মাধ্যমিক ভূগোল সহায়ক – প্রশ্ন ও উত্তর | প্রতিবেশী দেশসমূহ (আঞ্চলিক ভূগোল দশম অধ্যায়) | Madhyamik Geography

664

প্রতিবেশী দেশসমূহ (আঞ্চলিক ভূগোল দশম অধ্যায়)

নেপাল

1. নেপালে অবস্থিত পৃথিবীর উচ্চতম পর্বত শৃঙ্গের নাম কী?
উত্তরঃ মাউণ্ট এভারেস্ট (৮,৮৪৮ মিটার)।

2. নেপালে তাল কথার অর্থ কী?
উত্তরঃ হ্রদ।

3. নেপালের সর্বোচ্চ পর্বত শৃঙ্গের নাম কী?
উত্তরঃ মাউণ্ট এভারেস্ট। (৮.৮৪৮ মিটার)।

4. নেপালের দুটি উপত্যকার নাম লেখ।
উত্তরঃ পোখরা ও কাঠমাণ্ডু।

5. নেপালের দীর্ঘতম নদীর নাম কী?
উত্তরঃ কালীগণ্ডক।

6. নেপালের অধিকাংশ নদী কোন দিকে প্রবাহিত হয়েছে?
উত্তরঃ উত্তর থেকে দক্ষিণ দিকে প্রবাহিত।

7. নেপালের একটি প্রধান শিল্পের নাম লেখ।
উত্তরঃ পাট শিল্প।

8. নেপালের প্রধান শহরের নাম কী?
উত্তরঃ কাঠমাণ্ডু।

9. নেপালের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহরটির নাম কী?
উত্তরঃ পোখরান।

10. নেপালের রাজধানীর নাম কী?
উত্তরঃ কাঠমাণ্ডু।

11. ভারতের কোন সীমান্তে নেপাল অবস্থিত?
উত্তরঃ উত্তর সীমান্তে।

12. নেপালের প্রধান কৃষিজ ফসলের নাম কী?
উত্তরঃ ধান।

13. কোন দেশের সঙ্গে নেপালের বৈদেশিক বাণিজ্য সবচেয়ে বেশি হয়?
উত্তরঃ ভারতের সঙ্গে।

14. বৈদেশিক বাণিজ্যের জন্য নেপাল ভারতের কোন বন্দর বেশি ব্যবহার করে?
উত্তরঃ কোলকাতা বন্দর।

ভুটান

1. ভারতের কোন সীমান্তে ভুটান অবস্থিত?
উত্তরঃ উত্তর সীমান্তে।

2. ভুটানের সর্বোচ্চ শৃঙ্গের নাম কী?
উত্তরঃ কুলাকাংড়ি (৭৫৩৯ মিটার)।

3. ভুটানের দুটি উপত্যকার নাম লেখ।
উত্তরঃ পারো ও থিম্পু।

4. ভুটানের দীর্ঘতম নদীর নাম কী?
উত্তরঃ মানস।

5. ভুটানের প্রধান অর্থকরী ফসলের নাম কী?
উত্তরঃ বড় এলাচ।

6. ভুটানের একটি জলবিদ্যুৎ প্রকল্পের নাম লেখ।
উত্তরঃ চুখা।

7. ভুটানের রাজধানীর নাম কী?
উত্তরঃ থিম্পু।

8. সামুদ্রিক বাণিজ্যের জন্য ভুটান কোন বন্দর ব্যবহার করে।
উত্তরঃ কোলকাতা বন্দর।

বাংলাদেশ

1. বাংলাদেশ ভারতের কোন দিকে অবস্থিত?
উত্তরঃ পূর্বদিকে।

2. বাংলাদেশের পার্বত্য অঞ্চল বলতে প্রধানত কোন অঞ্চলকে বোঝায়?
উত্তরঃ পার্বত্য চট্টগ্রামকে বোঝায়।

