খাদ্য নিরাপত্তা (মানবীয় ভূগোল - ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Food Security (Human Geography) Geography
খাদ্য নিরাপত্তা (মানবীয় ভূগোল - ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Food Security (Human Geography) Geography

মানবীয় ভূগোল – ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর

খাদ্য নিরাপত্তা | Food Security – Human Geography (Geography) Question and Answer in Bengali

খাদ্য নিরাপত্তা (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Food Security (Human Geography – Geography) : মানবীয় ভূগোল – Human Geography (ভূগোল – Geography) খাদ্য নিরাপত্তা – Food Security প্রশ্ন Oও উত্তর  নিচে দেওয়া হল। এই (খাদ্য নিরাপত্তা – Food Security – মানবীয় ভূগোল Human Geography – ভূগোল Geography) প্রশ্নোত্তর গুলি স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষার জন্য খুব ইম্পর্টেন্ট। তোমরা যারা খাদ্য নিরাপত্তা – Food Security – মানবীয় ভূগোল – Human Geography (ভূগোল – Geography) অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর (Short Question and Answer) খুঁজে চলেছো, তারা নিচে দেওয়া প্রশ্নউত্তর ভালো করে পড়তে পারো।

খাদ্য নিরাপত্তা (Food Security) মানবীয় ভূগোল – ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর

1. খাদ্য নিরাপত্তা কী ? ( FOOD SECURITY ) 

Ans: সমাজের দুর্বলতম শ্রেণীর মানুষেরা প্রতিদিন তাদের খাদ্য তালিকায় সুষম ক্যালরি খাদ্য পায় না । তাই ক্ষুধা , অপুষ্টি এবং দুর্ভিক্ষের কবল থেকে মানুষ রক্ষা পেয়ে যখন প্রত্যেক মানুষ উপযুক্ত ক্যালরিসমৃদ্ধ খাদ্য পাবার যে ব্যবস্থা করা হয় ; তাকে খাদ্য নিরাপত্তা বলে । তাই খাদ্য নিরাপত্তা হল এমন এক ব্যবস্থা যার দ্বারা সমাজের প্রত্যেক স্তরের সকল মানুষ উপযুক্ত খাদ্য পায় । WHO- এর মতে , উন্নয়নশীল দেশে খাদ্য নিরাপত্তা কম ।

2. বিশ্বে খাদ্য নিরাপত্তার বর্তমান অবস্থা কী ?

Ans: বিশ্বজুড়ে খাদ্য নিরাপত্তার পরিস্থিতি অত্যন্ত ভয়াবহ । WHO এর মতে , উন্নয়নশীল দেশে খাদ্য মারা যায় । বিশ্বের প্রতি নিরাপত্তা উল্লেখযোগ্যভাবে কম । এখানে প্রতি 5 জনে একজন পুষ্টির অভাবে বৎসর 1 কোটি 10 লক্ষ শিশু এরূপ সুষম ক্যালরিযুক্ত খাদ্যের অভাবে মারা যায় । 2002 সালের সমীক্ষাতে ৫৪০ * ভূগোলিকা দেখা গেছে , ভারতের 21 % মানুষ খাদ্য নিরাপত্তার সুযোগ থেকে বঞ্চিত । দেখা গেছে , ভারতের 21 % মানুষ খাদ্য নিরাপত্তার সুযোগ থেকে বঞ্চিত । এর থেকেই প্রাথমিক বিদ্যালয়ে Mid Day Meal- এর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় ।

3. খাদ্য দাঙ্গা কী ? 

Ans: যখন কোন দেশে কৃষিক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ফলন কম , কালোবাজারী , প্রাকৃতিক দুর্যোগ , আমদানি , ইত্যাদি কারণে খাদ্য সংকট দেখা দেয় ; ফলস্বরূপ প্রধান নিম্নবর্গীয় খেটেখাওয়া মানুষেরা খাদ্যের অভাবে যখন নিজেদের মধ্যে বা রাষ্ট্রায়ত্ত গুদামঘর লুঠ বা সম্পন্নগৃহে হামলা চালায় তখন সেই অবস্থাকে খাদ্য দাঙ্গা বলে । 2008 সালে আফ্রিকার দেশসমূহে ( হাইতি , সেনেগাল , কেপভার্দে , সাব – সাহারান আফ্রিকা , বুরকিনা ১৮৩০ খাদ্য নিরাপত্তা ফাসোয় ) খাদ্যদাঙ্গা হয়েছে ।

