হরগোবিন্দ খোরানার জীবনী – Har Gobind Khorana Biography in Bengali

2
হরগোবিন্দ খোরানার জীবনী - Har Gobind Khorana Biography in Bengali
হরগোবিন্দ খোরানার জীবনী - Har Gobind Khorana Biography in Bengali

হরগোবিন্দ খোরানার জীবনী

Har Gobind Khorana Biography in Bengali

হরগোবিন্দ খোরানার জীবনী – Har Gobind Khorana Biography in Bengali : ডঃ হরগােবিন্দ খােরানা বংশগতির একটি ইউনিট জিন । এই জিনই একটি প্রাণীর চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যকে নিয়ন্ত্রণ করে ; যা সে হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) এর জন্মদাতার কাছ থেকে উত্তরাধিকারসূত্রে লাভ করে । জিন থাকে একটি কোষের নিউক্লিয়াসে অবস্থানকারী কোষের মধ্যে । জিন তৈরি হয় ডি এন এ এবং আর এনএ এরই দ্বারা । ভারতের প্রখ্যাত বিজ্ঞানী ডঃ হরগােবিন্দ খােরানা ডি এন এ এবং আর এন এ এরই কৃত্রিম সংশ্লেষণ পদ্ধতি আবিষ্কার করেন । এই অসামান্য অবদানের জন্য তিনি এম . ডব্লিউ . নােরেনবার্গ এবং আর . ডব্লিউ . হলি এর সাথে ১৯৬৮ সালে শরীরবিজ্ঞান এবং চিকিৎসাশাস্ত্রে নােবেল পুরস্কারের বিরল সম্মানে সম্মানিত হন ।

  জেনেটিক কোডের পবর্তক হরগবিন্দ খোরানা এর একটি সংক্ষিপ্ত জীবনী । হরগবিন্দ খোরানা এর জীবনী – Har Gobind Khorana Biography in Bengali বা হরগবিন্দ খোরানা এর আত্মজীবনী বা (Har Gobind Khorana Jivani Bangla. A short biography of Har Gobind Khorana. Har Gobind Khorana Birth, Place, Life Story, Life History, Biography in Bengali) হরগবিন্দ খোরানা এর জীবন রচনা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

হরগবিন্দ খোরানা কে ছিলেন ? Who is Har Gobind Khorana ?

হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) ছিলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী বিজ্ঞানী। হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) ১৯৬৮ সালে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) আমিনো এসিডের কোডন এর সিকুয়েন্স বের করার এক সহজ পদ্ধতির আবিষ্কার করেছেন।

জেনেটিক কোডের পবর্তক হরগোবিন্দ খোরনার জীবনী – Har Gobind Khorana Biography in Bengali :

নাম (Name) হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana)
জন্ম (Birthday) ৯ জানুয়ারি ১৯২২ (9th January 1922)
জন্মস্থান (Birthplace) রায়পুর, পাঞ্জাব
বাসস্থান ভারত, যুক্তরাজ্য
নাগরিকত্ব যুক্তরাষ্ট্র
জাতীয়তা আমেরিকান
কর্মক্ষেত্র অনুপ্রাণ বিজ্ঞান
প্রতিষ্ঠান ম্যাসাচুসেট্‌স ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি (১৯৭০-২০০৭)

ইউনিভার্সিটি অব উইসকনসিন, ম্যাডিসন (১৯৬০-৭০)

ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলাম্বিয়া (১৯৫২-৬০)

কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় (১৯৫০-৫২)

ইটিএইচ জুরিখ (১৯৪৮-৪৯)

পরিচিতির কারণ First to demonstrate the role of Nucleotides in protein synthesis
উল্লেখযোগ্য পুরস্কার Nobel Prize in Medicine (1968), Gairdner Foundation International Award, Louisa Gross Horwitz Prize, Albert Lasker Award for Basic Medical Research, Padm vibhusan, Willard Gibbs Award
মৃত্যু (Death) নভেম্বর ৯, ২০১১ (9th November 2011)

