বন্যা (জলবায়ুবিদ্যা - ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Flood - Climatology Geography
বন্যা (জলবায়ুবিদ্যা - ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Flood - Climatology Geography

জলবায়ুবিদ্যা – ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর

বন্যা | Flood – Climatology (Geography) Question and Answer in Bengali

বন্যা (জলবায়ুবিদ্যা – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Flood (Climatology – Geography) : জলবায়ুবিদ্যা – Climatology (ভূগোল – Geography) বন্যা – Flood প্রশ্ন Oও উত্তর  নিচে দেওয়া হল। এই (বন্যা – Flood – জলবায়ুবিদ্যা Climatology – ভূগোল Geography) প্রশ্নোত্তর গুলি স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষার জন্য খুব ইম্পর্টেন্ট। তোমরা যারা বন্যা – Flood – জলবায়ুবিদ্যা – Climatology (ভূগোল – Geography) অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর (Short Question and Answer) খুঁজে চলেছো, তারা নিচে দেওয়া প্রশ্নউত্তর ভালো করে পড়তে পারো। 

বন্যা (Flood) জলবায়ুবিদ্যা – ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর

1. বন্যার সংজ্ঞা দাও। 

Ans : সাধারণত ভূপৃষ্ঠের যে সকল অঞ্চল জলে নিমজ্জিত হয় না , অথচ আকস্মিক জলস্ফীতির কারণে সাময়িকভাবে জলমগ্ন হয় ওই অবস্থাকে বন্যা বলে ।

 T.V. CHow বন্যা প্রসঙ্গে বলেছেন – যখন নদীখাতের স্বাভাবিক প্রবাহ অপেক্ষা জলের উচ্চতা অধিক বৃদ্ধি পায়, তখন তাকে বন্যা বলে ।

উদাহরণ : ভারতের গঙ্গা , দামোদর , কোশী উপত্যকা , চীনের হোয়াংহো , মায়ানমারের ইরাবতী, আমেরিকার মিসিসিপি ব – দ্বীপ , বাংলাদেশের পদ্মা – মেঘনা ব – দ্বীপ বন্যাপ্রবণ অঞ্চল ।

2. বন্যার বৈশিষ্ট্য গুলি কি কি?

Ans : বন্যার বৈশিষ্ট্য গুলি হল – 

( i ) বন্যা হল এক জলপ্রবাহ জনিত উচ্চ পর্যায় । 

( ii) বন্যাকে এক প্রাকৃতিক বিপর্যয় বলা যায় ।

( iii ) যখন কোন বৎসরে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের তুলনায় 25 শতাংশের বেশী বৃষ্টি হয় তখন বন্যার প্রাদুর্ভাব দেখা দেয় ।

3. বন্যা সৃষ্টির প্রাকৃতিক কারণ আলোচনা কর ?

Ans : উচ্চ অঞ্চল জলপ্লাবনে বিপর্যস্ত হলে , তাকে বন্যা বলে । এই বন্যার প্রাকৃতিক কারণ গুলি হল –

( ক ) প্রবল বৃষ্টিপাত : দীর্ঘস্থায়ী প্রবল বৃষ্টিপাতে বন্যার প্রাদুর্ভাব দেখা যায় । যেমন — গাঙ্গেয় উপত্যকায় একটানা মৌসুমী বৃষ্টিতে বন্যা দেখা যায় । 

( খ ) তুষারগলা জল : নদীতে তুষারগলা জলের পরিমাণ অধিক বৃদ্ধি পেলে বন্যার সৃষ্টি হয় । যেমন — এশিয়ায় উত্তর বাহিনী নদীগুলিতে এই কারণে বন্যা হয় । 

( গ ) জলবহন ক্ষমতা হ্রাস : নদীর জলবহন ক্ষমতা হ্রাস পেলে ( বোঝা বৃদ্ধির ফলে ) জলস্ফীতি ঘটে বন্যা হয় । যেমন — গঙ্গা ও তার উপনদীগুলিতে এই কারণে বন্যা হয় । 

( ঘ ) পলি জমে : পলি দ্বারা নদী ভরাট হলে তার গভীরতা হ্রাস পেয়ে বন্যা ঘটে । 

( ঙ ) গোলাকার নদী অববাহিকায় নদী অনেক বাঁকময় হয় বলে সহজে জল নির্গত না হলে বন্যা হয় । যেমন — তুরস্কের মিয়েন্ড্রস ও গঙ্গার নিম্নপ্রবাহে এই কারণে বন্যা দেখা যায় । 

( চ ) সুনামী , ঝঞ্ঝা তরঙ্গ দ্বারা সমুদ্রে জলস্ফীতি ঘটে বন্যার সৃষ্টি হয় । যেমন — 1998-এ সৃষ্ট টনের্ডো সৃষ্টি বন্যা ( ওড়িষা ) । 

4. বন্যার সৃষ্টিতে মনুষ্যসৃষ্ট বা অপ্রাকৃতিক কারণ গুলি আলোচনা কর ?