4. খাদ্য নিরাপত্তা বিভিন্ন সামাজিক  শ্রেণীর কাছে কিভাবে দেখা যায় ব্যাখ্যা করো ।

Ans: নানান সামাজিক শ্রেণীর মানুষের কাছে নানানভাবে দেখা যায় । যেমন- দারিদ্র্যসীমার নীচে বসবাসকারী জনগণ গভীরভাবে খাদ্য নিরাপত্তার অভাব বোধ করে । এছাড়া স্বনিযুক্ত প্রান্তিক শ্রমিক যেমন— নারী ও শিশুরা খাদ্য নিরাপত্তা পায় না । উন্নত দেশগুলিতে খাদ্য নিরাপত্তা অধিক । অনুন্নত দেশে যেমন— ভারত , বাংলাদেশে মানব উন্নয়নের হার কম ; অধিক লিঙ্গবৈষম্য , দারিদ্র্যতা প্রভৃতির জন্য খাদ্য নিরাপত্তা কম ।

মেমরী প্লাস : বর্তমান বিশ্বে খাদ্যসঙ্কট । বিশ্বজুড়ে খাদ্যসঙ্কট অত্যন্ত ভয়াবহ পরিস্থিতি ধারন করেছে । গ্লোবাল ওয়ার্মিং – এর ধাক্কায় সারা বিশ্ব যখন নাস্তানুবাদ ; তখন বিশ্বে হানা দিয়েছে খাদ্যসঙ্কটের মতো জটিল সমস্যা । 2001 যখন অবাধ বাণিজ্য আলোচনা শুরু হয়েছিল , তখন থেকে আমূল বদলে গিয়েছে বিশ্ব অর্থনৈতিক পরিস্থিতি । বর্তমানে ভারত , ব্রাজিল , ভিয়েতনাম , কাম্বোডিয়া , মিশর , রাশিয়া , আর্জেন্টিনা , ইউক্লেন খাদ্যরপ্তানি বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছে । খাদ্যসঙ্কটের সাথে এবার বিপন্ন বিশ্বায়নও । খাদ্যসঙ্কট চরম আকার নিচ্ছে আফ্রিকা , বাংলাদেশ সহ কিছু এশিয় রাষ্ট্রে । এমনকী আমেরিকাও তাদের লাগামহীন জীবনে ব্যয়সঙ্কোচ করছে । ইতিমধ্যেই হাইতি , কায়রো , সেনেগাল , এল সালভাদার , বুরাকিনো ফাসোয় খাদ্যদাঙ্গা শুরু হয়েছে । এর সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মুদ্রাস্ফীতি ও দারিদ্র্য । রাষ্ট্রসঙ্ঘের মতে , আমেরিকাসহ ইওরোপীয় ইউনিয়নের দেশ হাজার হাজার চাষযোগ্য জমিতে খাদ্যশস্যের পরিবর্তে জৈব জ্বালানী উৎপাদনের জন্যই এই খাদ্যসঙ্কট । উন্নত বিশ্ব আবার খাদ্যসঙ্কটের জন্য চীন ও ভারতকে দায়ী করেছেন । শুরু হয়েছে ঠাণ্ডা লড়াই । তবে কী 300 বৎসর আগে বলে যাওয়া ম্যালথাসের কথা ঠিক হতে চলেছে । নাকি পটভূমি তৈরি হচ্ছে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের ?

5. বৈদেশিক মুদ্রা সংকট ভারতে বৈদেশিক মুদ্রা সংকটের কারণ কী ? 

