প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন (মানবীয় ভূগোল - ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Migration (Human Geography) Geography
প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন (মানবীয় ভূগোল - ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Migration (Human Geography) Geography

মানবীয় ভূগোল – ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর

প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন | Migration – Human Geography (Geography) Question and Answer in Bengali

প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Migration (Human Geography – Geography) : মানবীয় ভূগোল – Human Geography (ভূগোল – Geography) প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন – Migration প্রশ্ন Oও উত্তর  নিচে দেওয়া হল। এই (প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন – Migration – মানবীয় ভূগোল Human Geography – ভূগোল Geography) প্রশ্নোত্তর গুলি স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষার জন্য খুব ইম্পর্টেন্ট। তোমরা যারা প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন – Migration – মানবীয় ভূগোল – Human Geography (ভূগোল – Geography) অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর (Short Question and Answer) খুঁজে চলেছো, তারা নিচে দেওয়া প্রশ্নউত্তর ভালো করে পড়তে পারো।

প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন (Migration) মানবীয় ভূগোল – ভূগোল প্রশ্ন ও উত্তর

1. প্রচরণ কী ? ( MIGRATION ) 

Ans: পরিব্রাজন মানুষের সহজাত প্রবৃত্তি । অতি প্রাচীনকাল থেকে বর্তমানকাল পর্যন্ত মানুষ এবং প্রতিনিয়ত নিজের খাদ্য , সুখ , নিরাপত্তা ও সাংস্কৃতিক প্রয়োজনে তার নিজস্ব স্থান ত্যাগ করে স্থায়ীভাবে নিজ দেশের কোন স্থানে বা বিদেশে গমন করাকে প্রচরণ বলে । অর্থাৎ , প্রচরণ এক বিশেষ ধরনের বিচলনকে বোঝায় । কিন্তু সমস্ত বিচলনই অভিগমন নয় ( All migration are movements but some movements are migration ) । প্রচরণের ফলে জনসংখ্যা ও সম্পদের পুনর্বণ্টন হয় ।

2. প্রচরণ ( MIGRATION ) ও বিচলনের ( MOVEMENT ) পার্থক্য লেখো । 

Ans: প্রচরণ আমরা তাকেই বলবো যখন কোন ব্যক্তি স্থায়ীভাবে বসবাসের উদ্দেশ্যে পূর্বের বাসস্থান ও প্রশাসনিক অঞ্চল ত্যাগ করে নতুন প্রশাসনিক অঞ্চলে আগমন করে । পক্ষান্তরে বিচলনকারী ( Movers ) আমরা তাদেরই বলবো যারা বাসস্থান পরিবর্তন করে এবং এই পরিবর্তন করতে গিয়ে তারা পুরানো প্রশাসনিক অঞ্চলেই থেকে যায় , অথবা নতুন প্রশাসনিক অঞ্চলে এল তা বিবেচ্য নয় । অর্থাৎ সব প্রচরণই বিচলন ; কিন্তু কিছু কিছু বিচলনই প্রচরণ ।

3. অন্তঃঅভিবাসন/অন্তঃর্মুখী পরিব্রাজন/(Immigration) ও বহিঅভিবাসন/বহির্মুখী পরিব্রাজন/দেশান্তর(Emigration) এর মধ্যে পার্থক্য লেখো ।

অন্তঃঅভিবাসন বহিঅভিবাসন
a) উন্নত জীবনযাত্রা, চাকুরী, শিক্ষা ইত্যাদির জন্য বিদেশ থেকে এদেশে আগমনকে অন্তঃঅভিবাসন বলে । a) পক্ষান্তরে, প্রাকৃতিক বিপর্যয়, সামাজিক ও রাজনৈতিক কারণে বাস্তুত্যাগকে বহিঅভিবাসন বলে ।
b) জনসংখ্যা বৃদ্ধি ঘটে b) জনসংখ্যার হ্রাস ঘটে ।
c) ব্রেনডেনের পরিমান কম । c) তুলনামূলক অনেক বেশি ।
d) বাংলাদেশ থেকে ভারতে আগমন । d) ভারত থেকে ইংল্যান্ডে গমন ।

