মাইক টাইসন এর জীবনী - Mike Tyson Biography in Bengali
মাইক টাইসন এর জীবনী - Mike Tyson Biography in Bengali

মাইক টাইসন এর জীবনী

Mike Tyson Biography in Bengali

মাইক টাইসন এর জীবনী  Mike Tyson Biography in Bengali : বক্সিং সম্রাট মাইক টাইসন (Mike Tyson) শহর নিউইয়র্ক -এ জন্মগ্রহণ করেন । অনেকে মাইক টাইসনকে (Mike Tyson) বলে থাকেন , বৈভবে আভিজাত্যে ঐশ্বর্যে নিউইয়র্ক পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মহানগর । 

 এই নিউইয়র্কে সব মানুষই যে সুখে শান্তিতে আছেন , এমনটি ভাববার কোনো কারণ নেই । নিউইয়র্কে অনেক হারলেম বা বস্তি দেখতে পাওয়া যায় । সেখানকার মানুষের জীবনযাত্রার মান খুবই নিম্ন ।

 নিউইয়র্কের একটি ছোট্ট গলির গল্পকথা । সাধের পায়রা চুরি করার জন্য এগারো বছর বয়সী মাইক টাইসন একটা বড়োসড়ো চেহারার লোকের মুখে ঘুষি মেরে দিলেন । ব্যাপারটা অভাবিত এবং অপ্রত্যাশিত । একটা পায়রা চুরি করে লোকটা একটু সঙ্কুচিত হয়েছিল ৷ আচমকা এমন একটা ঘুষি খেয়ে অবাক হয়ে গেল সে ।

 এগারো বছরের মাইক বুঝতে পারলেন , এভাবে কাউকে বেমক্কা ঘুষি চালিয়ে দিলেই হল , লোকটার পকেট থেকে পয়সাকড়ি বের করে নেওয়া সম্ভব হবে । শুধু একটা ঘুষি , একটা পাঞ্চ , আর তাতেই অর্থ উপার্জনের নতুন দিগন্ত খুলে যাবে । এরপর থেকে মাইক টাইসন তাই করতে শুরু করলেন । এই ভাবে লোককে আঘাত করে অর্থ উপার্জন করতে লাগলেন মাইক টাইসন ।

 বক্সিং সম্রাট মাইক টাইসন এর একটি সংক্ষিপ্ত জীবনী । মাইক টাইসন এর জীবনী – Mike Tyson Biography in Bengali বা মাইক টাইসন এর আত্মজীবনী বা (Mike Tyson Jivani Bangla. A short biography of Mike Tyson. Mike Tyson Birth, Place, Life Story, Life History, Biography in Bengali) মাইক টাইসন এর জীবন রচনা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

মাইক টাইসন কে ? Who is Mike Tyson ?

মাইক টাইসন (Mike Tyson) একজন পেশাদার বক্সিং খেলোয়াড়। ব্যক্তিজীবনে মাইক টাইসন (Mike Tyson) বহু বিতর্ক-বিবাদে জড়িয়েছেন। বর্তমানে মাইক টাইসন (Mike Tyson) অবসর নিয়েছেন। তার শিশু ডাইনামাঈ আয়রন মাইক জাতীয় ডাক নাম আছে।

বক্সিং সম্রাট মাইক টাইসন এর জীবনী – Mike Tyson Biography in Bengali :

নাম (Name) মাইকেল জেরার্ড টাইসন বা মাইক টাইসন (Mike Tyson)
জন্ম (Birthday) ৩৩ জুন ১৯৬৬ (33 June 1963)
জন্মস্থান (Birthplace) নিউইয়র্ক, আমেরিকা
ডাকনাম আয়রন মাইক

দ্য বেডেস্ট ম্যান অন দি প্ল্যানেট

কিড ডায়নামাইট

বিবেচনা হেভিওয়েট
উচ্চতা ৫ ফুট ১১.৫ ইঞ্চি
জাতীয়তা আমেরিকান
অবস্থান অর্থডক্স
মোট লড়াই ৫৮
জয়ী ৫০

