেন । 

  1. ব্রক্মবাদিনী কাদের বলা হয় ? 

Ans: পরবর্তী বৈদিক যুগে যে সমস্ত নারী আজীবন অবিবাহিতা থেকে বিদ্যাচর্চা করতেন তাঁদের ব্রহ্মবাদিনী বলা হয় । 

  1. কোন সময়কে ভারতের ‘ রাজপুত যুগ ‘ বলা হয় ?

Ans: 712 খ্রিস্টাব্দ থেকে 1192 খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত সময়কালকে ‘ রাজপুত যুগ ‘ বলা হয় । 

  1. সদ্যোদ্বাহা কাদের বলা হয় ? 

Ans: পরবর্তী বৈদিক যুগে যে সমস্ত নারী বিবাহের পূর্ব পর্যন্ত বিদ্যাচর্চা করত তাদের সদ্যোদ্বাহা বলা হয় । 

  1. ধন কী ? 

Ans: প্রাচীন ভারতে নারীদের কিছু সম্পত্তি রাখার অধিকার ছিল । এই সম্পত্তিকে স্ত্রীধন বলা হয় । 

  1. গান্ধর্ব বিবাহ কী ? 

Ans: অভিভাবকের বিনা অনুমতিতে পাত্র – পাত্রী স্বেচ্ছায় বিবাহ করলে , এই বিবাহপ্রথাকে গান্ধর্ব বিবাহ বলে । 

  1. প্রথম মহিলা ফ্যারাও – এর নাম কী ? 

Ans: হ্যাটসেপসুট প্রথম মহিলা ফ্যারাও ছিলেন । 

  1. মেটিক কাদের বলা হয় ? 

Ans: প্রাচীন গ্রিসের এথেন্সে বসবাসকারী বিদেশিদের মেটিক বলা হয় । 

  1. রানি দুর্গাবতী কোন রাজ্যের রানি ছিলেন ?

Ans: রানি দুর্গাবতী গন্ডোয়ানা রাজ্যের রানি ছিলেন । 

  1. নেফারতিতি কে ছিলেন ? 

Ans: ফ্যারাও আখেনাটেনের পত্নী ও মিশরের মহিলা ফ্যারাও ছিলেন নেফারতিতি । 

  1. মিশরের টলেমি বংশের শেষ শাসক কে ছিলেন ? 

Ans: সপ্তম ক্লিওপেট্টা ছিলেন টলেমি বংশের শেষ শাসক । 

  1. থিটিস কাদের বলা হয় ? 

Ans: প্রাচীন এথেন্সের ক্রীতদাসদের বলা হয় থিটিস । 

  1. স্পার্টার স্বাধীন নাগরিকরা কী নামে পরিচিত ?

Ans: স্প্যাটিয়েট নামে পরিচিত ছিল । 

  1. মেটিক কাদের বলা হতো ? 

Ans: গ্রিক পলিস বা নগররাষ্ট্রে বসবাসকারী বিদেশিদের বলা হতো মেটিক । 

  1. গ্রিসের মধ্যে সর্বপ্রথম কোথায় দাসবাজার গড়ে উঠেছিল ?

Ans: কিওস নামক স্থানে । 

রচনাধর্মী প্রশ্নোত্তর | একাদশ শ্রেণী ইতিহাস – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Class 11 History Question and Answer : 

  1. মুঘল যুগে নুরজাহানের রাজনৈতিক পরিচয় ও কার্যাবলি বর্ণনা করো ।

Ans: সূচনা : নুরজাহান শব্দের অর্থ হলো জগতের আলো । মির্জা গিয়াস বেগের কন্যা নুরজাহানের প্রকৃত নাম ছিল মেহেরউন্নিসা । মুঘল রাজদরবারে নুরজাহান একসময় প্রধান নিয়ন্ত্রক শক্তিতে পরিণত হয়ে সমগ্র রাজতন্ত্রকে নিয়ন্ত্রণ করেছিলেন । 

নুরজাহানের পরিচয় ও কার্যাবলি : বর্ধমানের জায়গিরদার আলিকুলি বেগের স্ত্রী ছিলেন নুরজাহান । 1607 খ্রিস্টাব্দে আকবরের মৃত্যুর পর তাঁর পুত্র জাহাঙ্গির আলিকুলি বেগকে হত্যা করেন এবং 1611 খ্রিস্টাব্দে নুরজাহানকে বিবাহ করেন এবং স্ত্রীর মর্যাদা বা প্রধানা মহিষীর মর্যাদা দান করে । 

