বহির্জাত প্রক্রিয়া – রচনাধর্মী প্রশ্নউত্তর (Descriptive Question and Answer) | মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন | Madhyamik Geography Suggestion

2331

মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন – Madhyamik Geography Suggestion

বহির্জাত প্রক্রিয়া - রচনাধর্মী প্রশ্নউত্তর (Descriptive Question and Answer) | মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন | Madhyamik Geography Suggestion

মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন (Madhyamik Geography Suggestion) – বহির্জাত প্রক্রিয়া – রচনাধর্মী প্রশ্নউত্তর (Descriptive Question and Answer)  দেওয়া হল নিচে। এই মাধ্যমিক  ভূগোল সাজেশন – বহির্জাত প্রক্রিয়া – রচনাধর্মী প্রশ্নউত্তর (Descriptive Question and Answer) গুলি আগামী সালের পশ্চিমবঙ্গ মাধ্যমিক ভূগোল পরীক্ষার জন্য খুব ইম্পর্টেন্ট। তোমরা যারা মাধ্যমিক ভূগোল পরীক্ষার সাজেশন খুঁজে চলেছো, তারা নিচে দেওয়া প্রশ্নপত্র ভালো করে পড়তে পারো। এই পরীক্ষা তে কোশ্চেন গুলো আসার সম্ভাবনা খুব বেশি।

প্রথম অধ্যায়ঃ বহির্জাত প্রক্রিয়া তাদের দ্বারা সৃষ্ট ভূমিরূপ | উপঅধ্যায়-১ বহির্জাত প্রক্রিয়া – রচনাধর্মী প্রশ্নউত্তর (Descriptive Question and Answer)

1.  ‘ অন্তর্জাত প্রক্রিয়ার কাজ গঠনমূলক এবং বহিজাত প্রক্রিয়ার কাজ বিনাশমূলক ’ – কারণ ব্যাখ্যা করাে ।

উত্তরঃ ভূঅভ্যন্তরীণ শক্তি ভূপৃষ্ঠে প্রাথমিক ভূমিরূপ গঠনের । জন্য যে – পদ্ধতিতে কাজ করে , তাকে অন্তর্জাত প্রক্রিয়া বলা হয় । মহিভাবক ও গিরিজনি আলােড়ন , ভূমিকম্প , অগ্ন্যুৎপাত ইত্যাদি নানা প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ভূত্বকের আপেক্ষিক স্থানান্তর ঘটে এবং ফলস্বরূপ প্রধান ভূপ্রকৃতিরুপে মহাদেশ ও মহাসাগর কিংবা পর্বত , মালভূমি ও সমভূমি গঠিত হয় । অপরদিকে ভূপৃষ্ঠে বা উপপৃষ্ঠীয় । অংশে বাইরের শক্তিসমূহ যে – পদ্ধতিতে নগ্নীভবন ঘটায় , তাকে । বহির্জাত প্রক্রিয়া বলা হয় । আবহবিকার , পুঞ্জিত ক্ষয় , ক্ষয়ীভবন ( নদীপ্রবাহ , বায়ু , সমুদ্রতরঙ্গ , হিমবাহ ইত্যাদি ) ইত্যাদি প্রক্রিয়া ভূপৃষ্ঠের ক্ষয় ও সঞ্জয়ের মাধ্যমে অণু ভূমিরূপ গঠনে সাহায্য করে । তাই উভয় প্রক্রিয়ার কাজের বৈশিষ্ট্যের ওপর ভিত্তি করে এটি বলাই যায় যে , অন্তর্জাত প্রক্রিয়ার কাজ গঠনমূলক এবং বহির্জাত প্রক্রিয়ার কাজ বিনাশমূলক । 

2.  বহির্জাত প্রক্রিয়ার বৈশিষ্ট্যগুলি লেখাে । 

উত্তরঃ বহির্জাত প্রক্রিয়ার বৈশিষ্ট্যগুলি হল — ( i ) এই প্রক্রিয়া অত্যন্ত ধীরে ধীরে কাজ করে । ( ii ) ভূপৃষ্ঠে ও তার উপপৃষ্ঠীয় অংশে বহিজাত প্রক্রিয়ার প্রভাব । লক্ষ করা যায় । । ( iii ) এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নগ্নীভবন ক্রিয়ায় ( অবরােহণ ) উঁচু স্থান নীচু হয়ে যায় এবং সঞ্চয়কার্যের ( আরােহণ ) দ্বারা নীচু স্থান । ভরাট হয়ে উঁচু হয় । ( iv ) এই প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণকারী শক্তিগুলি হল — নদী , আবহবিকার , হিমবাহ , বায়ুপ্রবাহ , সমুদ্রতরঙ্গ , ভৌমজল ইত্যাদি । ( v ) এই অংশগ্রহণকারী শক্তিগুলি কোথাও এককভাবে ও কোথাও সম্মিলিতভাবে কাজ করে । | ( vi ) ভূমিরূপ পরিবর্তনকারী শক্তিগুলির মূল উৎস হল সৌর শক্তি । 

