কৃষিকাজ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল - ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Agriculture (Regional Geography of India) Geography
কৃষিকাজ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল - ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Agriculture (Regional Geography of India) Geography

ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর

কৃষিকাজ | Agriculture – Regional Geography of India (Geography) Question and Answer in Bengali

কৃষিকাজ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Agriculture (Regional Geography of India – Geography) : ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – Regional Geography of India (ভূগোল – Geography) কৃষিকাজ – Agriculture প্রশ্ন Oও উত্তর  নিচে দেওয়া হল। এই (কৃষিকাজ – Agriculture – ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল Regional Geography of India – ভূগোল Geography) প্রশ্নোত্তর গুলি স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষার জন্য খুব ইম্পর্টেন্ট। তোমরা যারা কৃষিকাজ – Agriculture – ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – Regional Geography of India (ভূগোল – Geography) অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর (Short Question and Answer) খুঁজে চলেছো, তারা নিচে দেওয়া প্রশ্নউত্তর ভালো করে পড়তে পারো।

কৃষিকাজ (Agriculture) ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর

1. ভারতে জাফরান চাষ লেখো ।

Ans: কাশ্মীর উপত্যকার মধ্যে জাফরান চাষ হয় ; ঝিলাম ও তার উপনদী সন্নিহিত অঞ্চলে কারেওয়া মৃত্তিকাযুক্ত অঞ্চলে জাফরান চাষ হয় ।

অবস্থান : জাফরান চাষযুক্ত অঞ্চলটি শ্রীনগরের দক্ষিণ – পূর্বাংশে অবস্থিত পামপুর নামক স্থানে অবস্থিত ।

সময় : এই পলি সমৃদ্ধ কারেওয়া মাটিতে আগস্ট – সেপ্টেম্বর মাসে জাফরান চাষ হয় । – ব্যবহার : রং শিল্পে , মদ্য ও ঔষধ প্রস্তুতিতে এবং খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ শিল্পে জাফরান ব্যবহৃত হয় ।

2. ভারতীয় কৃষিতে উন্মুক্ত অর্থনীতির প্রভাব লেখো ।

Ans: ভারতীয় কৃষিতে উদার অর্থনীতির যথেষ্ট প্রভাব রয়েছে । যেমন—

i ) উৎপাদন ব্যয় হ্রাস : বিশ্ব বাজারে কৃষিজাত পণ্য বিক্রয়ের জন্য GATT ও W.T.O এর চুক্তি অনুসারে কৃষিজাত পণ্যের উৎপাদন ব্যয় হ্রাস করতে হয়েছে ।

ii ) কৃষক সমস্যা : বিদেশে কৃষিতে ব্যাপক ভরতুকি প্রদানের জন্য কৃষিজাত পণ্যের দাম পড়ে যাবার ফলে ভারতীয় কৃষকদের সমস্যা ভয়াবহ রূপ নিয়েছে ।

মেমরী প্লাস : জাফরান কথাটি এসেছে আরবী শব্দ ‘ জা – ফারান ‘ থেকে । আরবী ভাষায় ‘ জাফ্ফা অর্থ কমলালেবু । যে গাছ থেকে জাফরান তৈরী হয় তার ইংরাজী নাম স্যাফরণ ‘ । উল্লি বিজ্ঞানের ভাষায় ‘ আইরিডেসি ‘ গোত্রের এই গাছটির নাম হল ‘ ব্রুকাস স্যাটিভাস ” । দক্ষিণ ইওরোপ ও এশিয়া মাইনর থেকে এই গাছ ভারতে এসেছে । এখন স্পেন , তুর্কী , ইরান , ফ্রান্স , ইতালী , অস্ট্রিয়া , চীন , ইংল্যান্ডেও জাফরান চাষ হয় । ভারতে জম্মু কাশ্মীরে অধিকাংশ জাফরান চাষ হলেও উত্তরাখণ্ডের উত্তর কাশী , পিথোরাগড় জেলায় আফবান । চাষ হচ্ছে । জাফরান অত্যন্ত মূল্যবান । এক গ্রাম জাফরানের দাম ১০০ টাকা ।

3. হিমালয় কৃষি কী ? 