মাইক টাইসন এর জন্ম – Mike Tyson Birthday :

 মাইক টাইসনের জন্ম আমেরিকার নিউইয়র্ক শহরের ব্রুকলিন অঞ্চলে ১৯৬৬ সালের ৩০ জুন । মাইক টাইসন (Mike Tyson) এর ৫ ফুট ১০ ইঞ্চি উচ্চতার এই অসামান্য বক্সারের ওজন ছিল ১০৮ কেজি । 

মাইক টাইসন এর শিক্ষাজীবন – Mike Tyson Education Life :

 এই ভাবেই মাইকের জীবন তখন ঘুরপাক খাচ্ছে এক অন্ধকার নরকের মধ্যে । যে কোনো সময় পুলিশের হাতে ধরা পড়তে হবে , এমন সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছে । শেষ পর্যন্ত একদিন মাইক টাইসন ধরা পড়লেন পুলিশের হাতে । মাইক টাইসনকে (Mike Tyson) পাঠানো হল কিশোরদের উদ্ধার আশ্রম ডাইরার স্কুলে । সেখানকার শান্ত পরিবেশের সাথে মাইক নিজেকে মানাতে পারছিলেন না ।

 শেষ পর্যন্ত ওই স্কুল থেকে ছাড়া পেলেন মাইক টাইসন । এখন যাবেন কোথায় ? আবার হয়তো রাস্তায় নেমে ছিনতাই করতে হবে । আবার জেল , আবার বেরিয়ে আসা । এভাবেই এক অন্ধকার বৃত্তের মধ্যে কেটে যাবে মাইক টাইসনের জীবন … 

 ভগবান বোধহয় মাইক টাইসনের জন্য অন্য কিছু ভেবেছিলেন । মাইক টাইসন (Mike Tyson) এর সঙ্গে অপ্রত্যাশিতভাবে কাস ডি আমাতোর দেখা হল । কাস ছিলেন বিখ্যাত বক্সিং কোচ । ফ্লয়েড প্যাটারসন নামে এক বিশ্ববিখ্যাত বক্সারকে তিনি উপহার দিয়েছেন । ফ্লয়েড হয়েছিলেন বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ ‘ চ্যাম্পিয়ান । মাইককে দেখে আমাতো বুঝতে পারলেন , এই ছেলেটির মধ্যে অনন্ত সম্ভাবনা লুকিয়ে আছে । এর চোখের দৃষ্টিতে কে যেন লাসের রশ্মি ফিট করে দিয়েছে । একজন বক্সারের সব থেকে বড়ো সম্পদ হল তার দুই চোেখ ৷ সে বুঝে যাবে বিপক্ষ বক্সার কখন কীভাবে পাঞ্চ করতে এগিয়ে আসবে , সঙ্গে সঙ্গে নিজেকে তৈরি করবে সে ।

মাইক টাইসন এর কোচ – Mike Tyson Coach :

 মাইক টাইসনের ঘাড়ের গঠনও ওই অভিজ্ঞ কোচকে অবাক করে দিয়েছিল । উনি বুঝতে পেরেছিলেন যে , বিশ্ব হেভিওয়েট খেতাবের দায়িত্ব একদিন এই ছেলেটির ঘাড়েই এসে পড়বে । মনে হয় , এই জন্যই ভগবান বোধহয় তাকে তৈরী করেছেন । কোচ আমাতো এই ভাবে রাস্তার এক ছিনতাইবাজের মধ্যে ভবিষ্যৎ বিশ্বচ্যাম্পিয়ানের ছায়া দেখতে পেলেন । মাইককে সোজা নিয়ে এলেন নিজের জিমনাসিয়ামে । তারপর বললেন— “ না , ওই নোংরা গলিতে তুমি আর কখনো যাবে না । লোকের ঘাড়ে রদ্দা মেরে ছিনতাই করবে না । তোমার পৌরুষ দেখাবার আসল জায়গা হল বক্সিং – এর এই রিং । ” 