Ans: প্রত্যেক দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য বৈদেশিক মূলধন সঞ্জয় দরকার হয় বৈদেশিক মূলধন বা মুদ্রার সঞ্চয় হ্রাস বা ঘাটতি পেলে তাকে বৈদেশিক মুদ্রা সংকট বলে । যেমন — ভারতে 1991 সালের মধ্যবর্তীকালে বৈদেশিক মূলধনের সঞ্জয় কমে 2600 কোটিরও কম হয়ে বৈদেশিক মুদ্রা সংকট দেখা দেয় ।

ভারতে এরূপ বৈদেশিক মুদ্রা সংকটের কারণ হল : ( ক ) অপরিশোধিত তেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি ( এর 60 % আমদানি করতে হয় বলে ) । ( খ ) অদৃশ্য দ্রব্য থেকে বৈদেশিক মুদ্রা সংগ্রহ হ্রাস পেলে এই সংকট সৃষ্টি হয় । ( গ ) খাদ্যশস্য , চিনি , ডাল , ভোজ্যতেলের অধিক মূল্যবৃদ্ধির ফলে এই সংকট সৃষ্টি হয় ।

6. সাম্প্রতিক ভারত তথা বিশ্বজুড়ে খাদ্য পণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি পেয়েছে – এর কারণ কি ? 

Ans: ( ক ) চাহিদা বৃদ্ধি : উন্নয়নশীল দেশসমূহে জনসংখ্যা বৃদ্ধির ফলে চাহিদা বৃদ্ধি পায় ( ভারতে জনবৃদ্ধির হার 1.2 থেকে 1.9 শতাংশ হারে বৃদ্ধি পেয়েছে । ( খ ) যোগান হ্রাস  ঃ পরিষেবামূলক ক্রিয়াকলাপ বৃদ্ধি ও নগরায়ন বৃদ্ধির ফলে কৃষির উৎপাদনশীলতা হ্রাস পেয়েছে ।। ( গ ) কৃষির প্রতি সরকারী অবহেলা । বিশ্বায়ন ও শিল্পায়নের মাদকতায় বিশ্বের অধিকাংশ দেশ কৃষিকে উপেক্ষা করেছে । ( ঘ ) ক্রয় ক্ষমতা বৃদ্ধি  ঃ মধ্যবিত্ত শ্রেণীর অর্থনৈতিক উন্নয়নের ফলে মানুষের ক্রয়ক্ষমতা বেড়েছে ( যেমন — ভারতীয় অর্থনীতি বার্ষিক 5 % হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় খাদ্যের জন্য বরাদ্দ বাড়ার ফলে কৃষিজাত পণ্যের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে । ( ঙ ) উৎপাদন হ্রাস ( যেমন 2007-08 এ ভারতে খাদ্য শস্য উৎপাদন ছিল 230.8 মিলিয়ন টন , 2009-09 তা হয় 229.9 মিলিয়ন টন । ( চ ) ফাটকাবাজি : মজুতদাররা খাদ্য শস্য বাজার থেকে তুলে নিয়ে কৃত্রিম অভাব সৃষ্টি করে ।

7. স্ব – বহনক্ষম খাদ্য নিরাপত্তা কী ? 

Ans: বর্তমানে সকলের ও ভবিষ্যতে সকলের খাদ্য নিরাপত্তাকে স্ববহনক্ষম খাদ্য নিরাপত্তা বলে । আসলে দীর্ঘকালীন পরিপ্রেক্ষিতে স্ববহনক্ষম খাদ্য নিরাপত্তা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় । খাদ্য নির াপত্তার ( ক ) খাদ্য প্রাপ্তি : খাদ্য নিরাপত্তার জন্য দরকার খাদ্য যোগান ; এই যোগান আসে অভ্যন্তরীন উৎপাদন ও বিদেশ থেকে আমদানির উপর । ( খ ) স্বত্ত্বা অধিকার : খাদ্যে স্বত্ত্বা অধি গুরুত্বপূর্ণ । এই স্বত্ত্বাধিকার আসে বাজার ব্যবস্থা ও সরকারী সামাজিক নিরাপত্তা দ্বারা , এর জন্য ক্রেতার ক্রয়ক্ষমতা থাকা দরকার । তার জন্য সরকারী কাজের বিনিময়ে খাদ্য কর্মসূচী গ্রহণ বৃদ্ধ ও অসুস্থদের ভাতা , বেকারভাতা প্রভৃতি দ্বারা ক্রয় ক্ষমতা বাড়াতে হবে । ( গ ) খাদ্য আত্নীকরণ : খাদ্য নিরাপত্তার জন্য Food absorption দরকার , তাই খাদ্য গ্রহণ করাই যথেষ্ট নয় , যাতে খাদ্য আত্মীকরণ হয়ে পুষ্টিসাধন করতে পারে তাও গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ।

8. বিশ্বজুড়ে খাদ্য সংকটের কারণ কী ? 