Ans: হিমালয়ে কৃষির যথেষ্ট গুরুত্ব আছে । যেমন i ) আপেল চাষ : হিমাচল প্রদেশ ও কাশ্মীর হিমালয় আপেল চাষে বিখ্যাত । ii ) ধান চাষ দেরাদুন , পালিত দুন , কোঠারী দুন , চোখাম্বা দুনে ধান চাষ হয় । iii ) লেবু চাষ : দার্জিলিং , সিকিম হিমালয়ে কমলালেবু চাষ হয় । iv ) চা চাষ : উত্তরবঙ্গ ও ঢালু পাহাড়ী জমিতে চা চাষ হয় । v ) পশুপালন : বিভিন্ন চারণভূমিতে গবাদি পশু পালন দ্বারা দোেহ কৃষি গড়ে উঠেছে ।

4. ভারতে কোথায় কি ধরনের আঞ্চলিক কৃষির প্রচলন আছে ?

Ans: ভারতের বিভিন্ন স্থানে অঞ্চ কিছু অস্থায়ী কৃষি ব্যবস্থা দেখা যায় । যেমন i ) উত্তর – পূর্ব ভারত : ঝুম চাষ । ii ) মধ্যপ্রদেশ ও ছত্তিশগড় বাওয়ার বা  দাওজা । iii ) অন্ধপ্রদেশ : পদ্ম বা পোরা । ( iv ) উড়িষ্যা : পোখা , দোহী , কোমান , বীরগা , ডাঙ্গা কৃষি ( দক্ষিণাংশে ) । v ) পশ্চিম হিমালয় ছিল । vi ) পশ্চিমঘাট পর্বতমালা : কুমনারী । ( vii ) দক্ষিণ – পূর্ব রাজস্থান : ভালরা কৃষি ।

  1. খরিফ ও রবিশস্যের মধ্যে পার্থক্য লেখো ।

Ans: ‘ রবি ‘ শব্দের অর্থ সূর্য নয় । ‘ রবী ‘ আরবী শব্দ ‘ রবীঅ ‘ থেকে উদ্ভূত ; যার অর্থ বসন্ত । অর্থাৎ বসন্তকালে এই ফসল হয় বলে একে রবি ফসল বলে । তবে শীতকালেও এই ফসল কাটা হয় । আবার বর্ষাকালে যে কৃষিকাজ হয় , তাকে খারিফ শস্য বলা হয় ।

6. ভারতের কৃষি অঞ্চল কী ?

Ans: অরুপ চাষের প্রকৃতি , পরিমাণ , সময় , বিস্তৃতি ও অর্থনৈতিক গুরুত্ব অনুসারে ভারতের শস্যাএলগুলো হল । ধান অঞ্চল : পূর্ব ভারত ও পূর্ব উপকূলীয় অঞ্চল । i ) বাণিজ্যিক গম অঞ্চল : পাঞ্জাব , হরিয়ানা , রাজস্থান , মধ্যপ্রদেশ ও উত্তরপ্রদেশের কিছু অংশ । iii ) বাণিজ্যিক ইক্ষু , তুলা , মিলেট অঞ্চল : গুজরাট – মহারাষ্ট্র অঞ্চল । iv ) মিশ্র জীবিকাভিত্তিক বাণিজ্যিক কৃষি অঞ্চল : উত্তরপ্রদেশ , বিহার সমভূমি অঞ্চল । v ) ধান ও পার্টের বাণিজ্যিক কৃষি অঞ্চল : নিম্নগাঙ্গেয় সমভূমি ও অসম উপত্যকা । ( vi ) চা ও পাট অঞ্চল : উত্তরবঙ্গ ও ব্রহ্মপুত্র উপত্যকা । vii ) উল্লম্ব কৃষি অঞ্চল : হিমালয় পার্বত্য অঞ্চলের কৃষি viii ) ধানের জীবিকাসত্তাভিত্তিক কৃষি অঞ্চল : অন্ধ্রপ্রদেশ , তামিলনাড়ু ও কর্ণাটকের আর্দ্র কৃষি অঞ্চল ।

7. ভারতের ধান উৎপাদক অঞ্চল কী কী ? 

Ans: ধান উৎপাদনে ভারত বিশ্বের একটি অগ্রণী দেশ ( দ্বিতীয় , চীনের পর ) । ভারতের 17 টি অধিক রাজ্যে ধান চাষ হয় । তাদের প্রধান উৎপাদক রাজ্যগুলি হ’ল ধান উৎপাদক অঞ্চ ( A ) পশ্চিমবঙ্গ ( প্রথম ) : বর্ধমান ( পশ্চিমবঙ্গের ধানভাণ্ডার ) , উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুর এবং হুগলী । B ) অনুপ্রদেশ ( দ্বিতীয় ) : গোদাবরী ও কৃয়া নদীর উপত্যকা ও ব – দ্বীপ অঞ্চল । C ) উত্তরপ্রদেশ ( তৃতীয় ) : উচ্চ ও মধ্য গঙ্গা সমভূমি এলাকা । D ) তামিলনাড়ু ( চতুর্থ ) : কাবেরী ব – দ্বীপ ( দক্ষিণের ধান ভাণ্ডার ) ও পালার অববাহিকা । এছাড়াও ওড়িশা ( মহানদী ব – দ্বীপ ) , উত্তরাঞ্চল ( দুন উপত্যকা ) , অসমে ( ব্রক্ষ্মপুত্র উপত্যকা )

8. ভারতের পাটের বন্টন কী ? 