3. বাংলাদেশের উচ্চতম শৃঙ্গের নাম কী?
উত্তরঃ কিওক্রাডং (১২৩০ মিটার)।

4. বাংলাদেশের দুটি নদীর নাম লেখ।
উত্তরঃ পদ্মা, যমুনা।

5. বাংলাদেশ কবে স্বাধীন রাষ্ট্রের মর্যাদা লাভ করে?
উত্তরঃ ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর।

6. বাংলাদেশের প্রধান বন্দরটির নাম কী?
উত্তরঃ চট্টগ্রাম।

7. বাংলাদেশের জলবায়ু কী প্রকৃতির?
উত্তরঃ ক্রান্তীয় ,মৌসুমী প্রকৃতির।

8. বাংলাদেশের প্রধান অর্থকরী ফসলের নাম কী?
উত্তরঃ পাট।

9. ধান উৎপাদনে পৃথিবীতে বাংলাদেশের স্থান কত?
উত্তরঃ চতুর্থ।

10. বাংলাদেশের প্রধান আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কোথায় অবস্থিত?
উত্তরঃ ঢাকায়।

11. বাংলাদেশের রাজধানীর নাম কী?
উত্তরঃ ঢাকা।

12. ঢাকা কোন নদীর তীরে অবস্থিত?
উত্তরঃ বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে।

13. বাংলাদেশের একটি জলবিদ্যুৎ কেন্দ্রের নাম লেখ।
উত্তরঃ কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র।

14. বাংলাদেশের বৃহত্তম বন্দরের নাম কী?
উত্তরঃ চট্টগ্রাম।

15. বাংলাদেশের একটি সমুদ্র বন্দরের নাম লেখ।
উত্তরঃ কক্সবাজার।

মায়ানমার

1. মায়ানমার ভারতের কোন সীমায় অবস্থিত?
উত্তরঃ পূর্বসীমায় অবস্থিত।

2. মায়ানমারের একটি আগ্নেয়গিরির নাম লেখ।
উত্তরঃ পেগুইয়োমা পর্বতের মাউন্ট পোপা।

3. মায়ানমারের দীর্ঘতম নদীর নাম কী?
উত্তরঃ ইরাবতী।

4. মায়ানমারের সর্বোচ্চ শৃঙ্গের নাম কী?
উত্তরঃ কাকাবোরাজী (৫৫৮১ মিটার)।

5. ইরাবতী নদীর একটি উপনদীর নাম লেখ।
উত্তরঃ চিন্দুইন।

6. মায়ানমারের জলবায়ু কি প্রকৃতির?
উত্তরঃ ক্রান্তীয় মৌসুমী প্রকৃতির।

7. মায়ানমারের প্রধান কৃষিজ ফসল কী?
উত্তরঃ ধান।

8. দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার ধান্যভাণ্ডার কাকে বলে?
উত্তরঃ মায়ানমারের ইরাবতী ও সিটাং ব-দ্বীপ অঞ্চলকে।

9. মায়ানমারের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নাম কী?
উত্তরঃ রেঙ্গুন।

10. মায়ানমারের রাজধানীর নাম কী?
উত্তরঃ রেঙ্গুন।

11. রেঙ্গুন কোন নদীর তীরে অবস্থিত?
উত্তরঃ রেমগুন নদীর তীরে।

12. শান মালভূমি কোথায় অবস্থিত?
উত্তরঃ মায়ানমারের সমগ্র মধ্য-পূর্বভাগ জুড়ে যে বিস্তৃত মালভুমি আছে তার নাম শান মালভুমি।