Ans: সাম্প্রতিককালে বিশ্বজুড়ে খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে । এর জন্য কয়েকটি কারণ উল্লেখ করা যেতে পারে ।

  1. i) খনিজ তেলের মূল্য বৃদ্ধি পেট্রোলিয়ামের দাম বৃদ্ধির ফলে পণ্যবাহী গাড়ীর মাসুল বুদ্ধি পায় । ফলে খাদ্য পণ্যের দাম বৃদ্ধি পায় ।

ii ) ডলারের মূল্যহ্রাস ও আমেরিকার বাণিজ্যখাতে ঘাটতি চলার ক্ষেত্রে আমেরিকা অন্যদেশের মূদ্রা অধিক ক্রয় করলে ডলারের দাম কমে যায় । এর ফলে OFEC ভুক্ত দেশগুলো ডলারের বিনিময়ে কম দেশীয় মুদ্রা পায় । দেশগুলোর প্রধান সম্পদ তেল , তাই তেলের দাম বৃদ্ধি করতে পরিবহণ ব্যয় বাড়লে খাদ্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি ঘটে । iii ) বিকল্প জ্বালানী তৈরীঃ অনেক দেশ উদ্ভিদজাত তেল বা Bio fuel এর ব্যবহার হিসাবে ভুট্টা ও ভোজ্যতেল থেকে চাহিদা মেটাচ্ছে । ফলে খাদ্যপণ্যের বদলে ওইরূপ ফসল চাষ করছে । ফলে খাদ্য পণ্যের উৎপাদন কম হচ্ছে ও দাম বাড়ছে । iv ) জমি হ্রাস  ঃ রাস্তা , রেললাইন , শিল্প ও বসতি স্থাপনের ফলে কৃষি জমির আয়তন কমে যাওয়ায় উৎপাদন হ্রাস পেয়ে দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে । v ) নগদ শস্য চাষ : কৃষিজাত পণ্যের অবাধ বাণিজ্য নীতির ফলে উন্নয়নশীল দেশের কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ; তখন তারা খাদ্যশস্য উৎপাদন কমিয়ে অধিক Cash Crops উৎপাদন করায় খাদ্যশস্যের যোগান কম হচ্ছে ও দাম বাড়ছে ।

9. ভারত সরকারের খাদ্যনীতি কী ? 

Ans: ভারত সরকার খাদ্য নিরাপত্তা বিষয়ে দুটি খাদ্যনীতি গ্রহণ করে থাকে । যেমন i ) গণবণ্টন ব্যবস্থা : এ ব্যবস্থায় কম দামে খাদ্যশস্য বিক্রয় করা হয় । এর মাধ্যমে দরিদ্ররেখার নীচে অবস্থানরত ব্যক্তিদের বিনা ব্যয়ে ও দারিদ্ররেখার উপরে বসবাসকারীদের বাজার থেকে কম দামে রেশন দ্বারা খাদ্যশস্য সরবরাহ করা হয় । iii ) মূল্য নির্ধারণ ও মজুত ভাণ্ডার গঠন  ঃ সরকার খাদ্যশস্যের নুন্যতম পরিপোষক মূল্য বেঁধে দেয় এবং লেভি প্রথার মাধ্যমে খাদ্য শস্য কিনে সরকার মজুত ভাণ্ডার গড়ে তোলে । ব্যাখ্যা : গণবন্টন চালু রাখার জন্য সরকার বাজার থেকে খাদ্যশস্য কিনে মজুত ভাণ্ডার গড়ে ও ভরতুকিতে তা বিলিবন্টন করে । আবার নূন্যতম মূল্য বেঁধে দেওয়ার ফলে উৎপাদকের স্বার্থও রক্ষা পায় । বিলি বন্টনের ফলে ভোগকারীরাও উপকৃত হয় ।

10. ভারত সরকারের খাদ্য নিরাপত্তা বা খাদ্যনীতির দুর্বলতা কী ? 