Ans: ভারত পাট উৎপাদনে বিশ্বে প্রথম স্থান অধিকার করে । প্রধান পাট উৎপাদক অঞ্চলগুলি হল A ) পশ্চিমবঙ্গ ( প্রথম ) : পুরুলিয়া ও দার্জিলিং পার্বত্য অঞ্চল ছাড়া সব পাট উৎপাদন জেলা । B ) বিহার ( দ্বিতীয় ) : পূর্ণিয়া , সহর্ষ ও দ্বারভাঙা জেলা । C ) অসম ( তৃতীয় ) : কামরুপ , নওগা , তেজপুর , গোয়ালপাড়া । D ) 1000 100 মি অন্যান্য রাজ্য : ওড়িশার কটক , পুরী , উত্তরপ্রদেশের তরাই অঞ্চল , ঘর্ঘরা উপত্যকা , কাবেরী ব – দ্বীপ অঞ্চল , অন্ধ্রের কৃয়া ও গোদাবরী ব – দ্বীপ অঞ্চলেও পাট চাষ হচ্ছে । মেমরী প্লাস : বিশ্বে চা ( বিশ্বে 25 % ) , মশলা , দুধ ( 9 কোটি টন ) , বাসমতি চাল উৎপাদনে ভারত শীর্ষস্থান অধিকার করে ।

9. উত্তর – পূর্ব ভারতে চা বাগিচার প্রাধান্য বেশি কারণ ব্যাখ্যা করো ।

Ans: আসাম , দার্জিলিং ও জলপাইগুড়ি ইত্যাদি রাজ্যে চা চাষের প্রাধান্য বেশি । কারণ— i ) অধিকাংশ স্থান উচ্চভূমিতে অবস্থিত ( 400 মিটার ) জল দাঁড়ানোর সুযোগ নেই । ii ) বার্ষিক বৃষ্টিপাতের পরিমাণ 400 সেমির বেশি । iii ) জুলাই মাসে উন্নতা 31 ° C , জানুয়ারি মাসে 10 ° C iv ) তুহিন পড়ে না । v ) ধুসর বেলেদোঁয়াশ , হলুদ বেলেদোঁয়াশ , লোহিত মৃত্তিকা চা চাষের আদর্শ । vi ) মৃত্তিকা নরম বলে শিকড় সহজেই প্রবেশ করে । vii ) শৈলশিরার অভিশিকাংশগুলির 90-1980 মিটার পর্যন্ত চা চাষের আদর্শ ।

10. দক্ষিণ ভারতে কফি চাষ বেশি হয় কারণ ব্যাখ্যা করো । 

Ans: কর্ণাটক , কেরল , তামিলনাড়ু ইত্যাদি রাজ্যে সর্বাধিক কফির চাষ হয় । কারণ A ) দক্ষিণ ভারতে কফি চাষের প্রয়োজনীয় উয়তা 15 ° -30 ° ও বৃষ্টিপাত 100-200 সেমি , যা কফি চাষের আদর্শ । B ) সামুদ্রিক বায়ুর প্রভাব রয়েছে , তুষারপাত হয় না , যা কফি চাষের অত্যন্ত অনুকূল । O wwww . for thing C ) পাহাড়ের ঢালে অবস্থিত বলে জমিতে জল দাঁড়াতে পারে না । D ) মাটি নাইট্রোজেন , পটাশ ও লোহাযুক্ত মাটি কফি চাষের আদর্শ । E ) দক্ষ সুলভ শিক্ষিত শ্রমিকের প্রাচুর্য । F ) উন্নত পরিবহন ব্যবস্থা কফি চাষের উন্নতির সহায়ক ।