Ans : বন্যা নামক প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে প্রাকৃতিক কারণ ছাড়াও কয়েকটি অপ্রাকৃতিক কারণ দেখা যায় । বন্যা সৃষ্টিতে মানুষের ভূমিকা উল্লেখযোগ্য । যেমন—

( i ) বৃক্ষচ্ছেদন : অত্যাধিক বৃক্ষচ্ছেদন মাটির অনুপ্রবেশ কমে যায় ও পৃষ্ঠপ্রবাহ বৃদ্ধি পায় । যার ফলে বন্যার সৃষ্টি হয় । যেমন- সিন্ধু আবহবিকার বন্যা । 

( ii ) ভূমিক্ষয় : ভূমিক্ষয়ের ফলে নদীগর্ভ দ্রুত ভরাট হয় এবং স্বপ্নবৃষ্টিতেই নদীতে জলস্ফীতি ঘটে যেমন — চম্বল ও বেতোয়া নদের বন্যা । 

( iii ) জলাধার ও বাঁধ থেকে সৃষ্ট বন্যা : জলাধার ও বাঁধ বন্যা নিয়ন্ত্রনের উদ্দেশ্য গড়ে উঠলেও জলের চাপে ভূমিকম্প বা অন্য কোন কারণে বাঁধ ভেঙ্গে গেলে বন্যার সৃষ্টি হয়। যেমন –1931 খ্রীঃ ভূমিকম্পে গ্রীসের ম্যারাথন বাঁধ ভেঙ্গে বন্যা । 

( iv ) নগরায়ন : নগরায়নের ফলে ভূ – ত্বক সিমেন্ট প্রাপ্ত হয়ে জলের অনুপ্রবেশ বাধাপ্রাপ্ত হয়ে বন্যার সৃষ্টি করে । যেমন — মুর্শিদাবাদের বন্যা এই কারণে ঘটে । 

5. কিভাবে বন্যার সৃষ্টি হয় ? বন্যার শ্রেণীবিভাগ কর ।

Ans : বন্যা বিভিন্ন কারণে ঘটে থাকে বলে বন্যাকে কয়েকটি শ্রেণিতে বিভক্ত করা যায় । যেমন— 

( i ) বৃষ্টিপাতজনিত বন্যা : গভীর নিম্নচাপে অধিক একটানা বৃষ্টিপাতে বন্যার সৃষ্টি হয় । যেমন – 1962 খ্রীঃ ব্রহ্মপুত্র ও 2009 খ্রীঃ বিহারের কোশীর বন্যা । 

( ii ) বৃষ্টিঝঞ্ঝা জনিত বন্যা :  উপকূল অঞ্চলে প্রবল বৃষ্টি ও সামুদ্রিক জলোচ্ছ্বাসে বন্যার সৃষ্টি হয় । যেমন- 1970 খ্রীঃ নর্মদা উপত্যকা ও 2007-08 এ বাংলাদেশের বন্যা । 

( iii ) উপকূলের বন্যা : উপকূল অঞ্চলে সামুদ্রিক ঝঞ্ঝা আছড়ে পড়ে বন্যার সৃষ্টি হয় । যেমন – 1911 সালে ওড়িশা ও অন্ধ্র উপকূলে , 2006 খ্রীঃ যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া উপকূলে । 

( iv ) জলাধারজনিত বন্যা :  জলাধার ও বাঁধ ভাঙনে ভয়াভয় বন্যার সৃষ্টি হয় । ( ১৯৯১ খ্রীঃ মধ্যপ্রদেশের চাঁদোরার বন্যা ) । 

( v ) সুনামীজনিত কারণ :  উপকূলে সুনামীজনিত কারণে বন্যা হয় ( 2009 খ্রীঃ সোমালিয়াতে সৃষ্ট বন্যা ) ।

6. বন্যা রোধের উপায় গুলি কি কি ?