রাজনৈতিক সুযোগের সদ্ব্যবহার : 1611-27 খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত জাহাঙ্গিরের অসুস্থতার কারণে মুঘল রাজনৈতিক প্রশাসনে যে শূন্যতার সৃষ্টি হয়েছিল তার সব্যবহার করে নুরজাহান মুঘল প্রশাসনের প্রধানা হয়ে ওঠেন । 

নুরজাহানের রাজনৈতিক দক্ষতা : বহু গুণের অধিকারী নুরজাহান ছিলেন রাজনৈতিক ক্ষেত্রে কূটকৌশলী এবং দক্ষ ও বিচক্ষণ রাজনীতিবিদ । যেকোনো জটিল রাজনৈতিক সমস্যা তিনি সহজে সমাধান করতে পারতেন । 

নুরজাহান চক্র গঠন : মুঘল দরবারি প্রশাসন ও রাজনীতির সমস্ত ক্ষমতা নিজের হাতে নেওয়ার জন্য তিনি তাঁর পিতা গিয়াস বেগ , ভাই আসব খাঁ এবং যুবরাজ খুররমকে নিয়ে এক চক্র গঠন করেন যা নুরজাহান চক্র নামে পরিচিত । 

নুরজাহান চক্রের উদ্যোগ : নুরজাহান চক্রের একাধিপত্যে মুঘল সম্রাট জাহাঙ্গির নুরজাহানের হাতের পুতুলে পরিণত হন । অন্যদিকে নুরজাহান সিংহাসনের পশ্চাতের শক্তি হিসেবে সমস্ত শাসনক্ষমতা কুক্ষিগত করেন । সম্রাট নিজেই একসময় মন্তব্য করেন — এক পেয়ালা সুরার বিনিময়ে তিনি তাঁর রাজ্য প্রিয়তমা রানির কাছে বিক্রি করে দিয়েছেন । ড : নুরুল হাসান বলেছেন— “ নুরজাহান চক্র এর বাস্তব অস্তিত্ব সম্পর্কে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে । ” 

নুরজাহান চক্রের পরিণতি : নুরজাহান তাঁর প্রথম পক্ষের কন্যা লাডলি বেগমকে জাহাঙ্গিরের কনিষ্ঠ পুত্র শাহরিয়ার সাথে বিবাহ দিয়ে শাহরিয়াকে সিংহাসনে বসানোর পরিকল্পনা করেন । এরপর নুরজাহানকে ক্ষমতাচ্যুত করে খুররম দিল্লির সিংহাসনে বসলে নুরজাহানের রাজনৈতিক জীবনে যবনিকাপাত ঘটে । 

মূল্যায়ন : দীর্ঘদিন গৃহবন্দি অবস্থায় থাকার পর 1635 খ্রিস্টাব্দে নুরজাহানের মৃত্যু হয় । ড : আর.পি.ত্রিপাঠি বলেছেন যে নুরজাহান জাহাঙ্গিরের জীবনে কোনো অশুভ শক্তি হিসেবে দেখা দেননি । তিনি ছিলেন তাঁর রক্ষাকারী দেবদূতের মতোই । 

  1. বৈদিক যুগে বর্ণপ্রথার পরিচয় দাও । 

Ans: সূচনা : ভারতবর্ষে বর্ণপ্রথার দীর্ঘ ইতিহাসের সূচনা হয়েছিল প্রাচীন বৈদিক যুগে । এইসময়ে ভারতবর্ষে আর্য – অনার্য বিভেদ থেকেই বর্ণপ্রথার উৎপত্তি । বৈদিক যুগে ভারতবর্ষের উত্তর – পশ্চিম দিকে বসবাসকারী আর্যরা স্থানীয় অনার্যদের থেকে নিজেদের ব্যবধান স্পষ্ট করার ক্ষেত্রে এই ব্যবস্থা চালু করে । এই বর্ণপ্রথাই পরবর্তীকালে সামাজিক শ্রেণিবিন্যাস শুরু করে । 

বৈদিক যুগের বর্ণপ্রথা : 

কর্মভিত্তিক বর্ণব্যবস্থা : ঋগ্‌বেদে বর্ণবিভক্ত শ্রেণি – সমাজের কথা বলা হয়েছে যা কর্মের দ্বারা নির্ধারিত হয়েছে । ব্রাহ্মণদের কাজ ছিল যাগযজ্ঞ , পূজাপার্বণ করা এবং অধ্যাপনা করা ; ক্ষত্রিয়দের কাজ ছিল দেশরক্ষা করা । এছাড়া বৈশ্যদের কাজ ছিল ব্যাবসাবাণিজ্য , কৃষি ও পশুপালন করা এবং শূদ্রদের কাজ ছিল উপরের তিন শ্রেণির মানুষের সেবা করা । 

