ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল - ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions (Regional Geography of India) Geography
ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল - ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions (Regional Geography of India) Geography

ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর

ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ | Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions – Regional Geography of India (Geography) Question and Answer in Bengali

ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions (Regional Geography of India – Geography) : ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – Regional Geography of India (ভূগোল – Geography) ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ – Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions প্রশ্ন Oও উত্তর  নিচে দেওয়া হল। এই (ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ – Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions – ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল Regional Geography of India – ভূগোল Geography) প্রশ্নোত্তর গুলি স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষার জন্য খুব ইম্পর্টেন্ট। তোমরা যারা ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ – Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions – ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – Regional Geography of India (ভূগোল – Geography) অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর (Short Question and Answer) খুঁজে চলেছো, তারা নিচে দেওয়া প্রশ্নউত্তর ভালো করে পড়তে পারো।

ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ (Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions) ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর

1. অঞ্চল ( REGION ) কী ? 

Ans: স্বকীয় বৈশিষ্ট্যযুক্ত কোন দেশ বা মহাদেশের বিভিন্ন অংশকে অঞ্চল বলা হয় । অধ্যাপক টেলরের মতে , অঞ্চল বলতে ভূ – পৃষ্ঠের একটি স্থান একককেই বোঝায় । মার্কিন ভৌগোলিক গিলবার্টের মতে , কোন অঞ্চলের পরিসর প্রধানত সেই অঞ্চলের ব্যক্তিত্ব বা স্বাতন্ত্র্য অনুযায়ী নির্দিষ্ট হয় । তবে সাধারণভাবে অঞ্চল বলতে বোঝায়— “ কোন বিশেষ আয়তনের বিশেষ গুণাবলী সম্পন্ন এলাকা যা দিয়ে কোন উদ্দেশ্য সাধন করা যায় । ”

2. বৃহৎ অঞ্চল ও ক্ষুদ্র অঞ্চলের পার্থক্য লেখো ।

পার্থক্যের বিষয় বৃহৎ অঞ্চল ক্ষুদ্র অঞ্চল
সংঘা Scale ও Dimensional অনুসারে যে অঞ্চল আয়তনে বড়ো হয় তাকে বৃহৎ অঞ্চল বলে । যে অঞ্চল Scale ও Dimensional অনুসারে আয়তনে অপেক্ষাকৃত ছোট হয় তাকে ক্ষুদ্র অঞ্চল বলে ।
বৈশিষ্ট এরূপ অঞ্চলে একাধিক প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্য দেখা যায় । প্রাকৃতিক দিক থেকে ছোট বলে নির্দিষ্ট প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্য থাকে ।
শ্রেণী বৃহৎ অঞ্চলকে কয়েকটি উপরিভাগে ভাগ করা যেতে পারে । ক্ষুদ্র অঞ্চলকেও কয়েকভাগে ভাগ করা যেতে পারে, যেমন – First Order, Second Order region প্রভৃতি ।
পরিকল্পনা এরূপ অঞ্চলে কোন অর্থনৈতিক পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয় না । আয়তনে ছোট বলে সহজেই এই অঞ্চলে অর্থনৈতিক পরিকল্পনা গ্রহণ করা সম্ভব ।
জ্ঞান এ অঞ্চল বৃহৎ বলে এর সম্পর্কে জ্ঞান আহরণ করা সহজ নয় । আয়তনে ছোট বলে এর সম্পর্কে জ্ঞান আহরণ করা সহজ ।
পরিমণ্ডল আয়তনে বড় বলে এরূপ অঞ্চল থেকে বেশী সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডল প্রত্যক্ষ করা যায় । আয়তনে ছোট বলে কম ও স্বতন্ত্র সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডল প্রত্যক্ষ করা যায় ।

3. ওয়াল্টার ক্রিস্টেলার বা ‘ SCALE AND DIMENSION OF REGION’- কে কী দৃষ্টিভঙ্গি থেকে দেখেছেন । 

Ans: 1933 খ্রিস্টাব্দের ক্রিস্টেলার তার ‘ CENTRAL PLACE THEORY ‘ ( কেন্দ্রীয় স্থান তত্ত্ব ) ব্যাখ্যা করতে গিয়ে SCALE AND DIMENSION- কে ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন । বিভাগ : ক্রিস্টেলার অঞ্চলের SCALE ও DIMENSION- কে দু’ভাগে ব্যাখ্যা করেছেন ।

