ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জীবনী – Florence Nightingale Biography in Bengali

4
ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জীবনী - Florence Nightingale Biography in Bengali
ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জীবনী - Florence Nightingale Biography in Bengali

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জীবনী

Florence Nightingale Biography in Bengali

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জীবনী – Florence Nightingale Biography in Bengali : মহীয়সী ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল বিশের আর্তমানবতার সেবায় জীবন উৎসর্গকারী সেবা ধর্মের মাতৃস্বরাপা মহীয়সী নারী হিসাবে যিনি অমরত্বের আসনে আসীন হয়ে আছেন তিনি হলেন ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল । 

ছোটবেলা থেকে ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale) এর স্বপ্ন ছিল নার্স হওয়া। কিন্তু তখনকার সময়ে নার্সিংকে সম্মানের চোখে দেখা হতো না। এছাড়া ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale) এর পিতা-মাতা চাননি ফ্লোরেন্স নার্স হোক। তাই ফ্লোরেন্সকে বাড়ি থেকে বের হয়ে যেতে বাধ্য হয়। কেননা ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale) এর নিজ বাড়িতে তার স্বপ্নটি পূরণ করা সম্ভব ছিলনা।

 সেবা ধর্মে মাতৃ স্বরূপা ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর একটি সংক্ষিপ্ত জীবনী । ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জীবনী – Florence Nightingale Biography in Bengali বা ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর আত্মজীবনী বা (Florence Nightingale Jivani Bangla. A short biography of Florence Nightingale. Florence Nightingale Birth, Place, Life Story, Life History, Biography in Bengali) ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জীবন রচনা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল কে ছিলেন ? Who is Florence Nightingale ?

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale) ছিলেন আধুনিক নার্সিং সেবার অগ্রদূত, একজন লেখক এবং পরিসংখ্যানবিদ। যিনি দ্যা লেডি ইউথ দ্যা ল্যাম্প নামে পরিচিত ছিলেন। বাবা উইলিয়াম এডওয়ার্ড নাইটিঙ্গেল এবং মা ফ্রান্সিস নাইটিঙ্গেলের অভিজাত পরিবারে ১৮২০ সালের ১২ মে মাসে ইতালির ফ্লোরেন্সে জন্মগ্রহণ করেন ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale)

সেবা ধর্মের মাতৃ স্বরূপা ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জীবনী – Florence Nightingale Biography in Bengali :

নাম (Name) ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale)
জন্ম (Birthday) ১২ মে ১৮২০ (12th May 1820)
জন্মস্থান (Birthplace) ফ্লোরেন্স, 
অভিভাবক (Parents)/পিতামাতা (বাবা) উইলিয়াম এডওয়ার্ড নাইটিঙ্গেল 

এবং (মা) ফ্রান্সিস নাইটিঙ্গেল 

পরিচিতির কারণ Pioneering modern nursing
উল্লেখযোগ্য পুরস্কার Royal Red Cross (1883) 

Lady of Grace of the Order of St John (LGStJ) 

Order of Merit (1907)

মৃত্যু (Death) ১৩ আগস্ট ১৯১০ (13th August 1910)

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জন্ম – Florence Nightingale Birthday :

 ইটালীর ফ্লোরেন্স শহরে এক বিত্তশালী ইংরেজ পরিবারে ১৮২০ খ্রি : ১২ ই মে জন্ম ফ্লোরেন্সে । ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale) এর পিতামাতা জন্ম স্থানের নাম অনুসারে কন্যার নাম রেখেছিলেন ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল । Lady with the Lamp বা দীপ হাতে রমনী তারই প্রতীকী নাম । 

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর কর্মজীবন – Florence Nightingale Work Life :

 ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale) বহু হাসপাতালে এবং নার্সিং হােমে যাবার এবং রােগীদের সেবা ও চিকিৎসা পদ্ধতি দেখার সুযােগ পেয়েছিলেন । এইসব হাসপাতালে ব্যাধিগ্রস্ত যন্ত্রণাকাতর মানুষের দুঃখ – কষ্ট , আতবেদন দেখেছেন । দেখেছেন অনেক অসহায় মৃত্যু । এইসব দেখে দেখেই তার প্রাণে আর্ত মানবতার প্রতি সৃষ্টি হয় গভীর মমত্ববােধ , সহানুভূতি আর সমবেদনা । ব্যথিত ব্যাধিজরিত মানুষের জন্য কেঁদে উঠতাে তার কোমল হৃদয় । আর তখন থেকেই ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale) মানবতার সেবায় সেবিকাবৃত্তি গ্রহণের জন্য উৎসাহিত ও মানসিকভাবে তৈরি হতে থাকেন ।

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর শিক্ষাজীবন – Florence Nightingale Education Life :

 ফ্লোরেন্সের যখন ১৭ বছর বয়স , তখন উচ্চশিক্ষা লাভের জন্য তাকে পাঠানোে হল লন্ডন শহরে । কিন্তু গতানুগতিক শিক্ষার প্রতি কোন আকর্ষণ ছিল না তার । সেবাকেই জীবনের ব্রত হিসেবে গ্রহণ করবেন এই ছিল তার অভিলাষ । 

[আরও দেখুন, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর জীবনী – Rabindranath Tagore Biography in Bengali]

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর হাসপাতালে নার্স হিসেবে যোগদান ও কর্মজীবন : 

 ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল ১৮৫৩ সালে প্রথম প্যারিসের এক মিশনারী হাসপাতালে নার্স হিসাবে যােগদান করেন । প্রথমে পরিবার থেকে বাধা এসেছিলাে , কিন্তু সব বাধা উপেক্ষা করে তিনি নার্সের চাকরি গ্রহণ করলেন । এই হাসপাতালে ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale) তার অসাধারণ নিষ্ঠা , শ্রম ও সেবার মনােবৃত্তি দিয়ে অল্প সময়ে সবাইকে বিস্মিত চমৎকৃত করে দিলেন । এরপর নাইটিঙ্গেল লন্ডনের হারল স্ট্রটের এক হাসপাতালে । যােগদান করেন সুপারিনটেনডেন্ট হিসাবে ।

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল ক্রিমিয়ার যুদ্ধে সৈনিক দের চিকিৎসা :

 ১৮৫৩ সালেই শুরু হয় ক্রিমিয়ার যুদ্ধ । ব্রিটিশ সৈন্য অবতরণ করে ক্রিমিয়াতে । কিন্তু সেখানে যুদ্ধে আহত পঙ্গু সৈনিকদের কোনাে চিকিৎসা সুবিধা না থাকায় আহত সৈনিকদের মাঝে নেমে আসে অবর্ণনীয় দুঃখ – দুর্দশা । কষ্ট – যন্ত্রণা ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল সেবার ব্রত নিয়ে এগিয়ে এলেন । 

 প্রথমে সরকার তাকে অনুমতি দিতে চায়নি । কেননা তখন নারীদের এমন স্বাধীনতা ছিলাে না । কিন্তু নাইটিঙ্গেলের অপরিসীম আগ্রহের কারণে শেষমেশ সরকারকেপ্রিমিয়ার যুদ্ধক্ষেত্রে যাওয়ার অনুমতি দিতে বাধ্য হয় । 

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর আহত সৈনিকদের সেবা – Florence Nightingale Halp Injured Soldiers :

 যুদ্ধক্ষেত্রে এসে নাইটিঙ্গেল লক্ষ্য করলেন সর্বত্র অব্যবস্থা । খুবই নােংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে অবস্থিত হাসপাতালটি । নাইটিঙ্গেল ক্রিমিয়াতে পৌঁছেই হাসপাতাল নামধারী ব্যারাকটিকে একটি পরিপূর্ণ । আধুনিক হাসপাতালে রূপান্তরিত করার চেষ্টা করলেন । নাইটিঙ্গেল তার সঙ্গিনীদের নিয়ে আহত অসহায় সৈনিকদের সেবায় সর্বাত্মকভাবে আত্মনিয়ােগ করলেন । মা ও বােনের ভূমিকা ও দাবি নিয়ে তিনি দাঁড়ালেন আহত , পঙ্গু , যন্ত্রণাকাতর ও ক্ষুধার্ত সৈনিকদের পাশে।

 ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale) এর আহত রক্তাক্ত সৈনিকদের নােংরা রক্তাক্ত পরিধেয় পােশাক ধােলাই করার জন্য নিজেই একটি লীগ স্থাপন করলেন । কাপড় বােয়ার কাজে নিয়ােগ করলেন আহত সৈনিকদের স্ত্রীগণকে ।

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর ‘ লেডি উইথ দ্য ল্যাম্প ’ উপাধি – Florence Nightingale ‘Lady With The Lamp’ Title :

 ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল হাসপাতালের সেবাকর্মের ও কর্মপদ্ধতির আমূল পরিবর্তন আনলেন । নাইটিঙ্গেল আহত সৈনিকদের অবস্থা স্বচক্ষে দেখার জন্য প্রতি রাতে আলাে হাতে ঘুরে বেড়াতে লাগলেন আহত সৈনিকদের শয্যার পাশে । ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale) পরম স্নেহে ও মমতায় তাদের সেবাশুশ্রুষা করতে লাগলেন । নিতে লাগলেন সবার কুশলাদি । তিনি তার সেবাশুশ্রুষা ও মমতা দ্বারা সকল আহত সৈনিকদের এতােটা শ্রদ্ধা অর্জন করেছিলেন যে , ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale) যখন আলাে হাতে শয্যার পাশ । দিয়ে হেঁটে যেতেন , তখন শয্যায় যে ছায়া পড়তাে , সৈনিকগণ পরম । শ্রদ্ধায় সেই ছায়ায় চুম্বন করতেন । তারা তাকে ‘ লেডি উইথ দ্য ল্যাম্প ’ উপাধিতে ভূষিত করে ।

 ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল মানবতার সেবায় নিজেকে এমনভাবে আত্মনিয়ােগ করেছিলেন যে , তিনি দিনে রাতে প্রায় ২০ ঘন্টা পরিশ্রম করতেন তার সেবা – শশ্রুষায় , সান্ত্বনায় – মমতায় আহত পঙ্গু সৈনিকরা আশা ও জীবনের প্রতি মমত্ববােধ ফিরে পেতাে । 

 ১৮৫৬ সালে এক শান্তি চুক্তির ফলে ক্রিমিয়ার যুদ্ধ শেষ হলে নাইটিঙ্গেল ইংল্যান্ডে ফিরে আসেন ।

[আরও দেখুন, ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর জীবনী – Ishwar Chandra Vidyasagar Biography in Bengali]

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর নার্সিং স্কুল প্রতিষ্ঠা : Florence Nightingale Establish Nursing School :

 ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale) এর আশা ছিলাে তিনি একটি নার্সিং স্কুল প্রতিষ্ঠা করবেন । এজন্যে তিনি ৪০ হাজার পাউন্ডও সংগ্রহ করেছিলেন । কিন্তু আকস্মিকভাবে তিনি প্যারালাইসিস – এ পঙ্গু হয়ে পড়েন । 

 নাইটিঙ্গেল নব্বই বছর বেঁচেছিলেন । কিন্তু ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale) এর জীবনের অর্ধাংশেরও বেশি সময় কেটেছে পঙ্গু অবস্থায় । তবু পঙ্গু অবস্থাতেও বিছানায় শুয়ে শুয়ে চালিয়ে গেছেন তার সেবার কাজ ।

 তার আন্তরিক চেষ্টায় অসুস্থ অবস্থাতেও ১৮৬৯ সালে লন্ডনের । সেন্ট টমাস হাসপাতালে স্থাপিত হয় নার্স ট্রেনিং স্কুল । 