চতুর্বর্ণের উৎপত্তি : ঋগ্‌বেদের ‘ পুরুষ সূক্ত ’ – এ উল্লেখ করা হয়েছে ব্রহ্মার মুখ থেকে ব্রাহ্মণ , বাহু থেকে ক্ষত্রিয় , ঊরু থেকে বৈশ্য ও চরণযুগল থেকে শুদ্রের উৎপত্তি হয়েছে । 

চতুর্বর্ণের পরিচিতি : বর্ণবিভক্ত বৈদিক যুগে ব্রাহ্মণ , ক্ষত্রিয় , বৈশ্য ও শুদ্র নামে চারটি বর্ণের মানুষের বসবাস লক্ষ করা যায় । ‘ পুরুষ সুক্ত ‘ থেকে জানা যায় যে বৈদিক সমাজের সৃষ্টিকর্তা ব্রহ্মা নিজের দেহের বিভিন্ন অংশ থেকে এটি বর্ণের সৃষ্টি করেন । 

পঞ্চম শ্রেণির অস্তিত্ব : বৈদিক যুগে এটি বর্ণ ছাড়াও অস্পৃশ্য বহু মানুষ বসবাস করত । তারা মুচি , মেথর ও অন্যান্য নীচু কাজে নিয়োজিত থাকত । এই শ্রেণিকে অধ্যাপক শ্যামচরণ দুবে পঞ্চম শ্রেণি হিসেবে উল্লেখ করেছেন । 

বর্ণ থেকে জাতির উৎপত্তি : অধ্যাপক এ.এল.ব্যাসাম মনে করেন , বৈদিক যুগে বর্ণ বলতে জাতিকে বোঝানো হতো না । আসলে বর্ণ ও জাতি দু’টি পৃথক সত্ত্বা কিন্তু তা সত্ত্বেও বর্ণ ও জাতিপ্রথার মধ্যে একটি যোগসূত্র আছে । এছাড়া বর্ণপ্রথার উদ্ভবে জাতিপ্রথার যথেষ্ট গুরুত্ব রয়েছে বলে মনে করা হয় । 

বর্ণভিত্তিক কিন্তু মুক্ত সমাজ : ঐতিহাসিকদের মতে , বৈদিক যুগে কর্মের ভিত্তিতে সমাজ 4 টি ভাগে বিভক্ত ছিল । আর সেইসময় চতুর্বর্ণ ব্যবস্থায় উঁচু – নীচু ভেদাভেদ ছিল না । নিম্নবর্ণের কোনো ব্যক্তি তার যোগ্যতার প্রমাণ দিতে পারলে উঁচুবর্ণে স্থানান্তরিত হতে পারত । 

মন্তব্য : ঋগ্‌বৈদিক যুগের বর্ণপ্রথা থেকে পরবর্তী যুগে ভারতীয় সমাজে মিশ্র জাতির উদ্ভব হয় । ফলে বৈদিক সমাজে চতুর্বর্ণ প্রথার বিশুদ্ধতা পরবর্তী বিভিন্ন যুগে লোপ পায় এবং তা ক্রমশই জাতিগত সমন্বয়ের পথ প্রশস্ত করে । 

  1. প্রাচীন যুগে ভারতীয় সমাজে সম্পত্তিতে নারীর অধিকার সম্পর্কে আলোচনা করো । 

অথবা , প্রাচীন যুগে স্ত্রীধনের পরিচয় দাও । 

Ans: সূচনা : হরপ্পা – পরবর্তী প্রাচীন ঋগ্‌বৈদিক যুগের সমাজ ব্যবস্থা ছিল পিতৃতান্ত্রিক । এই পিতৃতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থায় নারীদের পিতার সম্পত্তিতে অধিকার ছিল । এই সম্পত্তির ওপর নারীদের অধিকারের বিষয়টি স্ত্রীধন নামে পরিচিত ছিল । 

সম্পত্তিতে নারীর অধিকার : প্রাচীন যুগে নারীর সম্পত্তি বলতে মূলত বোঝাত বিভিন্ন অলংকার এবং তাদের পোশাকপরিচ্ছদ । নারী তার এই সম্পত্তি দান বা বিক্রি করার সম্পূর্ণ স্বাধীনতা ভোগ করত । নারীর এই স্বাধীনতার বিষয় জানবার প্রধান সূত্রগুলি ছিল— 

কাত্যায়নস্মৃতি : মনুস্মৃতিতে উল্লেখ করা স্ত্রীধন ছাড়াও কাত্যায়নস্মৃতি থেকে জানা যায় , কুমারী অবস্থায় প্রাপ্ত উপহার ও কন্যার উপর ধার্যমূল্য বা শুল্ক সম্পর্কে । 