4. পরিব্রাজনের বাধ্যকারী কারণ কী ? ( PUSH FACTORS ) । 

Ans: পরিব্রাজনের অন্যতম প্রধান কারণ পুশ ফ্যাক্টর । কোন স্থানে সমস্যা দেখা দিলে জনগণ যখন সেই স্থান ত্যাগ করে চলে যেতে বাধ্য হয় , সেই উপাদানগুলিকে বাধ্যকারী কারণ বলে ।

কারণ : i ) বেকারত্ব বা চাকুরী হারানো ( বর্তমানে ব্রিটেনে বসবাসকারী ভারতীয় ডাক্তাররা ভারতে পুনরায় আসছে ) । ii ) অর্থনৈতিক দুরবস্থা ( মালয়েশিয়ার অধিবাসীদের থাইল্যাণ্ডে আগমন ) । iii ) অনুপযুক্ত কর্ম পরিবেশ ( পূর্বভারত থেকে ইঞ্জিনিয়ারদের দক্ষিণ ভারত গমন ) । iv ) রাজনৈতিক অস্থিরতা ( বাংলাদেশের সংখ্যালঘু হিন্দুদের ভারতে আগমন ) । ( v ) বন্যা , সুনামী ইত্যাদি প্রাকৃতিক বিপর্যয় ( যেমন- 2004 খ্রিস্টাব্দে ভারত মহাসাগরের সুনামী উপকূলের প্রায় 12 টি দেশের মানুষকে বসতি পরিবর্তনে বাধ্য করেছে ) । F vi ) সমাজ থেকে বহিষ্কার । vii ) কারারুদ্ধ হবার সম্ভাবনাও পরিব্রাজনের বাধ্যকারী কারণ ।

মেমরী প্লাস : ভারতে আছে ২০ কোটি পরিবার , এর মধ্যে ৬.৫ কোটি শহরে ও ১৩.৫ কোটি বসবাস করেন গ্রামাঞ্চলে ।

5. পরিব্রাজনের আকর্ষণকারী কারণ কী ? ( PULL FACTORS ) 

Ans: মানুষ যখন পূর্বের থেকে কিছু আকর্ষণযুক্ত স্থানের প্রতি প্রলুব্ধ হয়ে ( তা বাস্তব বা কাল্পনিক হতে পারে ) বসতি স্থাপন করে । সেই উপাদানগুলিকে আকর্ষণযুক্ত কারণ বলে । কারণ : ( i ) নতুন অর্থনৈতিক কার্যাবলী ( দুর্গাপুর বর্তমানে শিক্ষা , স্বাস্থ্য ও শিল্পের এক লোভনীয় প্রতিষ্ঠান ) ; ( ii ) উন্নত সামাজিক সুবিধা ( কানাডার মানুষের রাজধানী মন্ট্রিলে আগমন ) ; ( iii ) বিশেষকৃত শিক্ষা ( বিশেষায়নের যুগে উন্নয়নশীল দেশের ছাত্র ও গবেষকদের উন্নত দেশে গমন ) ; ( iv ) মনোরম জলবায়ু ; ( v ) উপযোগী অবস্থান ; ( vi ) নিরাপত্তার সুবিধার জন্যও মানুষ অন্যত্র ছুটে যায় ।

মেমরী প্লাস : পরিব্রাজনের বৈচিত্র্য — পক্ষীকূলের পরিব্রাজন অত্যন্ত বৈচিত্র্যময় । মেরু অঞ্চলের সামুদ্রিক পাখী টার্ন প্রতি বৎসর উত্তরমেরু থেকে দক্ষিণমেরু পর্যন্ত প্রায় 35,000 কিমি । পথ অতিক্রম করে । ইওরোপের কোন কোন পাখি শীতকালে দক্ষিণ আফ্রিকা পর্যন্ত চলে যায় । ভরতপুরের বিস্তৃত মার্শিল্যান্ডে ও অন্যান্য বহু সরোবরে স্পুনবিল , কূট , কমনড্রেন পাখী শীতপ্রবাসে আসে । আবার পঙ্গপালের দল এক দেশ থেকে অন্য দেশে পরিব্রাজন করে ফসল উজাড় করে দেয় ; দেশে দুর্ভিক্ষ নেমে আসে ।