Ans : বন্যা রোধ করার কয়েকটি উপায় রয়েছে, যেমন- ( i ) অতিরিক্ত বৃষ্টিপাতের অতিরিক্ত জল পৃষ্ঠ প্রবাহের আকারে নদীতে আসা রোধ করতে হবে । 

( ii ) পার্বত্য এলাকায় ব্যাপক বনসৃজন করতে হবে 

( iii ) নদীতে অতিরিক্ত জলের পরিমাণ হ্রাস করতে হবে

( iv ) প্রযুক্তি বিদ্যার সাহায্যে নদীর জলের আয়তনকে কমাতে হবে ( USA ) নিয়ামী টেনিগি নদী , ভারতের দামোদর এ সাফল্য পাওয়া গেছে ; 

( v ) প্রাকৃতিক ভারসাম্যযুক্ত নদীগুলির গতিপথ পরিবর্তন করে , নদী  উপত্যকাতে বাঁধ ডাইক ও বন্যাপ্রাচীর নির্মান করে বন্যা রোধ করা যায় । 

( vi ) নদীতে ড্রেজিং এর ব্যবস্থা ; 

( vii ) জলবিভাজিতাগুলির সংরক্ষনের জন্য বনসৃজন পরিকল্পনা , 

( viii ) আগাম সতর্কতা জারি করা ।

7. ভারতের বন্যাপ্রবণ অঞ্চল অধ্যুষিত এলাকা গুলোর নাম লেখ ?

Ans : বন্যা হল একটি পুনঃসংঘঠনশীল , বহুবিস্তৃত ও ভয়ঙ্কর প্রাকৃতিক দুর্যোগ । বন্যাপ্রবণ অঞ্চলগুলি হল— ( i ) আসামের ব্রহ্মপুত্র উপত্যকা । ( ii ) উত্তর প্রদেশ , বিহারের গাঙ্গেয় সমভূমি , ( iii ) পশ্চিমবঙ্গের মালদহ , মুর্শিদাবাদ মেদিনীপুর ( iv ) ওড়িশার মহানদী ( v ) তামিলনাড়ুর কাবেরী , ( vi ) গুজরাটে নর্মদা ও তাপ্তি অববাহিকা । Central water Commission এর মতে ভারতে 4 কোটি , 20 লক্ষ হেক্টর জমিতে বন্যা হবার সম্ভাবনা আছে । 

8. ভারতে প্রায়ই বন্যা হয় – ব্যাখ্যা করো । 

Ans : প্রতি বছরই ভারতে কোথাও না কোথাও বন্যা হয় , কারণ 

( i ) মৌসুমী বৃষ্টির দরুণ অল্প সময়ে অধিক বৃষ্টি হলে বন্যা সৃষ্টি হয় ।

( ii ) এক স্থানে একাধিক্রমে কয়েকদিন প্রবল বর্ষণের ফলে বন্যা হয় ।

( iii ) বঙ্গোপসাগরের প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের আগমনে ( শরৎকালে ) অধিক বর্ষণে বন্যা হয় । যেমন — পূর্ব উপকূলের বন্যা ।

( iv ) কোন স্থানে বজ্রগর্ভ মেঘ অবস্থানের ফলে স্বল্প সময়ে প্রবল বর্ষণে বন্যা হয় । যেমন – ২০০৬ সালে মুম্বাই অঞ্চলের বন্যা । 

( v ) জলাধার অতিরিক্ত জল ছাড়লে বন্যা হয় । যেমন – D.V.C , জলাধারগুলো জল ছাড়লে দক্ষিণবঙ্গের বন্যা ।

( vi ) সুনামী ও সামুদ্রিক জলোচ্ছ্বাসে বন্যা হয় ; 1998 এ উড়িষ্যা উপকূলে বন্যা । 

( vii ) বৃক্ষচ্ছেদনে মৃত্তিকা ক্ষয়ের ফলে নদীগর্ভ ভরাট হয়ে বন্যা হয় । যেমন – আসামের বন্যা । 

9. ভারতে বন্যা প্রতিরোধের উপায় বা ব্যবস্থা লেখ । 

Ans : বন্যার প্রকোপে প্রতি বছর ভারতে প্রচুর মানুষ সহ গবাদি পশুর প্রাণহানি ঘটে , কৃষিজ ফসল নষ্ট হয় , ঘর বাড়ী ভেঙ্গে পড়ে , পার্বত্য অঞ্চলে ধ্বস নামে , রাস্তা ঘাটের ক্ষয়ক্ষতি হয় । তাই বন্যা প্রতিরোধ কয়েকটি ব্যবস্থা গ্রহণ করা দরকার ; যেমন – 

( i ) উন্নত নিকাশী ব্যবস্থা  : বন্যা প্রবণ অঞ্চলে নিকাশী ব্যবস্থার সংস্কার করে আরো উন্নত করতে হবে ; প্রয়োজনে নতুন নতুন খাল কাটতে হবে । অধিক কালভাট স্থাপন রেল ও সড়ক পথে অধিক কালভাট স্থাপন দ্বারা বৃষ্টি হয সরিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা নিতে হবে । 

