জলসেচ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল - ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Irrigation (Regional Geography of India) Geography
জলসেচ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল - ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Irrigation (Regional Geography of India) Geography

ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর

জলসেচ | Irrigation – Regional Geography of India (Geography) Question and Answer in Bengali

জলসেচ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Irrigation (Regional Geography of India – Geography) : ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – Regional Geography of India (ভূগোল – Geography) জলসেচ – Irrigation প্রশ্ন Oও উত্তর  নিচে দেওয়া হল। এই (জলসেচ – Irrigation – ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল Regional Geography of India – ভূগোল Geography) প্রশ্নোত্তর গুলি স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষার জন্য খুব ইম্পর্টেন্ট। তোমরা যারা জলসেচ – Irrigation – ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – Regional Geography of India (ভূগোল – Geography) অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর (Short Question and Answer) খুঁজে চলেছো, তারা নিচে দেওয়া প্রশ্নউত্তর ভালো করে পড়তে পারো।

জলসেচ (Irrigation) ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর

1. ভারতে জলসেচের প্রয়োজনীয়তা কী কী ?

Ans: i ) অতিবৃষ্টি , অনাবৃষ্টি ও মৌসুমী বায়ুর অনিশ্চয়তাকে কাটিয়ে সুষ্ঠু প্রতিকার । ii ) শুষ্ক শীত ঋতুতে রবিশস্য চাষের জন্য । iii ) স্বক্ষ বৃষ্টিপাতযুক্ত মধ্যভারত ও উত্তর – পশ্চিম ভারতে জলসেচের প্রয়োজন । iv ) কম জলধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন লোহিত কিম্বা ল্যাটেরাইট মৃত্তিকায় চাষের জন্য জলসেচ একাত্ত প্রয়োজন । v ) বাণিজ্যিক হারে একই জমিতে একাধিকবার শস্য উৎপাদন করতে । vi ) বহুফসলী চাষের পরিমাণ বাড়ানোর জন্য । vii ) ধান , আখ ইত্যাদি শস্যের জলসেচ প্রচুর প্রয়োজন । এছাড়াও পরোক্ষভাবে মানুষ জমি কার্যকরী অনুপাত বাড়াতে জলসেচের প্রয়োজন ।

2. ভারতে কী কী পদ্ধতিতে জলসেচ হয় ? 

Ans: ভারতের আঞ্চলিক ভূ – প্রকৃতি , জলবায়ুর তারতম্য , মৃত্তিকার উপাদান ও ভৌমজলের উপস্থিতির তারতম্যে চারটি পদ্ধতিতে জলসেচ করা হয় । যথা ( A ) কূপ বা নলকূপ : উত্তরপ্রদেশ , বিহার , পাঞ্জাব , পশ্চিমবঙ্গ , হরিয়ানা ইত্যাদি শতন্ত্র ও গঙ্গা অববাহিকায় । B ) পাতকুয়া : উত্তর ভারতের নদী উপত্যকার নরম মাটিতে এই প্রাচীন পদ্ধতির জলসেচ চালু আছে । C ) পুকুর ও জলাশয় : দাক্ষিণাত্য মালভূমির কঠিন অপ্রবেশ্য শিলায় এই জলসেচ করা হয় । D ) খাল : পশ্চিমবঙ্গ , উত্তরপ্রদেশ , পাঞ্জাব ও হরিয়ানাতে প্লাবন ও নিত্যবহ খালের সাহায্যে জলসেচ করা হয় ।

3. ভারতের সেচসেবিত এলাকা কী ? 

Ans: ( ক ) কূপ ও নলকূপ দ্বারা মোট সেচসেবিত অঞ্চলের 50 % জমিতে জলসেচ হয় – উত্তরপ্রদেশ , পাঞ্জাব , হরিয়ানা , বিহার , গুজরাট , অসম , পশ্চিমবঙ্গ । ( খ ) জলাশয় দ্বারা ৪ % জমিতে সেচ হয় : অন্ধ্রপ্রদেশ , কণাটক , তামিলনাড়ু , মধ্যপ্রদেশ , মহারাষ্ট্র , বিহার , ওড়িষা , পশ্চিমবঙ্গ । ( গ ) সেচ খাল দ্বারা সেচ সেবিত অঞ্চলের 38 % জমিতে জলসেচ হয় : নিম্ন গঙ্গা খাল দ্বারা , উত্তর প্রদেশ উচ্চ গঙ্গা খাল , আগ্রা খাল , পাঞ্জাব , হরিয়ানা , রাজস্থান খাল , বিহারের খাল ও ত্রিবেণী খাল , অন্ধ্রপ্রদেশে কৃয়া ও গোদাবরীর খাল পশ্চিমবঙ্গেও খাল দ্বারা জলসেচ হয় ।

মেমরী প্লাস : ভারতে 5 কোটি 70 লক্ষ হেক্টর জমি সেচের আওতাভুক্ত , যার স্থান বিশ্বে প্রথম ।

4. উত্তর ভারতে নলকূপের সাহায্যে অধিক জলসেচ করা হয় কেনো ? 