A ) Horizontal Dimension এর দ্বারা অঞ্চলটির বিস্তৃতি ব্যাখ্যা করা হয় ।

B ) Vertical Dimension এর দ্বারা অঞ্চলটির কার্যকলাপ ব্যাখ্যা করা হয় । শর্ত : অঞ্চলের SCALE- এর কথা বলতে গিয়ে তিনি 3 টি প্রাথমিক শর্তের কথা বলেছেন । যেমন— ( i ) অঞ্চলটি হবে সমপ্রকৃতির ; ( ii ) অঞ্চলটির সামাজিক ও অর্থনৈতিক জীবনধারণ একই হবে ; ( iii ) অঞ্চলটিতে একই পরিবহন ব্যবস্থা থাকতে হবে ; যাতে যেকোন স্থানে যেতে একই ভাড়া হবে । |

4. ভারতের অর্থনৈতিক অঞ্চল ( Economic reagion of India ) কী ? 

Ans: 1958 সালে R.B.I এর সহযোগিতায় Baker ভারতে কৃষি অঞ্চলের সাথে বাণিজ্য ও শিল্পকেন্দ্রগুলোর অবস্থান বিচার করে নিম্নোক্ত বিভাজন প্রস্তাব করেছেন । i ) জীবন সত্ত্বাভিত্তিক ধান বলয় : হুগলী শিল্পাঞ্চল , পূর্ব উপকূলীয় সমভূমির আঞ্চলিক শিল্পকেন্দ্র যেমন — কটক , বিশাখাপত্তনম্ , চেন্নাইসহ অনেক বন্দর , শিল্প ও বাণিজ্য অঞ্চল । ii ) শুষ্ক কৃষির জীবনসত্ত্বা ভিত্তিক মধ্যাঞ্চল ও আঞ্চলিক শিল্প অঞ্চল । iii ) বাণিজ্য গম বলয় : আঞ্চলিক শিল্প এলাকাসহ , পাঞ্জাব , রাজস্থান , হরিয়ানা , দিল্লী ও সংলগ্ন অঞ্চলের বাণিজ্য কেন্দ্র । iv ) বাণিজ্যিক শস্য ও পশুপালন অঞ্চল : মহারাষ্ট্র ও গুজরাটের — মুম্বাই , পুণে , আমেদাবাদ , সবরমতী উপত্যকার শিল্প কেন্দ্রগুলো । v ) পার্বত্য অঞ্চল  ঃ জীবন সত্ত্বাভিত্তিক কৃষি , কুটিরশিল্প নির্ভর চারুশিল্প ও পর্যটন কেন্দ্র ভিত্তিক অঞ্চল ।

5. ভারতের পরিকল্পনা কমিশন গঠন কী ? 

Ans: যে সংস্থা ভারতের বিভিন্ন স্থানে কৃষি , শিল্প , বাণিজ্য সংক্রান্ত পরিকল্পনা গ্রহণ ও রূপায়ণের জন্য বায় বরাদ্দ করে তাকে পরিকল্পনা কমিশন বলে । ভারতের এই পরিকল্পনা কমিশন সংবিধান বহির্ভূত এক সংস্থা । এর সদস্য সংখ্যা কোন সাংবিধানিক সংস্থার মতো নির্দিষ্ট নয় । প্রধানমন্ত্রী এই কমিশনের সভাপতি । এছাড়া অর্থমন্ত্রী , প্রতিরক্ষা মন্ত্রী , স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী ও বিদেশমন্ত্রী ও অন্যান্য কিছু ক্যাবিনেট পর্যায়ের মন্ত্রী এর সদস্য হন । রাজ্যের কোন প্রতিনিধি এই কমিশনে থাকেন না । ফলে কেন্দ্রীয় সরকারই এই কমিশনের প্রধান উপদেষ্টা ।

6.  রাজ্য বিভাজনে ভাষার ভূমিকা কী ? 

