পার্শি বিশি শেলী এর জীবনী – Percy Bysshe Shelley Biography in Bengali

13
পার্শি বিশি শেলী এর জীবনী - Percy Bysshe Shelley Biography in Bengali
পার্শি বিশি শেলী এর জীবনী - Percy Bysshe Shelley Biography in Bengali

পার্শি বিশি শেলী এর জীবনী

Percy Bysshe Shelley Biography in Bengali

পার্শি বিশি শেলী এর জীবনী – Percy Bysshe Shelley Biography in Bengali : পার্শি বিশি শেলী ইংরেজি ভাষার রােমান্টিক কবিদের মধ্যে । অন্যতম শ্রেষ্ঠ প্রতিভা । শ্রেষ্ঠ গীতিকবি শেলী তার অপূর্ব সুরেলা গীতিকবিতায় মানুষের স্বাধীনতার আর প্রেমের বন্দনা করেছেন । তার প্রত্যেকটি গীতিকবিতায় চিত্রকল্প , উপমা , ভাষার মাধুর্য এবং সঙ্গীতের মূৰ্ছনার সমাবেশ । শেলীর স্কাইলার্কের মতাে তার গীতিকবিতাগুলােও স্বতঃস্ফূর্ত শেলীর জীবন ছিলাে অত্যন্ত বেদনাময় । তাই তার অধিকাংশ গীতিকবিতায় অশ্রুসজল কণ্ঠের আভাস ।

 শেলীর প্রত্যেকটি গীতিকবিতায় রয়েছে অপূর্ব সঙ্গীতের মুচ্ছনা রয়েছে সরলতা ও তীব্র আবেগ ভাব ও ভাষার মণিকাঞ্চন আর রয়েছে নিজের মনের মাধুরী কোথাও কোথাও রয়েছে নিজের সুর । পার্শি বিশি শেলী (Percy Bysshe Shelley) ছিলেন মানবদরদী । তাই তিনি ব্যক্তিগত বিষাদ – বেদনার উর্ধে উঠে মানবতার জয়গান গেয়েছেন । 

 রােমান্টিক কবি পার্শি বিশি শেলীর একটি সংক্ষিপ্ত জীবনী । পার্শি বিশি শেলী জীবনী – Percy Bysshe Shelley Biography in Bengali বা পার্শি বিশি শেলীর আত্মজীবনী বা পার্শি বিশি শেলী (Percy Bysshe Shelley Jivani) জীবন রচনা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

পার্সি বিশি শেলী কে ছিলেন ? Who is Percy Bysshe Shelley ?

পার্শি বিশি শেলী (Percy Bysshe Shelley) ১৭৯২ সালের ৪ই আগস্ট সাসেক্সের হরসেমে জন্মগ্রহণ করেন। পার্শি বিশি শেলীর (Percy Bysshe Shelley) বাবা ছিলেন একজন সংসদ সদস্য। শেলি ইটন এবং অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা গ্রহণ করেন। অক্সফোর্ডে এসে শেলি প্রগতিবাদী লেখক যেমন, টম পেইন এবং উইলিয়াম গডউইনের লেখাসমূহ পড়া শুরু করেন। ১৮১১ সালে নাস্তিকতাকে সমর্থন করে একটি পুস্তিকা লেখার জন্য সে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কৃত হয়।

রােমান্টিক কবি পার্সি বিশি শেলী এর জীবনী – Percy Bysshe Shelley Biography in Bengali : 

নাম (Name) পার্শি বিশি শেলী (Percy Bysshe Shelley)
জন্ম (Birthday) ৪ আগস্ট ১৭৯২ (4th August 1792)
জন্মস্থান (Birthplace) হরসেম, সাসেক্স, ইংল্যান্ড
অভিভাবক (Parents)/পিতামাতা  টিমেথি শেলী ও এলিজাবেথ পিলফোর্ড
পেশা (Occupation) কবি 
সাহিত্যিক আন্দোলন রোমান্টিকতা
উল্লেখযোগ্য রচনাবলী Ode To The West Wind, To The Skylark, Music
মৃত্যু (Death) ৮ জুলাই ১৮২২ (8th July 1822)

পার্সি বিশি শেলী এর জন্ম – Percy Bysshe Shelley Birthday :

কবি শেলী ১৭৯২ খ্রীস্টাব্দে ৪ ঠা আগস্ট ইংল্যান্ডের সাসেক্স । অঞ্চলের ওয়ার্নহাম নামক স্থানে জন্মগ্রহণ করেন ।

পার্সি বিশি শেলী এর পিতামাতা – Percy Bysshe Shelley Parents :

 তার পিতা টিমেথি শেলী একজন সুদক্ষ কৃষিজীবি এবং পার্লামেন্টে হুইগ দলের একজন । সমর্থক সদস্য ছিলেন । তার মাতা এলিজাবেথ পিলফোর্ড শেলী ছিলেন কাব্যানুরাগী ও শিল্পানুরাগী মহিলা । শেলী ছিলেন বাবা – মার জ্যৈষ্ঠ সন্তান ।