 তারই অনুপ্রেরনায় দেশে – বিদেশে গড়ে উঠেছে নার্সিং আন্দোলন , প্রতিষ্ঠিত হয়েছে নার্সিং স্কুল । অবহেলিত সেবাবৃত্তি হয়ে উঠেছে । সম্মানের ও আদরণীয় পেশা । নূতন যুগের মেয়েরা এই পেশাকেই এখন গ্রহন করেছে ব্রত হিসেবে । 

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর মৃত্যু – Florence Nightingale Death : 

 অবশেষে ১৯১০ খ্রি : ১৩ ই আগস্ট জীবন প্রদীপের প্রহরিনী Lady with The Lamp , মহীয়সী ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল তার স্বদেশের মাটিতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন । ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল (Florence Nightingale) মারা গেলেও তার সেবার আদর্শের কথা সারা বিশ্বের মানুষের মনে জাগরুক হয়ে আছে । মাদার তেরেসা তারই আদর্শের অনুসারী এক অন্যতম উত্তরসুরী।

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জীবনী (প্রশ্ন ও উত্তর) – Florence Nightingale Biography in Bengali (FAQ):

  1. ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জন্ম কবে হয় ?

Ans: ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জন্ম হয় ১২ মে ১৮২০ সালে ।

  1. ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল কোথায় জন্মগ্রহণ করেন ?

Ans: ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল জন্মগ্রহণ করেন ফ্লোরেন্স এ।

  1. ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর পিতার নাম কী ?

Ans: ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর পিতার নাম উইলিয়াম এডওয়ার্ড নাইটিঙ্গেল ।

  1. ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর মায়ের নাম কী ?

Ans: ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর মায়ের নাম ফ্রান্সিস নাইটিঙ্গেল ।

  1. ক্রিমিয়ার যুদ্ধ কত সালে শুরু হয় ?

Ans: ক্রিমিয়ার যুদ্ধ শুরু হয় ১৮৫৩ সালে ।

  1. ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল কত সালে Royel Red Cross পুরস্কার পান ?

Ans: ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল ১৮৮৩ সালে Royel Red Cross পুরস্কার পান ।

  1. লেডি উইথ দি ল্যাম্প কাকে বলা হয় ?

Ans: লেডি উইথ দি ল্যাম্প বলা হয় ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল কে ।

  1. ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর মৃত্যু কবে হয় ?

Ans: ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর মৃত্যু হয় ১৯১০ খ্রি : ১৩ ই আগস্ট ।

[আরও দেখুন, সূর্য সেনের জীবনী – Surya Sen Biography in Bengali

আরও দেখুন, জহরলাল নেহেরু জীবনী – Jawaharlal Nehru Biography in Bengali

আরও দেখুন, বাল গঙ্গাধর তিলকের জীবনী – Bal Gangadhar Tilak Biography in Bengali

আরও দেখুন, শ্রী অরবিন্দ এর জীবনী – Sri Aurobindo Biography in Bengali

আরও দেখুন, ক্ষুদিরাম বসুর জীবনী – Khudiram Bose Biography in Bengali]

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জীবনী – Florence Nightingale Biography in Bengali

   অসংখ্য ধন্যবাদ সময় করে আমাদের এই ” ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জীবনী – Florence Nightingale Biography in Bengali  ” পােস্টটি পড়ার জন্য। ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জীবনী – Florence Nightingale Biography in Bengali পড়ে কেমন লাগলো কমেন্টে জানাও। আশা করি এই ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল এর জীবনী – Florence Nightingale Biography in Bengali পোস্টটি থেকে উপকৃত হবে। এই ভাবেই BhugolShiksha.com ওয়েবসাইটের পাশে থাকো যেকোনো প্ৰশ্ন উত্তর জানতে এই ওয়েবসাইট টি ফলাে করো এবং নিজেকে  তথ্য সমৃদ্ধ করে তোলো , ধন্যবাদ।