6. অন্তঃদেশীয় পরিব্রাজন ( INTERNAL MIGRATION ) । 

Ans: অতি প্রাচীনকাল থেকে বর্তমানকাল পর্যন্ত একটি দেশের সীমানার মধ্যেই স্থায়ী বা অস্থায়ীভাবে গমন করাকেই অন্তঃদেশীয় পরিব্রাজন বলে । কারণ : ( i ) জনসংখ্যার পুনর্বিন্যাস- এশিয়া ও আফ্রিকার দুর্ভিক্ষপীড়িত অঞ্চলে ; ( ii ) নব অঞ্চলে উপনিবেশ — আন্দামান , সুন্দরবন ও দণ্ডকারণ্য অঞ্চলে ; ( iii ) কর্মসংস্থান পরিবর্তন- দুর্গাপুরে নতুন কর্মসংস্থান , শিল্পায়নে পরিব্রাজন হচ্ছে ; ( iv ) ব্যবসা – বাণিজ্য ; ( v ) চাকুরীক্ষেত্রে বদলীব্যবস্থা অন্তঃ দেশীয় পরিব্রাজনের কারণ ।

মেমরী প্লাস : আরবীয় মরুভূমিতে , বিশেষত জর্ডন ও সিরিয়াতে 30-40 লক্ষ যাযাবরের সন্ধান মেলে । এরা মরসুমী পরিব্রাজক হিসাবে চিহ্নিত । সামান্য বৃষ্টিপাতের উপর নির্ভর করে এরা 300-1000 কিমি পথ পাড়ি দেয় ।

7. ঋতুগত পরিব্রাজন কী ? ( TRANSHUMANCE ) । 

Ans: অন্তঃদেশীয় পরিব্রাজনের একটি প্রকৃষ্ট নিদর্শন ঋতুগত পরিব্রাজন । শীতল পার্বত্য অঞ্চলের পশুপালক যাযাবরদের গ্রীষ্মের শুরুতে প্রাণীদের তৃণক্ষেত্রে নিয়ে যাওয়া ও শীতকালে পর্বতের পাদদেশে পশু নিয়ে নেমে আসে ; একে ঋতুগত পরিব্রাজন বলে । উদাহরণসহ ব্যাখ্যা : পশ্চিম হিমালয়ের গুর্জর , গাৰ্দ্দি , নিলাং , মাৰ্চিয়া , জোহরী উপজাতিরা ; পূর্ব আফ্রিকা , ইওরোপের আল্পস পার্বত্য অঞ্চল , ব্রাজিলের পারানা উচ্চভূমিতে , আফ্রিকার সোমালী প্রজাতন্ত্রে ঋতুগত পরিব্রাজনের প্রকৃষ্ট নিদর্শন দেখা যায় । বাইবেলের আখ্যানে এর সুন্দর বিবরণ পাওয়া যায় ।

8. আন্তর্জাতিক পরিব্রাজন ( INTERNATIONAL MIGRATION ) বা , আন্তর্জাতিক পরিব্রাজনের কারণ কী ? 

Ans: গণতন্ত্রে আন্তর্জাতিক পরিব্রাজন বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ । যখন কোন দেশের জনসাধারণ এক দেশ থেকে বা মহাদেশ থেকে অন্য কোন দেশে বা মহাদেশে শিক্ষা , কর্মসংস্থান বা আশ্রয় নেবার উদ্দেশ্যে দীর্ঘমেয়াদীভাবে চলে গিয়ে বসবাস করে , তাকে আন্তর্জাতিক পরিব্রাজন বলে ।