 এর আগে মাইক টাইসনের কাছে এমন কথা কেউ কখনো বলেননি । টাইসন অবাক হয়ে তাকিয়ে থাকলেন ওই কোচের মুখের দিকে । নিজেকে পরখ করলেন । মনে হল অন্ধকার রাত্রির অবসান ঘটে গেছে , হাজার সূর্যের আলোয় ঝলমলে হয়ে উঠেছে প্রভাতের আলো ।

[আরও দেখুন, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর জীবনী – Rabindranath Tagore Biography in Bengali]

 আমাতো এগিয়ে এসে , মাইক টাইসনের কাঁধে হাত রেখে বললেন “ শোনো টাইসন , তোমার মধ্যে অনন্ত সম্ভাবনা লুকিয়ে আছে । তুমি জানো না তুমি কী দিয়ে তৈরী । তুমি যদি আমার কথামতো চলতে পারো , তাহলে একদিন বিশ্বচ্যাম্পিয়ান হবে । খবরের কাগজের প্রথম পাতায় তোমার ছবি ছাপা হবে । তোমার একটা সই সংগ্রহ করার জন্য মানুযজন আগ্রহে অধীর হয়ে উঠবে । রাশিরাশি অর্থের মালিক হবে তুমি । ”

 এসব কথা রূপকথার গল্পের মতোই মনে হচ্ছিল মাইক টাইসনের । কিন্তু কী আশ্চর্য ! তিনি কেমন যেন সম্মোহিত হয়ে গেলেন । মনে হল , এই বক্সিং রিং – এর মধ্যেই তাঁর আসল জীবন লুকিয়ে আছে । এবার তাকে আরও ভালোভাবে অনুশীলন করতে হবে । বখাটে হয়ে যাওয়া স্ট্রিট ফাইটার মাইক টাইসন পালটে গেলেন । মাইক টাইসন বুঝতে পারলেন , মাথা উঁচু করে বাঁচতে হবে । ঘৃণিত জীবন যাপন করার থেকে মৃত্যু অনেক ভালো ।

 কোচ কাস ডি আমাতোর তত্বাবধানে মাইক টাইসন কাঠিন থেকে কঠিনতর অনুশীলন করতে লাগলেন ।

মাইক টাইসন এর বক্সিং ম্যাচ – Mike Tyson Boxing Match :

 মাইক টাইসনের কঠোর অনুশিক্ষনের ফল পাওয়া গেল । ১৯৮৫ সালের মার্চ মাস— প্রথম পেশাদারী বক্সিং – এ নামলেন , প্রথম রাউন্ডেই হেক্টার মারসেডেসকে নক আউট করে দিলেন । সেই বছর ১৫ টি লড়াইয়ের মধ্যে ১৩ টিতে জিতলেন । ১৯৮৬ সালে সব থেকে কম বয়সে বিশ্ববক্সিং কাউন্সিলের খেতাবের লড়াইতে জিতলেন দু’রাউন্ডে । হারিয়ে দিলেন ডাকসাইটে বক্সার ট্রেভর বারবিককে । 

[আরও দেখুন, রমানাথন কৃষ্ণণ এর জীবনী – Ramanathan Krishnan Biography in Bengali]

মাইক টাইসন এর বক্সিং ক্যারিয়ার – Mike Tyson Boxing Career :

 ৫৪ বার পেশাদারী লড়াইতে অংশ নিয়ে ৪৯ বার জিতেছেন । ৪৩ বার নক আউটে । মাত্র তিনবার হারের তেতো জ্বালা হজম করতে হয়েছে তাঁকে । বক্সিং ইতিহাসে অন্যতম অঘটন হিসাবে মাইক টাইসনের সাথে একটা ঘটনা জড়িয়ে আছে । জেমস ডগলাসের কাছে দশম রাউন্ডে হেরে ১৯৯০ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি হেভিওয়েট খেতাব হারিয়ে ছিলেন মাইক টাইসন (Mike Tyson)