11. ভারতীয় কৃষির মূল বৈশিষ্ট্য লেখো । 

Ans: ঐতিহ্যগত ভারতীয় কৃষির মূল বৈশিষ্ট্য হ’ল 1 . শস্য বৈচিত্র্য : ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে প্রায় 10000 প্রজাতির খাদ্য শস্য উৎপন্ন হয় । 2 . শিল্প – কৃষি : শিল্পের কাঁচামাল হিসেবেও কৃষি গড়ে উঠেছে । যেমন- চিনি শিল্পের জন্য আৰু চাষ , চা শিল্পের জন্য চা চাষ , পাট শিল্পের জন্য পাট চাষ , কার্পাস শিল্পের জন্য তুলা চাষ প্রভৃতি । বাগিচা কৃষি : রপ্তানিকে লক্ষ্য করে চা , কফি , রাবার , পান , আম প্রভৃতি বাগিচা আকারে চাষ 3 . হচ্ছে । 4 . সনাতন কৃষি : ভারতের অনেক স্থানে এখনো প্রাচীন ও গতানুগতিক পদ্ধতিতেই কৃষি সম্পন্ন হচ্ছে ।

12. ভারতীয় কৃষির মূল সমস্যা লেখো । 

Ans: ভারত কৃষি নির্ভর দেশ হওয়া সত্ত্বেও ভারতীয় কৃষির কিছু প্রতিবন্ধকতা আছে । যেমন i ) সনাতন কৃষিপ্রথা : বিজ্ঞানের প্রয়োগ কম ; পশু ও মনুষ্যশ্রম নির্ভর সেকেলে কৃষি বলে উৎপাদন কম হয় । ii ) কৃষি শিক্ষার অভাব অধিকাংশ [ 96 % ] কৃষকই কৃষিবিদ্যায় উপযুক্ত নয় ; তাই আধুনিক কৃষিপদ্ধতির সাথে তারা পরিচিত নয় । iii ) ক্ষুদ্র কৃষিজোত : কৃষিক্ষেত্রের আয়তন ছোট ( 0.53 হেক্টর ) বলে কৃষিযন্ত্রের প্রয়োগে অসুবিধে হয় । iv ) বৃষ্টিনির্ভর কৃষি : সেচের অপ্রতুলতা ও ‘ দেবতা নির্ভর ‘ কৃষি বলে ফসল উৎপাদন ব্যাহত হয় । v ) কম উৎপাদন : হেক্টর প্রতি উৎপাদন ( 2800 কিগ্রা ) কম । vi ) কম যন্ত্র প্রয়োগ : কৃষিযন্ত্র , সার , কীটনাশক প্রভৃতির ব্যবহার কম ।

13. ভারতীয় অর্থনীতিতে কৃষির গুরুত্ব লেখো ।

Ans: কৃষিনির্ভর ভারতের 70 % মানুষ কৃষিজীবী ; দেশের জাতীয় আয়ের 52 % আসে কৃষি থেকে । তাই ভারতীয় অর্থনীতিতে কৃষির গুরুত্ব খুবই— i ) জাতীয় আয় : ভারতের অর্থনীতির মেরুদণ্ড কৃষি ; কৃষি থেকেই জাতীয় আয়ের 52 % আসে । ii ) কর্মসংস্থান : ভারতের মোট কর্মীসংখ্যার 64 % কৃষিকার্য থেকে জীবিকা উপার্জন করে । iii ) কৃষিভিত্তিক শিল্প : কৃষিকে ভিত্তি করেই চা , পাট , কার্পাস , চিনি , বনস্পতি শিল্প গড়ে উঠেছে । ( iv ) পশুখাদ্য উৎপাদন : কৃষি থেকে প্রাপ্ত পশুখাদ্যকে নির্ভর করে পশুপালন গড়ে ওঠে । ( v ) বৈদেশিক মুদ্রা আয় : ভারতের রপ্তানী বাণিজ্যের 35 % কৃষি থেকে আসে ; ফলে বৈদেশিক মুদ্রা আয় হয় ।

14. ভারতে ধানচাষের মূল সমস্যা লেখো । 

Ans: ধান উৎপাদনে ভারত বিশ্বে দ্বিতীয় হলেও , ভারতে ধান চাষের কিছু সমস্যা রয়েছে । যেমন i ) বৃষ্টিনির্ভর : বৃষ্টিনির্ভর কৃষি বলে খরা হলে উৎপাদন ব্যাহত হয় । ii ) ক্ষুদ্র কৃষিজোত : ক্ষুদ্রায়তন দেওয়াতে জমি অনেক নষ্ট হয় । কৃষিজমিতে কৃষি যন্ত্র চালাতে যেমন অসুবিধে , তেমনি আল iii ) কম দাম : কৃষকরা ধানের উচিৎ মূল্য পায় না বলে তারা আর্থিক ক্ষতির শিকার হয় । iv ) দরিদ্র কৃষক : কৃষকরা গরিব বলে উন্নত বীজ , কীটনাশক , রাসায়নিক সার , কৃষি যন্ত্রপাতি ব্যবহার করতে পারে না ।