কারণ : ( A ) রাজনৈতিক কারণ— রাজনৈতিক অস্থিরতার ফলে দেশান্তর ঘটে ( যেমন বাংলাদেশ থেকে ভারতে আগমন ) : ( B ) নতুন ভূ – খণ্ড আবিষ্কার — অষ্টাদশ শতাব্দীতে বহু উপনিবেশ স্থাপনের কারণে বহু ইওরোপীয় অন্য মহাদেশে বসতি স্থাপন করে ; ( C ) শিক্ষাগত উৎকর্ষতা ভারতীয়দের ফ্রনড্রেন হিসাবে আমেরিকা , ব্রিটেন গমন করে শিক্ষার জন্য গমন : ( D ) যুদ্ধ ও দাঙ্গা- যুদ্ধ ও দাঙ্গা আন্তর্জাতিক প্রচরণের কারণ ( যেমন— শ্রীলঙ্কা থেকে বাংলাদেশে গমন ) ; ( E ) উন্নত জীবনযাপন ; ( F ) স্বাধীনভাবে থাকার ইচ্ছাতেও আন্তর্জাতিক পরিব্রাজন হয় ।

9. আন্তর্জাতিক পরিব্রাজনের প্রকৃতি কী ?

Ans: i ) আন্তর্জাতিক পরিব্রাজনের প্রকৃতি বা বৈশিষ্ট্য নিম্নরূপ এই প্রচরণ দীর্ঘস্থায়ী বা চিরস্থায়ী হতে পারে । ii ) এর ভৌগোলিক ব্যাপ্তি বা প্রসার অন্যান্য সব ধরনের পরিব্রাজনের তুলনায় বেশি । in ) এই পরিব্রাজন গ্রাহক দেশ এবং দাতা দেশের ইমিগ্রেশান ( Immigration ) এবং ইমাইগ্রেশান ( Emigration ) আইন অনুসারে বিধিবন্ধ । iv ) এই পরিব্রাজন অন্তঃদেশীয় পরিব্রাজনের মতো এত অবাধ নয় । v ) এই পরিব্রাজন সাংস্কৃতিক ক্ষেত্র উন্নয়ন বা উন্নতির সহায়ক । vi ) আন্তর্জাতিক পরিব্রাজন দাতা দেশগুলির আর্থ সামাজিক এবং রাজনৈতিক দুর্বলতার পরিচায়ক ।

10. আন্তর্জাতিক পরিব্রাজনের সুবিধা কী ? 

Ans: আন্তর্জাতিক পরিব্রাজনের সুবিধাগুলি হল A ) আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে এই পরিব্রাজন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ( যেমন— আমেরিকা প্রবাসী ভারতীয়দের ইতিবাচক ভূমিকার জন্য আমেরিকা ও ভারতের সাম্প্রতিক সম্পর্কের উন্নতি ) ।

B ) এই পরিব্রাজনের ফলে বিভিন্ন ভাষাভাষী জাতি ও বর্ণের মানুষের মধ্যে ইতিবাচক সহযোগিতার পরিবেশ সৃষ্টি করে ।

C ) কৃষি , শিল্প , বাণিজ্য ইত্যাদি অর্থনৈতিক ক্ষেত্রাবলী আন্তর্জাতিক পরিব্রাজনের ফলে লাভবান হয় ( যেমন – ইস্রায়েল 1948 খ্রিস্টাব্দে জন্মের পর মধ্যপ্রাচ্যের ধূসর মরু অঞ্চলে কৃষিক্ষেত্রে বিপ্লব এনেছে ) ।

D ) শিক্ষাগত উৎকর্ষতা বাড়ে ( যেমন- অস্ট্রেলিয়া , কানাডাতে শিক্ষার উৎকর্ষতা বেড়েছে ) ।

11. আন্তর্জাতিক পরিব্রাজনের অসুবিধা কী ? 