 মাইক টাইসন এক অন্তরঙ্গ আলাপচারিতায় মুক্ত কণ্ঠে স্বীকার করেছেন যে , মহাত্মা গান্ধীর জীবন দর্শন তাঁকে প্রেরণা দিয়েছে । তাই মাঝে মধ্যে তিনি মাদাম তুসোর মোমের পুতুলের জাদুঘরে চলে যান । চোখ বন্ধ করে দাঁড়িয়ে থাকেন মহাত্মা গান্ধীর মূর্তির সামনে । দু’চোখ বেয়ে গড়িয়ে আসে অশ্রুকণা । এভাবেই হয়তো অতীত জীবনের সমস্ত পাপ ধুয়ে মুছে পরিষ্কার হয়ে যাবে ।

মাইক টাইসন এর জীবনী – Mike Tyson Biography in Bengali FAQ :

  1. মাইক টাইসন কে ?

Ans: মাইক টাইসন একজন পেশাদার বক্সার ।

  1. মাইক টাইসন এর জন্ম কোথায় ?

Ans: মাইক টাইসন এর জন্ম হয় আমেরিকার নিউইয়র্ক শহরে ।

  1. মাইক টাইসন এর জন্ম কবে হয় ?

Ans: মাইক টাইসন এর জন্ম ৩৩ জুন ১৯৬৬ সালে হয় ।

  1. মাইক টাইসন এর কোচের নাম কী ?

Ans: মাইক টাইসন এর কোচের নাম আমাতো ।

  1. মাইক টাইসন এর উচ্চতা কত ?

Ans: মাইক টাইসন এর উচ্চতা ৫ ফুট ১১.৫ ইঞ্চি ।

  1. মাইক টাইসন এর ডাকনাম কী ?

Ans: মাইক টাইসন এর ডাকনাম আয়রন মাইক ।

  1. মাইক টাইসন কতগুলি ম্যাচ খেলে ?

Ans: মাইক টাইসন ৫৮ টি ম্যাচ খেলে ।

  1. মাইক টাইসন কতগুলি ম্যাচ জিতেছেন ?

Ans: মাইক টাইসন ৫০ টি ম্যাচ জিতেছেন ।

[আরও দেখুন, শচীন টেন্ডুলকারের জীবনী – Sachin Tendulkar Biography in Bengali

আরও দেখুন, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের জীবনী – Sourav Ganguly Biography in Bengali

আরও দেখুন, এ.পি.জে. আবদুল কালাম এর জীবনী – A.P.J. Abdul Kalam Biography in Bengali

আরও দেখুন, ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর জীবনী – Ishwar Chandra Vidyasagar Biography in Bengali]

মাইক টাইসন এর জীবনী – Mike Tyson Biography in Bengali

   অসংখ্য ধন্যবাদ সময় করে আমাদের এই ” মাইক টাইসন এর জীবনী – Mike Tyson Biography in Bengali  ” পােস্টটি পড়ার জন্য। মাইক টাইসন এর জীবনী – Mike Tyson Biography in Bengali পড়ে কেমন লাগলো কমেন্টে জানাও। আশা করি এই মাইক টাইসন এর জীবনী – Mike Tyson Biography in Bengali পোস্টটি থেকে উপকৃত হবে। এই ভাবেই BhugolShiksha.com ওয়েবসাইটের পাশে থাকো যেকোনো প্ৰশ্ন উত্তর জানতে এই ওয়েবসাইট টি ফলাে করো এবং নিজেকে  তথ্য সমৃদ্ধ করে তোলো , ধন্যবাদ।

Subscribe Our YouTube Channel

Join Our Telegram Channel

E-mail Subscription