15. ভারতে পাট চাষের সমস্যা লেখো । 

Ans: i ) পাট উৎপাদনে ভারত বিশ্বে প্রথম হলেও ভারতে পাট চাষের সমস্যাও ব্যাপক । যেমন কম উৎপাদন : ভারতে পাটের হেক্টর প্রতি উৎপাদন কম -2008 কিগ্রা ( চীনে 2435 কিয়া ) । ii ) কম উৎকৃষ্ট : ভারতীয় পাট চীন ও বাংলাদেশের পাটের মতো উৎকৃষ্ট মানের নয় । iii ) বাজারের সংকোচন : দেশে – বিদেশে পার্টের বিকল্প দ্রব্য আবিষ্কারের ফলে বাজারের সংকোচনে পাট চাষ অলাভজনক কৃষিতে পরিণত হয়েছে । iv ) বিকল্প ফসল চাষ : পাট চাষ অলাভজনক হওয়ার ফলে কৃষকরা নিরুৎসাহ হয়ে ধান , আলু , ভুট্টা প্রভৃতির চাষ করছে ।

16. ভারতে গম চাষের সমস্যা লেখো ।

Ans: গম উৎপাদনে ভারতের বহু সমস্যা আছে । যেমন i ) কম উৎপাদন : ভারতে হেক্টর প্রতি গমের উৎপাদন কম । ( ডেনমার্কে 5200 কিগ্রা ) ii ) জমির পরিমাণ : ভারতে জনপ্রতি গম জমির পরিমাণ কম । ( 1 হেক্টর / 25 জন ) iii ) কম বাণিজ্য : জনসংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পায় বলে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে ভারতে বেশি অংশগ্রহণ করতে পারে না । iv ) অন্যান্য : কৃষিজমির ক্ষুদ্রতা , ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষীর প্রভাব , অতিসেচের কুফল ( পাঞ্জাব ও হরিয়ানা ) ইত্যাদি ভারতে গম উৎপাদনের প্রতিবন্ধক ।

17. ভারতের তুলা চাষের সমস্যা লেখো । 

Ans: ভারতে তুলা চাষের সমস্যাগুলি নিম্নরূপ i ) কম উৎপাদন : ভারতে হেক্টর প্রতি উৎপাদন কম – মাত্র 213 কিগ্রা ( রাশিয়া 927 কিগ্রা , USA – 582 কিগ্ৰা ) । ii ) নিকৃষ্ট তুলা : ভারতে তুলার মান অত্যন্ত নিকৃষ্ট , ফলে দ্রব্যের মান নেমে যায় । iii ) পোকার উপদ্রব : বলউইভিল পোকার উপদ্রবে ভারতে তুলার উৎপাদনের পরিমাণ কমে গেছে । iv ) অন্যান্য : উন্নত যন্ত্রপাতির অভাব , শ্রমিক – মালিক বিরোধ , সরকারী সাহায্যের অভাব প্রভৃতি ভারতের তুলা চাষের অন্যতম প্রধান সমস্যা ।

18. ভারতে চা চাষের সমস্যা লেখো । 

Ans: ভারত চা চাষে বিশ্বে প্রথম স্থান অধিকার করলেও ভারতে চা চাষের বহু সমস্যা আছে । যেমন i ) ব্যাপক ভূমিক্ষয় : পার্বত্য অঞ্চলে ব্যাপক ভূমিক্ষয় মাটির উর্বরতা হ্রাস পাওয়ায় চা অসুবিধা । ii ) কম উৎপাদন ভারতে হেক্টর প্রতি ফসলের পরিমাণ কম 1,875 কেজি ( চীন 4,175 কেজি ) iii ) বিকল্প : বর্তমানে চা – এর বিভিন্ন বিকল্প কফি , কোকোকলা প্রস্তুত হওয়ায় চা – এর চাহিদা কমে D গিয়েছে । ( iv ) অন্যান্য 10 ভারতের অধিকাংশই পুরানো চা গাছ , ভারতে গাছ ছাঁটাই – এর সময়সীম বনভূমি হ্রাসে চা পেটীর আকাল , ইস্টক চা উৎপাদনে তেমন নজর না দেওয়া , চা উৎপাদন বেশি । 11 রাজ্যে ব্যাপক রাজনৈতিক অশান্তি ভারতে চা চাষের অন্যতম সমস্যা ।