Ans: উত্তরপ্রদেশ , বিহার , পাঞ্জাব , হরিয়ানাতে নলকূপের সাহায্যে অধিক জলসেচ করা হয় । কারণ— i ) শতদ্রু ও গঙ্গা অববাহিকায় নলকূপের যোগানের জন্য প্রবেশ্য গভীর পাললিক স্তর রয়েছে । ii ) প্রবেশ্য নরম পাললিক শিলায় সহজেই গভীর ও অগভীর কম ব্যয়ে নলকুপ খনন করা যায় । iii ) উত্তর গাঙ্গেয় সমভূমির কৃষিজমির নিকট কোমল শিলাস্তরে এরুপ কূপ খনন করা সুবিধাজনক । iv ) গভীর কূপ – নলকূপ থেকে সারা বছর জল পাওয়ার সুবিধা । v ) পাতকুয়ার সাহায্যে জলসেচ অতি অল্প বিনিয়োগ করলেই চলে । vi ) পাতকুয়াতে জল থাকলে বছরের প্রায় সবসময়েই জলসেচ করা সুবিধাজনক ।

5. জলাশয়ের সাহায্যে জলসেচ দাক্ষিণাত্যে অধিক প্রচলিত কেনো ? 

Ans: i ) পাথরে ভূমি এবং কঠিন ও অপ্রবেশ্য শিলাস্তরের জন্য দাক্ষিণাত্যে কুয়ো খনন অসুবিধাজনক । ii ) দক্ষিণ ভারতে বন্ধুর ও ঢেউখেলানো ভূমিরূপে আড়াআড়ি বাঁধ দিয়ে জল ধরে রাখা সুবিধাজনক । iii ) দক্ষিণ ভারতের নদীগুলি বর্ষার জলে পুষ্ট , তাই সারা বছর অন্য ঋতুতে জলাশয়ের সাহায্যে জলসেচ করা হয় । iv ) বিক্ষিপ্তভাবে ছড়িয়ে থাকা কৃষিজমির ক্ষেত্রে দাক্ষিণাত্যের কঠিন , পাথরে ও ঢেউখেলানো ভূমিতে ব্যয়বহুল খাল খননের তুলনায় জলাশয় নির্মাণ করাই বেশি সাশ্রয়কারী ।

6. বহুমুখী নদী পরিকল্পনা কি ? 

Ans: অর্থনীতির প্রতিটি বিভাগকে উন্নত করার জন্য নদীগুলোতে বাঁধ দিয়ে নদীর মোট জলসম্ভারকে মানবকল্যাণে বহুবিধ উদ্দেশ্যে ব্যবহার করার পরিকল্পনাকে বহুমুখী নদী পরিকল্পনা বলে ।

উদ্দেশ্য : ( i ) সমগ্র নদী উপত্যকার সামগ্রিক উন্নতি করাই হল বহুমুখী নদী পরিকল্পনার উদ্দেশ্য । ( ii ) সেচ ব্যবস্থার উন্নতি ও কৃষি ব্যবস্থার উন্নতির জন্য জলনিকাশী ব্যবস্থার উন্নয়ন । ( iii ) বন্যা নিয়ন্ত্রণ ও জলনিকাশের ব্যবস্থার সাহায্যে ম্যালেরিয়া ও জলবাহিত রোগের প্রকোপ নিয়ন্ত্রণ । ( iv ) বিদ্যুৎ উৎপাদন ( তিলাইয়া ) , নৌ – পরিবহনেরও ( দুর্গাপুর ব্যারেজ ) নদী পরিকল্পনার গুরুত্ব অসীম ।

7. জাতীয় জলসম্পদ সংযুক্তি কী ? 

Ans: ভারত এক কৃষিপ্রধান দেশ ; তবে ভারতে বৃষ্টিপাতের আঞ্চলিক বন্টনে অসমতা ও শুষ্ক ঋতুতে রবি ফসলের চাষের জন্য জলের অভাব ঘটে । ধান , ইক্ষুর মতো ফসল উৎপাদনে আবার প্রচুর জলের প্রয়োজন । ভারতের উত্তর ও উত্তর – পূর্বাংশে অধিক বৃষ্টি হলেও মধ্য ও উপদ্বীপিয় ভারতে বৃষ্টির পরিমাণ কম । তাই বর্ষণসিক্ত অঞ্চল থেকে শুদ্ধতম অঞ্চলে জল সরবরাহের জন্য অধিক জলযুক্ত বন্যাপ্রবণ নদীর , জল শুষ্কতম নদীতে ক্যানেল দ্বারা সংযুক্ত করার কর্মসূচীকে জলসম্পদ সংযুক্তি বলে । এর ফলে ( i ) জলসম্পদের সঠিক ব্যবহার সম্ভব হবে । ( ii ) কৃষিজ পণ্য উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে । ( iii ) বন্যা ও খরা উভয়েরই প্রকোপ কমবে ।

8. রিভার লিফট ইরিগেশন পদ্ধতি কি ? 