মনুস্মৃতি : মনুস্মৃতিতে বিভিন্ন স্ত্রীধনের উল্লেখ রয়েছে , যেমন— অর্ধাগ্নি , প্রীতিদত্ত , পিতৃদত্ত , মাতৃদত্ত , ভ্রাতৃদত্ত । বিবাহকালে অগ্নিকে সাক্ষী রেখে প্রদত্ত সম্পদকে অর্ধাগ্নি বলা হয় । আবার প্রীতিদত্ত বলতে আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুবান্ধবদের প্রীতিদানকে বোঝানো হয় ৷ 

অর্থনৈতিক অধিকার : মনুস্মৃতি ও অন্যান্য স্মৃতিশাস্ত্রে শাস্ত্রকারেরা নারীকে বাল্যকালে পিতার , যৌবনে স্বামী ও বার্ধক্যে পুত্রের অধীনে থাকার বিধান দিয়েছেন অর্থাৎ এইরূপ অবস্থায় নারীর অর্থনৈতিক ক্ষমতাভোগের বিষয়টি স্বভাবতই ছিল কল্পনাতীত । 

অধিকারের সীমাবদ্ধতা : প্রাচীন যুগে সম্পত্তির উপর নারীর অধিকারের ক্ষেত্রে কিছু কিছু সীমাবদ্ধতাও লক্ষ করা যায় । যেমন — অর্থশাস্ত্রে বলা হয়েছে যে বিবাহিত নারী 2 হাজার পণ পর্যন্ত নিজের অধীনে রাখার অধিকারী , তার বেশি নয় । আবার পারিবারিক সম্পত্তিতে নারীর কোনো অধিকার মেনে নেওয়া হয়নি। 

স্ত্রীধনের উত্তরাধিকার : যাজ্ঞবল্ক্য লিখেছেন যে স্ত্রীধনের উপর পিতা , স্বামী বা পুত্রের কোনো অধিকার ছিল না । নারদস্মৃতিতে উল্লেখ রয়েছে , কোনো নারীর মৃত্যুর পর তার মেয়েরা মায়ের সম্পত্তির অধিকারিণী হবেন । 

স্বামীর ভূমিকা : স্ত্রী নিজের সম্পত্তি যথেচ্ছভাবে দান করতে চাইলে স্বামী সে ক্ষেত্রে বাধা দিতে পারত । এই রীতিও প্রাচীন ভারতে প্রচলিত ছিল । স্ত্রীর কাছে দু’হাজার পণের বেশি অর্থ সঞ্চিত হয়ে গেলে অতিরিক্ত অর্থ স্ত্রীর হয়ে স্বামী রাখত । 

মূল্যায়ন : প্রাচীন ভারতীয় সমাজে সম্পত্তিতে নারীর অধিকার সম্পর্কে যতটা বলা হয়েছে তা বাস্তবে কতটা প্রযোজ্য ছিল সেক্ষেত্রে সন্দেহের অবকাশ আছে । ড : ব্যাসামের মতে , সম্পত্তিতে নারীর অধিকার সংকুচিত হলেও অন্যান্য সভ্যতার তুলনায় ভারতীয় নারীর এই অধিকার অনেকটাই বেশি ছিল । 

  1. প্রাচীন ভারতে নারীশিক্ষা সম্পর্কে বিবরণ দাও ।

Ans: সূচনা : প্রাচীন ভারতীয় সভ্যতায় বা তার পরবর্তী সময়ে নারীদের সামাজিক মর্যাদা সময়ের সাথে সাথে পরিবর্তিত হয়েছে । এসময় নারীশিক্ষার সূচনা হলেও তার বিকাশ ঘটতে লেগেছিল সুদীর্ঘ সময় । নারীশিক্ষা সম্বন্ধে বৈদিক যুগ ও পরবর্তী সময়ের কিছু তথ্য পাওয়া গিয়েছে । 

বৈদিক যুগে নারীশিক্ষা : ঋগ্‌বৈদিক যুগে ভারতীয় নারীদের মধ্যে শিক্ষাবিস্তারের সূচনা হয়েছিল । কারণ এইসময়ে সমাজ পুরুষতান্ত্রিক হলেও নারীরা স্বাধীন ছিল , তবে স্বেচ্ছাচারী ছিল না । এইসময়ে নারীশিক্ষা বলতে ধর্মীয় শিক্ষা , নীতিশিক্ষা , ও ব্যক্তিত্বের বিকাশ সংক্রান্ত শিক্ষাকেই বোঝানো হয়ে থাকে । শিক্ষিত নারীদের সম্পর্কেও এই যুগে উল্লেখ রয়েছে । এইসময়ের উল্লেখযোগ্য নারীদের মধ্যে ছিলেন ঘোষা , অপালা , লোপামুদ্রা , বিশাখা , বিশ্ববারা । তারা বৈদিক মন্ত্র রচনা ও বিভিন্ন স্তোত্র পাঠের সাথে যুক্ত ছিলেন । 

