উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন – অবরোহ মূলক তর্কবিদ্যা – অমাধ্যম অনুমান (চতুর্থ অধ্যায়) প্রশ্নোত্তর সাজেশন | Higher Secondary Philosophy Suggestion

4099
উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন - অবরোহ মূলক তর্কবিদ্যা - অমাধ্যম অনুমান (চতুর্থ অধ্যায়) প্রশ্নোত্তর সাজেশন | Higher Secondary Philosophy Suggestion

Higher Secondary Philosophy Suggestion | WBCHSE HS Exam Qustion and Answer | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন (দ্বাদশ শ্রেণীর) প্রশ্নোত্তর সাজেশন

অবরোহ মূলক তর্কবিদ্যা – অমাধ্যম অনুমান (চতুর্থ অধ্যায়)

অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর [মান ১] অবরোহ মূলক তর্কবিদ্যা – অমাধ্যম অনুমান

1. আবর্তন কাকে বলে?

Ans. যে অমাধ্যম অনুমানে একটি বচনের গুণ অপরিবর্তিত রেখে উদ্দেশ্য ও বিধেয়কে ন্যায়সংগতভাবে যথাক্রমে অন্য একটি বচনের বিধেয় ও উদ্দেশ্যে পরিণত করা হয়, তাকে আবর্তন বলে।

2. ব্যাবর্তন বা বিবর্তন বা প্রতিবর্তন কাকে বলে?

Ans. যে অমাধ্যম অনুমানে প্রদত্ত বচনটির গুণের পরিবর্তন করে এবং সেই বচনটির বিধেয়ের বিরুদ্ধের পদ সিদ্ধান্তের বিধেয় পদরূপে গ্রহণ করে একটি নতুন বচন গ্রহণ করা হয় তাকে ব্যাবর্তন বা বিবর্তন বা প্রতিবর্তন বলা হয়।

3. আবর্তনের ক্ষেত্রে সিদ্ধান্তটিকে কী বলা হয়?

Ans. আবর্তিত।

4. বিবর্তনের দুটি নিয়ম লেখো।

Ans. আশ্রয়বাক্য ও সিদ্ধান্তের উদ্দেশ্য এক হবে। আশ্রয়বাক্যের বিধেয়ের বিরুদ্ধপদ সিদ্ধান্তের বিধেয় হবে।

5. অনুমান (বা যুক্তি) কয় প্রকার ও কী কী?

Ans. দুই প্রকার – (i) অবরোহ যুক্তি ও (ii) আরোহ যুক্তি।

6. মাধ্যম অনুমান কাকে বলে ?

Ans. যে অবরোহ অনুমানে একটির বেশি হেতুবাক্য থেকে সিদ্ধান্ত অনিবার্যভাবে নিঃসৃত হয়, তাকে মাধ্যম অনুমান বলে।

7. অ-সরল আবর্তন কাকে বলে?

Ans. যে আবর্তনের ক্ষেত্রে আশ্রয়বাক্য ও সিদ্ধান্তের পরিমাণ পৃথক হয়, তাকে অ-সরল আবর্তন বলে।

8. অসম আবর্তন কাকে বলে?

Ans. যে আবর্তনের ক্ষেত্রে আবর্তনীয় ও আবর্তিত বচনের পরিমাণ ভিন্ন হয় তাকে অসম আবর্তন বলে।

9. বিবর্তনকে অমাধ্যম অনুমান বলা হয় কেন?

Ans. বিবর্তনে সিদ্ধান্ত কোনো মাধ্যম ছাড়াই অর্থাৎ অন্য আশ্রয়বাক্য ছাড়াই সরাসরি নিঃসৃত হয়; তাই বিবর্তনকে অমাধ্যম অনুমান বলা হয়।

10. অবরোহ অনুমান কয়প্রকার ও কী কী ?

Ans. দুই প্রকার – (i) অমাধ্যম অনুমান (ii) মাধ্যম অনুমান।

11. বিবর্তনের ক্ষেত্রে হেতুবাক্যটিকে কী বলা হয়?

Ans. বিবর্তনীয়।

12. বস্তুগত বিবর্তনের স্রষ্টা কে?

Ans. যুক্তিবিজ্ঞানী বেন (Bain)।

13. বিরুদ্ধ পদ কাকে বলে?

Ans. যদি দু’টি পদ এমন দুটি শ্রেণি বোঝায়, যাদের কোনো বস্তুই উভয় শ্রেণির অন্তর্ভুক্ত হতে পারে না এবং ওই দুটি পদ দ্বারা নির্দিষ্ট শ্রেণির সবটুকু সম্পূর্ণ হয়, তখন সেই বিরোধী দুটি পদকে পরস্পরের বিরুদ্ধ পদ বলা হয়।

14. মাধ্যম অনুমানে ক’টি আশ্রয়বাক্য থাকে?