শ্রীলঙ্কা

1. শ্রীলঙ্কা ভারতের কোন দিকে অবস্থিত?
উত্তরঃ দক্ষিণ দিকে।

2. শ্রীলঙ্কার সর্বোচ্চ পর্বত শৃঙ্গের নাম কী?
উত্তরঃ পেদ্রুতালাগালা (২৫৩০ মিটার)।

3. শ্রীলঙ্কার দীর্ঘতম নদীর নাম কী?
উত্তরঃ মহাবলী গঙ্গা।

4. শ্রীলঙ্কার রাজধানীর নাম কী?
উত্তরঃ কলম্বো।

5. কোন প্রণালীর মাধ্যমে শ্রীলঙ্কা ভারত থেকে বিচ্ছিন্ন?
উত্তরঃ পক্‌ প্রণালীর মাধ্যমে বিচ্ছিন্ন।

6. মান্নান উপসাগর কোথায় অবস্থিত?
উত্তরঃ ভারত ও শ্রীলঙ্কার মাঝখানে।

7. শ্রীলঙ্কার জলবায়ু কী প্রকৃতির?
উত্তরঃ নিরক্ষীয় প্রকৃতির।

8. শ্রীলঙ্কায় প্রধানত কী জাতীয় অরণ্য দেখা যায়?
উত্তরঃ চিরসবুজ অরণ্য।

9. শ্রীলঙ্কার প্রধান কৃষিজ ফসল কী?
উত্তরঃ ধান।

10. বিশ্বে চা উৎপাদনে শ্রীলঙ্কার স্থান কত?
উত্তরঃ তৃতীয়।

11. দারুচিনি দ্বীপ কাকে বলে?
উত্তরঃ শ্রীলঙ্কাকে।

12. শ্রীলঙ্কার দুটি উল্লেখযোগ্য কৃষিজ ফসলের নাম কর।
উত্তরঃ ধান, চা।

13. কোন প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে ভারত স্থলপথে যোগাযোগ করতে পারে না?
উত্তরঃ শ্রীলঙ্কার সঙ্গে।

14. গ্রাফাইট উৎপাদনে বিশ্বে শ্রীলঙ্কার স্থান ।
উত্তরঃ প্রথম।

15. আদম সেতু বা সেতুবন্ধ কাকে বলে?
উত্তরঃ ভারতের দক্ষিণ সীমায় পামবান দীপে ধনুষ্কোটি থেকে শ্রীলঙ্কার উত্তর-পশ্চিম কোণে মান্নার দ্বীপের তলাই মান্নার পর্যন্ত মধ্যবর্তী সাগরে সারি সারি প্রবাল দ্বীপ ও বালুচর যেন মালার মত ভেসে থেকে সেতু রচনা করেছে, একেই বলে আদম সেতু বা সেতুবন্ধ।

পাকিস্তান

1. পাকিস্তান ভারতের কোন সীমায় অবস্থিত?
উত্তরঃ উত্তর-পশ্চিম সীমায়।

2. পাকিস্তানের উত্তরে কোন পর্বতমালা অবস্থিত?
উত্তরঃ হিন্দুকুশ পর্বতমালা।

3. পাকিস্তানের সর্বোচ্চ শৃঙ্গের নাম কী?
উত্তরঃ তিরিচমির (৭৬৯০ মিটার) ।

4. পাকিস্তানের প্রধান/দীর্ঘতম নদীর নাম কী?
উত্তরঃ সিন্ধু।

5. পাকিস্তানের রাজধানীর নাম কী?
উত্তরঃ ইসলামাবাদ।

6. পাকিস্তানের দুটি গিরিপথের নাম লেখ।
উত্তরঃ খাইবার ও বোলান।

7. সিন্ধুর পাঁচটি উপনদীর নাম লেখ।
উত্তরঃ বিতস্তা, চন্দ্রভাগা, ইরাবতী, বিপাশা এবং শতদ্রু।

8. পাকিস্তানের জলবায়ু কী প্রকৃতির?
উত্তরঃ শুষ্ক ও চরম প্রকৃতির।

9. পাকিস্তানে প্রধানত কী কী উপায়ে জলসেচ করা হয়?
উত্তরঃ সেচখাল এবং ক্যারেজ প্রথায় জলসেচ করা হয়।