হরগোবিন্দ খোরানার জন্ম – Har Gobind Khorana Birthday :

 ডঃ হরগােবিন্দ খােরানা ১৯২২ সালের ২ রা জানুয়ারি পাঞ্জাবের । ( বর্তমানে পাকিস্তানে পড়েছে ) রায়পুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন । তিনি বাবা – মার পাঁচ সন্তানের মধ্যে সবার ছােট ।

হরগোবিন্দ খোরানার শিক্ষাজীবন – Har Gobind Khorana Education Life :

 ছােটবেলা থেকেই এই বিশ্ববিখ্যাত বিজ্ঞানী হরগােবিন্দ খােরানা পড়াশুনায় খুব ভালাে ছিলেন । স্কুলজীবনেই তিনি অনেকগুলাে বৃত্তি ও পুরস্কার পেয়েছিলেন । হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) লাহােরের ডি – এ – ভি কলেজ থেকে বি , এসসি . এবং পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এম . এস . সি . ডিগ্রী লাভ করেন । পরে তিনি উচ্চশিক্ষার জন্য লন্ডন যান এবং ১৯৪৮ সালে পি . এইচ . ডি . ডিগ্রী লাভ করেন । ডিগ্রী অর্জন করে হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) দেশে চলে আসেন । কিন্তু দেশে কোনাে চাকরি না পেয়ে আবার তিনি ইংল্যান্ডে ফিরে যান ।

হরগোবিন্দ খোরানার আলেকজান্ডার টোডের সাথে গবেষণা ও বিবহ জীবন :

 ইংল্যান্ডে গিয়ে হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) নােবেল বিজয়ী বিজ্ঞানী স্যার আলেকজান্ডার টডের অধীনে গবেষণা করতে শুরু করেন । হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) এর আর স্বদেশে ফিরে আসা হলােনা । হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) সােজা পাড়ি দিলেন জর্মান , কানাডায় । ওখানে গিয়ে তিনি এক সুইডিশ সংসদ সদস্যর কন্যাকে বিয়ে করেন। 

হরগোবিন্দ খোরানার জৈব রসায়ন গোষ্ঠীর প্রধান নির্বাচিত :

১৯৫৩ সালে হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) কমনওয়েলথ গবেষণা সংস্থার জৈব রসায়ন গােষ্ঠীর প্রধান নির্বাচিত হন ।

হরগোবিন্দ খোরানার মানবদেহে কোয়েনজাইম তৈরি – Har Gobind Khorana Coenzyme production in human body :

 ১৯৬০ খ্রীস্টাব্দে খােরানা মানবদেহের জন্য আবশ্যকীয় রাসায়নিক বস্তু কোয়েনজাইম ( Coenzyme ) তৈরি করতে সক্ষম হন । এ বছরই তিনি যুক্তরাষ্ট্র গমন করেন এবং নারেনবার্গের সাথে কৃত্রিম প্রাণ সৃষ্টির বিষয় নিয়ে গবেষণা শুরু করেন । হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) এই গবেষণা করছিলেন উইসক্যানসিন বিশ্ববিদ্যালয়ের এনজাইম গবেষণা ইনস্টিটিউটে । এই ইনস্টিটিউটে তিনি আর এন এ এবং ডি এন এ কৃত্রিম সংশ্লেষণ পদ্ধতি উদ্ভাবন করেন । এই গবেষণার ফলেই অনেক বংশগত রােগের চিকিৎসা করা সম্ভব হয়েছে । 

হরগোবিন্দ খরানা নোবেল পুরস্কার – Har Gobind Khorana Win Nobel prize :

 এই বিস্ময়কর আবিষ্কারের জন্যই ডঃ খােরানা অপর দু’জন বিজ্ঞানীর সাথে যৌথভাবে ১৯৬৯ সালে নােবেল পুরস্কার লাভ করেন ।