Ans: ভারতে মূলত ভাষাকে কেন্দ্র করে রাজ্য বিভাজন করা হয় । এর সুবিধা হল প্রশাসনিক কাজে সাফল্য , আঞ্চলিক ভাষার মাধ্যমে শিক্ষাদান , আঞ্চলিক উন্নয়ন ও ভাষার উন্নয়ন থাকা সত্ত্বেও অসুবিধাগুলি ভারতীয় যুক্তরাষ্ট্রের কাঠামোকে নড়বড়ে করে দিচ্ছে । যেমন i ) ভাষার হাত ধরেই বিভিন্ন আঞ্চলিকতাবাদের উৎপত্তি হয়েছে । ii ) ভাষাগত সীমারেখা টেনে দেওয়ার ফলে রাজ্য এবং বিভিন্ন ভাষাভাষীর ক্ষেত্রে বৈরিতামুলক মনোভাব সৃষ্টি হয়েছে । iii ) ভাষাগত আঞ্চলিকীকরণের ফলে জাতীয় সংগতির ভাবধারা দুর্বল হয়েছে । পরে ভাষাগত সংখ্যালঘুদের উপর সংখ্যাগুরুদের আক্রমণ শুরু হয়েছে । . iv ) আঞ্চলিক গণ আন্দোলন ভাষাগত বিভেদের ফলেই তৈরী হয় ।

7. পরিকল্পনা অঞ্চল ( Planning Region ) কী ?

Ans: কোন ভূ – খণ্ডে সুষম অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য পরিকল্পনার উদ্দেশ্য ও কর্মসুচীকে একইভাবে কার্যকরী করা হয় এবং সমগ্র অঞ্চলটির ভূ – প্রাকৃতিক ও আর্থ সাংস্কৃতিক অবস্থা অভিন্ন হয় , তাকে পরিকল্পনা অঞ্চল বলে ।

বৈশিষ্ট্য : ( i ) পরিকল্পনা অঞ্চল আকৃতিতে মাঝারি প্রকৃতির হয় । ( ii ) পরিকল্পনা অঞ্চলের একটি নির্দিষ্ট সীমানা থাকবে ও সীমানাগুলি নমনীয় প্রকৃতির হবে । ( iii ) পরিকল্পনা অঞ্চলগুলিতে কার্যমুলক একতা লক্ষ্য করা যাবে ।

উদাহরণঃ দণ্ডকারণ্য পরিকল্পনা অঞ্চল ।

8. ভারতের বিভিন্ন প্রাকৃতিক অঞ্চল কী ?

Ans: R.L. Singh ভারতকে চারটি বৃহৎ অঞ্চলে বিভক্ত করেছেন । যথা— a ) হিমালয় অঞ্চল হিমাদ্রি হিমালয় , টেথিস হিমালয় , হিমাচল হিমালয় ও শিবালিক হিমালয় । b )

উত্তর ভারতের সমভূমি রাজস্থান সমভূমি , পাঞ্জাব সমভূমি , উচ্চ , মধ্য ও নিম্ন গাঙ্গেয় সমভূমি ও অসম উপত্যকা । c ) উপদ্বীপীয় মালভূমি অঞ্চল : বুন্দেলখণ্ড , বাঘেলখণ্ড , ছোটনাগপুরের মালভূমি , দণ্ডকারণ্য , অন্ধ্র , কর্ণাটক মালভূমি । d ) দ্বীপ ও উপকূল  ঃ আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ , পূর্ব ও পশ্চিম উপকূল ।

9. ভৌগলিক অঞ্চল ( Geographical Region ) কী ? 

Ans: যে সকল স্থানের ভূ – প্রকৃতি , মৃত্তিকা , জলবায়ু , উদ্ভিদকুল ও প্রাণীকূল এবং মানুষের জীবনযাত্রার মান প্রায় একই , সেই সকল অঞ্চলকে ভৌগলিক অঞ্চল বলে । বৈশিষ্ট্য  ঃ ( i ) ভৌগলিক অঞ্চল প্রাকৃতিক ও সাংস্কৃতিক বৈশিষ্ট্যের উপর গড়ে ওঠে । ( ii ) এই অঞ্চল রাজনৈতিক মানুষের দ্বারা উপকৃত হয় । ( iii ) এই অঞ্চল চির পরিবর্তনশীল । ( iv ) আঞ্চলিক ভূগোল পাঠের আলোচনার দ্বারা ভৌগলিক অঞ্চল নির্ধারণ করা হয় ।

