মাধ্যমিক ভূগোল সহায়ক – প্রশ্ন উত্তর | বারিমণ্ডল (তৃতীয় অধ্যায়) | ভূগোল শিক্ষা

3454

মাধ্যমিক ভূগোল দশম শ্রেণী | Madhyamik Geography | WBBSE


বারিমণ্ডল (তৃতীয় অধ্যায়) Hydrosphere
 


1 . পৃথিবীর বৃহত্তম মহাসাগরের নাম কী ?
উত্তরঃ প্রশান্ত মহাসাগর ।
2 . পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম মহাসাগরের নাম কী ?
উত্তরঃ আটলান্টিক মহাসাগর ।
3 . ভূ – পৃষ্ঠের শতকরা কত ভাগ স্থান জলভাগ অধিকার করে আছে ?
উত্তরঃ ৭০ ভাগ ।
4 . আটলান্টিক মহাসাগরের দুটি উষ্ণ স্রোতের নাম লেখ ।
উত্তরঃ উপসাগরীয় স্রোত ও ব্রেজিল স্রোত ।
5 . আটলান্টিক মহাসাগরের কোন অংশে হিমপ্রাচীর সৃষ্টি হয় ?
উত্তরঃ উত্তর আটলান্টিক মহাসাগরের পশ্চিমাংশে হিমপ্রাচীর সৃষ্টি হয় ।
6 . সমুদ্রস্রোত বলতে কী বােঝ ?
উত্তরঃ সমুদ্রের জলরাশি নিয়মিতভাবে একস্থান থেকে অন্যস্থানে প্রবাহিত হয় । সমুদ্র জলরাশির এই প্রবাহকেই বলে সমুদ্রস্রোত ।
7 . শৈবাল সাগর কী ?
উত্তরঃ উত্তর আটলান্টিক মহাসাগরের দক্ষিণ পশ্চিমাংশে উত্তর নিরক্ষীয় স্রোত , উপসাগরীয় স্রোত , ক্যানারী স্রোত প্রভৃতি মিলে একটি জলাবর্তের সৃষ্টি করে যার মধ্যভাগ স্রোতবিহীন । ফলে মধ্যভাগে নানারকম আগাছা , শৈবাল ও জলজ উদ্ভিদ জন্মায় । এইজন্য এই অংশের নাম শৈবাল সাগর ।
8 . ব্রেজিল স্রোত কাকে বলে ?
উত্তরঃ দক্ষিণ আটলান্টিক মহাসাগরের পূর্বাংশে ব্রেজিলের পূর্ব উপকূল বরাবর যে উষ্ণ স্রোতটি উত্তর থেকে দক্ষিণে প্রবাহিত হয় তাকে ব্রেজিল স্রোত বলে ।
9 . বেঙ্গুয়েলা স্রোত কাকে বলে ?
উত্তরঃ এটি আটলান্টিক মহাসাগরের দক্ষিণ – পূর্ব প্রান্তের একটি শীতল স্রোত দক্ষিণ মহাসাগর থেকে শীতল কুমেরু স্রোতের একটি শাখা আফ্রিকার পশ্চিম উপকূল বরাবর উত্তরদিকে প্রবাহিত হয় । এরই নাম বেঙ্গুয়েলা স্রোত ।
10 . হিমপ্রাচীর কী ?
উত্তরঃ উত্তর আমেরিকার পূর্ব উপকূলে উত্তর আটলান্টিক মহাসাগরের পশ্চিমাংশে দক্ষিণমুখী শীতল ল্যাব্রাডর স্রোতের প্রায় সবুজ জল এবং উত্তরমুখী উষ্ণ মহাসাগরীয় স্রোতের ঘন নীল জলের মাঝখানে যে বিভাজন রেখা দেখা যায় তাকে হিমপ্রাচীর বলে ।
11 . হিমশৈল কাকে বলে ?
উত্তরঃ সমুদ্রে ভাসমান বিশাল আকৃতির বরফের স্থূপকে বলে হিমশৈল ।
12 . আটলান্টিক মহাসাগরের নিরক্ষীয় প্রতিস্রোত কী ?
উত্তরঃ আটলান্টিক মহাসাগরের প্রায় মধ্যাংশে পশ্চিমমুখী উত্তর ও দক্ষিন নিরক্ষীয় স্রোত দুটির ঠিক মাঝখানে একটি স্রোত বিপরীত মুখে অর্থাৎ পূর্বদিকে প্রবাহিত হয় একে বলে আটলান্টিকের নিরক্ষীয় প্রতিস্রোত ।
13 . কুরেশিয়ে স্রোত বা জাপান স্রোত কাকে বলে ?
উত্তরঃ প্রশান্ত মহাসাগরের পূর্বাংশে বিশেষত জাপানের পূর্ব উপকূল বরাবর দক্ষিণ থেকে উত্তরে প্রবাহিত উষ্ণ স্রোতের নাম কুরেশিয়াে স্রোত বা জাপান স্রোত ।
14 . জাপান উপকূল কোন স্রোতের প্রভাবে উষ্ণ থাকে ?
উত্তরঃ কুরেশিয়ে স্রোত বা জাপান স্রোতের প্রভাবে ।
15 . বেরিং স্রোত কাকে বলে ?