 ১৯৭০ খ্রিস্টাব্দে ডঃ খােরানা উইসকিনসন ছেড়ে হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) চলে এলেন ম্যাসাচুসেট্‌স ইনস্টিটিউট অব টেকনােলজি – তে জীববিদ্যা ও রসায়ন বিদ্যায় আলফ্রেড সােলান -এ প্রফেসর হিসাবে যােগদান করেন । তিনি এখানেও জিনের উপর গবেষণা করেন এবং সারা বিশ্বেতার সুনাম ছড়িয়ে পড়ে । 

[আরও দেখুন, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর জীবনী – Rabindranath Tagore Biography in Bengali]

হরগোবিন্দ খরানার জিন তৈরি – Har Gobind Khorana Invention Gene :

 মানুষের এবং জীবজন্তুর নাড়িভুড়ি বা অস্ত্রের মধ্যে ইসকেরিচিয়া কোলি নামে এক জাতের ব্যাকটেরিয়া বাস করে । ব্রিটেনের কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা এর উপর আগে থেকেই গবেষণা করছিলেন , কিন্তু তারা বেশিদূর অগ্রসর হতে পারেননি । ডঃ খােরানা এবং তার সহযােগী বিজ্ঞানীরা কৃত্রিমভাবে এই ব্যাকটেরিয়া জিন । তৈরির কাজ শুরু করেন এবং তারা এই ব্যাকটেরিয়ার ২০৭ টি জিন তৈরি করতে সক্ষম হন ।

 ১৯৭৬ খ্রিষ্টাব্দের আগস্ট মাসে তারা এই কৃত্রিম জিনকে ইসকেরিচিয়া কোলি বাকটেরিয়ার অভ্যন্তরে প্রবেশ করাতে সক্ষম হন । এই কৃত্রিম জিনও প্রাকৃতিক জিনের মতাে কাজ করতে শুরু করে । এটা ছিলাে খুবই একটা জটিল কাজ । এই সাফল্য সারা বিশ্বজুড়ে অভিনন্দিত হয় । এটা ছিলাে ডঃ খােরানার একটি অবিস্মরণীয় ও অসাধারণ সাফল্য । কৃত্রিমভাবে জিন তৈরি করা আসলেও একটি দুঃসাধ্য কাজ । তবে এই সাফল্য হঠাৎ একদিনে আসেনি । ডঃ খােরানা তার সহকর্মীদের নিয়ে দীর্ঘ ন ’ বছর একটানা কাজ করে গবেষণা চালিয়ে এই সাফল্য অর্জন করেন ।

হরগোবিন্দ খোরানার ভারতে আসা – Har Gobind Khorana Come to India :

 ডঃ খােরানা বর্তমানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে তার গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন । হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) নােবেল পুরস্কার ছাড়া বহু আন্তর্জাতিক পুরস্কার লাভ করেছেন । ১৯৬৯ সালে হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) একবার ভারতে বেড়াতে এসেছিলেন ।

হরগোবিন্দ খোরানার পদ্মভূষণ – Har Gobind Khorana Padma Bhushan :

 ভারত সরকার হরগোবিন্দ খোরানাকে (Har Gobind Khorana) ‘ পদ্মভূষণ ’ উপাধিতে ভূষিত করে । ভারতের চন্ডিগড়ের পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয় তাকে ডি . এসসি . ডিগ্রী প্রদান করে । 

 বর্তমানে হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) কোষের মধ্যকার জিনের কার্যকলাপ নিয়ে গবেষণা করছেন । এর দ্বারা ক্যান্সার রােগের কারণ জানা যাবে বলে আশা । করা হচ্ছে ।

[আরও দেখুন, ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর জীবনী – Ishwar Chandra Vidyasagar Biography in Bengali]

হরগােবিন্দ খােরানার উল্লেখযােগ্য অবদান – Har Gobind Khorana Significant contribution :

জেনেটিক কোড প্রবর্তন করেন । হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) প্রমাণ করেন যে , অজৈব বা জৈব রাসায়নিক পদার্থ থেকে DNA কুন্ডলী তৈরী করা যায় এবং এটি প্রাণ সৃষ্টির আদি উপাদান ।

হারগোবিন্দ খোরানার মৃত্যু – Har Gobind Khorana Death :