10. স্পেট ( Spate ) ও এস . পি . চ্যাটার্জী কৃত ( S.P. Chatterjee ) ভারতের প্রাকৃতিক অঞ্চলের শ্রেণী । 

Ans: স্পেট ( O.H.K. Spate ) ভারতকে ভূ – প্রকৃতির উপর ভিত্তি করে 4 টি প্রধান ভাগে ভাগ করেছেন । যথা— ( a ) পার্বত্য সীমানা , ( b ) সিন্ধু – গন্ধা সমভূমি , ( c ) উপদ্বীপীয় ভারত , ( d ) দ্বীপ অঞ্চল । এই অঞ্চলগুলিকে তিনি আবার 37 টি উপ অঞ্চলে ভাগ করেছেন ।

S.P. Chatterjee ভূ – প্রাকৃতিকভাবে ভারতকে 5 ভাগে বিভক্ত করেছেন । যথা- ( a ) পার্বত্য অঞ্চল , ( b ) উত্তর ভারতের সমভূমি অঞ্চল , ( c ) মধ্য ও দক্ষিণ ভারতের উচ্চভূমি ও মালভূমি অঞ্চল : ( d ) উত্তর – পূর্ব ভারতের উচ্চভূমি অঞ্চল , ( e ) উপকূলীয় সমভূমি ও দ্বীপ অঞ্চল ।

11. প্রশাসনিক অঞ্চল ( Administrartive Region ) কী ? 

Ans: কোন এলাকা প্রশাসকের দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হলে তাকে প্রশাসনিক অঞ্চল বলে ।

বৈশিষ্ট্য : i ) অঞ্চলটিতে আঞ্চলিক সচেতনা লক্ষ্য করা যায় । ii ) বৃহত্তম প্রশাসনিক একক হল জেলা । iii ) অঞ্চলটি Human Catchment Area এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত ।

উদাহরণ : ক্ষুদ্রতম প্রশাসনিক এককের নাম গ্রাম ও বৃহত্তম একক জেলা ।

12. ডাম্পিয়ার হাজেস রেখা ( Dampiar – Hojes Line ) কী ? 

Ans: 1830 সালে দুই ইংরাজ সার্ভেয়র ডম্পিয়ার এবং হোজেসের প্রচেষ্টায় সুন্দরবনে জমি উদ্ধার ও জরিপের জন্য যে সীমারেখা চিহ্নিত করা হয় তাকে ডম্পিয়ার হোজেস রেখা বলে । এই রেখাটি উত্তরে হাসনাবাদ , হাড়োয়া , মিনাখা , ক্যানিং হয়ে জয়নগর ও মথুরাপুরের উত্তরদিকে কয়েকটি বাঁক সৃষ্টি করে ।

13. অ্যাডহক অঞ্চল ( Adhoc Region ) কী ? 

Ans: কোন দেশের বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে যে অঞ্চলকে চিহ্নিত করা হয় তাকে অ্যাডহক অঞ্চল বলে । সাধারণত কোন অঞ্চলের নীতি নির্ধারণ বা পরিকল্পনার জন্য এই অঞ্চলের সৃষ্টি হয় ।

14. B.L.C. Jonson কৃত ভারতের কৃষি অঞ্চলের শ্রেণিবিভাগ করো । 

Ans: 1971 খ্রিঃ জনসন প্রধান ফসল ও শস্যের মিশ্রণের ভিত্তিতে ভারতকে 17 টি কৃষি অঞ্চলে ভাগ করেন । এগুলি হল- ( 1 ) একফসলি ধান অঞ্চল ( 2 ) ধান ভুট্টা , ( 3 ) ধান – গম , ( 4 ) গম ( 5 ) গম – মিলেট , ( 6 ) তুলা মিলেট , ( 7 ) জোয়ার , ( 8 ) জোয়ার – ধান ( 9 ) জোয়ার – তৈলবীজ , ( 10 ) ধান – আলু , ( 11 ) নারকেল , ( 12 ) ট্যাপিওকা ধান , ( 13 ) স্থানান্তর কৃষি , ( 14 ) মিলেট – খান , ( 15 ) গম – ভুট্টা , ( 16 ) বাগিচা কৃষি ( 17 ) খারিফ – মিলেট ।