Ans. দুই বা ততোধিক আশ্রয়বাক্য থাকে।

15. বিবর্তনের বৈধতার গুণ-সংক্রান্ত নিয়মটি কী?

Ans. আশ্রয়বাক্য ও সিদ্ধান্তের গুণ ভিন্ন হবে অর্থাৎ আশ্রয়বাক্য সদর্থক হলে সিদ্ধান্ত নঞর্থক হবে, আর আশ্রয়বাক্য নঞর্থক হলে সিদ্ধান্ত সদর্থক হবে।

16. বিবর্তনের বিধেয়টি কোন পদ হয় ?

Ans. বিরুদ্ধ পদ হয়।

17. বস্তুগত বিবর্তন কাকে বলে?

Ans. যে বিবর্তন প্রক্রিয়ায় প্রদত্ত বচনের আকারগত বিবর্তন না করে তার অর্থের উপর বিশেষভাবে নির্ভর করা হয় এবং বাস্তব অভিজ্ঞতার সাহায্যে প্রদত্ত বচনটিকে বিবর্তন করা হয়, তাকে বস্তুগত বিবর্তন বলে।
নিম্নলিখিত বাক্যগুলিকে বচনে রূপান্তরিত করে আবর্তন করো

18. শুধু ধার্মিক ব্যক্তিরাই সুখী।

Ans. L.F. – A সকল সুখী ব্যক্তি হয় ধার্মিক (আবর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো ধার্মিক ব্যক্তি হয় সুখী (আবর্তিত)

19. প্রত্যেক কবিই প্রতিভাশালী।

Ans. L.F. – A সকল কবি হয় প্রতিভাশালী (আবর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো প্রতিভাশালী ব্যক্তি হয় কবি (আবর্তিত)

20. বৈজ্ঞানিক দার্শনিক হতে পারেন।
Ans. L.F. – I কোনো কোনো বৈজ্ঞানিক হন দার্শনিক (আবর্তনীয়)।

∴ 1 কোনো কোনো দার্শনিক হন বৈজ্ঞানিক (আবর্তিত)

21. খুব অল্প লোকই বুদ্ধিমান।

Ans. L.F. – 1 কোনো কোনো লোক হয় বুদ্ধিমান (আবর্তনীয়) ।

∴ I কোনো কোনো বুদ্ধিমান হয় লোক (আবর্তিত)

22. অশিক্ষিত মানুষও বুদ্ধিমান।

Ans. L.F. – I কোনো কোনো অশিক্ষিত মানুষ হয় বুদ্ধিমান (আবর্তনীয়)

∴ 1 কোনো কোনো বুদ্ধিমান মানুষ হয় অশিক্ষিত (আবর্তিত)

23. হলুদ পাখি আছে।

Ans. L.F. – I কোনো কোনো পাখি হয় হলুদ (আবর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো হলুদ জীব পাখি হয় (আবর্তিত)

24. শ্রমিকরা কখনোই শোষক নয়।

Ans. L.F. – E কোনো শ্রমিক নয় শোষক (আবর্তনীয়)

∴ E কোনো শোষক নয় শ্রমিক (আবর্তিত)

25. পরিশ্রমী ছাড়া কেউই জীবনে সফল হতে পারে না।

Ans. L.F. – A সকল সফল ব্যক্তি হয় পরিশ্রমী (আর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো পরিশ্রমী ব্যক্তি হয় সফল (আবর্তিত)

26. কোনো মানুষ সুখী নয়।

Ans. L.F. – E কোনো মানুষ নয় সুখী (আবর্তনীয়)

∴ E কোনো সুখী নয় মানুষ (আবর্তিত)

L.F. – E কোনো পাখি নয় পশু (আবর্তনীয়)

∴ E কোনো পশু নয় পাখি (আবর্তিত)

27. সংগীত কে না ভালোবাসে।

Ans. L.F. – A সকল ব্যক্তি হয় ব্যক্তি যারা সংগীত ভালোবাসে (আবর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো ব্যক্তি যারা সংগীত ভালোবাসে হয় ব্যক্তি (আবর্তিত)

28. কেবল ছাত্ররাই এই প্রতিযোগিতায় যোগ দিতে পারে।

Ans. L.F. – A সকল এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী হয় ছাত্র (আবর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো ছাত্র হয় এমন যারা এই প্রতিযোগিতার অংশগ্রহণকারী (আবর্তিত)। I?