এমআইটি তে  তাঁর দীর্ঘদিনের সহকর্মী অধ্যাপক রাজ ভাণ্ডারী বলেছিলেন, “যে জায়গা থেকে উঠে এসে তিনি জীবনে সফল্যের যে শীর্ষে পৌঁছেছিলেন, তা সকলের কাছেই প্রেরণার উৎস।”

২০১১ সালের ১০ নভেম্বর ৮৯ বছর বয়সে হরগোবিন্দ খোরানা (Har Gobind Khorana) প্রয়াত হন।

হরগোবিন্দ খোরানার জীবনী (প্রশ্ন ও উত্তর) – Har Gobind Khorana Biography in Bengali (FAQ):

  1. হরগোবিন্দ খোরানার জন্ম কবে হয় ?

Ans: হরগোবিন্দ খোরানার জন্ম হয় ৯ জানুয়ারি ১৯২২ সালে ।

  1. হরগোবিন্দ খোড়ানার জন্মস্থান কোথায় ?

Ans: হরগোবিন্দ খোড়ানার জন্মস্থান রায়পুর, পাঞ্জাব ।

  1. হরগোবিন্দ খোরানা কে ছিলেন ?

Ans: হরগোবিন্দ খোরানা ছিলেন জেনেটিক কোডের প্রবর্তক ।

  1. হরগোবিন্দ খোড়ানা কবে নোবেল পুরস্কার পান ?

Ans: হরগোবিন্দ খোড়ানা ১৯৭৯ সালে নোবেল পুরস্কার পান।

  1. হরগোবিন্দ খড়ানা কোথায় থেকে বি. এস. সি পাস করেন ?

Ans: হরগোবিন্দ খড়ানা লাহােরের ডি – এ – ভি কলেজ থেকে বি. এসসি পাস করেন।

  1. হরগোবিন্দ খোরান কবে পি.এইচ. ডি ডিগ্রি অর্জন করেন ?

Ans: হরগোবিন্দ খোরান ১৯৪৮ সালে পি.এইচ. ডি ডিগ্রি অর্জন করেন ।

  1. হরগোবিন্দ খড়ানার অবদান কী ?

Ans: হরগোবিন্দ খড়ানার অবদান জেনেটিক কোড প্রবর্তন করেন ।

  1. হরগোবিন্দ খোরানাড় মৃত্যু কবে হয় ?

Ans: হরগোবিন্দ খোরানাড় মৃত্যু হয় ২০১১ সালের ১০ নভেম্বর।

[আরও দেখুন, ক্ষুদিরাম বসুর জীবনী – Khudiram Bose Biography in Bengali

আরও দেখুন, সূর্য সেনের জীবনী – Surya Sen Biography in Bengali

আরও দেখুন, জহরলাল নেহেরু জীবনী – Jawaharlal Nehru Biography in Bengali

আরও দেখুন, বাল গঙ্গাধর তিলকের জীবনী – Bal Gangadhar Tilak Biography in Bengali

আরও দেখুন, শ্রী অরবিন্দ এর জীবনী – Sri Aurobindo Biography in Bengali]

হরগবিন্দ খোরানা এর জীবনী – Har Gobind Khorana Biography in Bengali

   অসংখ্য ধন্যবাদ সময় করে আমাদের এই ” হরগবিন্দ খোরানা এর জীবনী – Har Gobind Khorana Biography in Bengali  ” পােস্টটি পড়ার জন্য। হরগবিন্দ খোরানা এর জীবনী – Har Gobind Khorana Biography in Bengali পড়ে কেমন লাগলো কমেন্টে জানাও। আশা করি এই হরগবিন্দ খোরানা এর জীবনী – Har Gobind Khorana Biography in Bengali পোস্টটি থেকে উপকৃত হবে। এই ভাবেই BhugolShiksha.com ওয়েবসাইটের পাশে থাকো যেকোনো প্ৰশ্ন উত্তর জানতে এই ওয়েবসাইট টি ফলাে করো এবং নিজেকে  তথ্য সমৃদ্ধ করে তোলো , ধন্যবাদ।