পরবর্তী বৈদিক যুগে নারীশিক্ষা : পরবর্তী বৈদিক যুগে যদিও নারীদের সামাজিক মর্যাদা বহুলাংশে হ্রাস পেয়েছিল , তা সত্ত্বেও বলা যায় এইসময়ে নারীরা উচ্চশিক্ষায় অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছিল । এইসময়ের নারীরা বিদ্যাচর্চায় আগ্রহী ছিল । যারা বিবাহের পূর্ব পর্যন্ত বিদ্যাচর্চা করত তারা যজোদ্বাহা নামে পরিচিত এবং যেসকল নারী সারাজীবন বিদ্যাচর্চা করে , ধর্মীয় শাস্ত্র পাঠ করে কাটিয়ে দিত তারা ব্রহ্মবাদিনী নামে পরিচিত ছিল । পরবর্তী বৈদিক যুগের সর্বাপেক্ষা বিখ্যাত নারী ছিলেন গার্গী ও মৈত্রী । 

মৌর্যযুগে নারীশিক্ষা : খ্রিস্টপূর্ব ষোড়শ শতক ও তার পরবর্তী সময়েও নারীরা শিক্ষায় যথেষ্ট আগ্রহী ছিল । বিশেষ করে মৌর্যযুগের নারীরা শিক্ষার ক্ষেত্রে যথেষ্ট আগ্রহী ছিল । অর্থশাস্ত্র মতে মৌর্যযুগে অভিজাত পরিবারের মহিলারা শিক্ষাগ্রহণ করলেও তাদের মধ্যে পর্দাপ্রথা ছিল । সমকালীন বিভিন্ন তথ্য থেকে জানা যায় – এইসময়ের নারীরা সংগীত রচনার ক্ষেত্রেও পারদর্শী ছিল । 

মৌর্য – পরবর্তী যুগে নারীশিক্ষা : মৌর্য – পরবর্তী প্রাচীন যুগের নারীরাও শিক্ষার ক্ষেত্রে যথেষ্ট আগ্রহী ছিল । জৈনশাস্ত্র থেকে জানা যায় যে কৌশাম্বীর রাজকন্যা জয়ন্তী আজীবন অবিবাহিতা থেকে বিদ্যাচর্চা করেছিলেন । জনৈক মহিলা কবি চোল রাজাদের যুদ্ধজয়কে কেন্দ্র করে উৎকৃষ্ট সাহিত্য রচনা করেছেন । এইসময়ের বহু নারী বৈদিক স্তোত্র ও সংস্কৃত কাব্য রচনা , নাটক রচনা করতেন । 

গুপ্তযুগে নারীশিক্ষা : সমকালীন গুপ্ত সাহিত্য থেকে জানা যায় যে গুপ্তযুগে নারীরা বিশেষ করে আশ্রমবাসিনীরা ইতিহাস ও কাব্যচর্চা করত । এইসময়ের নারীরা ছিল তীক্ষ্ণবুদ্ধিসম্পন্না । জানা যায়- সাংসারিক আয় – ব্যয়ের হিসাব রক্ষার কাজে সমকালীন নারীরা পারদর্শিনী হবার জন্য শিক্ষাগ্রহণে ব্রতী ছিলেন । 

গুপ্তযুগ – পরবর্তী নারীশিক্ষা : গুপ্তযুগ – পরবর্তী সময়েও নারীশিক্ষার প্রচলন বৃদ্ধি পেয়েছিল । হর্ষবর্ধনের বোন রাজ্যশ্রী নিয়মিত সংগীত , নৃত্য ও অন্যান্য সাহিত্যচর্চা করতেন বলে বাণভট্ট উল্লেখ করেছেন । 

মন্তব্য : ঋগ্‌বৈদিক যুগ থেকে শুরু করে পুরো প্রাচীন যুগ পর্যন্ত নারী সম্প্রদায় শিক্ষায় আগ্রহী ছিল । তবে শিক্ষার ক্ষেত্রে সমকালীন সমাজের উচ্চবিত্ত শ্রেণির নারীদের আগ্রহই অধিক ছিল । 5. সমাজব্যবস্থায় প্রাচীন ভারতীয় নারীদের অবস্থান মূল্যায়ন করো । 