Ans: ভারত সরকারের খাদ্যনীতির দুর্বলতা হল নিম্নরূপ : i ) ত্রুটিপূর্ণ রেশনিংঃ রেশনিং ব্যবস্থার ত্রুটির কারণে গরিব মানুষ ভরতুকিযুক্ত খাদ্য কিনতে পারে না । চোরা পথে রেশনিং এর খাদ্যশস্য চলে আসে খোলাবাজারে ; ফলে গরিব মানুষরা বঞ্চিত হয় । ফলে দারিদ্রের প্রকোপ বাড়ে । ii ) ত্রুটিপূর্ণ B.P.L. তালিকা : দারিদ্রসীমার নীচে বসবাসকারী পরিবারের তালিকা নির্ভুল যেমন ) নয় তেমনি পক্ষপাত দুষ্ট । ফলে প্রকৃত দরিদ্ররা বঞ্চিত হয় । iii ) ত্রুটিপূর্ণ সংগ্রহ ব্যবস্থা : সরকারের সংগ্রহ ব্যবস্থায় ত্রুটি থাকায় নূন্যতম মূল্য ঘোষণা করেও সরকার বিক্রয় উদ্বৃত্ত পণ্য কিনতে পারে না । সরকার মজুত ভাঙারও সম্পূর্ণ করতে পারে না । ব্যবসায়ী কম দামেই উৎপাদকের কাছ থেকে ফসল কেনে । ( iv ) কেবল চাল , গম সরবরাহ ও রেশনে কেবলমাত্র চাল , গম , চিনি সরবরাহ করা হলেও ডাল , ভোজ্যতেল , শাকসজ্বি সরবরাহ করা হয়নি ; ফলে এগুলোর উপর সরকারী নিয়ন্ত্রণ না থাকায় বাজার দাম বেশী হয় । মানবীয় ভূগোল ( v ) ভরতুকি হ্রাস রাজকোষে ঘাটতি কমাতে গিয়ে সরকার ভরতুকি হ্রাস করে । ফলে খাদ্য নিরাপর বিঘ্নিত হয় । vi ) ক্রয় ক্ষমতা বৃদ্ধি : ভোগকারীর ক্রয়ক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য সরকারী ব্যবস্থা নেই । তাই খাদ্য নিরাপত্র অর্জনে ভারত স্বয়ম্ভর নয় ।

11. খাদ্য নিরাপত্তা অর্জনের জন্য কি কি ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে বলে মনে করেন । 

Ans: খাদ্য নিরাপত্তার জন্য কয়েকটি ব্যবস্থা গ্রহণ করা দরকার ; যেমন i ) জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ ও খাদ্য উৎপাদন বাড়ে গাণিতিক নিয়মে ও জনসংখ্যা বাড়ে গুণোত্তর হারে ( ম্যালথাস তত্ত্ব ) ; ফলে খাদ্য যোগান কমে । তাই জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ ও স্থিতিশীল রাখলেই খাদ্য নিরাপত্তা বজায় থাকবে । ii ) কৃষি জমি নিরাপত্তা ও কৃষি জমির নিরাপত্তা দ্বারা উৎপাদন বজায় রাখতে হবে , তারজন্য : ( ক ) কৃষি জমি ( খ ) জমির উর্বরতা শক্তিকে পুনরুদ্ধার করতে হবে ( গ ) ভূমিক্ষয় ও ভূমিদূষণ রোধ করতে হবে । ( ঘ ) উৎপাদনক্ষম জমি বুদ্ধি ও রক্ষা করতে হবে । iii ) জল নিরাপত্তা ও জলের লভ্যতা বজায় রাখতে হবে ; বৃষ্টির জল সংরক্ষণ করতে হবে ; ভৌমজলের ভাণ্ডার অক্ষুন্ন রাখতে হবে । সেচের কাজেও মাত্রাতিরিক্ত জলের ব্যবহার কমাতে হবে ও কম জলের ফসল চাষ করতে হবে । iv ) মৌলিক অধিকার প্রদান ও খাদ্যের অধিকারকে মৌলিক অধিকার হিসাবে স্বীকৃতি দিতে হবে । কেননা খাদ্যাভাব সামাজিক ও রাজনৈতিক অস্থিরতার জন্ম দেয় , অর্থনৈতিক উন্নয়নে বাধা দেয় । v ) এছাড়া জীববৈচিত্র্য রক্ষা , পরিবেশের সুস্থতা , উৎপাদন বৃদ্ধি , পুষ্টি সচেতনতা ও বিভিন্ন সরকারী কর্মসূচীর মাধ্যমে খাদ্য নিরাপত্তাকে সুরক্ষিত করা যেতে পারে ।