Ans: আন্তর্জাতিক পরিব্রাজনের সুবিধার মতো অনেক অসুবিধাও আছে । যেমন i ) এই পরিব্রাজনের জন্য গ্রহীতা দেশে ছোট ছোট জনগোষ্ঠী তৈরি হয় । ii ) এই পরিব্রাজনে দাতা দেশগুলিতে বিজ্ঞান , কারিগরী ও গবেষণা ক্ষেত্রে উপযুক্ত দক্ষ মানুষের অভাব হয় ( যেমন- ভারত , বাংলাদেশ ) । iii ) জাতিদাঙ্গা ( আফ্রিকার দেশসমূহে ) , ধর্মযুদ্ধ ( ইস্রায়েল , প্যালেস্তাইনে ) , আইনশৃঙ্খলার চরম অবনতি ঘটে ( ইংল্যাণ্ডে ইউরোপীয় ও এশিয়দের সংঘর্ষ ) । iv ) এই পরিব্রাজন উপনিবেশ ও অর্থনৈতিক ঔপনিবেশিকতার সূচনা করে ( দক্ষিণ – পূর্ব এশিয়ার ডাচ ও ইংরাজ বণিকদের রবার বাগিচা গঠন , দক্ষিণ আমেরিকায় স্পেন ও পর্তুগাল এবং উত্তর আফ্রিকায় ফ্রান্সের ঔপনিবেশিক সম্প্রসারণ ) । v ) রাজনৈতিক অস্থিরতার সৃষ্টি ( উত্তর শ্রীলঙ্কায় জাতিদাঙ্গা ) । vi ) অবৈধ ভিসার সুযোগ নিয়ে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ আন্তর্জাতিক পরিব্রাজনের কুফল ।

12. ইমিগ্রেশান ( IMIGRATION ) বা , দেশান্তর কাকে বলে ?

Ans: কোন দেশের স্থায়ী বাসিন্দা যদি তার স্বদেশ বসতি পরিবর্তন করে অন্য দেশে বসতি স্থাপন করে , তখন তাকে ইমিগ্রেশান বলা হয় ।

উদাহরণসহ ব্যাখ্যা : ভারতে বসবাসকারী কোন পরিবার বা মানুষ যদি কানাডা বা অন্য কোন দেশে বসতি পরিবর্তন করে তখন ইমিগ্রেশান হয় । আবার যারা বসতি পরিবর্তন করে তারা হল ইমিগ্রেন্ট ( Imigrant ) । আবার মধ্যযুগে আফ্রিকার বিভিন্ন নিগ্রোদের ইওরোপে আমদানিও বলপূর্বক দেশাস্তরের নদর্শন ।

13. ইমাইগ্রেশান ( EMMIGRATION ) বা অভিবাসন । 

Ans: ইমিগ্রেশানের বিপরীত ধারণা হল ইমাইগ্রেশান । যখন কোন দেশ থেকে অন্য কোন দেশেতে মানুষের স্থানান্তর ঘটে ; তাকে ইমাইস্লেশান বলে ।

উদাহরণসহ ব্যাখ্যা : আমেরিকা ও ব্রিটেন থেকে মানুষের ভারতে স্থানান্তর ঘটলে ইনইিগ্রেশান হয় । এক্ষেত্রে যারা বসতি স্থাপন করে , তারা হল ইমাইগ্রান্ট ( Emmigrant ) । পরিব্রাজনের ক্ষেত্রে ইমিগ্রেশান ও ইমাইগ্রেশান একে অপরের সাথে সম্পর্কযুক্ত ।

14. মেধাপাচার বা BRAIN DRAINI কী ? 

Ans: আন্তর্জাতিক পরিব্রাজনের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল মেধাপাচার । যখন কোন অনুন্নত ও উন্নয়নশীল দেশের বিজ্ঞানী , গবেষক , ডাক্তার তথাকথিত বুদ্ধিজীবীরা আরো উঁচুতে নিয়োগ , অধিকতর উপার্জন , স্বাধীনতা ও অন্যান্য সুযোগ – সুবিধা পাবার আশায় উন্নত দেশগুলিতে গমন করে , তখন সেই বুদ্ধি বা মেধার স্থানান্তরকেই মেধাপাচার ( Brain Drain ) বলে । বিশেষত্ব ( A ) মেধাপাচারে উন্নত দেশগুলি লাভবান হলেও অনুন্নত দেশগুলির সমাজ ও অর্থনীতি ধ্বংস হয় । ( B ) সমগ্র বিশ্বে একমেরুকরণের প্রবণতা বৃদ্ধি পায় । উদাহরণসহ ব্যাখ্যা : ভারতের কারিগরী বিদ্যায় নিপুণ শ্রমিকেরা অধিক উপার্জন , স্বাধীনতা , নিরাপত্ত ও উন্নত জীবন – জীবিকার উদ্দেশ্যে আমেরিকা , অস্ট্রেলিয়ায় পাড়ি দিচ্ছে । এক্ষেত্রে বহুজাতিক সংস্থাগুলি । আকর্ষণকারী উপাদানের কাজ করে ।