পার্সি বিশি শেলী এর শৈশবকাল – Percy Bysshe Shelley Childhood :

 ছবছর বয়েসে পৌছাবার পর যথারীতি শেলীর শিক্ষাজীবন শুরু হয় । বাড়িতে তিনি বােনদের নানা গল্পকাহিনী বানিয়ে বানিয়ে বলে শােনাতেন এবং তাদের আনন্দ দিতেন । এছাড়া ঐ অল্প বয়সেই তিনি কবিতা লেখারও চেষ্টা করতেন । ১৮০৪ সালে বারাে বছর বয়সে তাকে ইটনে এক প্রাইভেট স্কুলে ভর্তি করে দেওয়া হয় । 

পার্সি বিশি শেলী শিক্ষাজীবন – Percy Bysshe Shelley Education Life :

 সেখানে তার মৌলিক চিন্তাধারার এবং কিছুটা উদ্ভট আচরণের কারণে সহপাঠিদের কেউ কেউতাকে ‘ পাগলা শেলী ’ নামে ডাকতাে । অবশ্য তার নিজস্ব বন্ধু – বান্ধবও ইটনে অনেক ছিলাে । যেখানে ১৮১০ খ্রীস্টাব্দের জুলাই মাসে তিনি ল্যাটিন ভাষায় উল্লেখযােগ্য ভাষণ দিতে সক্ষম হয়েছিলেন । এই বছরেই তিনি অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি কলেজে ভর্তি হয়েছিলেন উচ্চশিক্ষার জন্য । শেলী ছিলেন মুক্তিবুদ্ধির মানুষ । তিনি ধর্মের সমালােচনা করতেন । এ কারণে নাস্তিক্য মতবাদের জন্য তিনি তার এক বন্ধু টমাস জেফারসনের সঙ্গে কলেজ থেকে বহিষ্কৃত হয়েছিলেন । 

পার্সি বিশি শেলী এর বিবাহ জীবন – Percy Bysshe Shelley Marriage Life :

 ১৯ বছর বয়সে শেলী হ্যারিয়েট ওয়েস্টব্রুক নামে এক মেয়েকে ভালােবাসেন এবং তাকে বিয়ে করেন । হ্যারিয়েট ছিলেন অপূর্ব সুন্দরী । শেলীর মতে তার সামান্য কিছুসীমাবদ্ধতা ছাড়া তিনি হচ্ছেন আদর্শ স্ত্রী । ১৮১৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে শেলী এক বন্ধুকে লিখেছিলেন “ যখন আমি নিজ বাসগৃহেহ্যারিয়েটের কাছে ফিরে আসি , তখন আমি সুখিদের মধ্যেও শ্রেষ্ঠতম সুখি হিসাবে নিজেকে গণ্য করি ।

 ১৮১৩ সালে প্রথম সন্তানের জন্মের পর উইণ্ডসের কাছে একটা জায়গায় শেলীরা বাস করতে লাগলেন । ইতিমধ্যে তিনি উইলিয়াম গডউইন নামে এক দার্শনিকের দ্বারা বিশেষভাবে প্রভাবিত হয়েছিলেন । তিনি বাড়ি থেকে অর্থ এনে তাকে সাহায্য করতেন । আসা যাওয়া ও দেখা সাক্ষাতের মাঝে শেলী গডউনের মেয়ে মেরীকে ভালােবেসে ফেলেন । যার ফলশ্রুতিতে ১৮১৪ সালে ২৮ শে জুলাই শেলী এবং মেরী সুইজারল্যান্ডে চলে যান । শেলী অবশ্য পরে স্ত্রী হ্যারিয়েটকে সুইজারল্যান্ডের মতাে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপর একটা দেশে গিয়ে তার সঙ্গে মিলিত হবার আহ্বান জানিয়েছিলেন , কিন্তু অপমানিত হ্যারিয়েট তার আবেদনে সাড়া দেননি ।

পার্সি বিশি শেলী এর দ্বিতীয় বিবাহ – 2nd Marriage :

 ১৮১৬ খ্রীষ্টাব্দের ডিসেম্বর মাসে শেলী জানতে পারেন তার প্রথমা স্ত্রী হ্যারিয়েট রহস্যজনকভাবে জলে ডুবে মারা গেছেন , যদিও খবরটা তাকে খুবই মর্মাহত করেছিলাে , তবু শেলী এবং মেরী ঐ বছরের ডিসেম্বর মাসের ৩০ তারিখে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন । 

 কবি কীটসের প্রতি শেলী খুবই শ্রদ্ধাশীল ছিলেন ।

 লােকজনের নানারকম কুৎসায় এবং অসুস্থতার কারণে শেষ পর্যন্ত শেলীদম্পতি ইংল্যান্ড ছেড়ে ইটালীতে চলে যেতে বাধ্য হন । 

পার্সি বিশি শেলী এর রচনাবলী – Percy Bysshe Shelley Essays :