( ii ) ভূমিক্ষয় নিবারণ : নদী অববাহিকা অঞ্চলে অধিক বনসৃজন দ্বারা মৃত্তিকা ক্ষয় প্রতিরোধ করতে হবে ; এর ফলে নদীগর্ভ ভরাট হবে না বলে নদীর জল বহন ক্ষমতা বেশি হবে । 

( iii ) উঁচু পাড় নির্মান : নদীর দুই পাড়ের বাঁধ উঁচু করলে বন্যাজল সহজে উপচে পড়বে না । 

( iv ) জলাধার নির্মান : বন্যাপ্রবণ নদীতে অধিক জলাধার নির্মাণ করতে হবে । যেমন — জলাধার নির্মাণের কারণে দামোদর উপত্যকার বন্যা হ্রাস পেয়েছে । 

( v ) জলাশয় সংরক্ষণ : জলাশয় সংরক্ষন করতে হবে এবং জলাশয়গুলো যাতে ভরাট না হয় সেদিকে নজর দিয়ে আইন প্রণয়ন করতে হবে ; ফলে বর্ষার অতিরিক্ত জলকে ধরে রাখা সম্ভব হবে ।

 

FILE INFO : বন্যা – Flood | জলবায়ুবিদ্যা – ভূগোল প্রশ্নোত্তর (Climatology – Geography)

File Details:

PDF Name : বন্যা – Flood | জলবায়ুবিদ্যা – ভূগোল প্রশ্নোত্তর (Climatology – Geography)

Price : FREE

Download Link : Click Here To Download

INFO : Geography – Climatology – Question and Answer | ভূগোল – জলবায়ুবিদ্যা – বন্যা (Flood) প্রশ্নোত্তর

 ” ভূগোল (Geography) – জলবায়ুবিদ্যা (Climatology) – বন্যা – Flood “ একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ টপিক বিভিন্ন শ্রেনীর পরীক্ষা (Class 5, 6, 7, 8, 9,  Madhyamik, Class 11, Higher Secondary – HS, College & University Exam) এবং বিভিন্ন চাকরির (WBCS, WBSSC) পরীক্ষায় এখান থেকে প্রশ্ন অবশ্যম্ভাবী । সে কথা মাথায় রেখে BhugolShiksha.com এর পক্ষ থেকে ভূগোল পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নো ও উত্তর উপস্থাপনের প্রচেষ্টা করা হলাে। ছাত্রছাত্রী, পরীক্ষার্থীদের উপকারে লাগলে, আমাদের প্রয়াস  ভূগোল (Geography) জলবায়ুবিদ্যা (Climatology) – বন্যা – Flood / বন্যা সংক্ষিপ্ত ছোট প্রশ্ন ও উত্তর / বন্যা (জলবায়ুবিদ্যা – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Flood (Climatology – Geography)  SAQ / Short Question and Answer / বন্যা (জলবায়ুবিদ্যা – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Flood (Climatology – Geography) Quiz / বন্যা (জলবায়ুবিদ্যা – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Flood (Climatology – Geography) QNA / বন্যা (জলবায়ুবিদ্যা – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Flood (Climatology – Geography) Question and Answer FREE PDF Download ) পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নোত্তর সফল হবে।

বন্যা (জলবায়ুবিদ্যা – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Flood (Climatology – Geography) Question and Answer in Bengali

    স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনার ডিজিটাল মাধ্যম BhugolShiksha.com । এর প্রধান উদ্দেশ্য পঞ্চম শ্রেণী থেকে নবম শ্রেণী, মাধ্যমিকউচ্চ মাধ্যমিক সমস্ত বিষয় এবং গ্রাজুয়েশনের শুধুমাত্র ভূগোল বিষয়কে  সহজ বাংলা ভাষায় আলোচনার মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের কাছে সহজ করে তোলা। 

বন্যা (জলবায়ুবিদ্যা – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Flood (Climatology – Geography)

        আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ সময় করে আমাদের এই ” বন্যা (জলবায়ুবিদ্যা – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Flood (Climatology – Geography) ” পােস্টটি পড়ার জন্য। এই ভাবেই আমাদের ভূগোল শিক্ষা – Bhugol Shiksha – BhugolShiksha.com ওয়েবসাইটের পাশে থাকুন। ভূগোল বিষয়ে যেকোনো প্ৰশ্ন উত্তর জানতে এই ওয়েবসাইটটি ফলাে করুন এবং নিজেকে ভৌগোলিক  তথ্য সমৃদ্ধ করে তুলুন , ধন্যবাদ।

Subscribe Our YouTube Channel

Join Our Telegram Channel

E-mail Subscription