3. অবরােহণ প্রক্রিয়ার বৈশিষ্ট্যগুলি কী কী ? 

উত্তরঃ অবরােহণ প্রক্রিয়ার বৈশিষ্ট্যগুলি হল — ( i ) এই প্রক্রিয়ায় ভূমির উচ্চতা হ্রাস পায় । ( ii ) বিভিন্ন ক্ষয়জাত অণু ভূমিরূপ সৃষ্টি হয় । ( iii ) ভূত্বকের উঁচু অংশেই মূলত অবরােহণ প্রক্রিয়া কাজ করে । ( iv ) আবহবিকার , পুঞ্জিত ক্ষয় ও ক্ষয়ীভবন — এই তিনটি । প্রক্রিয়ার দ্বারা অবরােহণ সংগঠিত হয় । ( v ) অবরােহণের শেষ সীমা বা ক্ষয়ের শেষ সীমা হল নিকটতম সমুদ্রপৃষ্ঠ । ( vi ) এটি একটি ধীর প্রক্রিয়া । 
জেনে রাখাে : ভূমিরূপ পরিবর্তনে মানুষের ভূমিকা : খনিজদ্রব্য আহরণ , রাস্তা তৈরি , নদীতে বাঁধ নির্মাণ ইত্যাদি । প্রয়ােজনে ডিনামাইট বিস্ফোরণ ও অন্যান্য প্রক্রিয়ায় পাহাড় , পর্বত ফাটিয়ে ভূমিরূপের পরিবর্তন ঘটানাে হয় । মানুষ ভূমিরূপের পরিবর্তন ঘটায় অতি দ্রুতহারে । ভূমিরূপ পরিবর্তনে মানুষের । ভূমিকা বেড়ে যাওয়ার কারণেই দুর্যোগ ও বিপর্যয় কিন্তু বাড়ছে ।

4. আরােহণ প্রক্রিয়ার বৈশিষ্ট্যগুলি কী কী ? 

উত্তরঃ আরােহণ প্রক্রিয়ার বৈশিষ্ট্যগুলি হল — ( i ) এই প্রক্রিয়ায় ভূমির উচ্চতা বৃদ্ধি পায় । ( ii ) বিভিন্ন ধরনের প্রাকৃতিক শক্তির দ্বারা সঞ্জয়ের ফলে এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয় । ( iii ) ভূপৃষ্ঠে বিভিন্ন ধরনের সঞ্চয়জাত অণু ভূমিরূপ গঠিত হয় । । ( iv ) ভূমির ঢাল , পলি ও বালির পর্যাপ্ত ও নিয়মিত জোগান । হল আরােহণের নিয়ন্ত্রক । । ( v ) এটি একটি ধীর প্রক্রিয়া । 

5. বহির্জাত প্রক্রিয়ার শক্তিগুলি কীভাবে কার্যকর হয় ?

উত্তরঃ  ভূমির উচ্চতা পার্থক্য বা ঢালের পার্থক্যের কারণে অভিকর্ষজ বল – এর সৃষ্টি হয় । এই অভিকর্ষজ বলের প্রভাবে ভূপৃষ্ঠ ক্ষয়কারী শক্তিগুলি গতিপ্রাপ্ত হয় , যা গতিশক্তি বা Kinetic energy নামে পরিচিত । এই গতিশক্তির প্রভাবেই নদী , হিমবাহ প্রভৃতি শক্তি ক্ষয় , বহন ও সওয়ের মাধ্যমে ভূমির পরিবর্তন ঘটায় । 