15. ব্রেনগ্রেন কী ? ( BRAIN GRAIN ) 

Ans: উন্নয়নশীল ও অনুন্নত দেশের কারিগরী বিদ্যায় নিপুণ ছাত্র – ছাত্রী , গবেষক , IT ইঞ্জিনিয়ার বিদেশের বহুজাতিক সংস্থাগুলোর অভাবনীয় সুযোগ – সুবিধা অগ্রাহ্য করতে না পেরে পতঙ্গের মতো আরো উজ্জ্বল আলোর আশায় উন্নত দেশগুলিতে পাড়ি জমায় । ফলে ওই দেশে মেধার সঞ্চার হয় , একে ব্রেনগ্রেন বলে ।

বিশেষত্ব : ব্রেনপ্লেন যেখানে হয় সেখানে মেধার চরম উৎকর্ষতার ফলে শিক্ষা , স্বাস্থ্য , অর্থনীতি সুদৃঢ় হয়ে দেশটি মানবসম্পদে বলীয়ান হয় । ফলে দেশটি উন্নয়নের চরম রূপে উত্তরণ করে ।

উদাহরণসহ ব্যাখ্যা : নিউজিল্যান্ডে প্রথমে অনুন্নত মাউরী উপজাতি বসবাস করত । কিন্তু পরবর্তীকালে আমেরিকান , ইংরাজ , ভারতীয়দের মেধার ভান্ডারে বলীয়ান হয়ে দেশটি উন্নত দেশে পরিণত হয়েছে ।

16. শরণার্থী কী ? ( REFUGEE ) 

Ans: কোন দেশের মানুষ যখন যুদ্ধবিগ্রহ , দাঙ্গা , মহামারী , সীমান্ত সমস্যা , ধর্মীয় নিপীড়ন , রাজনৈতিক কোন্দল ও সর্বোপরি চরম দারিদ্র্যতা , বেকারত্বের জ্বালায় অন্য কোন পার্শ্ববর্তী দেশে বিতাড়িত হয়ে বসবাস করে , তাদের শরণার্থী বলে । মানবীয় ভূগোল * ৫২৫ বিশেষত্ব : A ) এরা সেইসব ভাগ্য নিপীড়িত মানুষের দল যাদের দেশ থেকে দেশ নেই ! B ) এদের সমস্ত কিছুই লুণ্ঠিত , পদদলিত ও নিপীড়িত । C ) এদের কোন অধিকার নেই । তাই মানব অধিকার লঙ্ঘনও হয় না এখানে ।

উদাহরণ : তিব্বত থেকে ভারতে দলাই লামার নেতৃত্বে হাজার হাজার তিব্বতির ভারত আগমন ; আফগানিস্তান থেকে পাকিস্তানে , আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে এই শরণার্থীর আগমন ঘটে ।

17. ভারতের পরিব্রাজনের প্রকৃতি কী ? 