 শেলীর বিখ্যাত রচনাবলীর মধ্যে আছে কাব্যনাট্য প্রমিথিউস আনবাউন্ড ’ তাছাড়া জন কীটসের অকাল প্রয়াণে লিখিত শােকগাথা । এডােনিস ’ এবং ‘ অড টু এ স্কাইলার্ক তার অন্যতম শ্রেষ্ঠ কীর্তি । এছাড়া আছে ‘ অড টু দি ওয়েস্ট উইন্ডা ’ আর একটি বিখ্যাত গীতিকবিতা ।

পার্সি বিশি শেলী এর কবিতা – Poetry :

 Alastar or the spirit solitude নামে অমিত্রাক্ষর ছন্দে একটি কবিতা রচনা করেছেন শেলী ১৯১৫ খ্রিঃ । আত্মজীবনীমূলক এই রচনায় নিজের আত্মার কথাই প্রকাশ করেছেন । জেনিভা থাকাকালীন সময়ে শেলী রচনা করেছিলেন Hymn to intel lectual Beauty সহ কয়েকটি ছােট গল্প । তার অনুভব ও চিন্তার মধ্য থেকে উৎসারিত হতে লাগল আপন সৌন্দর্যে উজ্জ্বল একের পর এক কবিতা । 

 The Could , to night , Song to prosperine , when soft voices die , The Indian Serenade , Music , on a Faded violet প্রভৃতি অবিস্মরণীয় কবিতা । 

পার্সি বিশি শেলী এর মৃত্যু – Percy Bysshe Shelley Death :

 ১৮২২ খ্রীষ্টাব্দের ৮ ই জুলাই নৌকা করে লেগহর্ন থেকে লেরিসি পর্যন্ত সমুদ্রপথে আসার সময় শেলী বন্ধু উইলিয়ামসহ জলে ডুবে মারা যান । মৃত্যুর পর কবি শেলীকে ইটালির রাজধানী রােমে কবর দেওয়া হয় । 

 মুত্যুকালে শেলীর বয়স হয়েছিলাে মাত্র ৩০ বছর । 

 সৌন্দর্য ও প্রকৃতি প্রেমিক কবি শেলী সমুদ্র ভালবাসতেন । বিপ্লবী আদর্শেতার কবিসত্তা গঠিত হলেও নিষ্কলুষ কল্পনার মধ্যেই প্রকৃতির মেঘ রৌদ্রে , আকাশ বাতাস পাহাড়ে স্কাই লার্ক পাখির মতােই । ডানামেলে । উড়ে বেড়াত তার ভাবুক মন । তিনি খুঁজে ফিরেছেন । প্রেম সৌন্দর্য স্বাধীনতার জগতকে । 

পার্সি বিশি শেলী এর জীবনী (প্রশ্ন ও উত্তর) – Percy Bysshe Shelley Biography in Bengali (FAQ):

  1. পার্সি বিশি শেলী এর জন্ম কবে হয় ?

Ans : ৪ আগস্ট ১৭৯২ সালে ।

  1. পার্সি বিশি শেলী এর পিতার নাম কী ?

Ans : টিমেথী শেলী ।

  1. পার্সি বিশি শেলী এর মায়ের নাম কী ?

Ans : এলিজাবেথ পিলফোর্ড ।

  1. পার্সি বিশি শেলী এর প্রথম স্ত্রীর নাম কী ?

Ans : হ্যারিয়েট ওয়েস্টব্রুক ।

  1. পার্সি বিশি শেলী এর উল্লেখযোগ্য রচনাবলীর নাম কী ?

Ans : Ode To The West Wind, To The Skylark, Music.

  1. পার্সি বিশি শেলী কে ছিলেন ?

Ans : একজন কবি ।

  1. পার্সি বিশি শেলী কিভাবে মারা যায় ?

Ans : জলে ডুবে ।

  1. কত সালে পার্সি বিশি শেলী মারা যান ?

Ans : ১৮২২ খ্রীষ্টাব্দের ৮ ই জুলাই ।

[আরও দেখুন, আলবার্ট আইনস্টাইন জীবনী – Albert Einstein Biography in Bengali

আরও দেখুন, জেমস ওয়াট এর জীবনী – James Watt Biography in Bengali

আরও দেখুন, জোনাথন সুইফটের জীবনী – Jonathan Swift Biography in Bengali

আরও দেখুন, আগাথা ক্রিস্টি এর জীবনী – Agatha Christie Biography in Bengali]

পার্শি বিশি শেলী জীবনী – Percy Bysshe Shelley Biography in Bengali

   অসংখ্য ধন্যবাদ সময় করে আমাদের এই ” পার্শি বিশি শেলী জীবনী – Percy Bysshe Shelley Biography in Bengali  ” পােস্টটি পড়ার জন্য। এই ভাবেই BhugolShiksha.com ওয়েবসাইটের পাশে থাকো । যেকোনো প্ৰশ্ন উত্তর জানতে এই ওয়েবসাইট টি ফলাে করো এবং নিজেকে  তথ্য সমৃদ্ধ করে তোলো , ধন্যবাদ।