10. ক্যারেজ প্রথা কী?
উত্তরঃ এক ধরণের জলসেচ পদ্ধতি।

11. পাকিস্তানের প্রধান কৃষিজ ফসল কী?
উত্তরঃ গম।

12. পাকিস্তানের প্রধান অর্থকরী ফসল কী?
উত্তরঃ তুলো বা কার্পাস।

13. পাকিস্তানের প্রধান শিল্পের নাম কী?
উত্তরঃ কার্পাস বয়ন শিল্প।

14. পাকিস্তানের প্রধান সমুদ্র-বন্দরের নাম কী?
উত্তরঃ করাচী।

15. ইসলামাবাদ শব্দটির অর্থ কী?
উত্তরঃ শান্তির শহর।

16. ইতিহাস প্রসিদ্ধ শহর তক্ষশীলা কোথায় অবস্থিত?
উত্তরঃ পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদের কাছে অবস্থিত।

17. পৃথিবীর বৃহত্তম লবণ খনির নাম কী? সেটি কোথায় অবস্থিত?
উত্তরঃ কেওড়া, পাকিস্তানে অবস্থিত।

18. পাকিস্তানে অবস্থিত পৃথিবীর উষ্ণতম স্থানের নাম কী?
উত্তরঃ জেকোবাবাদ।

আফগানিস্তান

1. আফগানিস্তান ভারতের কোন সীমায় অবস্থিত?
উত্তরঃ উত্তর-পশ্চিম সীমান্তে।

2. আফগানিস্তানের সর্বোচ্চ পর্বত শৃঙ্গের নাম কী?
উত্তরঃ নোশাক (৭৪৯০ মিটার)।

3. আফগানিস্তানের দীর্ঘতম নদীর নাম কী?
উত্তরঃ হেলমন্দ।

4. আফগানিস্তানের রাজধানীর নাম কী?
উত্তরঃ কাবুল।

5. আফগানিস্তানের অবস্থানকে কী বলে?
উত্তরঃ স্থলবেষ্টিত বা মহাদেশীয় অবস্থান বলে।

6. আফগানিস্তানের জলবায়ু কী প্রকৃতির?
উত্তরঃ শুষ্ক মহাদেশীয় ও চরম প্রকৃতির।

7. আফগানিস্তানে প্রধানত কী উপায়ে জলসেচ করা হয়?
উত্তরঃ ক্যারেজ প্রথায়।

8. কোন প্রজাতির মেষ পালনের জন্য আফগানিস্তান বিখ্যাত?
উত্তরঃ কারাকুল প্রজাতির মেষ পালনের জন্য।

9. আফগানিস্তানের প্রসিদ্ধ শিল্পটির নাম কী?
উত্তরঃ কার্পেট বা গালিচা শিল্প।

10. ভারতের ক্ষুদ্রতম প্রতিবেশী দেশটির নাম কী?
উত্তরঃ মালদ্বীপ।

চীন

1. চীনের মোট আয়তন কত?
উত্তরঃ প্রায় ৯৬ লক্ষ বর্গ কিমি।

2. চীনের উচ্চতম শৃঙ্গের নাম কী?
উত্তরঃ গোঁসাইথান ( ৮,০১৩ মিটার)।

3. চীনের দীর্ঘতম নদীর নাম কী?
উত্তরঃ ইয়াংসি-কিয়াং প্রায় (৬,৩০০ কিমি)।

4. চীনের রাজধানীর নাম কী?
উত্তরঃ বেইজিং।

5. ইয়াংসি-কিয়াং নদীর উৎপত্তিস্থল কোথায়?
উত্তরঃ চীনের ছিংহাই প্রদেশের থাংগুলা পর্বতমালার অন্তর্গত গেলাডানডং শৃঙ্গের দক্ষিণ-পশ্চিমদিকের একটি হিমবাহ থেকে ইয়াংসি-কিয়াং নদীর উৎপত্তি।