Ans: প্রাচীনকাল থেকে ভারতে প্রচরণের প্রকৃতি বারে বারে পরিবর্তিত হয়েছে । ‘ মিলাইলে মিলিবে ’ এই দেশ ভারতের প্রচরণের প্রকৃতি হল নিম্নরূপ— A ) মধ্যযুগীয় ভারতের কৃষ্টি ও সভ্যতার আকর্ষণে অনেক বিদেশী পরিব্রাজকের ( মেগাস্থিনিস , হিউয়েন সাঙ ) আগমন ঘটেছে । B ) দেশভাগজনিত কারণে পূর্ব ও পশ্চিম পাকিস্তান থেকে ভারতে বহু মানুষের প্রচরণ ঘটেছে । C ) সাংস্কৃতিক কারণে ইস্কন , রামকৃষ্ণ মিশন , বিশ্বভারতী প্রভৃতি স্থানে দেশ – বিদেশের বহু মানুষের আগমন হয়েছে । D ) তেমনি বিশ্বায়নের জোয়ারে কারিগরী শ্রমিক হিসাবে ভারত থেকে মেধাপাচার রূপে তথাকথিত উন্নত দেশে দেশান্তরগমন ঘটেছে । E ) আবার পরিব্রাজনের গঠন হিসাবে পূর্ব ভারতের তুলনায় পশ্চিম ভারতে অধিক এবং উত্তর ভারতের অপেক্ষা দক্ষিণ ভারতে অধিক পরিব্রাজন ঘটেছে ।

18. অবৈধ পরিব্রাজন কী ? ( ILLEGAL MIGRATION ) 

Ans: যখন এক দেশ থেকে কোন নাগরিক ভিসা বা পাসপোর্ট বা বৈধ পরিচয়পত্র ছাড়াই দেশের সীমান্তের নিরাপত্তা ব্যবস্থায় ফাঁকি দিয়ে চোরাপথে অন্য দেশে প্রবেশ করে স্থায়ী বা অস্থায়ীভাবে বসবাস করে ; সেই অবৈধভাবে অনুপ্রবেশকে অবৈধ পরিব্রাজন বলে । উদাহরণসহ ব্যাখ্যা : বাংলাদেশ থেকে বিতাড়িত হিন্দু নাগরিকরা বাধ্য হয়ে পশ্চিমবঙ্গের সীমান্তে ঢুকে পড়ে । আফ্রিকা , যুক্তরাষ্ট্রে অবৈধ পরিব্রাজনের প্রকৃষ্ট নিদর্শন দেখা যায় ।

19. পরিব্রাজনের র‍্যাভেনস্টাইনের তত্ত্ব কী ? 

Ans: প্রচরণ সম্পর্কে র‍্যাভেনস্টাইন কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্যের কথা বলেছেন । যেমন— i ) অধিকাংশ প্রচরণ স্বল্প দূরত্বে হয় ( গ্রাম শহরে ; গ্রাম গ্রামে ) । ii ) প্রচরণ সর্বদা স্তরে স্তরে হয় । iii ) প্রত্যেক প্রচরণের ঢেউ – এর বিপরীতগামী ঢেউ আছে । iv ) শহরের তুলনায় গ্রামের মানুষ বেশি প্রচরণশীল । v ) স্বল্প দূরত্বের প্রচরণে মহিলার সংখ্যা অধিক । vi ) প্রযুক্তিবিদ্যা উন্নতির সাথে সাথে প্রচরণও বৃদ্ধি পায় । vii ) প্রচরণ প্রধানত অর্থনৈতিক কারণেই হয়ে থাকে ।

20. পরিব্রাজনের গুরুত্ব কী ?

Ans: পরিব্রাজনের সুবিধা ও অসুবিধা নিম্নে দেওয়া হ’ল— a ) সুবিধা / সুফল : ( i ) জনবিবর্তনের পরিবর্তনে সাহায্য করে ; ( ii ) বিভিন্ন সংস্কৃতির মেলবন্ধন ঘটে ; ( iii ) কোন দেশ বা অঞ্চল গড়ে উঠতে সাহায্য করে ( উদাহরণ— নিউজিল্যান্ড ) ; ( iv ) কুসংস্কার দূরীকরণে সাহায্য করে ; ( v ) উন্নত জীবিকার ক্ষেত্র প্রস্তুত হয় ; ( vi ) নতুন বসতির উৎপত্তি হয় ; ( vii ) অর্থপূর্ণ জনবন্টনে সাহায্য করে ; ( viii ) নগরায়নের পথ সুস্পষ্ট হয় ; ( ix ) সামাজিক সংযোগ বৃদ্ধি পায় ; ( x ) সর্বোপরি মানব সম্পদের উন্নয়ন হয় ।

b ) অসুবিধা / কুফল : ( i ) উদ্বাস্তু সমস্যা বাড়ে ( উদাহরণ- ভারতে ) ; ( ii ) সামাজিক বিভাজন , সাংস্কৃতিক বিভাজন ও সামাজিক একীভবন ঘটে ; ( iii ) সম্পদের ভোগহার বৃদ্ধি পায় ; ( iv ) সামাজিক ভারসাম্য বিনষ্ট হয় ; ( v ) দুর্নীতি , চুরি ও ডাকাতি ইত্যাদি পরিব্রাজনের কুফল ।