মেমরী প্লাস : সবুজ বিপ্লব ‘ বিপ্লব ’ শব্দের অর্থ ‘ গতানুগতিক বা চিরাচরিত ব্যবস্থা থেকে হঠাৎ আমূল পরিবর্তন । ভারতে ষাটের দশকে কৃষিক্ষেত্রে নতুন প্রযুক্তির সাহায্যে নিবিড় অঞ্চল বিকাশ কর্মসূচী ( IADP ) – এর তত্ত্বাবধানে কৃষির অভূতপূর্ব উন্নতিকে ‘ সবুজ বিপ্লব ‘ বলে ।

পরিকল্পিত স্থান : 1966 সালে IADP- এর অধীনে কয়েকটি স্থানে এই সবুজ বিপ্লব পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয় । ( i ) পশ্চিম গোদাবরী জেলা ; ( ii ) বিহারের সাহাবাদ : ( iii ) ছত্তিশগড়ের রায়পুর , ( iv ) উত্তরপ্রদেশের আলিগড় ; ( v ) তামিলনাড়ুর থাস্তোভোর ; ( vi ) রাজস্থানের পালি । তবে পাঞ্জাব , হরিয়ানা ও উত্তরপ্রদেশ গম চাষে বিশেষ সাফল্য লাভ করে এই কর্মসুচীতে । অধ্যাপক নরম্যান বোরলগ আবিষ্কৃত উচ্চ ফলনশীল গম বীজ লার্মা রোজো- 644 , সোনারা- 64 বা জয়া , পদ্মা প্রভৃতি । ধানের বীজ এই সবুজ বিপ্লব কর্মসূচীকে ত্বরান্বিত করে ।

উদ্দেশ্য : ( i ) খাদ্যে ভারতকে স্বনির্ভর করে তোলা ও খাদ্যশস্য বিদেশে রপ্তানি করা । ( ii ) বিদেশ থেকে খাদ্যশস্য আমদানী বন্ধ করা ।

কর্মসূচী : এই পরিকল্পনাকে সাফল্যমণ্ডিত করার জন্য কয়েকটি কর্মসূচী গ্রহণ করা হয় । যেমন— ( i ) পতিত জমি তৈরি করে কৃষি জমি তৈরি ; ( ii ) উচ্চ ফলনশীল বীজ , রাসায়নিক সার ও কীটনাশকের ব্যাপক ব্যবহার ; ( iii ) আধুনিক ও উন্নত কৃষি যন্ত্রপাতির ব্যবহার ; ( iv ) কৃষকের জন্য কম সুদে কৃষি ঋণের ব্যবস্থা করা ।

সফলতা : সবুজ বিপ্লবের ফলে ভারত তার উদ্দেশ্য পূরণে সক্ষম হয় । 1950-51 সালে যেখানে ভারতে 206 লক্ষ টন চাল ও 65 লক্ষ টন গম উৎপন্ন হত ; তা 1970-71 সালে বৃদ্ধি পেয়ে হয় । যথাক্রমে 4233239 কোটি মেট্রিক টন । এর ফলে খাদ্যশস্য আমদানী বন্ধ হয় । খাদ্যে দেশ স্বনির্ভরতা পায় ও খাদ্যশস্য বিদেশে রপ্তানি শুরু হয় ।

19. সমন্বিত ( INTEGRATED ) ভূমি ব্যবহার পরিকল্পনা কী ? 

Ans: ভারতের 328 মিলিয়ন হেক্টর ভূমির 92.5 % ব্যবহৃত হয় । এর 51 % কৃষিজমি ও 19 % বনভূমি : বাকি অংশ বসতি , শিল্প , জলাভূমি হিসেবে রয়েছে । বাকি অংশ পতিত , অব্যবহৃত , ভূমিক্ষয়ের শিকার প্রভৃতি । এই ভূমির সঠিক ব্যবহার পরিকল্পনার জন্য সমন্বিত ভূমি ব্যবহার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে ।

গৃহীত ব্যবস্থা : i ) ভূমি ব্যবহারের সঠিক চিত্র উন্নত বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির মাধ্যমে গ্রহণ করতে হবে । ii ) ভূমি ব্যবহারে শ্রেণীবদ্ধকরণ করতে হবে । iii ) ভূমি ব্যবহারে দরকারী আইন প্রবর্তন করতে হবে । iv ) বিজ্ঞানসম্মত পরিচালন ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে । দরকারী পদক্ষেপ : ভূমির অবক্ষয় রোধ করার জন্য পর্যায়ক্রমিক চাষ , সংরক উদ্ভি নিঃশেষিত জৈব পদার্থের পুনরুদ্ধার , মাটিতে অনুখাদ্যের পুনরুদ্ধার , নহিট্রোজেন বৃদ্ধিকারী উদ্ভিদ চাষ করতে হবে ।

20. ভারতে কৃষিভূমি সংরক্ষণের পদ্ধতি কী ? 