উত্তরঃ উত্তরের সুমেরু মহাসাগর থেকে একটি শীতল স্রোত মেরুবায়ুর প্রভাবে বেরিং প্রণালীর মধ্য দিয়ে দক্ষিণদিকে প্রবাহিত হয়ে প্রশান্ত মহাসাগরে প্রবেশ করে একেই বলে বেরিং স্রোত ।
16 . মালাগাসি দ্বীপের পূর্ব উপকূল দিয়ে প্রবাহিত স্রোতটির নাম কী ?
উত্তরঃ মালাগাসি স্রোত ।
17 . হিমপ্রাচীর কোন মহাসাগরে দেখা যায় ?
উত্তরঃ আটলান্টিক মহাসাগরে ।
18 . কী কী কারণে জোয়ার – ভাটা হয় ?
উত্তরঃ পৃথিবীর আবর্তন গতিএবং পৃথিবীর ওপর চাঁদ ও সূর্যের আকর্ষণজনিত বলের কারণে ।
19 . চান্দ্র জোয়ার কাকে বলে ?
উত্তরঃ চন্দ্রের আকর্ষণে পৃথিবীতে যে জোয়ার হয় | তাকে চান্দ্র জোয়ার বলে ।
20 . সৌর জোয়ার কাকে বলে ?
উত্তরঃ সূর্যের আকর্ষণে পৃথিবীতে যে জোয়ার হয় রাকে সৌর জোয়ার বলে ।
21 . কোন স্থানে একটি জোয়ার ও একটি ভাটার মধ্যে সময়ের ব্যবধান কত থাকে ?
উত্তরঃ ৬ ঘণ্টা ১ মিনিট ।
22 . কোন স্থানে মুখ্য জোয়ার ও গৌণ জোয়ারের মধ্যে সময়ের ব্যবধান কত থাকে ?
উত্তরঃ ১২ ঘণ্টা ২৬ মিনিট ।
23 . পৃথিবীর একটি স্থানে দিনে কত বার জোয়ার – ভাটা হয় ?
উত্তরঃ দু – বার জোয়ার ও দু – বার ভাটা হয় ।
26 . কোন স্থানে যখন মুখ্য জোয়ার হয় , তার প্রতিপাদ স্থানে তখন কী অবস্থা বিরাজ করে ?
উত্তরঃ গৌণ জোয়ার ।
25 . কোন স্থানে দু – বার মুখ্য জোয়ারের মধ্যে সময়ের ব্যবধান কত থাকে ?
উত্তরঃ ২৪ ঘণ্টা ৫২ মিনিট ।
26 . প্রত্যহ কতবার জোয়ার ভাটা হয় ?
উত্তরঃ প্রত্যহ দু – বার জোয়ার ভাটা ও দু – বার ভাটা হয় ।
27 . ভরা কোটাল কোন দিনে হয় ?
উত্তরঃ অমাবস্যা ও পূর্ণিমার দিনে ।
28 . দুই মুখ্য বা গৌণ জোয়ারের মধ্যে সময়ের ব্যবধান কত ?
উত্তরঃ ২৪ ঘণ্টা ৫২ মিনিট ।
29 . জোয়ার – ভাটা খেলে এমন একটি নদীর নাম কর ।
উত্তরঃ হুগলী নদী ।
30 . একটি স্বাদু জলের হ্রদের নাম লেখ ।
উত্তরঃ আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের সুপিরিয়র ।
31 . ভারতের একটি সুপেয় জলের হ্রদের নাম লেখ ।
উত্তরঃ ডাল হ্রদ ।
32 . একটি লবনাক্ত জলের হ্রদের নাম লেখ ।
উত্তরঃ জর্ডন – ইস্রায়েল সীমান্তের মরুসাগর ।
33 . চিল্কা কী জাতীয় হ্রদ ?
উত্তরঃ লবণাক্ত জলের হ্রদ ।
34 . পৃথিবীর বৃহত্তম হ্রদের নাম কী ?
উত্তরঃ কাস্পিয়ান ।
35 . পৃথিবীর বৃহত্তম সুপেয় জলের হ্রদের নাম কী ?
উত্তরঃ আমেরিকার সুপিরিয়র ।
36 . পৃথিবীর সর্বাপেক্ষা লবণাক্ত হ্রদ কোনটি ?
উত্তরঃ জর্ডন – ইস্রায়েল সীমান্তের মরুসাগর ।
37 . পৃথিবীর গভীরতম হ্রদের নাম কী ?
উত্তরঃ রাশিয়ার বৈকাল ।
38 . পৃথিবীর সর্বোচ্চ হ্রদের নাম কী ?
উত্তরঃ দক্ষিণ আমেরিকার টিটিকাকা ।
39 . পৃথিবীর নিম্নতম হ্রদ কোনটি ?
উত্তরঃ জর্ডন – ইস্রায়েল সীমান্তের মরুসাগর ।
40 . হিমবাহের ক্ষয়কার্যের ফলে কোন হ্রদ সৃষ্টি হয় ?
উত্তরঃ করি হ্রদ ।
41 . ভারতের পূর্ব উপকূলের একটি উপহ্রদের নাম কর ।
উত্তরঃ চিল্কা , পুলিকট ।
42 . একটি উপহ্রদের নাম লেখ ।
উত্তরঃ চিল্কা ।

সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর:-

প্রশ্ন:- পৃথিবীর বৃহত্তম ও গভীরতম মহাসাগর কোনটি ?
উত্তর:- পৃথিবীর বৃহত্তম ও গভীরতম মহাসাগরের নাম হল প্রশান্ত মহাসাগর ।

প্রশ্ন:- বেঙ্গুয়েলা স্রোত কোথায় দেখা যায় ?
উত্তর:- বেঙ্গুয়েলা স্রোত দেখা যায় আটলান্টিক মহাসাগরে ।

প্রশ্ন:- হিমপ্রাচীর কোথায় দেখা যায় ?
উত্তর:- হিমপ্রাচীর দেখা যায় আটলান্টিক মহাসাগরে ।

প্রশ্ন:- চাঁদের একবার পৃথিবী পরিক্রমণ করতে কত সময় লাগে ?
উত্তর:- চাঁদের একবার পৃথিবী পরিক্রমণ করতে ২৭১/২ দিন সময় লাগে ।

প্রশ্ন:- ভূপৃষ্ঠের জলভাগের প্রতিটি স্থানে ২৪ ঘন্টায় ক-বার জোয়ার ও ক-বার ভাটা হয়  ?
উত্তর:- ভূপৃষ্ঠের জলভাগের প্রতিটি স্থানে ২৪ ঘন্টায় দু-বারজোয়ার ও দু-বার ভাটা হয় ।

প্রশ্ন:- মরা কোটাল কখন দেখা যায় ?
উত্তর:- যখন চন্দ্র ও সূর্য পরস্পরের সমকোণে অবস্থান করে তখন মরা কোটাল দেখা যায় ।

প্রশ্ন:- সমুদ্রস্রোত সৃষ্টির প্রধান কারণ কি  ?
উত্তর:- সমুদ্রস্রোত সৃষ্টির প্রধান কারণ হল নিয়ত বায়ুপ্রবাহ ।

প্রশ্ন:- ভরা কোটাল কোথায় হয় ?
উত্তর:- অমাবস্যার দিনে পৃথিবীর যে অংশ চন্দ্রের সামনে আসে সেখানে ভরা কোটাল কোথায় হয় ।

প্রশ্ন:- ভারত মহাসাগরীয় স্রোত কোন বায়ুপ্রবাহ দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়  ?
উত্তর:- ভারত মহাসাগরীয় স্রোত সাময়িক বায়ুপ্রবাহ দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয় ।

প্রশ্ন:- কোন স্রোতের প্রভাবে জাপান উপকূল উষ্ণ থাকে  ?
উত্তর:- উষ্ণ কুরোশিয়ো স্রোতের প্রভাবে জাপান উপকূল উষ্ণ থাকে ।

প্রশ্ন:- মগ্নচড়ার সৃষ্টি কোথায় হয় ?
উত্তর:- শীতল ও উষ্ণ স্রোতের মিলনস্থলে মগ্নচড়ার সৃষ্টি হয় ।

প্রশ্ন:- গ্র্যান্ড ব্যাঙ্ক অঞ্চলটি কিসের জন্য বিখ্যাত  ?
উত্তর:- গ্র্যান্ড ব্যাঙ্ক অঞ্চলটি বাণিজ্যিক মত্স্য চাষের জন্য বিখ্যাত ।

প্রশ্ন:- জোয়ারভাটা খেলে এমন একটি নদীর নাম কি ?
উত্তর:- জোয়ারভাটা খেলে এমন একটি নদীর নাম হল টেমস্।

প্রশ্ন:- শৈবাল সাগর কি ?
উত্তর:- উত্তর আটলান্টিক ও উত্তর প্রশান্ত মহাসাগরে অবস্থিত ভাসমান আগাছা ও শৈবালপূর্ণ বিস্তৃত স্রোতহীন জলভাগকে ‘শৈবাল সাগর’ বলে ।

সৌজন্যে:- দেবব্রত মন্ডল (ভূগোল শিক্ষা)