মেমরী প্লাস : GROSS AND NET MIGRATION মোট পরিব্রাজন ( Gross Migration ) : মোট ভিতর ও বাহির পরিব্রাজনের সমষ্টি । Net Migration : মোট ভিতর ও বাহির পরিব্রাজনের পার্থক্য ।

FILE INFO : প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন – Migration | মানবীয় ভূগোল – ভূগোল প্রশ্নোত্তর (Human Geography – Geography)

File Details:

PDF Name : প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন – Migration | মানবীয় ভূগোল – ভূগোল প্রশ্নোত্তর (Human Geography – Geography)

Price : FREE

Download Link : Click Here To Download

INFO : Geography – Human Geography – Question and Answer | ভূগোল – মানবীয় ভূগোল – প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন (Migration) প্রশ্নোত্তর

” ভূগোল (Geography) – মানবীয় ভূগোল (Human Geography) – প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন – Migration “ একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ টপিক বিভিন্ন শ্রেনীর পরীক্ষা (Class 5, 6, 7, 8, 9,  Madhyamik, Class 11, Higher Secondary – HS, College & University Exam) এবং বিভিন্ন চাকরির (WBCS, WBSSC) পরীক্ষায় এখান থেকে প্রশ্ন অবশ্যম্ভাবী । সে কথা মাথায় রেখে BhugolShiksha.com এর পক্ষ থেকে ভূগোল পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নো ও উত্তর উপস্থাপনের প্রচেষ্টা করা হলাে। ছাত্রছাত্রী, পরীক্ষার্থীদের উপকারে লাগলে, আমাদের প্রয়াস  ভূগোল (Geography) মানবীয় ভূগোল (Human Geography) – প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন – Migration / প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন সংক্ষিপ্ত ছোট প্রশ্ন ও উত্তর / প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Migration (Human Geography – Geography)  SAQ / Short Question and Answer / প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Migration (Human Geography – Geography) Quiz / প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Migration (Human Geography – Geography) QNA / প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Migration (Human Geography – Geography) Question and Answer FREE PDF Download ) পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নোত্তর সফল হবে।

প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Migration (Human Geography – Geography) Question and Answer in Bengali

স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনার ডিজিটাল মাধ্যম BhugolShiksha.com । এর প্রধান উদ্দেশ্য পঞ্চম শ্রেণী থেকে নবম শ্রেণী, মাধ্যমিকউচ্চ মাধ্যমিক সমস্ত বিষয় এবং গ্রাজুয়েশনের শুধুমাত্র ভূগোল বিষয়কে  সহজ বাংলা ভাষায় আলোচনার মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের কাছে সহজ করে তোলা।

প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Migration (Human Geography – Geography)

আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ সময় করে আমাদের এই ” প্রচরণ , অভিগমন , পরিব্রাজন (মানবীয় ভূগোল – ভূগোল) প্রশ্ন ও উত্তর | Migration (Human Geography – Geography) ” পােস্টটি পড়ার জন্য। এই ভাবেই আমাদের ভূগোল শিক্ষা – Bhugol Shiksha – BhugolShiksha.com ওয়েবসাইটের পাশে থাকুন। ভূগোল বিষয়ে যেকোনো প্ৰশ্ন উত্তর জানতে এই ওয়েবসাইটটি ফলাে করুন এবং নিজেকে ভৌগোলিক  তথ্য সমৃদ্ধ করে তুলুন , ধন্যবাদ।

Subscribe Our YouTube Channel

Join Our Telegram Channel

E-mail Subscription