Ans: সূচনা : প্রাচীন ভারতীয় হরপ্পা সভ্যতায় ছিল মাতৃতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থা । পরবর্তীতে ভারতে পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থার প্রচলন থাকলেও সমাজে নারীদের প্রাধান্যও কোনো অংশে কম ছিল না । পারিবারিক জীবন , রাজনৈতিক জীবন এমনকী ধর্মীয় বিষয়ে নারীদের যথেষ্ট মর্যাদা প্রদান করা হতো । সমকালীন সমাজ ব্যবস্থা ছিল পরিবারতান্ত্রিক । এই পরিবারতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থায় অনন্য ভূমিকা নিতেন পরিবারের নারীরা । সমকালীন ভারতের নারীরা কৃষি , বস্ত্রবয়ন ও বিভিন্ন শিল্পকর্মের সাথে যুক্ত হয়ে অনন্য অবদান রেখেছে । 

হরপ্পা সভ্যতায় নারীর স্থান : হরপ্পা সভ্যতায় মাতৃতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থার প্রচলন ছিল । অর্থাৎ সমাজে নারীদের কর্তৃত্ব ও মর্যাদা ছিল সর্বাধিক । এইসময়ে মাতৃদেবীর উপাসনাও করা হতো । সুতরাং একথা বলা যেতেই পারে , নারীরা ছিল সভ্যতার অন্যতম অংশ । 

বৈদিক সভ্যতায় নারীর স্থান : প্রাচীন ভারতে বৈদিক যুগে নারীর সামাজিক অবস্থানের কিছুটা পরিবর্তন হয়েছিল , কারণ এই সভ্যতা ছিল পুরুষতান্ত্রিক । তবে নারীদের মর্যাদা খুব একটা কমে যায়নি । এই সভ্যতায় নারীরা স্বাধীন হলেও স্বেচ্ছাচারী ছিল না । এইসময়ে নারীদের উপনয়ন হতো , তাদের বেদপাঠের অধিকার ছিল । এছাড়া তারা বৈদিক মন্ত্র রচনার সাথেও যুক্ত ছিল । এই যুগের বিখ্যাত নারীরা ছিলেন ঘোষা , অপালা , বিশ্ববারা , শাশ্বতী প্রমুখ । 

পরবর্তী বৈদিক যুগে নারীর স্থান : পরবর্তী বৈদিক যুগে প্রাচীন ভারতে নারীদের সামাজিক অবস্থানের ক্ষেত্রে কিছুটা পরিবর্তন ঘটে । এইসময়ে নারীদের মর্যাদার অবনতি ঘটে । নারীরা বেদপাঠ ও উপনয়নের অধিকার থেকে বঞ্চিত হয় । বিভিন্ন নারীকেন্দ্রিক কুসংস্কার , রীতিনীতি মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে । এইসময়ে সমাজ সম্পূর্ণ পুরুষতান্ত্রিক হয়ে ওঠে । 

খ্রিস্টপূর্ব ষষ্ঠ শতকে নারীর স্থান : খ্রিস্টপূর্ব ষষ্ঠ শতকে বিশেষ করে প্রতিবাদী ধর্মীয় আন্দোলনের সময়ে নারীদের সামাজিক অবস্থানের অবনতি ঘটে । এইসময় বৌদ্ধ মঠ ও সংঘগুলিতে নারীদের কঠোর অনুশাসনের মধ্যে দিয়ে জীবন কাটাতে হতো । 

মৌর্যযুগে নারীর স্থান : মৌর্যযুগে নারীর সামাজিক অবস্থান সম্পর্কে কৌটিল্যের অর্থশাস্ত্রে বলা হয়েছে — এইসময়ে সমাজের উচ্চবর্ণের নারীদের ক্ষেত্রে যেসব বাধানিষেধ আরোপ করা হয়েছিল তা নিম্নবর্ণের নারীদের উপর আরোপ করা হয়নি । এইসময়ে সমাজে নারীর থেকে পুরুষদের আধিপত্য ও স্বীকৃতি অধিক ছিল । 

গুপ্তযুগে নারীর স্থান : গুপ্তযুগে নারীদের সামাজিক মানদণ্ড আরও নিম্নবর্তী ছিল । এইসময়ে সমাজে ব্রাহ্মণ্য শ্রেণির প্রাধান্য প্রতিষ্ঠিত হয় । তারা নারীদের সামাজিক ক্ষেত্রে মর্যাদাহীন করে তোলে । রাজপরিবারের নারী বাদ দিয়ে অন্য শ্রেণির নারীদের সামাজিক মান – মর্যাদা ছিল সামান্য । গুপ্তযুগের শেষলগ্নে গণিকাবৃত্তির ও দেবদাসীপ্রথার ব্যাপক প্রচলন হয় এবং সতীদাহপ্রথার ব্যাপক প্রসার ঘটে । 