29. ব্যবসায়িকরা কদাচিৎ সৎ হয়।

Ans. L.F. – O কোনো কোনো ব্যবসায়িক নয় সৎ (আবর্তিত)

∴ O বচনে আবর্তন সম্ভব নয়।

30. কবিরা সাধারণত শান্তিপ্রিয় হন।

Ans. L.F. – 1 কোনো কোনো কবি হন শান্তিপ্রিয় ব্যক্তি (আবর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো শান্তিপ্রিয় ব্যক্তি হন কবি (আবর্তিত)

31. সমস্ত কাক কালো নয়।

Ans. L.F. – O কোনো কোনো কাক নয় কালো (আবর্তিত)

∴ O বচনের আবর্তন সম্ভব নয়।
নিম্নলিখিত বাক্যগুলিকে বচনে রূপান্তরিত করে বিবর্তন করো

32. অধিকাংশ শিক্ষিত ব্যক্তিই সাম্যবাদী।

Ans. LF. – I কোনো কোনো শিক্ষিত ব্যক্তি হয় সাম্যবাদী (বিবর্তনীয়)

∴ O কোনো কোনো শিক্ষিত ব্যক্তি নয় অ-সাম্যবাদী (বিবর্তিত)

L.F. – I কোনো কোনো প্রতিবেশী হয় সহানুভূতিশীল (বিবর্তনীয়)

∴ O কোনো কোনো প্রতিবেশী নয় অ-সহানুভূতিশীল (বিবর্তিত)

33. শুধুমাত্র সৎ ব্যক্তিরাই সুখী।

Ans. L.F. – A সকল সুখী ব্যক্তি হয় সৎ (বিবর্তনীয়)।

∴ E কোনো সুখী ব্যক্তি নয় সৎ (বিবর্তিত)।

34. অধিকাংশ মানুষ সত্য কথা বলে না।

Ans. L.F. – O কোনো কোনো মানুষ নয় সত্যবাদী (বিবর্তনীয়)

∴ I কোনো কোনো মানুষ হয় অ-সত্যবাদী (বিবর্তিত)

35. একমাত্র স্নাতকেরাই এই পদের প্রার্থী হতে পারে।

Ans. L.F. – A সকল এই পদের প্রার্থী হয় স্নাতক (বিবর্তনীয়)

∴ E কোনো এই পদের প্রার্থী নয় অ-স্নাতক (বিবর্তিত)

36. মিথ্যাবাদীরা অবিশ্বাসী হয়।

Ans. L.F. – A সকল মিথ্যাবাদী হয় অবিশ্বাসী (বিবর্তনীয়)

∴ E কোনো মিথ্যাবাদী নয় অবিশ্বাসী (বিবর্তিত)।

37. অপ্রাপ্ত বয়স্করা ভোট দিতে পারে না।

Ans. L.F. – E কোনো অপ্রাপ্ত বয়স্ক ব্যক্তি নয় এমন যারা ভোট দিতে পারে না (বিবর্তনীয়)

∴ A সকল অপ্রাপ্ত বয়স্ক ব্যক্তি হয় অ-ভোটদাতা (বিবর্তিত)

38. বেশিরভাগ লোকই কুসংস্কারাচ্ছন্ন।

Ans. L.F. – I কোনো কোনো লোক হয় কুসংস্কারাচ্ছন্ন (বিবর্তনীয়)

∴ O কোনো কোনো লোক নয় অ-কুসংস্কারাচ্ছন্ন (বিবর্তিত)

39. পলাশ ফুলের গন্ধ নেই।

Ans. L.F. – E কোনো পলাশ ফুল নয় গন্ধযুক্ত (বিবর্তনীয়)।

∴ A সকল পলাশ ফুল হয় অ-গন্ধযুক্ত (বিবর্তিত)।

40. অশিক্ষাই অশান্তির মূল।

Ans. L.F. – A সকল অশিক্ষাই হয় অশান্তির মূল (বিবর্তনীয়)।

∴ E কোনো অশিক্ষাই নয় অ-অশান্তির মূল (বিবর্তিত)

41. কোনো শিক্ষক বিজ্ঞানী নয়।

Ans. L.F. – E কোনো শিক্ষক নয় বিজ্ঞানী (বিবর্তনীয়)

∴ A সকল শিক্ষক হয় অ-বিজ্ঞানী (বিবর্তিত)

42. কোনো পাখিই স্তন্যপায়ী নয়।

Ans. L.F. – E কোনো পাখি নয় স্তন্যপায়ী (বিবর্তনীয়) ।

∴ A সকল পাখি হয় অ-স্তন্যপায়ী (বিবর্তিত)

43. কেবলমাত্র কবিরাই আবেগপ্রবণ।

Ans. L.F. – A সকল আবেগপ্রবণ ব্যক্তি হয় কবি (বিবর্তনীয়)

∴ E কোনো আবেগপ্রবণ ব্যক্তি নয় অ-কবি (বিবর্তিত)

44. সব তিমি হয় স্তন্যপায়ী।

Ans. L.F. – A সকল তিমি হয় স্তন্যপায়ী (বিবর্তনীয়)

∴ E কোনো তিমি নয় অ-স্তন্যপায়ী (বিবর্তিত)

রচনাধর্মী প্রশ্নোত্তর [মান ৮] অবরোহ মূলক তর্কবিদ্যা – অমাধ্যম অনুমান

1. ‘A’ বচনের সরল আবর্তন সম্ভব নয় কেন? ‘O’ বচনের আবর্তন সম্ভব নয় কেন?