Ans: কারণে কৃষিজমির পরিমাণ হ্রাস পাচ্ছে । তাই কৃষিজমি সংরক্ষণের উপায়গুলো বর্তমান ভারতে অত্যধিক জনবৃদ্ধির জন্য নগরায়ন , শিল্পায়ন , বসতি ও রাস্তা নির্মাণ প্রভৃতির 1 ) মৃত্তিকা ক্ষয় ও দূষণ প্রতিরোধের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ । ii ) পতিত ও অব্যবহৃত জমিবে পুনরুদ্ধার করে তাকে উৎপাদনমুখী করা । iii ) নিচু জমি ভরাট করে কৃষিজমিতে রুপান্তর করা । iv ) পরিকল্পিতভাবে ভূমি ব্যবহার পদ্ধতি গ্রহণ করা । V ) শিল্প স্থাপনে কৃষির অযোগ্য বুগ্ম , বন্ধ্যা , অনুর্বর জমি ব্যবহার করা । এছাড়া পার্বত্য অঞ্চলে ধাপপ্রথা ও বলয় প্রথায় চাষ করা , জৈব সারের ব্যবহার , নগর পরিকল্পনা গ্রহণ প্রভৃতির মাধ্যমে জমির সঠিক ব্যবহার দ্বারা কৃষিভূমি সংরক্ষণ সম্ভব ।

21. গুজরাট রাজ্য কৃষিতে উন্নত কেন ? 

Ans: গুজরাট রাজ্যে প্রচুর গম , তুলা , তামাক , চীনাবাদাম , ভুট্টা , ইক্ষু , তৈলবীজ , জিরা , ইসবগুল অর্থকরী ফসল চাষ হয় । কৃষিতে এরুপ উন্নতির কারণ হ’ল i ) উর্বর কৃষ্ণমৃত্তিকা কৃষির উপযোগী হয়েছে । ii ) উকাই , শেতরক্তি , কাকরাপারা , হাতমথী , ভাদর সেচ প্রকল্প থেকে সেচের সুবিধা । iii ) বিস্তৃত সমভূমিতে কৃষি ও কৃষি যন্ত্রের ব্যবহারের সুবিধা হয়েছে । ( iv ) কলোল , কাণ্ডালা , হাজিরার সার শিল্প থেকে সারের সুবিধা । এছাড়াও প্রচুর মুলধন ও অনুকূল সরকারী নীতি , বিপণন , চাহিদা প্রভৃতি কৃষির উন্নতির কারণ হয়েছে ।

22. ভারতে কৃষির উন্নয়নের জন্য গৃহীত ব্যবস্থাসমূহ কী ? 

Ans: সাম্প্রতিককালে ভারতে কৃষি উন্নয়নের জন্য গৃহীত ব্যবস্থা হল i ) রাষ্ট্রীয় কৃষি বিকাশ যোজনা ( RKVY ) গৃহীত হয় ও তাতে বরাদ্দকৃত অর্থ বাড়ানো হয় । ii ) কৃষকদের কম সূদে ( 7 % এর কম ) ঋণ দেওয়া হয় । এই খাতে 3,25,000 কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয় ( 2009 বাজেট ) । iii ) হার্টিকালচার , বাগিচা , পশুপালন ও মৎস্যচাষে গুরুত্ব দেওয়া হয় , এই খাতে 4100 কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয় ( 2009 বাজেটে ) । iv ) AIRP- এর দ্বারা সেচের সম্প্রসারণের জন্য 9 টি বড় সেচ প্রকল্প করা হবে যাতে 1000 কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয় । v ) কৃষকদের ঋণ মুকুবের কথা বলা হয় , এর দ্বারা 71000 কোটি টাকা ঋণ মুকুব দ্বারা কিছু কৃষক উপকৃত হয় । ( vi ) খাদ্যফসল , সব্জি সংরক্ষণের জন্য হিমাগার স্থাপনের কর্মসূচী গ্রহণ করা হয় । vii ) কৃষকদের উচ্চফলনশীল বীজ সরবরাহের জন্য মিনিকিট প্রদান করা হয় ও তাতে ভরতুকি প্রদানের কথা বলা হয় ।