গুপ্ত – পরবর্তী দক্ষিণ ভারতে নারীর অবস্থা : প্রাচীন সমাজে উত্তর ভারতের ন্যায় দক্ষিণ ভারতেও যে নারীর মর্যাদা ও অধিকার কম ছিল তা নয় , বরং যথেষ্ট মর্যদার আসনে অধিষ্ঠিত ছিল দক্ষিণ ভারতীয় নারীরা । তামিল সাহিত্য থেকে জানা যায় , দক্ষিণ ভারতের নারীরা স্বাধীনভাবে পুরুষের সঙ্গে মেলামেশা করত । 

মন্তব্য : উপরিউক্ত আলোচনায় স্পষ্ট যে প্রাচীন ভারতের সর্বত্র নারীর সামাজিক অধিকার সমান ছিল না — কোথাও কম ও কোথাও বেশি ছিল । তবে নারীর সামাজিক মর্যাদা সময়ের সাথে সাথে পরিবর্তিত হয়েছে।

 একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর – West Bengal Class 11 Class 11th History Question and Answer / Suggestion / Notes Book

আরোও কিছু প্রশ্ন ও উত্তর দেখুন :-

একাদশ শ্রেণী ইতিহাস সমস্ত অধ্যায়ের প্রশ্নউত্তর Click Here

Class 11 Suggestion 2022 | একাদশ শ্রেণীর সাজেশন ২০২২

আরোও দেখুন:-

Class 11 Bengali Suggestion 2022 Click here

আরোও দেখুন:-

Class 11 English Suggestion 2022 Click here

আরোও দেখুন:-

Class 11 Geography Suggestion 2022 Click here

আরোও দেখুন:-

Class 11 History Suggestion 2022 Click here

আরোও দেখুন:-

Class 11 Political Science Suggestion 2022 Click Here

আরোও দেখুন:-

Class 11 Education Suggestion 2022 Click here

Info : West Bengal Class 11 History Qustion and Answer | WBCHSE Higher Secondary Eleven XI (Class 11th) History Suggestion 

একাদশ শ্রেণী ইতিহাস সাজেশন – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর   

” একাদশ শ্রেণী ইতিহাস –  সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) – প্রশ্ন উত্তর  “ একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ টপিক একাদশ শ্রেণী পরীক্ষা (West Bengal Class Eleven XI  / WB Class 11  / WBCHSE / Class 11  Exam / West Bengal Board of Secondary Education – WB Class 11 Exam / Class 11 Class 11th / WB Class 11 / Class 11 Pariksha  ) এখান থেকে প্রশ্ন অবশ্যম্ভাবী । সে কথা মাথায় রেখে Bhugol Shiksha .com এর পক্ষ থেকে একাদশ শ্রেণী ইতিহাস পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক সাজেশন এবং প্রশ্ন ও উত্তর ( একাদশ শ্রেণী ইতিহাস সাজেশন / একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ও উত্তর । Class 11 History Suggestion / Class 11 History Question and Answer / Class 11 History Suggestion / Class 11 Pariksha History Suggestion  / History Class 11 Exam Guide  / MCQ , Short , Descriptive  Type Question and Answer  / Class 11 History Suggestion  FREE PDF Download) উপস্থাপনের প্রচেষ্টা করা হলাে। ছাত্রছাত্রী, পরীক্ষার্থীদের উপকারেলাগলে, আমাদের প্রয়াস একাদশ শ্রেণী ইতিহাস পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক সাজেশন এবং প্রশ্ন ও উত্তর (Class 11 History Suggestion / West Bengal Eleven XI Question and Answer, Suggestion / WBCHSE Class 11th History Suggestion  / Class 11 History Question and Answer  / Class 11 History Suggestion  / Class 11 Pariksha Suggestion  / Class 11 History Exam Guide  / Class 11 History Suggestion 2022, 2023, 2024, 2025, 2026, 2027, 2028, 2029, 2030, 2021, 2020, 2019, 2017, 2016, 2015 / Class 11 History Suggestion  MCQ , Short , Descriptive  Type Question and Answer. / Class 11 History Suggestion  FREE PDF Download) সফল হবে।

সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর  

সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) – প্রশ্ন ও উত্তর | সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) Class 11 History Question and Answer Suggestion  একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর  – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর।

সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) MCQ প্রশ্ন ও উত্তর | একাদশ শ্রেণী ইতিহাস 

সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) MCQ প্রশ্ন ও উত্তর | সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) Class 11 History Question and Answer Suggestion  একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর  – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) MCQ প্রশ্ন উত্তর।

সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) SAQ সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর | একাদশ শ্রেণির ইতিহাস 

সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) SAQ সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর | সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) Class 11 History Question and Answer Suggestion  একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর  – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) SAQ সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন উত্তর।

একাদশ শ্রেণি ইতিহাস  – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) MCQ প্রশ্ন উত্তর | Higher Secondary History  

একাদশ শ্রেণী ইতিহাস (Higher Secondary History) – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) – প্রশ্ন ও উত্তর | সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) | Higher Secondary History Suggestion  একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর  – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) প্রশ্ন উত্তর।

একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর  | একাদশ শ্রেণির ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর  – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) প্রশ্ন উত্তর | Class 11 History Question and Answer Question and Answer, Suggestion 

একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) | একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) | পশ্চিমবঙ্গ একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) | একাদশ শ্রেণী ইতিহাস সহায়ক – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) – প্রশ্ন ও উত্তর । Class 11 History Question and Answer, Suggestion | Class 11 History Question and Answer Suggestion  | Class 11 History Question and Answer Notes  | West Bengal Class 11 Class 11th History Question and Answer Suggestion. 

একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর   – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) MCQ প্রশ্ন উত্তর | WBCHSE Class 11 History Question and Answer, Suggestion 

একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর  – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) প্রশ্ন উত্তর প্রশ্ন ও উত্তর  | সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) । Class 11 History Suggestion.

WBCHSE Class 11th History Suggestion  | একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর   – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়)

WBCHSE Class 11 History Suggestion একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর  – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) প্রশ্ন উত্তর প্রশ্ন ও উত্তর  । সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) | Class 11 History Suggestion  একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) – প্রশ্ন উত্তর প্রশ্ন ও উত্তর ।

Class 11 History Question and Answer Suggestions  | একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) | একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর 

Class 11 History Question and Answer  একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর  Class 11 History Question and Answer একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর  প্রশ্ন ও উত্তর – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) MCQ, সংক্ষিপ্ত, রোচনাধর্মী প্রশ্ন ও উত্তর  । 

WB Class 11 History Suggestion  | একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর   – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) MCQ প্রশ্ন উত্তর প্রশ্ন ও উত্তর 

Class 11 History Question and Answer Suggestion একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) MCQ প্রশ্ন ও উত্তর । Class 11 History Question and Answer Suggestion  একাদশ শ্রেণী ইতিহাস প্রশ্ন ও উত্তর।

West Bengal Class 11  History Suggestion  Download WBCHSE Class 11th History short question suggestion  . Class 11 History Suggestion   download Class 11th Question Paper  History. WB Class 11  History suggestion and important question and answer. Class 11 Suggestion pdf.পশ্চিমবঙ্গ একাদশ শ্রেণির ইতিহাস পরীক্ষার সম্ভাব্য সাজেশন ও শেষ মুহূর্তের প্রশ্ন ও উত্তর ডাউনলোড। একাদশ শ্রেণী ইতিহাস পরীক্ষার জন্য সমস্ত রকম গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন ও উত্তর।

Get the Class 11 History Question and Answer Question and Answer by Bhugol Shiksha .com

Class 11 History Question and Answer Question and Answer prepared by expert subject teachers. WB Class 11  History Suggestion with 100% Common in the Examination .

Class Eleven XI History Suggestion | West Bengal Board WBCHSE Class 11 Exam 

Class 11 History Question and Answer, Suggestion Download PDF: WBCHSE Class 11 Eleven XI History Suggestion  is provided here. Class 11 History Question and Answer Suggestion Questions Answers PDF Download Link in Free has been given below. 

একাদশ শ্রেণী ইতিহাস – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Class 11 History Question and Answer 

        অসংখ্য ধন্যবাদ সময় করে আমাদের এই ” একাদশ শ্রেণী ইতিহাস – সামাজিক ঘটনাস্রোত (ষষ্ঠ অধ্যায়) প্রশ্ন ও উত্তর | Class 11 History Question and Answer  ” পােস্টটি পড়ার জন্য। এই ভাবেই Bhugol Shiksha ওয়েবসাইটের পাশে থাকো যেকোনো প্ৰশ্ন উত্তর জানতে এই ওয়েবসাইট টি ফলাে করো এবং নিজেকে  তথ্য সমৃদ্ধ করে তোলো , ধন্যবাদ।

Subscribe Our YouTube Channel

Join Our Telegram Channel

E-mail Subscription