2. আবর্তন কাকে বলে? আবর্তনের নিয়মগুলি কী?

3. উদাহরণ সহ ব্যাখ্যা করো : অব্যাপ্য হেতুদোষ।

4. বিবর্তন কাকে বলে? বিবর্তনের নিয়মগুলি কী?

5. বস্তুগত বিবর্তন বলতে কী বোঝো? বস্তুগত বিবর্তনকে কি প্রকৃত বিবর্তন বলা হয়?

6. নঞর্থক আশ্রয়বাক্য থেকে সদর্থক সিদ্ধান্ত গ্রহণজনিত দোষ ব্যাখ্যা করো।

7. উদাহরণ সহ ব্যাখ্যা করো : অবৈধ পক্ষদোষ।

8. উদাহরণ সহ ব্যাখ্যা করো : অবৈধ সাধ্যদোষ।

9. অমাধ্যম অনুমান কাকে বলে ? মাধ্যম অনুমান কাকে বলে? অমাধ্যম অনুমানকে কি প্রকৃত অনুমান বলা যায়?
আরোও দেখুন:-

Higher Secondary Philosophy Suggestion | উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন সাজেশন

উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন – Click here
         ” উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন – অবরোহ মূলক তর্কবিদ্যা – অবরোহ মূলক তর্কবিদ্যা – অমাধ্যম অনুমান (চতুর্থ অধ্যায়) “ একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ টপিক উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা (Higher Secondary / HS Exam / WBCHSE – West Bengal Council of Higher Secondary Philosophy / HS Class 12th / Class XII / Uccha Madhyamik Pariksha) এবং বিভিন্ন চাকরির (WBCS, WBSSC, RAIL, PSC, DEFENCE) পরীক্ষায় এখান থেকে প্রশ্ন অবশ্যম্ভাবী । সে কথা মাথায় রেখে BhugolShiksha.com এর পক্ষ থেকে উচ্চমাধ্যমিক দর্শন পরীক্ষা (দ্বাদশ শ্রেণী) প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নোত্তর এবং সাজেশন (Higher Secondary Philosophy Suggestion / WBCHSE – West Bengal Council of Higher Secondary Philosophy / HS Class 12th Philosophy / Class XII Philosophy / Uccha Madhyamik Pariksha / HS Exam Guide / MCQ , Short , Descriptive  Type Question and Answer / FREE PDF Download) উপস্থাপনের প্রচেষ্টা করা হলাে। ছাত্রছাত্রী, পরীক্ষার্থীদের উপকারেলাগলে, আমাদের প্রয়াস  উচ্চ মাধ্যমিক দর্শন পরীক্ষা (দ্বাদশ শ্রেণী) প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নোত্তর এবং সাজেশন (Higher Secondary Philosophy Suggestion / WBCHSE – West Bengal Council of Higher Secondary Philosophy / HS Class 12th Philosophy / Class XII Philosophy / Uccha Madhyamik Pariksha / HS Exam Guide / MCQ , Short , Descriptive  Type Question and Answer / FREE PDF Download) সফল হবে।
    স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনার ডিজিটাল মাধ্যম BhugolShiksha.com । এর প্রধান উদ্দেশ্য পঞ্চম শ্রেণী থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর সমস্ত বিষয় এবং গ্রাজুয়েশনের শুধুমাত্র ভূগোল বিষয়কে  সহজ বাংলা ভাষায় আলোচনার মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের কাছে সহজ করে তোলা। এছাড়াও সাধারণ-জ্ঞান, পরীক্ষা প্রস্তুতি, ভ্রমণ গাইড, আশ্চর্যজনক তথ্য, সফল ব্যাক্তিদের জীবনী, বিখ্যাত ব্যাক্তিদের উক্তি,  প্রাণী জ্ঞান, কম্পিউটার, বিজ্ঞান ও বিবিধ প্রবন্ধের মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের মননকে বিকশিত করে তোলা।
        আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ সময় করে আমাদের পােস্টটি পড়ার জন্য। এই ভাবেই ভূগোল শিক্ষা – BhugolShiksha.com ওয়েবসাইটের পাশে থাকুন। ভূগোল বিষয়ে যেকোনো প্ৰশ্ন উত্তর জানতে এই ওয়েবসাইট টি ফলাে করুন এবং নিজেকে  তথ্য সমৃদ্ধ করে তুলুন , ধন্যবাদ।
নিচের বাটনে ক্লিক করে শেয়ার করেন বন্ধুদের মাঝে