Ans: নদী থেকে উঁচু ভূমিতে পাম্পের সাহায্যে জল তুলে সেচ দ্বারা কৃষিকার্যকে ‘ রিভার লিফ্ট ইরিগেশন পদ্ধতি ’ বলে । ভারতের বিভিন্ন স্থানে এই পদ্ধতি দেখা যায় । তবে এর সাহায্যে অধিক পরিমাণ জমি জলসেচ সম্ভব নয় ।

উদাহরণ : হরিয়ানার ‘ জওহরলাল নেহরু প্রজেক্ট ’ ভারতের বৃহত্তম রিভার লিফ্ট ইরিগেশন প্রকল্প । এছাড়া এরাজ্যে জুই , সেওয়ানি , লোহারু প্রকল্পগুলোও উল্লেখযোগ্য । পশ্চিমবঙ্গেও ছোট – বড় অনেক নদীতে এরূপ ‘ রিভার লিফ্ট ইরিগেশন ‘ পদ্ধতি চালু আছে । উঁচু ও শুষ্ক অঞ্চলে এই পদ্ধতিতে প্রচুর জলসেচ হয়ে থাকে ।

FILE INFO : জলসেচ – Irrigation | ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল প্রশ্নোত্তর (Regional Geography of India – Geography)

File Details:

PDF Name : জলসেচ – Irrigation | ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল প্রশ্নোত্তর (Regional Geography of India – Geography)

Price : FREE

Download Link : Click Here To Download

INFO : Geography – Regional Geography of India – Question and Answer | ভূগোল – ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – জলসেচ (Irrigation) প্রশ্নোত্তর

” ভূগোল (Geography) – ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল (Regional Geography of India) – জলসেচ – Irrigation “ একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ টপিক বিভিন্ন শ্রেনীর পরীক্ষা (Class 5, 6, 7, 8, 9,  Madhyamik, Class 11, Higher Secondary – HS, College & University Exam) এবং বিভিন্ন চাকরির (WBCS, WBSSC) পরীক্ষায় এখান থেকে প্রশ্ন অবশ্যম্ভাবী । সে কথা মাথায় রেখে BhugolShiksha.com এর পক্ষ থেকে ভূগোল পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নো ও উত্তর উপস্থাপনের প্রচেষ্টা করা হলাে। ছাত্রছাত্রী, পরীক্ষার্থীদের উপকারে লাগলে, আমাদের প্রয়াস  ভূগোল (Geography) ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল (Regional Geography of India) – জলসেচ – Irrigation / জলসেচ সংক্ষিপ্ত ছোট প্রশ্ন ও উত্তর / জলসেচ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Irrigation (Regional Geography of India – Geography)  SAQ / Short Question and Answer / জলসেচ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Irrigation (Regional Geography of India – Geography) Quiz / জলসেচ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Irrigation (Regional Geography of India – Geography) QNA / জলসেচ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Irrigation (Regional Geography of India – Geography) Question and Answer FREE PDF Download ) পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নোত্তর সফল হবে।

জলসেচ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Irrigation (Regional Geography of India – Geography) Question and Answer in Bengali

স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনার ডিজিটাল মাধ্যম BhugolShiksha.com । এর প্রধান উদ্দেশ্য পঞ্চম শ্রেণী থেকে নবম শ্রেণী, মাধ্যমিকউচ্চ মাধ্যমিক সমস্ত বিষয় এবং গ্রাজুয়েশনের শুধুমাত্র ভূগোল বিষয়কে  সহজ বাংলা ভাষায় আলোচনার মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের কাছে সহজ করে তোলা।

জলসেচ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Irrigation (Regional Geography of India – Geography)

আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ সময় করে আমাদের এই ” জলসেচ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Irrigation (Regional Geography of India – Geography) ” পােস্টটি পড়ার জন্য। এই ভাবেই আমাদের ভূগোল শিক্ষা – Bhugol Shiksha – BhugolShiksha.com ওয়েবসাইটের পাশে থাকুন। ভূগোল বিষয়ে যেকোনো প্ৰশ্ন উত্তর জানতে এই ওয়েবসাইটটি ফলাে করুন এবং নিজেকে ভৌগোলিক  তথ্য সমৃদ্ধ করে তুলুন , ধন্যবাদ।

Subscribe Our YouTube Channel

Join Our Telegram Channel

E-mail Subscription