6.  অবরােহণ , আরােহণ ও পর্যায়নের আন্তঃসম্পর্ক বিশ্লেষণ করাে । 

উত্তরঃ অবরােহণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ভূপৃষ্ঠের কোনাে উঁচু স্থান ক্রমাগত ক্ষয়ের ফলে নীচু হয় এবং আরােহণ প্রক্রিয়ায় ক্ষয়জাত পদার্থ ভূপৃষ্ঠের নীচু অংশে সঞ্চিত হয় । এই দুই প্রক্রিয়ার সম্মিলিত রূপ হল পর্যায়ন । এই পর্যায়নের মাধ্যমে ক্ষয় , বহন ও সঞয়কাজে ভারসাম্য আসে । 

অবরােহণ , আরােহণ ও পর্যায়ন — এই তিনটি প্রক্রিয়ার । আন্তঃসম্পর্ক একটি উদাহরণের মাধ্যমে বিশ্লেষণ করা হল — উচ্চগতিতে নদী যখন পার্বত্য অঞ্চলের ওপর দিয়ে প্রবাহিত । হয় তখন ভূমির ঢাল বেশি হওয়ার জন্য ক্ষয়কাজ বেশি হয় ও । ভূমির উচ্চতা হ্রাস পায় । এটি অবরােহণ প্রক্রিয়া । আবার নদীর । দ্বারা ক্ষয়িত পদার্থ নদীর নিম্নগতিতে সঞ্চিত হয় ও অবনমিত । স্থানের উচ্চতা বৃদ্ধি করে । একে আরােহণ বলে । এইভাবে ক্ষয় । ও সঞ্জয়ের মাধ্যমে ভূমি সমতলে পরিণত হলে তা হল পর্যায়ন । এইভাবেই অবরােহণ , আরােহণ দুটি বিপরীতধর্মী প্রক্রিয়া হলেও একসঙ্গে কাজ করে পর্যায়ন প্রক্রিয়াকে সম্পন্ন করে । তাই বলা যায় যে , অবরােহণ , আরােহণ ও পর্যায়ন — এই তিনটি প্রক্রিয়া পরস্পর সম্পর্কযুক্ত ।

7. বহির্জাত প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ভূমি কীভাবে সমতলে । পরিণত হয় ? 

উত্তরঃ পর্যায়ন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ভূমি সমতলে পরিণত হয় । অবরােহণ ও আরােহণের সম্মিলিত ফল হল পর্যায়ন । অবরােহণ প্রক্রিয়ায় একদিকে যেমন উঁচুভূমি ক্ষয়প্রাপ্ত হয়ে নীচু । ভূমিতে পরিণত হয় , অপরদিকে আরােহণ প্রক্রিয়ায় নীচু ভূমিতে । ক্ষয়প্রাপ্ত পদার্থ জমা হয়ে উঁচু ভূমিরূপ গঠন করে । এটি একটি নিরন্তর প্রক্রিয়া । আরােহণ ও অবরােহণ এই দুই প্রক্রিয়ার ফল হল পর্যায়ন । এইভাবেই ক্রমাগত চলতে থাকা এই পর্যায়ন প্রক্রিয়ার । মাধ্যমেই ক্ষয় , পরিবহণ ও সঞয়কাজে ভারসাম্য আসে ও ভূমির । সমতলীকরণ ঘটে । 
জেনে রাখাে : ভূমিরূপ অঞ্চল ( Morphogenetic region ) : যে – অঞলে ভূমিরূপ পরিবর্তনের বিশেষ শক্তি ক্ষয় , বহন ও সঞ্জয়ের মাধ্যমে ভূমিরূপের পরিবর্তন ঘটায় , সেই অল হল ভূমিরূপ অল । L Peltier হলেন Morphogenetic ধারণার প্রবর্তক । 

8. বহির্জাত প্রক্রিয়ার সঙ্গে জলবায়ুর সম্পর্ক কী ? 

উত্তরঃ কোনাে অঞ্চলের ভূমিরূপের সঙ্গে জলবায়ুর সম্পর্ক অত্যন্ত গভীর । কোনাে নির্দিষ্ট অঞ্চলে কী ধরনের ভূমিরূপ । পরিবর্তনকারী শক্তি কাজ করবে সেটি নির্ভর করে অঞ্চলের উন্নতা , বৃষ্টিপাত ও আদ্রর্তার ওপর । উদাহরণস্বরূপ — উয় আর্দ্র অঞ্চলে ভূমিরূপ পরিবর্তনে যেমন মুখ্য ভূমিকা নেয় নদী , তেমনি হিমমণ্ডলে হিমবাহ এবং উয় । শুষ্ক অঞ্চলে বায়ু । অপরদিকে উয় মরু অঞ্চলে দৈনিক উয়তার প্রসর বেশি হওয়ার জন্য যান্ত্রিক আবহবিকার বেশি পরিলক্ষিত হয় , এবং আর্দ ক্রান্তীয় অঞ্চলে রাসায়নিক আবহবিকার বেশি । দেখা যায় ।
এই PDF ফাইল ডাউনলোড করুন:-
বহির্জাত প্রক্রিয়া (মাধ্যমিক ভূগোল) প্রশ্নোত্তর Click here