15. Jasbir Singh- কৃত ভারতের কৃষি অঞ্চলের শ্রেণিবিভাগ করো । 

Ans: 1945 খ্রিঃ জাসবির সিং কৃষিজ ফসলের ভিত্তিতে 12 টি প্রধান কৃষি অঞ্চল চিহ্নিত করেছেন ।

যাথা- ( i ) ধান অঞ্চল , ( ii ) জোয়ার অঞ্চল , ( iii ) বাজরা অঞ্চল , ( iv ) গম অঞ্চল , ( v ) তুলা ( vi ) তৈলবীজ অঞ্চল , ( vii ) ডাল অঞ্চল , ( viii ) ভুট্টা অঞ্চল , ( ix ) রাগি অঞ্চল , ( x ) বালি অঞ্চল ( xi ) চা অঞ্চল , ( xii ) আবাদী শস্য ।

16. ভারতের কৃষি জলবায়ু অঞ্চল কী কী ? 

Ans: ভারতকে 15 টি কৃষি – জলবায়ু অঞ্চলে ভাগ করা যায় । যথা— ( 1 ) পশ্চিম হিমালয় , ( 2 ) পূর্ব হিমালা , ( 3 ) নিম্নগা সমভূমি , ( 4 ) মধ্যগঙ্গা সমভূমি , ( 5 ) উচ্চগঙ্গা সমভূমি , ( 6 ) ট্রান্স – গঙ্গা সমভূমি ( 7 ) পূর্বের মালভূমি , ( 8 ) পশ্চিমের মালভূমি , ( 9 ) মধ্যভাগের মালভূমি , ( 10 ) দক্ষিণের মালভূমি , ( 11 ) পূর্ব উপকূল , ( 12 ) পশ্চিম উপকূল , ( 13 ) গুজরাট , ( 14 ) পশ্চিমের শুষ্ক অঞ্চল , ( 15 ) দ্বীপ ও দ্বীপপুঞ্জ ।

17. কৃষি – ফলবায়ু অঞ্চলের ( Agro Climatic Region ) গুরুত্ব কী ? 

Ans: a ) শসাপর্যায় : কোন অঞ্চলের শস্যপর্যায় নির্ণয় করা যায় ।

b ) ভূমি ব্যবহার : কোন অঞ্চলের সঠিক ভূমি ব্যবহার করা যায় ।

c ) ব্যবস্থাপনা গ্রহণ : কৃষি বনসৃজন , সামাজিক বনসৃজন ও ভৌমজলের সঠিক ব্যবহার করা যায় ।

d ) প্রকল্প গ্রহণ : মরুভূমিকরণ রোধ করে অঞ্চলটির প্রকৃত উন্নতি সম্ভব ।

18. করণ ও জেনকিনস কৃত ভারতের শিল্পাঞ্চল কী ? 

Ans: 1959 খ্রিঃ পি.পি.করণ ও ডরু . এম . জেনকিনস্ ভারতে ১ টি প্রধান ও ৪ টি গৌণ শিল্পাঞ্চল চিহ্নিত ( i ) কলকাতা – হুগলী , ( ii ) মুম্বাই পুণা , ( iii ) আমেদাবাদ বরোদা , ( iv ) মাদুরাই — কোয়েম্বাটুর ব্যাঙ্গালোর , ( v ) ছোটনাগপুর শিল্পাঞ্চল । – ( viii ) ধারওয়ার – বেলগাঁও , ( ix ) গোদাবরী – কৃষ্ণার ব – দ্বীপ । গৌণ শিল্পাঞ্চল ( i ) অসম উপত্যকা , ( ii ) দার্জিলিং তরাই , ( iii ) দিল্লি – মিরাট , ( iv ) উত্তর বিহার ও পূর্ব উত্তরপ্রদেশ , ( v ) ( vi ) ইন্দোর উজ্জয়িনী , ( vii ) নাগপুর – ওয়ার্থ ,