6. চীনের উত্তরে কোন দেশ অবস্থিত?
উত্তরঃ মঙ্গোলিয়া।

7. কোন নদীকে চীনের দুঃখ বলা হয়?
উত্তরঃ হোয়াংহো নদীকে।

8. ইয়াংসি-কিয়াং-এর দুটি উপনদীর নাম লেখ।
উত্তরঃ য়ুয়ান কিয়াং এবং মিন কিয়াং।

9. চীনের দ্বিতীয় দীর্ঘতম নদীর নাম কী?
উত্তরঃ হোয়াংহো।

10. হোয়াংহোর দুটি উপনদীর নাম লেখ।
উত্তরঃ ফেনহো এবং ওয়েহো।

11. পীত নদী কাকে বলে?
উত্তরঃ হোয়াংহোকে।

12. হোয়াংহো কোথায় গিয়ে পড়েছে?
উত্তরঃ পোহাই বা পেচিলি উপসাগরে।

13. কুনলুন পর্বতের উত্তরের মরুভূমিটির নাম কী?
উত্তরঃ তাকলামাকান মরুভূমি।

14. চীনের একটি বিখ্যাত মালভূমির নাম লেখ।
উত্তরঃ তিব্বত মালভূমি।

15. উত্তর ও মধ্য চীনের সীমানায় কোন পর্বত শ্রেণি অবস্থিত?
উত্তরঃ সিনলিংসান পর্বত।

16. কুনলুন পর্বতের দক্ষিণের পর্বতশ্রেণির নাম কী?
উত্তরঃ হিমালয় পর্বতশ্রেণি।

17. River of Golden Sand বা স্বর্ণরেণুর নদী কাকে বলা হয়।
উত্তরঃ ইয়াংসি-কিয়াংকে।

18. ক্যান্টন নদী কোন নদীকে বলে?
উত্তরঃ সিকিয়াংকে।

19. সিকিয়াং – এর দুটি উপনদীর নাম লেখ।
উত্তরঃ কোয়েই কিয়াং এবং পি কিয়াং।

20. চীনের বৃহত্তম হ্রদের নাম কী?
উত্তরঃ কোকোনর হ্রদ।

21. চীনের একটি অন্তর্বাহিনী নদীর নাম লেখ।
উত্তরঃ তারিম নদী।

22. চীনের দুটি উল্লেখযোগ্য খনিজ সম্পদের নাম লেখ।
উত্তরঃ কয়লা এবং আকরিক লোহা।

23. চীনের দুটি উল্লেখযোগ্য কৃষিজ ফসলের নাম লেখ।
উত্তরঃ ধান এবং গম।

24. চীনের কার্পাস বয়নশিল্পের প্রধান কেন্দ্রটির নাম কী?
উত্তরঃ সাংহাই।

25. চীনের ইস্পাত নগরী কাকে বলে?
উত্তরঃ আনসানকে।

26. চীনের ম্যাঞ্চেস্টার কাকে বলে?
উত্তরঃ সাংহাইকে।

27. চীনের দুটি সিমেন্ট শিল্পকেন্দ্রের নাম লেখ।
উত্তরঃ সাংহাই এবং চুংকিং।

28. চীনের দুটি রাসায়নিক শিল্পকেন্দ্রের নাম লেখ।
উত্তরঃ নানকিং এবং সাংহাই।

29. চীনের দুটি কাগজ শিল্পের নাম লেখ।
উত্তরঃ কানসু এবং ক্যাণ্টন।

30. চীনের বর্তমান লোকসংখ্যা কত?
উত্তরঃ ১,৪১৫,২৩১,৬৬৬ জন বা ১৪১ কোটি প্রায়। (জুলাই ২০১৮)