West Bengal Madhyamik Geography Suggestion | WBBSE Madhyamik Geography Qustion and Answer.

মাধ্যমিক ভূগোল সাজেশন | দশম শ্রেণীর ভূগোল – বহির্জাত প্রক্রিয়া – রচনাধর্মী প্রশ্নউত্তর (Descriptive Question and Answer)

         ” মাধ্যমিক  ভূগোল – বহির্জাত প্রক্রিয়া – রচনাধর্মী প্রশ্নউত্তর (Descriptive Question and Answer) “ একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ টপিক মাধ্যমিক পরীক্ষা (Madhyamik / WB Madhyamik / MP Exam / West Bengal Board of Secondary Education – WBBSE Madhyamik Exam / Madhyamik Class 10th / Class X / Madhyamik Pariksha) এবং বিভিন্ন চাকরির (WBCS, WBSSC, RAIL, PSC, DEFENCE) পরীক্ষায় এখান থেকে প্রশ্ন অবশ্যম্ভাবী । সে কথা মাথায় রেখে BhugolShiksha.com এর পক্ষ থেকে মাধ্যমিক (দশম শ্রেণী) ভূগোল পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নোত্তর এবং সাজেশন (Madhyamik Geography Suggestion / West Bengal Board of Secondary Education – WBBSE Geography Suggestion / Madhyamik Class 10th Geography Suggestion / Class X Geography Suggestion / Madhyamik Pariksha Geography Suggestion / Geography Madhyamik Exam Guide / MCQ , Short , Descriptive  Type Question and Answer. / Madhyamik Geography Suggestion FREE PDF Download) উপস্থাপনের প্রচেষ্টা করা হলাে। ছাত্রছাত্রী, পরীক্ষার্থীদের উপকারেলাগলে, আমাদের প্রয়াস মাধ্যমিক (দশম শ্রেণী) ভূগোল পরীক্ষা প্রস্তুতিমূলক প্রশ্নোত্তর এবং সাজেশন (Madhyamik Geography Suggestion / West Bengal Board of Secondary Education – WBBSE Geography Suggestion / Madhyamik Class 10th Geography Suggestion / Class X Geography Suggestion / Madhyamik Pariksha Geography Suggestion / Madhyamik Geography Exam Guide / MCQ , Short , Descriptive  Type Question and Answer. / Madhyamik Geography Suggestion FREE PDF Download) সফল হবে।

    স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনার ডিজিটাল মাধ্যম BhugolShiksha.com । এর প্রধান উদ্দেশ্য পঞ্চম শ্রেণী থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর (মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক) সমস্ত বিষয় এবং গ্রাজুয়েশনের শুধুমাত্র ভূগোল বিষয়কে  সহজ বাংলা ভাষায় আলোচনার মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের কাছে সহজ করে তোলা। এছাড়াও সাধারণ-জ্ঞান, পরীক্ষা প্রস্তুতি, ভ্রমণ গাইড, আশ্চর্যজনক তথ্য, সফল ব্যাক্তিদের জীবনী, বিখ্যাত ব্যাক্তিদের উক্তি,  প্রাণী জ্ঞান, কম্পিউটার, বিজ্ঞান ও বিবিধ প্রবন্ধের মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের মননকে বিকশিত করে তোলা।
        আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ সময় করে আমাদের পােস্টটি পড়ার জন্য। এই ভাবেই ভূগোল শিক্ষা – BhugolShiksha.com ওয়েবসাইটের পাশে থাকুন। ভূগোল বিষয়ে যেকোনো প্ৰশ্ন উত্তর জানতে এই ওয়েবসাইট টি ফলাে করুন এবং নিজেকে  তথ্য সমৃদ্ধ করে তুলুন , ধন্যবাদ।
নিচের বাটনে ক্লিক করে শেয়ার করেন বন্ধুদের মাঝে