19. R.L. Sing- এর প্রদত্ত ভারতীয় শিল্পাঞ্চলের শ্রেণিবিভাগ করো । 

Ans: 1971 খ্রিস্টাব্দে R.L. Sing ভারতীয় শিল্পাঞ্চলকে ।। টি ভাগে বিভক্ত করেন ।

যথা- ( i ) কলকাতা হুগলী শিল্পাঞ্চল ( ii ) দক্ষিণ – বিহার ও উত্তর ওড়িশা : শিল্পাঞ্চল ( iii ) আমেদাবাদ – ভাদোদরা শিল্পাঞ্চল ; ( iv ) মুম্বাই পুণা শিল্পাঞ্চল ( v ) ব্যাঙ্গালোর চেন্নাই শিল্পাঞ্চল ( vi ) কোয়েম্বাটুর – মাদুরাই – শিবকাশী শিল্পাঞ্চল ; ( vii ) কেরালা শিল্পাঞ্চল ; ( viii ) লক্ষ্ণৌ – কানপুর শিল্পাঞ্চল ; ( ix ) দিল্লী – গাজিয়াবাদ অমৃতসর শিল্পাঞ্চল ( x ) ডিগবয় শিল্পাঞ্চল ( xi ) পূর্ব উত্তরপ্রদেশ ও উত্তর বিহার শিল্পাঞ্চল ।

20. B.N. Sinha কৃত ভারতীয় শিল্পাঞ্চলের শ্রেণিবিভাগ করো । 

Ans: 1972 খ্রিস্টাব্দে B.N. Sinha দৈনিক শিল্প শ্রমিকের ভিত্তিতে তিন ধরণের শিল্পাঞ্চল চিহ্নিত করেছেন ।

A ) বৃহৎ শিল্পাঞ্চল ও দৈনিক ন্যূনতম 1.5 লক্ষ শ্রমিক সমন্বিত শিল্পাঞ্চল । যেমন – ( a ) কলকাতা হুগলী ; ( b ) মুম্বাই পুণে ; ( c ) আমেদাবাদ – ভাদোদরা প্রভৃতি ।

B ) ক্ষুদ্র শিল্পাঞ্চল : দৈনিক কমপক্ষে 0.25 লক্ষ শ্রমিক সমন্বিত শিল্পাঞ্চল । যেমন- ( a ) কানপুর শিল্পাঞ্চল ; ( b ) গোদাবরী – কৃষা শিল্পাঞ্চল ( c ) নাগপুর – ওয়ার্ধা শিল্পাঞ্চল ( d ) শোলাপুর শিল্পাঞ্চল ।

C ) শিল্প জেলা : দৈনিক সর্বোচ্চ 25 হাজার শ্রমিকযুক্ত অঞ্চল । যেমন- ( a ) তিরুনেলভেলি ; ( b ) উত্তর আর্কট ; ( c ) নিজামাবাদ ( d ) বান্দ্রা ( e ) কটক ; ( f ) আগ্রা ; ( g ) অমৃতসর ; ( h ) রামপুর ।

21. Centre for Monitoring Indian Economy বা C.M.I.E. কী ?

Ans: 1908 খ্রিস্টাব্দে এই C.M.I.E. সংস্থাটি গঠিত হয় । এই সংস্থাটি ভারতে প্রায় 111 টি শিল্পকেন্দ্রের কথা বলে । যেমন— ( 1 ) বৃহত্তর মুম্বাই ( 2 ) থানে ( 3 ) পুণে ; ( 4 ) কোলাপুর : ( 5 ) আমেদাবাদ : ( 6 ) রাজকোট ; ( 7 ) লুধিয়ানা : ( 8 ) মহীশুর ( 9 ) আসানসোল ( 10 ) জব্বলপুর ; ( 11 ) কানপুর , ( 12 ) আজমের ।

22. তিন বিঘা করিডোর কী ? 

Ans: ভারত ও বাংলাদেশের সীমান্তে বাংলাদেশের পানবাড়ি মৌজা থেকে চারদিকে ভারতবেষ্টিত দহ গ্রাম ও আরোপোতা অঞ্চলে 170 মিটার x 85 মিটার 1992 সালে বাংলাদেশকে ভারত সরকার লিজ দেয় । একেই তিনবিঘা করিডোর বলে । অর্থাৎ , এটি হল ভারতীয় এলাকায় বাংলাদেশি ছিটমহল । সরকারী হিসেবে ভারতীয় ভূ – খণ্ডের মধ্যে 130 টি বাংলাদেশি ছিটমহল রয়েছে । তারমধ্যে দহগ্রাম ও আংরাপোতাই সবচেয়ে বড় । আবার বাংলাদেশের মধ্যে ভারতের 95 টি ছিটমহল রয়েছে ।

23. ভারতে আঞ্চলিক বিভাজনের ভিত্তি কী ? 