প্রধান কেন্দ্র : ফারাক্কা , তালচের , সিংগ্রোলী ও কাওয়াস ( গুজরাট ) । বর্তমানে তাপবিদ্যুৎত্তের সাথে এই সংস্থাটি জলবিদ্যুৎ ও অ – চিরাচরিত বিদ্যুৎ উৎপাদনের দিকে নজর দিয়েছে বলে 2005 সালে এই সংস্থার নতুন নাম হয়েছে N’büTPC limited .

মেমরী প্লাস : ভারতে 89 রকমের খনিজ পাওয়া যায় । যার মধ্যে 4 টি জ্বালানী খনিজ , 11 টি ধাতু , 52 টি অধাতু ও 22 টি গৌণ বর্গের খনিজ । আবার Food Chain Revolution দ্বারা সংযুক্ত হয়েছে । যা খাদ্যদ্রব্য , সবজি ও ফলকে পচন থেকে রক্ষা করবে ।

FILE INFO : কৃষিকাজ – Agriculture | ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল প্রশ্নোত্তর (Regional Geography of India – Geography)

File Details:

PDF Name : কৃষিকাজ – Agriculture | ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল প্রশ্নোত্তর (Regional Geography of India – Geography)

Price : FREE

Download Link : Click Here To Download

INFO : Geography – Regional Geography of India – Question and Answer | ভূগোল – ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – কৃষিকাজ (Agriculture) প্রশ্নোত্তর

” ভূগোল (Geography) – ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল (Regional Geography of India) – কৃষিকাজ – Agriculture “ একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ টপিক বিভিন্ন শ্রেনীর পরীক্ষা (Class 5, 6, 7, 8, 9,  Madhyamik, Class 11, Higher Secondary – HS, College & University Exam) এবং বিভিন্ন চাকরির (WBCS, WBSSC) পরীক্ষায় এখান থেকে প্রশ্ন অবশ্যম্ভাবী । সে কথা মাথায় রেখে BhugolShiksha.com এর পক্ষ থেকে ভূগোল পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নো ও উত্তর উপস্থাপনের প্রচেষ্টা করা হলাে। ছাত্রছাত্রী, পরীক্ষার্থীদের উপকারে লাগলে, আমাদের প্রয়াস  ভূগোল (Geography) ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল (Regional Geography of India) – কৃষিকাজ – Agriculture / কৃষিকাজ সংক্ষিপ্ত ছোট প্রশ্ন ও উত্তর / কৃষিকাজ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Agriculture (Regional Geography of India – Geography)  SAQ / Short Question and Answer / কৃষিকাজ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Agriculture (Regional Geography of India – Geography) Quiz / কৃষিকাজ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Agriculture (Regional Geography of India – Geography) QNA / কৃষিকাজ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Agriculture (Regional Geography of India – Geography) Question and Answer FREE PDF Download ) পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নোত্তর সফল হবে।

কৃষিকাজ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Agriculture (Regional Geography of India – Geography) Question and Answer in Bengali

স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনার ডিজিটাল মাধ্যম BhugolShiksha.com । এর প্রধান উদ্দেশ্য পঞ্চম শ্রেণী থেকে নবম শ্রেণী, মাধ্যমিকউচ্চ মাধ্যমিক সমস্ত বিষয় এবং গ্রাজুয়েশনের শুধুমাত্র ভূগোল বিষয়কে  সহজ বাংলা ভাষায় আলোচনার মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের কাছে সহজ করে তোলা।

কৃষিকাজ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Agriculture (Regional Geography of India – Geography)

আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ সময় করে আমাদের এই ” কৃষিকাজ (ভারতের আঞ্চলিক ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Agriculture (Regional Geography of India – Geography) ” পােস্টটি পড়ার জন্য। এই ভাবেই আমাদের ভূগোল শিক্ষা – Bhugol Shiksha – BhugolShiksha.com ওয়েবসাইটের পাশে থাকুন। ভূগোল বিষয়ে যেকোনো প্ৰশ্ন উত্তর জানতে এই ওয়েবসাইটটি ফলাে করুন এবং নিজেকে ভৌগোলিক  তথ্য সমৃদ্ধ করে তুলুন , ধন্যবাদ।

Subscribe Our YouTube Channel

Join Our Telegram Channel

E-mail Subscription