31. চীনের সর্বাপেক্ষা ঘনবসতি পূর্ণ অঞ্চলটির নাম কী?
উত্তরঃ ইয়াংসি-কিয়াং অববাহিকায়।

32. চীনের বৃহত্তম শহর ও বন্দরের নাম কী?
উত্তরঃ সাংহাই।

33. চীনের হল্যাণ্ড কোন অঞ্চলকে বলা হয়?
উত্তরঃ ইয়াংসি-কিয়াং নদীর ব-দ্বীপ অঞ্চলকে।

34. ইয়াংসি-কিয়াং অববাহিকার বৃহত্তম শিল্পকেন্দ্রের নাম কী?
উত্তরঃ সাংহাই।

35. ইয়াংসি-কিয়াং নদীর তীরে অবস্থিত একটি বন্দরের নাম লেখ।
উত্তরঃ সাংহাই

36. কোন অঞ্চলকে চীনের ধানের গোলা বলা হয়?
উত্তরঃ ইয়াংসি-কিয়াং নদীর অববাহিকাকে।

37. চীনের বৃহত্তম নদী অববাহিকার নাম কী?
উত্তরঃ ইয়াংসি-কিয়াং অববাহিকা।

38. চীন দেশের বৃহত্তম লোহা-ইস্পাত শিল্পকেন্দ্রটির নাম লেখ।
উত্তরঃ আনসান।

39. রেড বেসিন কী?
উত্তরঃ চীনের ইয়াংসি-কিয়াং অববাহিকার ঊর্ধ্বপ্রবাহ অঞ্চলের নাম জেচুয়ান অববাহিকা। যেহেতু এই জেচুয়ান অববাহিকার মাতির রঙ লাআ, তাই একে লোহিত অববাহিকা বা রেড বেসিন বলে।

40. চীনের কোন অংশে মৌসুমী জলবায়ু দেখা যায়?
উত্তরঃ চীনের দক্ষিণ অংশে।

মাধ্যমিক ভূগোল সিলেবাস বা পাঠ্যসূচি – Madhyamik Geography Syllabus

(অধ্যায় ভিত্তিক প্রশ্ন ও উত্তর পেতে নিচের বটনে ক্লিক করুন)

বিষয় – ভূগোল ( Geography )

■ প্রাকৃতিক ভূগোল (Physical Geography)

◆ প্রথম অধ্যায় – বহির্জাত প্রক্রিয়া ও তাদের দ্বারা সৃষ্ট ভূমিরূপ Click here

◆ দ্বিতীয় অধ্যায় – বায়ুমণ্ডল Click here

◆ তৃতীয় অধ্যায় – বারিমন্ডল Click here

■ পরিবেশ ভূগোল (Environment Geography)

বর্জ্য ব্যবস্থাপনা Click here

■ আঞ্চলিক ভূগোল (Regional Geography)

◆ প্রথম অধ্যায় – ভারতের ভূ-প্রকৃতি Click here

◆ দ্বিতীয় অধ্যায় – ভারতের নদনদী Click here

◆ তৃতীয় অধ্যায় – ভারতের আবহাওয়া ও জলবায়ু Click here

◆ চতুর্থ অধ্যায় – ভারতের স্বাভাবিক উদ্ভিদ Click here

◆ পঞ্চম অধ্যায় – ভারতের জলসেচ ব্যবস্থা Click here

◆ ষষ্ঠ অধ্যায় – ভারতের খনিজ সম্পদ Click here

◆ সপ্তম অধ্যায় – ভারতের শিল্প Click here

◆ অষ্টম অধ্যায় – ভারতের জনবণ্টন ও জনঘনত্ব Click here

◆ নবম অধ্যায় – ভারতের নগর ও বন্দর Click here

◆ দশম অধ্যায় – ভারতের প্রতিবেশী দেশসমূহ Click here

■ উপগ্রহ চিত্র ও ভূ-বৈচিত্রসূচক মানচিত্র