Ans: বিভিন্ন ভূগোলবিদ ভারতে আঞ্চলিক বিভাজনের ভিত্তি উল্লেখ করেছেন— ক ) S.P. চ্যাটার্জ্জী ও R.L. সিং এর মতে প্রাকৃতিক পরিবেশের ভিত্তিতে ভারতের আঞ্চলিক বিভাজন করা সম্ভব । Karan এর মতে ভূ – প্রাকৃতিক বৈচিত্র্য অনুসারে এই বিভাজন করা দরকার । গ ) Baker ভারতের আঞ্চলিক বিভাজন করেছেন ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলের অর্থনৈতিক উপাদানের ভিত্তিতে । ঘ ) সেনগুপ্ত ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলের আর্থ সামাজিক অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে এই বিভাজন করেছেন ।

FILE INFO : ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ – Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions | ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল প্রশ্নোত্তর (Regional Geography of India – Geography)

File Details:

PDF Name : ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ – Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions | ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল প্রশ্নোত্তর (Regional Geography of India – Geography)

Price : FREE

Download Link : Click Here To Download

INFO : Geography – Regional Geography of India – Question and Answer | ভূগোল – ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ (Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions) প্রশ্নোত্তর

” ভূগোল (Geography) – ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল (Regional Geography of India) – ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ – Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions “ একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ টপিক বিভিন্ন শ্রেনীর পরীক্ষা (Class 5, 6, 7, 8, 9,  Madhyamik, Class 11, Higher Secondary – HS, College & University Exam) এবং বিভিন্ন চাকরির (WBCS, WBSSC) পরীক্ষায় এখান থেকে প্রশ্ন অবশ্যম্ভাবী । সে কথা মাথায় রেখে BhugolShiksha.com এর পক্ষ থেকে ভূগোল পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নো ও উত্তর উপস্থাপনের প্রচেষ্টা করা হলাে। ছাত্রছাত্রী, পরীক্ষার্থীদের উপকারে লাগলে, আমাদের প্রয়াস  ভূগোল (Geography) ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল (Regional Geography of India) – ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ – Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions / ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ সংক্ষিপ্ত ছোট প্রশ্ন ও উত্তর / ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions (Regional Geography of India – Geography)  SAQ / Short Question and Answer / ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions (Regional Geography of India – Geography) Quiz / ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions (Regional Geography of India – Geography) QNA / ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions (Regional Geography of India – Geography) Question and Answer FREE PDF Download ) পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নোত্তর সফল হবে।

ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions (Regional Geography of India – Geography) Question and Answer in Bengali

স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনার ডিজিটাল মাধ্যম BhugolShiksha.com । এর প্রধান উদ্দেশ্য পঞ্চম শ্রেণী থেকে নবম শ্রেণী, মাধ্যমিকউচ্চ মাধ্যমিক সমস্ত বিষয় এবং গ্রাজুয়েশনের শুধুমাত্র ভূগোল বিষয়কে  সহজ বাংলা ভাষায় আলোচনার মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের কাছে সহজ করে তোলা।

ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions (Regional Geography of India – Geography)

আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ সময় করে আমাদের এই ” ভারতের আঞ্চলিক শ্রেণীকরণের ভিত্তি ধারনা , প্রকৃতি ও শ্রেণীবিভাগ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Physical & Economic Concept , Nature , Type , Scale And Dimensions (Regional Geography of India – Geography) ” পােস্টটি পড়ার জন্য। এই ভাবেই আমাদের ভূগোল শিক্ষা – Bhugol Shiksha – BhugolShiksha.com ওয়েবসাইটের পাশে থাকুন। ভূগোল বিষয়ে যেকোনো প্ৰশ্ন উত্তর জানতে এই ওয়েবসাইটটি ফলাে করুন এবং নিজেকে ভৌগোলিক  তথ্য সমৃদ্ধ করে তুলুন , ধন্যবাদ।

Subscribe Our YouTube Channel

Join Our Telegram Channel

E-mail Subscription