FILE INFO : খাদ্য নিরাপত্তা – Food Security | মানবীয় ভূগোল – ভূগোল প্রশ্নোত্তর (Human Geography – Geography)

File Details:

PDF Name : খাদ্য নিরাপত্তা – Food Security | মানবীয় ভূগোল – ভূগোল প্রশ্নোত্তর (Human Geography – Geography)

Price : FREE

Download Link : Click Here To Download

INFO : Geography – Human Geography – Question and Answer | ভূগোল – মানবীয় ভূগোল – খাদ্য নিরাপত্তা (Food Security) প্রশ্নোত্তর

” ভূগোল (Geography) – মানবীয় ভূগোল (Human Geography) – খাদ্য নিরাপত্তা – Food Security “ একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ টপিক বিভিন্ন শ্রেনীর পরীক্ষা (Class 5, 6, 7, 8, 9,  Madhyamik, Class 11, Higher Secondary – HS, College & University Exam) এবং বিভিন্ন চাকরির (WBCS, WBSSC) পরীক্ষায় এখান থেকে প্রশ্ন অবশ্যম্ভাবী । সে কথা মাথায় রেখে BhugolShiksha.com এর পক্ষ থেকে ভূগোল পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নো ও উত্তর উপস্থাপনের প্রচেষ্টা করা হলাে। ছাত্রছাত্রী, পরীক্ষার্থীদের উপকারে লাগলে, আমাদের প্রয়াস  ভূগোল (Geography) মানবীয় ভূগোল (Human Geography) – খাদ্য নিরাপত্তা – Food Security / খাদ্য নিরাপত্তা সংক্ষিপ্ত ছোট প্রশ্ন ও উত্তর / খাদ্য নিরাপত্তা (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Food Security (Human Geography – Geography)  SAQ / Short Question and Answer / খাদ্য নিরাপত্তা (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Food Security (Human Geography – Geography) Quiz / খাদ্য নিরাপত্তা (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Food Security (Human Geography – Geography) QNA / খাদ্য নিরাপত্তা (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Food Security (Human Geography – Geography) Question and Answer FREE PDF Download ) পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নোত্তর সফল হবে।

খাদ্য নিরাপত্তা (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Food Security (Human Geography – Geography) Question and Answer in Bengali

স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনার ডিজিটাল মাধ্যম BhugolShiksha.com । এর প্রধান উদ্দেশ্য পঞ্চম শ্রেণী থেকে নবম শ্রেণী, মাধ্যমিকউচ্চ মাধ্যমিক সমস্ত বিষয় এবং গ্রাজুয়েশনের শুধুমাত্র ভূগোল বিষয়কে  সহজ বাংলা ভাষায় আলোচনার মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের কাছে সহজ করে তোলা।

খাদ্য নিরাপত্তা (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Food Security (Human Geography – Geography)

আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ সময় করে আমাদের এই ” খাদ্য নিরাপত্তা (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Food Security (Human Geography – Geography) ” পােস্টটি পড়ার জন্য। এই ভাবেই আমাদের ভূগোল শিক্ষা – Bhugol Shiksha – BhugolShiksha.com ওয়েবসাইটের পাশে থাকুন। ভূগোল বিষয়ে যেকোনো প্ৰশ্ন উত্তর জানতে এই ওয়েবসাইটটি ফলাে করুন এবং নিজেকে ভৌগোলিক  তথ্য সমৃদ্ধ করে তুলুন , ধন্যবাদ।

Subscribe Our YouTube Channel

Join Our Telegram Channel

E-mail Subscription